চীনে সমকামীদের অধিকার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
সমকামী অধিকার : গণচীন চীন
People's Republic of China (orthographic projection).svg
চীন এর অবস্থান
সমকামী অধিকার? ১৯৯৭ সাল থেকে রাষ্ট্রজুড়ে বৈধ।[১]
লিঙ্গ স্বীকৃতি লিঙ্গ পরিবর্তন অস্ত্রোপচারের অনুমতি আছে
সামরিক চাকরিতে না
বৈষম্য নিরাপত্তা না
পারিবারিক অধিকার
সম্পর্কের স্বীকৃতি না, তবে সমাজ কিছুটা সহনশীল
বাঁধা:
না
সন্তান দত্তক হ্যাঁ, তবে কিছুটা রেসট্রিক্টেড

সমকামিনী, সমকামী, উভকামী, হিজড়া (লেসবিয়ান, গে, বাইসেক্সুয়াল, ট্র্যান্সজেন্ডার/এলজিবিটি) অধিকার চীনে বৈধ ১৯৯৭ সাল থেকে যদিও এ ব্যাপারে সরকার অতটা উদারপন্থী নয়, কিন্তু সমাজের অধিকাংশ মানুষ সমকামিতাকে ঘৃণার চোখে দেখেনা।[২][৩]

সমলিঙ্গের মানুষের মধ্যে যৌন সম্পর্কের বৈধতা[সম্পাদনা]

সং রাজবংশ[সম্পাদনা]

সমকামবিরোধী পুরনো আইনগুলোর মধ্যে সং রাজবংশে সম্রাট 'ঝাউ জি' এর 'ঝেং হি যুগ' (১১১১-১১১৮ সাল) এর কথা জানা যায় যখন পুরুষ পতিতাবৃত্তিকে (সমকামী) একটি শাস্তিমূলক অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়।[৪]

মিং রাজবংশ[সম্পাদনা]

পুরুষসমকাম বিরোধী প্রথম পুর্নাঙ্গ আইন মিং রাজবংশের সম্রাট 'ঝু হউকোং' এর 'জিয়াজিং যুগ' (১৫২২-১৫৬৭ সাল) এ করা হয়।[৪]

কিং রাজবংশ[সম্পাদনা]

১৬৬৫ সালে কিং আদালত 'জি জিয়ান' (পায়ুকাম) শব্দের ব্যবহার শুরু করে সমকামী পুরুষদের জন্য। ১৭৪০ সালে সমকামবিরোধী একটি ডীক্রি জারা করা হয়, বলা হয় দুইজনের সম্মতিকৃত সমকামও করা যাবেনা। যদিও এই আইনের কার্যকারিতার খবর পাওয়া যায়নি।[৫]

রিপাবলিক অব চায়না[সম্পাদনা]

১৯১২ সালে 'জি জিয়ান' (পায়ুকাম) শব্দটির অশ্লীল ব্যবহার উঠিয়ে দেওয়া হয়।[১]

পিপলস রিপাবলিক অব চায়না[সম্পাদনা]

১৯৪৯ সালে যখন পিপলস রিপাবলিক অব চায়না আত্মপ্রকাশ করে তখন 'কমিউনিস্ট পার্টি' সমকামিতাকে নৈতিকতার অবক্ষয় হিসেবে ঘোষণা দেয়। ১৯৬৬ থেকে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত চলা 'কালচারাল রিভোলুশন' এর সময় সমকামীদেরকে মানসিক চিকিৎসার নামে রুঢ় সাজা দেওয়া হত।[৬] ১৯৭৯ সালে সকল প্রকার মাস্তানি/সন্ত্রাসকে বড় ধরণের অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয় এবং সমকামিতাকেও এর কাতারে ফেলা হয়। ১৯৯৭ সালে এই আইনটি বাতিল করা হয় যেটাতে অনেকে মনে করেন যে হয়তবা এর মাধ্যমে সমকামিতাকে বৈধ করা হয়েছে। ২০০১ সালে 'চাইনীজ সোসাইটি অব সাইকিয়াট্রি' সমকামিতাকে মানসিক রোগ হিসেবে আখ্যা দেওয়া বন্ধ করে।[১][৬]

