চিত্রনিভা চৌধুরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
চিত্রনিভা চৌধুরী
স্থানীয় নাম
চিত্রনিভা চৌধুরী
জন্ম
নিভানানি বোস

২৭ নভেম্বর ১৯১৩
মৃত্যু৯ নভেম্বর ১৯৯৯(1999-11-09) (বয়স ৮৫)
যেখানের শিক্ষার্থীকালা ভাভারা, বিশ্ব ভারতীয় বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাচিত্রশিল্পী
দাম্পত্য সঙ্গীনিরঞ্জন চৌধুরী
সন্তানচিত্রলেখা চৌধুরী
রণজিৎ চৌধুরী
পিতা-মাতাডা. ভগবান চন্দ্র বোস
শরতকুমারী দেবী

চিত্রনাভৌ চৌধুরী (English: Chitranibha Chowdhury, ২৭ নভেম্বর ১৯১৩ -৯ নভেম্বর ১৯৯৯) ছিলেন বিংশ শতাব্দীর একজন ভারতীয় শিল্পী যিনি বঙ্গীয় স্কুল অব আর্টের সদস্য ছিলেন। তিনি বাংলাদেশের প্রথম মহিলা চিত্রশিল্পী। তার হাজারেরও বেশি শিল্পকর্ম রয়েছে যার মধ্যে ল্যান্ডস্কেপ, স্থিরচিত্র, আলংকারিক শিল্প এবং প্রতিকৃতি রয়েছে।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

তিনি পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার জিয়াগঞ্জের সারকুমারী দেবী এবং ডা. ভগবান চন্দ্র বোসের পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তরুণ বয়সেই তার পরিবার প্রথমে গোমোহে এবং পরবর্তীতে চাঁদপুরে স্থানান্তরিত হয়। ১৯২৭ সালে চৌদ্দ বছর বয়সে তাঁর অঙ্কিত শিল্পকর্মের মাধ্যমে লামচোরের (বর্তমানে বাংলাদেশের নোয়াখালী জেলা)অত্যন্ত শিক্ষিত ও সংস্কৃত জমিদার পরিবারের সদস্য মনোরঞ্জন চৌধুরীর মনোযোগ আকর্ষণ করেন এবং তিনি তার ছোট ভাই নিরঞ্জন চৌধুরীর সাথে চিত্রনিভার বিয়ের ব্যবস্থা করেছিলেন।[১][২][৩]

শান্তিনিকেতনে জীবন[সম্পাদনা]

কলা ভবনে অবস্থিত কালো বাড়ি

১৯২৮ সালে, তার শ্বশুর তাকে তার স্বামীর সাথে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়, শান্তিনিকেতন, এ পাঠিয়েছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তাঁর সাথে সাক্ষাৎ করেন এবং তাকে নন্দলাল বসু ও দিনেন্দ্রনাথ ঠাকুরের কাছে যথাক্রমে পাঠ্যক্রম ও সঙ্গীত শিখতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন আর্টস অনুষদের কলা ভবনে পাঠান। পরবর্তীকালে তিনি তার শৈল্পিক দক্ষতার আলোকে একটি নতুন নাম দেন, চিত্রনাভ (চিত্রের অর্থ চিত্র এবং নিভার অর্থ সৌন্দর্য)।[৩] চৌধুরী পরবর্তীতে রবীন্দ্রসমৃতি নামে একটি বই লিখেছিলেন, যেখানে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কিভাবে তাঁর শৈল্পিক কর্মজীবন ও জীবন জুড়ে প্রেরণঅর উত্স হিসাবে কাজ করেছিলেন তাঁর এক সুস্পষ্ট বিবরণ প্রদান করেছিলেন।[৪]

