চীনা–বর্মি যুদ্ধ (১৭৬৫–১৭৫৯)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
চীনা–বর্মি যুদ্ধ (১৭৬৫–১৭৬৯)
মূল যুদ্ধ: দশটি বৃহৎ অভিযান
চীনা-বর্মি যুদ্ধের পূর্বে চীন ও বার্মা.png
যুদ্ধের আগে বার্মা এবং চীন (১৭৬৫)
তারিখডিসেম্বর ১৭৬৫ – ২২ ডিসেম্বর ১৭৬৯
অবস্থানবর্তমান শান রাষ্ট্র, কাচিন রাষ্ট্র, ইউন্নান, উচ্চ বার্মা
ফলাফল

বর্মি বিজয়

  • কাউংতনের চুক্তি
  • বার্মার স্বাধীনতা নিশ্চিত হয়[১]
  • সিয়াম (থাইল্যান্ড) বার্মা থেকে স্বাধীনতা লাভ করে
যুধ্যমান পক্ষ
Flag of the Alaungpaya Dynasty of Myanmar.svg কোনবাউং বংশ চিং রাজবংশ কিং সাম্রাজ্য
সেনাধিপতি

Flag of the Alaungpaya Dynasty of Myanmar.svg হিসিনবিউশিন
Flag of the Alaungpaya Dynasty of Myanmar.svg মাহা থিহা থুরা
Flag of the Alaungpaya Dynasty of Myanmar.svg মাহা সিথু
Flag of the Alaungpaya Dynasty of Myanmar.svg নে মিয়ো সিথু
Flag of the Alaungpaya Dynasty of Myanmar.svg বালামিন্দিন
Flag of the Alaungpaya Dynasty of Myanmar.svg তেইঙ্গ্যা মিনখাউং

Flag of the Alaungpaya Dynasty of Myanmar.svg পিয়েরে দি মিলার্দ

চিং রাজবংশ কিয়ানলং সম্রাট
চিং রাজবংশ লিউ জাও
চিং রাজবংশ ইয়াং ইংজু
চিং রাজবংশ মিং রুই [২]
চিং রাজবংশ ই'এরদেং'ই
চিং রাজবংশ আলীগুই [২]
চিং রাজবংশ ফুহেং [২]
চিং রাজবংশ আরিগুন 

চিং রাজবংশ আগুই
জড়িত ইউনিট
Flag of the Alaungpaya Dynasty of Myanmar.svg রাজকীয় বর্মি সেনাবাহিনী

Plain Yellow Banner.svg আট ব্যানার সেনাবাহিনী

চিং রাজবংশ সবুজ পতাকা সেনাবাহিনী

মোঙ্গল বাহিনী

তাই-শান মিলিশিয়াসমূহ
বামার এবং শান আঞ্চলিক বাহিনীসমূহ
শক্তি

প্রথম আক্রমণ
সর্বমোট: অজ্ঞাত

  • ২,০০০ পদাতিক সৈন্য
    ২০০ অশ্বারোহী সৈন্য[note ১]
  • কেংতুং সেনানিবাসে শান মিলিশিয়া বাহিনী

দ্বিতীয় আক্রমণ
সর্বমোট: অজ্ঞাত

  • ৪,৫০০ পদাতিক সৈন্য
    ২০০ অশ্বারোহী সৈন্য[note ১]
  • কাউংতোন সেনানিবাস

তৃতীয় আক্রমণ
সর্বমোট: ~৩০,০০০ পদাতিক সৈন্য
২,০০০ অশ্বারোহী সৈন্য[note ২]


চতুর্থ আক্রমণ

সর্বমোট: ~৪০,০০০ সৈন্য[note ৩]

প্রথম আক্রমণ
সর্বমোট: ৫,০০০ পদাতিক সৈন্য
১,০০০ অশ্বারোহী সৈন্য[note ১]