সমলিঙ্গের মানুষের মধ্যে সম্পর্কের স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

গণচীনের বিয়ে আইন হচ্ছে ১৯৮০ সালের ১০ সেপ্টেম্বরে ৫ম 'ন্যাশনাল পিপলস কংগ্রেস' (চীনের জাতীয় আইনসভা) এর তৃতীয় সেশনে করা যেখানে বলা হয় যে বিয়ে হচ্ছে একজন নারী ও একজন পুরুষের মধ্যে সংগঠিত কর্ম।[৭] চীনের বিবাহ বিষয়ক সব আইনেই বিয়েকে দু'জন বিপরীত লিঙ্গের মানুষের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপনের কথা বলা হয়েছে।[৮] সমলিঙ্গের মানুষের মধ্যে যৌনতা নিয়ে অনেক রচনা প্রকাশিত হলেও মাও সে তুং এর শাসনামলে সমকামিতা নিষিদ্ধ ছিল এবং সমকামীদেরকে মানসিক চিকিৎসা করানো হত।[৯] ১৯৮০ এর দশকে সমকামিতা চীনের সমাজে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে দেখা দেয় এবং তখন থেকে সমকামীরা ধীরে ধীরে আত্মপ্রকাশ করতে থাকে। সমকামী ব্যক্তিরা বুঝে ফেলেন যে চীনের সমাজটা ঐতিহ্যগতভাবে বিষমকামী এবং এ দেশের সমাজের মানুষকে সমকামীবান্ধব বানানো অনেক কঠিন।[১০]

সারাংশ ছক[সম্পাদনা]

সমকামিতা বৈধ? Yes (১৯৯৭ সালে থেকে)
সমকাম করার ন্যূনতম বয়স? Yes (১৯৯৭ সাল থেকে)
কর্মক্ষেত্রে বৈষম্যবিরোধী আইন No
যেকোনো পণ্য এবং সেবাব্যবস্থার ক্ষেত্রে বৈষম্যবিরোধী আইন No
অন্যান্য সব এলাকায় বৈষম্য বিরোধী আইন No
সম-লিঙ্গের মানুষের মধ্যে বিয়ে No
সমকামী যুগলদের স্বীকৃতি No
সমকামী যুগলদের বাচ্চা দত্তক No
সামরিক বাহিনীতে সমকামীদের নিয়োগ Emblem-question.svg
লিঙ্গ পরিবর্তনের অনুমতি Yes
বাণিজ্যিক গর্ভভাড়া No
নারী সমকামীদের জন্য আইভিএফ সুবিধা No
রক্তদানের অনুমতি No

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. STATE-SPONSORED HOMOPHOBIA
  2. https://news.vice.com/article/chinas-attitude-toward-homosexuality-is-beginning-to-shift-with-parents-leading-the-way
  3. http://timesofindia.indiatimes.com/world/china/Gay-culture-gains-increasing-acceptance-in-China/articleshow/45417726.cms
  4. Sommer, Matthew (২০০০)। Sex, Law, and Society in Late Imperial China। Stanford University Press। পৃ: 413। আইএসবিএন 0-8047-3695-2 
  5. "History of Homosexuality"china.org.cn। Shanghai Star। সংগৃহীত ২৬ নভেম্বর ২০১৬ 
  6. Policy issues concerning sexual orientation in China, Canada, and the United States
  7. Marriage Law of thePeople's Republic of China
  8. Jeffreys, Elaine; Wang, Pan (২০১৩)। "The rise of Chinese-foreign marriage in mainland China, 1979–2010"। China Information 27 (3): 347–349। 
  9. Jeffreys, Elaine; Yu, Haiqing (২০১৫)। Sex in China। Polity। আইএসবিএন 978-0-7456-5613-7 
  10. Jeffreys, Elaine; Yu, Haiqing (২০১৫)। Sex in China। Polity। আইএসবিএন 978-0-7456-5613-7 

টেমপ্লেট:SexGenderPRChina