নন্দলাল বোসের তত্ত্বাবধানে চিত্রনিভা চৌধুরীর শিল্পকলার প্রশিক্ষণ পাঁচ বছর চলতে থাকে। এ সময় তিনি কলা ভবনের বিখ্যাত কালো বারী (ব্ল্যাক হাউস) নির্মাণে রামকিঙ্কার বাজ ও অন্যান্যদের সাথে অংশগ্রহণ করেন এবং তার ভাস্কর্য , শিবের বিয়ে, এখনও সেখানে সংরক্ষিত রয়েছে।[২] শান্তিনিকেতনে আগত দর্শকের ছবি আঁকতে তিনি বিশেষ অনুমতি পান যাদের মধ্যে রয়েছে মহাত্মা গান্ধী, হাজারি প্রসাদ দ্ববেদী, সি. রাজগোপালচারী, বিধান চন্দ্র রায়, খান আব্দুল গাফফার খান, নিলস বোহর, সরোজনী নাইডু, পরবর্তীতে তার এই শিল্পকর্ম শিল্প সমালোচকদের দ্বারা প্রশংসিত হয়।[৫][৪][৬][৭] তার অনেকগুলো শিল্পকর্ম জয়শ্রী পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিল।[৩] ১৯৩৪ সালে কলা ভবনে তাঁর আনুষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ শেষ হওয়ার পর ১৯৩৫ সালে তিনি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ইচ্ছায় প্রথম মহিলা অধ্যাপিকা হিসেবে অনুষদে যোগ দেন।

নোয়াখালীতে ভাস্কর্য[সম্পাদনা]

১৯৩৭ সালে, তিনি কলা ভবনে অধ্যাপনা থেকে অবসর নিয়ে নোয়াখালীতে তার শ্বশুরবাড়ির গৃহস্থলি কাজে মনোনিবেশ করেন, [৩] কিন্তু যতটা সম্ভব তিনি শিল্পকর্মের সাথে জড়িত থাকার চেষ্টা করতেন। তিনি তার গ্রামের মহিলাদের সঙ্গীত, শিল্প, এবং শিল্পকলাযর সাথে জড়িত রাখার চেষ্টা করতেন এবং এই লক্ষ্যে তিনি সেখানে নিজের একটি প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। দুর্গা পূজা উৎসবে তিনি গ্রামের কারুশিল্পের প্রদর্শনীর আয়োজন করতেন।[২] চিত্রনিভা চৌধুরী সেগুবাগিচার ১২, তোপখানা রোডে একটি ম্যুরাল নির্মাণ করেন ( তার দেবর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সায়ন বিভাগের প্রফেসর, জে.কে. চৌধুরী চৌধুরীর বাসভবনে)। মুরালটি ২০১০ সাল পর্যন্ত ম্যুরালটি অক্ষত অবস্থায় ছিল, কিন্তু ভবনটি সংস্কারের সময় এটি নষ্ট হয়ে যায়।[১] ১৯৪০ এর দশকের শেষদিকে,চিত্রনিভা চৌধুরী বিশ্ব ভারতীতে কার মেয়েকে ভর্তি করানোর উদ্দেশ্যে শান্তিনিকেতনে যান।[২]

শিল্পকর্মের তালিকা[সম্পাদনা]

তার কিছু গুরুত্বপূর্ন শিল্পকর্মের তালিকা[৬][৭]

  • শিবের বিয়ে
  • সাওতালি পরিবার
  • সাওতালি বিবাহ
  • গোষ্টযাত্রা
  • একালাবিয়া
  • কদম ফুল
  • পলাশ
  • শান্তিনিকতনে বসন্ত উৎসব
  • জ্যৈষ্ঠ প্লাবিত মাঠ
  • রাগ বেহাগ
  • ঝড়ের আগে
  • বাল্মিকি প্রতিভা
  • কদম
  • কুমড়ো ফুল
  • ধ্রুব
  • ননীছড়া
  • বাংলাদেশে দূর্গা পূজা উৎসব

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Haq, Fayza (২০১৩-১২-২০)। "The first woman painter of Bangladesh"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৩-০৭ 
  2. Ghosh, Chilka। "Kalabhavan Veteran: Chitranibha"Academia.edu (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৯ 
  3. Roy, Aparna Baliga (২০১৫)। The Women Artist of Early 20th Century Bengal, their Spaces of Visibility, Contributions and the Indigenous Modernism (PhD)। Maharaja Sayajirao University of Baroda। পৃষ্ঠা 216-219। 
  4. Chowdhury, Chitranibha (২০১৭)। Rabindrasmriti। Dhaka, Bangladesh: Bengal Publications। আইএসবিএন 978-9849225621 
  5. Hussain, Nisara। "চিত্রনিভা চৌধুরী কাছে যবে ছিল পাশে হল না যাওয়া"Kaliokalam 
  6. The Statesman। ২০ মার্চ ১৯৭৬। পৃষ্ঠা 3।  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  7. Amrita Bazar Patrika। ২৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৮২। পৃষ্ঠা 6।  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)