  • ৩,৫০০ সবুজ পতাকাধারী সৈন্য[৩]
  • তাই-শান মিলিশিয়াসমূহ

দ্বিতীয় আক্রমণ
সর্বমোট: ২৫,০০০ পদাতিক সৈন্য
২,৫০০ অশ্বারোহী সৈন্য[note ১]

  • ১৪,০০০ সবুজ পতাকাধারী সৈন্য[৪]
  • তাই-শান মিলিশিয়াসমূহ

তৃতীয় আক্রমণ
সর্বমোট: ৫০,০০০ সৈন্য[৫]

  • ৩০,০০০ ব্যানারধারী এবং মোঙ্গল সৈন্য[৬]
  • ১২,০০০ সবুজ পতাকাধারী সৈন্য
  • তাই-শান মিলিশিয়াসমূহ

চতুর্থ আক্রমণ
সর্বমোট: ৬০,০০০ সৈন্য[৭]

  • ৪০,০০০ ব্যানারধারী অথবা মোঙ্গল সৈন্য[৩]
  • সবুজ পতাকাধারী সৈন্য এবং তাই-শান মিলিশিয়াসমূহ
হতাহত ও ক্ষয়ক্ষতি
Flag of the Alaungpaya Dynasty of Myanmar.svg অজ্ঞাত, কিন্তু কম

চিং রাজবংশ দ্বিতীয় অভিযান: ~২০,০০০ সৈন্য নিহত
তৃতীয় অভিযান: ৩০,০০০+ সৈন্য নিহত[note ৪]
চতুর্থ অভিযান: ২০,০০০+ সৈন্য নিহত[৮]
সর্বমোট: ৭০,০০০+ সৈন্য নিহত

২,৫০০ সৈন্য যুদ্ধবন্দি[৯]

চীনা–বর্মি যুদ্ধ (চীনা: 中緬戰爭 or 清緬戰爭; বর্মী: တရုတ်-မြန်မာ စစ် (၁၇၆၅–၆၉)), যা বার্মায় চীনা আক্রমণ অথবা কিং বংশের মিয়ানমার অভিযান নামেও পরিচিত[১০], ছিল চীনের কিং বংশ এবং মিয়ানমারের কোনবাউং বংশের মধ্যে সংঘটিত যুদ্ধ। কিয়ানলং সম্রাটের অধীন চীন ১৭৬৫ থেকে ১৭৬৯ সালের মধ্যে বার্মায় চারবার আক্রমণ চালায়, যেটি তাঁর দশটি বৃহৎ অভিযানের একটি বলে বিবেচিত হয়। কিন্তু এই যুদ্ধে ৭০,০০০ চীনা সৈন্য ও ৪ জন চীনা সেনাপতি নিহত হয়,[১১] যার ফলে এই যুদ্ধটিকে "কিং বংশের শুরুকৃত সকল সীমান্ত যুদ্ধের মধ্যে সবচেয়ে বিপর্যয়কারী",[১০] এবং "বার্মার স্বাধীনতা নিশ্চিতকারী"[১] হিসেবে অভিহিত করা হয়। বার্মার সফল প্রতিরক্ষার ফলে দেশ দুইটির বর্তমান সীমানার ভিত্তি স্থাপিত হয়[১১]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Whiting 2002, পৃ. 480–481।
  2. Giersch 2006, পৃ. 103।
  3. Giersch 2006, পৃ. 101।
  4. Qing Chronicles
  5. Haskew 2008, পৃ. 27–31।
  6. Giersch 2006, পৃ. 102।
  7. Htin Aung 1967, পৃ. 180–183।
  8. George C. Kohn 2006, পৃ. 82।
  9. Harvey 1925, পৃ. 258।
  10. Dai 2004, পৃ. 145।
  11. Giersch 2006, পৃ. 101–110।


উদ্ধৃতি ত্রুটি: "note" নামক গ্রুপের জন্য <ref> ট্যাগ রয়েছে, কিন্তু এর জন্য কোন সঙ্গতিপূর্ণ <references group="note"/> ট্যাগ পাওয়া যায়নি, বা বন্ধকরণ </ref> দেয়া হয়নি