চিজকেক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
চিজকেক
My first cheesecake.jpg
রাস্পবেরি দিয়ে তৈরি 'বেকড চিজকেক'
ধরনটার্ট
প্রকারমিষ্টান্ন
উৎপত্তিস্থলপ্রাচীন গ্রীস
প্রধান উপকরণচিজ, পাই আবরণ (গ্রাহাম ক্র‍্যাকার ক্রাস্ট, পেষ্ট্রি, অথবা স্পঞ্জ কেক), চিনি
রন্ধনপ্রণালী: চিজকেক  মিডিয়া: চিজকেক

চিজকেক এক প্রকার মিষ্টান্ন বিশেষ, যা এক বা একাধিক স্তর নিয়ে গঠিত। মূল এবং ঘন স্তরটিতে নরম, টাটকা চিজ (সাধারণত ননীযুক্ত পনির বা রিকোট), ডিম এবং চিনির মিশ্রণ থাকে। যদি চিজকেকে নিচের স্তর থাকে, তবে এটিতে প্রায়শই গুঁড়ো করা কুকিজ (বা পরিপাকশক্তিবর্ধক বিস্কুট), গ্রাহাম ক্র্যাকারস, প্যাস্ট্রি বা কখনও কখনও স্পঞ্জ কেক দিয়ে তৈরি একটি ক্রাস্ট বা স্তর থাকে।[১] এটি বেকড বা আনব্যাকড (সাধারণত শীতল করা অবস্থায়) হতে পারে।

চিজকেক সাধারণত চিনির সহকারে মিষ্টি হয় এবং বিভিন্ন উপায়ে স্বাদযুক্ত হতে পারে। চিজের স্তরটিতে ভ্যানিলা, মশলা, লেবু, চকোলেট, কুমড়ো বা অন্যান্য উপাদান যুক্ত করে ভিন্ন স্বাদযুক্ত করা যেতে পারে। সবশেষে ফল, হুইপড ক্রিম, বাদাম, কুকিজ, ফলের সস, চকোলেট সিরাপ বা অন্যান্য টপিংসের সাহায্যে অতিরিক্ত স্বাদযুক্ত এবং দৃষ্টিলব্ধ করা যেতে পারে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

রোমানদের গ্রীস বিজয়ের পর এটি গ্রহণ করার আরো আগে থেকেই প্রাচীন গ্রীসে চিজকেক একটি জনপ্রিয় খাবার হতে পারে।[২] চিজকেকের সর্বাধিক প্রমাণিত উল্লেখ রয়েছে গ্রীক চিকিৎসক অ্যাজিমাস (খ্রিস্টপূর্ব ৫ম শতাব্দী) এর লেখায়, যিনি চিজকেক তৈরির কৌশল সম্পর্কে একটি বই লিখেছিলেন (πλακουντοποιικόν σύγγραμμα - প্লাকাউন্টোপাইকন সংগ্রমা)।[৩] চিজকেকের প্রাচীনতম রেসিপিগুলি ক্যাটো দ্য এল্ডারের ডি এগ্রি কাল্টুরায় পাওয়া যায়, যার মধ্যে ধর্মীয় ব্যবহারের জন্য তিনটি কেকের রেসিপির উল্লেখ রয়েছে: লিবুম, স্যাভিলাম এবং প্লাসেন্টা[৪][৫][৬] উপর্যুক্ত তিনটির মধ্যে প্লাসেন্টা অনেকটাই আধুনিক চিজকেকের মতো, একটি ক্রাস্ট থাকে যা আলাদাভাবে প্রস্তুত এবং বেকড থাকে।[৭]

১৩৯০ সালের ইংরেজি রান্নারবই ফর্ম অফ কুরিতে আরও একটি আধুনিক সংস্করণ পাওয়া গেছে।[৮] এই ভিত্তিতে শেফ (পাচক) হেস্টন ব্লুমেন্টাল যুক্তি দিয়েছিলেন যে পনির একটি ইংরেজি আবিষ্কার।[৯]

ইংরেজি নাম চিজেকেক কেবল পঞ্চদশ শতাব্দী থেকেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে,[১০] তবে চিজেকেকটি ১৮ শতকের কাছাকাছি অবধি প্রায় কোথাও তার আধুনিক রূপে বিকশিত হয়নি। ইউরোপীয়রা ময়দার খামির সরিয়ে এর পরিবর্তে চিজকেকে ডিম ভেঙে যোগ করা শুরু করে। মাত্রাধিক খামিরের স্বাদ চলে যাওয়ার সাথে সাথে চিজকেকটি একটি ডেজার্ট ট্রিটের মতো স্বাদ পেয়েছিল।[১১]

আধুনিক বাণিজ্যিক আমেরিকান ক্রিম চিজ তৈরি করা হয়েছিল ১৮৭২ সালে, যখন নিউইয়র্কের চেস্টার থেকে আসা উইলিয়াম লরেন্স নরম ফরাসি পনির নিউফচেটেলকে পুনরায় তৈরি করার উপায় খুঁজতে গিয়ে দুর্ঘটনাক্রমে ভারী একটি "ঘন চিজ" তৈরি করার উপায় নিয়ে এসেছিলেন; অন্য কয়েকজন গোয়ালা পরবর্তীকালে স্বাধীনভাবে একই জাতীয় চিজ নিয়ে এসেছিল।[১২]

আধুনিক চিজকেক দুটি ভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। বেকড চিজকেকের পাশাপাশি কয়েকটি চিজকেক একটি ক্রাম্বলড-কুকি ভিত্তিতে রান্না ক্রিম-চিজ দিয়ে তৈরি করা হয়। এই ধরনের চিজেকেক যুক্তরাষ্ট্রে উদ্ভাবিত হয়েছিল।[৮]

