চীনের ধর্মবিশ্বাস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

চীনের ধর্মবিশ্বাস [১][২][note ১]

  বৌদ্ধধর্ম (১৫.৮৭%)
  লোক সম্প্রদায় এবং তাওবাদ সহ অন্যান্য ধর্মীয় সংগঠন[note ২] (৭.৬%)
  ইসলাম[note ৩] (০.৪৫%)
ছোংশাং মন্দির, চীনের ইউনান প্রদেশের তালি শহরে অবস্থিত একটি বৌদ্ধমন্দির

শানধর্ম-তাও ধর্ম বর্তমানে চীনের বৃহত্তম ধর্ম।[৩][৪] চীনের ২০-৩০% লোক এই ধর্মগুলি পালন করেন। এদের মধ্যে প্রায় ১৬ কোটি লোক, অর্থাৎ চীনের মোট জনসংখ্যার প্রায় ১১% মাৎসু নামের দেবীর পূজা করে।[৫] বৌদ্ধধর্ম ২য় বৃহত্তম ধর্ম (১৮-২০% লোক)।[৬][৭][৮] দেশের ৩-৪% লোক খ্রিস্টান[৯][১০][১১][১২], ১-২% মুসলমান।[১৩]

চীনারা সাধারণত তাদের দেবদেবী ও ধর্মীয় নেতাদের বিশালাকার মূর্তি বানিয়ে থাকে। বিশ্বের সর্বোচ্চ ও সর্ববৃহৎ দেবমূর্তিগুলির অনেকগুলিই চীনে অবস্থিত।

চীনের ৪০-৬০% লোক কোন ধর্মের অনুসারী নন। এরা বেশিরভাগই অজ্ঞাবাদের বিশ্বাসী। কট্টর নাস্তিকের সংখ্যা ১৪-১৫%।[১১][১৪]

এগুলি ছাড়াও চীনদেশের আনাচেকানাচে ছড়িয়ে আছে বিভিন্ন স্থানীয় লোকধর্ম ও আচার।

নোট[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

উদ্ধৃতি[সম্পাদনা]

  1. For China Family Panel Studies 2014 survey results see release #1 (archived) and release #2 (archived). The tables also contain the results of CFPS 2012 (sample 20,035) and Chinese General Social Survey (CGSS) results for 2006, 2008 and 2010 (samples ~10.000/11,000). Also see, for comparison, 卢云峰:当代中国宗教状况报告——基于CFPS(2012)调查数据 (CFPS 2012 report), The World Religious Cultures, issue 2014. "Archived copy" (PDF)। ৯ আগস্ট ২০১৪ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৮-০৭  p. 13, reporting the results of the CGSS 2006, 2008, 2010 and 2011, and their average (fifth column of the first table).
  2. Wenzel-Teuber, Katharina। "Statistics on Religions and Churches in the People's Republic of China – Update for the Year 2016" (PDF)Religions & Christianity in Today's ChinaVII (2): 26–53। ২২ জুলাই ২০১৭ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  3. "Adherents.com"। ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১০ 
  4. "Asia Sentinel - How Now Tao?"। ১৬ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১০ 
  5. China's Leaders Harness Folk Religion For Their Aims
  6. Buddhism in China. By staff reporter ZHANG XUEYING
  7. Pew Forum: Religion in China on the Eve of the 2008 Beijing Olympics
  8. Prof: Christians remain a small minority in China today
  9. "Survey finds 300m China believers"BBC News। ২০০৭-০২-০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৫-২২ 
  10. "China Survey Reveals Fewer Christians than Some Evangelicals Want to Believe"। ৪ জানুয়ারি ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১০ 
  11. http://www.purdue.edu/newsroom/research/2010/100726T-YangChina.html
  12. 2008 Pew Forum survey
  13. CIA - The World Factbook - China
  14. "Adherents.com"। ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১০ 

উৎস[সম্পাদনা]

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Ch'en, Kenneth K. S. (১৯৭২)। Buddhism in China, a Historical Survey। Princeton, NJ: Princeton University Press। আইএসবিএন 0691000158 
  • Paper, Jordan D. (১৯৯৫)। The Spirits are Drunk: Comparative Approaches to Chinese Religion। Albany, NY: State University of New York Press। আইএসবিএন 0791423158 
  • Sterckx, Roel. Ways of Heaven. An Introduction to Chinese Thought. New York: Basic Books, 2019.
  • Wright, Arthur F. (১৯৫৯)। Buddhism in Chinese History। Stanford University Press। আইএসবিএন 0804705488 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]


উদ্ধৃতি ত্রুটি: "note" নামক গ্রুপের জন্য <ref> ট্যাগ রয়েছে, কিন্তু এর জন্য কোন সঙ্গতিপূর্ণ <references group="note"/> ট্যাগ পাওয়া যায়নি