চাকা ভেকা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

Chaca chaca কটকটি মাছ
Chaca chaca.JPG
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: কর্ডাটা
শ্রেণী: Actinopterygii
বর্গ: Siluriformes
মহাপরিবার: Siluroidea
পরিবার: Chacidae
গণ: Chaca
প্রজাতি: C. chaca
দ্বিপদী নাম
Chaca chaca
(F. Hamilton, 1822)

চাকা ভেকা বা গ্যানগেনিয়া[১] কটকটি মাছ এক প্রকার কালচে রঙের, বড় মাথা বিশিষ্ট, স্বাদু পানির কদাকার মাছ। এটি বিভিন্ন নামে পরিচিত, যেমন- চাকা, চেকা-বেকা, চাগা, ব্যাঙ-সাবা, চেকভেগা, চেগাবেগা, কুরকুরি ইত্যাদি। ইংরেজিতে একে Squarehead catfish বা Frogmouth Cat fish বলা হয়। এটি বাংলাদেশ, ভারতমায়ানমার[২] অঞ্চলের গঙ্গা-ব্রহ্মপুত্র এবং ইরাবতী নদীর অববাহিকা এলাকার নদী, খাল, বিল, পুকুর ইত্যাদি বিভিন্ন জলাশয়ে পাওয়া যায়। এটি সাধারণত কাদার নিচে লুকিয়ে থাকতে পছন্দ করে এবং অন্ধকার বা অল্প আলোতে ঘোরাফেরা করে থাকে। কুৎসিত বলে এটি সাধারণত খাওয়া হয় না, যদিও এটি বেশ সুস্বাদু। এর বৈজ্ঞানিক নাম Chaca chaca (Hamilton 1822).

নামকরণ[সম্পাদনা]

জীবিত অবস্থায় মাছটি ধরার পর মাছটি কটকট করে আওয়াজ করে বলে মাছটির নাম রাখা হয় কটকটি। মাছটি দেখতে ধুসর কালচে, মুখটি বড়, পিঠে নায়ের মাস্তুলের ন্যায় একটি বড় কাঁটা ও চেপটা আকৃতির বলে অনেকে এর নাম দিয়েছে চেকভেগা। ব্যাঙ মাছ রাখা হয়েছে দেখতে অনেকটা বেংগাচি আকৃতির বলে।

বিবরণ[সম্পাদনা]

এদের দেহ সম্মুখে অবনত, পার্শ্বদিকে চাপা এবং পেছনে ক্রমান্বয়ে সরু হয়। মাথাটি বৃহৎ আকৃতির, দৃঢ়ভাবে অবনমিত এবং আয়তাকার।[১]

খাদ্য ও বাসস্থান[সম্পাদনা]

কটকটি মাছ মূলত কাঁদাপানির মাছ। মাছটি জলাশয়ের পানির নিচে কাঁদার উপরে বাস করে। কাঁদা খায় এবং পানির উপরিভাগের মরা মাছ পচে কাঁদাতে পড়লে কটকটি মাছেরা সেগুলো খেয়ে জীবনধারন করে। সাম্প্রতিকালে নদীর পানি ও কাঁদা দূষণের ফলে এই কটকটি মাছের আবাসস্থল নস্ট হয়ে গেছে। যার ফলে এই কটকটি মাছে সংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে।[৩]

আদি নিবাস[সম্পাদনা]

প্রায় সকল নিম্ন এলাকাতেই কটকটি মাছ দেখা যায়। এ থেকে ধারণা করা যায় মাছটির আদি নিবাস সমুদ্র। কোন কোন প্রামান্য চিত্রে সমুদ্রের তলদেশে এসব কটকটি মাছের আকৃতির মাছ দেখতে পাওয়া যায়।

বিস্তৃতি[সম্পাদনা]

মাছটি বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল অঞ্চলে পাওয়া যায়। ভারতের গঙ্গাব্রহ্মপুত্র অববাহিকায় এদের ব্যাপক ভাবে বিস্তৃত।[১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. এ কে আতাউর রহমান, গাউছিয়া ওয়াহিদুন্নেছা চৌধুরী (অক্টোবর ২০০৯)। "স্বাদুপানির মাছ"। আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; আবু তৈয়ব, আবু আহমদ; হুমায়ুন কবির, সৈয়দ মোহাম্মদ; আহমাদ, মোনাওয়ার। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ২৩ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃষ্ঠা ১৯৫–১৯৬। আইএসবিএন 984-30000-0286-0 |আইএসবিএন= এর মান পরীক্ষা করুন: invalid prefix (সাহায্য) 
  2. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১৩ নভেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৫ 
  3. http://www.mofl.gov.bd/