শ্রেণীবিন্যাস[সম্পাদনা]

"কেক" নাম সত্ত্বেও আধুনিক চিজকেক'কে সাধারণত কেক হিসাবে শ্রেণিবদ্ধ করা হয় না। যারা এটিকে টার্ট হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ করেন, তারা এটিতে প্রচুর ফ্যাটানো ডিমের উপস্থিতি নিশ্চিত করে যা মূল উপাদান হিসাবে খামিরের একমাত্র প্রধান উৎস। অন্যদের জন্য পৃথক স্তরসহ সামগ্রিক কাঠামো নরম পূর এবং ময়দার অনুপস্থিতি এটি একটি কাস্টার্ড পাই বলে জোরালো প্রমাণ দেয়।[১৩] অন্যান্য উৎসগুলি এটিকে ফ্ল্যান বা টার্ট হিসাবে চিহ্নিত করে।[১৪]

প্রস্তুতপ্রণালী[সম্পাদনা]

  • উপকরণঃ[১৫]
    • ক্রাস্টের জন্যঃ ডাইজেস্টিভ বিস্কুট (গুড়া করা)- দেড় কাপ, মাখন (টুকরো করা)- আধা কাপ।
    • ফিলিংয়ের জন্যঃ মিহি দানার চিনি- এক কাপ, ঘন দই- তিন কাপ, পনির (ক্রীম চিজ জাতীয়)- দুই কাপ, পানি- দেড় কাপ, চায়না গ্রাস- ১০ গ্রাম, আম (চটকানো)- এক কাপ, ভ্যানিলা এসেন্স- ২ টেবিল চামচ।
  • প্রণালীঃ[১৫]
    • ক্রাস্ট তৈরিঃ বিস্কুট মিহি গুড়া করে বড় বোলে নিতে হবে। মাখন দিয়ে ভালোভাবে মেখে নিতে হবে। চ্যাপটা প্যানে মিশ্রণটি সমানভাবে ছড়িয়ে ফ্রিজে আধ ঘণ্টা রেখে দিতে হবে।
    • ফিলিং তৈরিঃ চায়না গ্রাস ছোট টুকরা করে দেড় কাপ পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে। সসপ্যানে দিয়ে চায়না গ্র্যাস গলিয়ে নিতে হবে, তবে খেয়াল রাখতে হবে যেন না ফোটে। ব্লেন্ডার বা ফুড প্রসেসরে পনির ও দই ঘন করে মিশিয়ে নিতে হবে। এবার আরেকটি পাত্রে অল্প আঁচে চটকানো আম রাখতে হবে; এটি যেন ফুটতে শুরু না করে। এর মধ্যে চায়না গ্রাস মিশিয়ে নিতে হবে। মাঝেমধ্যে নেড়ে দিতে হবে। এবার এটি দই-পনিরের মিশ্রণে মেলাতে হবে। এতে চিনি ও ভ্যানিলা নির্যাস মিলিয়ে ভালোভাবে বিট করে নিতে হবে। ক্রাস্টের ওপর সমানভাবে ছড়িয়ে এটি আবার ফ্রিজে রাখতে হবে তিন-চার ঘণ্টা।
    • গ্লেজ তৈরিঃ সব উপকরণ সসপ্যানে নিয়ে মাঝারি আঁচে চুলায় রাখতে হবে। ফুটতে শুরু করলে আঁচ কমিয়ে তিন-চার মিনিট রাখতে হবে। নামিয়ে ঠাণ্ডা করে নিতে হবে। এই মিশ্রণকে চিজকেকের ওপর ছড়িয়ে দিতে হবে। দুই তিনঘণ্টা এভাবে রেখে দিতে হবে।

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Ferguson Plarre Bakehouses। "A History of Cheesecakes"। www.fergusonplarre.com.au। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-১২ 
  2. Dana Bovbjerg, Jeremy Iggers, The Joy of Cheesecake, Barron's Educational Series, 1989
  3. Callimachus, ap. Athen, xiv. p. 643, e
  4. Cato the Elder, De Agri Cultura, paragraphs 75 and 76. Available in English on-line at: University of Chicago: Penelope (Note: The "leaves" mentioned in Cato's recipe are bay leaves.)
  5. "Cato's 'De Agricultura': Recipes"। www.novaroma.org। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-১২ 
  6. "Cato's 'De Agricultura': Recipes" 
  7. "A Bit of Food History: Cheesecake" (PDF)। www.culinaryschools.com। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-১২ 
  8. Wilson, C. (২০০২)। "Cheesecakes, Junkets, and Syllabubs": 19। ডিওআই:10.1525/gfc.2002.2.4.19 
  9. Heston Blumenthal (২০১৩)। Historic Heston। Bloomsbury। পৃষ্ঠা 35। আইএসবিএন 978-1-4088-0441-4 
  10. John., Ayto (২০০২)। An A-Z of food and drink। Ayto, John.। Oxford University Press। আইএসবিএন 0192803522ওসিএলসি 48932542 
  11. "The Rich History of a Favorite Dessert"। Cheesecake.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০১-০৯ 
  12. cheesecake History
  13. Berenbaum, Rose Levy (1988). The Cake Bible. William Morrow Cookbooks. আইএসবিএন ৯৭৮-০-৬৮৮-০৪৪০২-২. p. 80.
  14. Bender, David A. (২০১৪-০১-২৩)। A Dictionary of Food and Nutrition (ইংরেজি ভাষায়)। Oxford University Press। আইএসবিএন 9780192518422 
  15. "ম্যাংগো চিজ কেক রেসিপি"। Mituni's Kitchen। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২৩ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]