চরমপন্থাবাদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

চরমপন্থাবাদ বা চরমপন্থা (ইংরেজি: Extremism) অর্থ হল, শাব্দিকভাবে: (কোনকিছুকে) সীমার দিকে, চরম দিকে ধাবিত করা বা চরমপন্থী হওয়ার ধাপ বা বৈশিষ্ট্য, চরম মতবাদ বা দৃষ্টিভঙ্গির পক্ষ সমর্থন করা[১][২]

বর্তমান সময়ে, এই পরিভাষাটি রাজনৈতিকধর্মীয় চিন্তাধারায় সবচেয়ে বেশী ব্যবহৃত হয়, এমন একটি মতাদর্শকে বোঝাতে যা (সম্পর্কিত বক্তা অথবা পরোক্ষভাবে বিনিময়কৃত সামাজিক মতৈক্যের দ্বারা) সমাজের (গ্রহণযোগ্য) মূলধারার আচরণ বা মনোভাব হতে অত্যধিক বহির্ভূত হিসেবে বিবেচিত হয়।[১] কিন্তু চরমপন্থাবাদকে উদাহরণস্বরূপ কোন একটি অর্থনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকেও সংজ্ঞার্থ করা হতে পারে।

"চরমপন্থা" পরিভাষাটি সাধারণত (দৃঢ়) অসমর্থন প্রকাশ করার ক্ষেত্রে মর্যাদাহানিকর অর্থে ব্যবহৃত হয়, কিন্তু পাশাপাশি একটি আরও পাণ্ডিত্যপূর্ণ, নির্ভেজালভাবে বিবৃত এবং অ-নিন্দাসূচক দৃষ্টিকোণ হতেও এর সংজ্ঞার্থ করা হতে পারে।

চরমপন্থিদের সাধারণত কেন্দ্রপন্থীমধ্যপন্থিদের বিপরীতে তুলনা করা হয়। উদাহরণস্বরূপ, পাশ্চাত্য দেশগুলোতে ইসলাম বা ইসলামী রাজনৈতিক আন্দোলনসমূহের সমসাময়িক আলোচনায়, চরমপন্থী (= 'মন্দ') এবং মধ্যপন্থী (= 'ভালো') মুসলিমদের মধ্যে পার্থক্যকরণ স্বভাবতই বড় আকার ধারণ করেছে।[৩]

চরমপন্থী হিসেবে অনুভূত রাজনৈতিক এজেন্ডাসমূহ প্রায়শ ক্ষেত্রেই কট্টর বামপন্থা বা কট্টর ডানপন্থা, পাশাপাশি রাজনৈতিক আমূলসংস্কারবাদ, প্রতিক্রিয়াবাদ, মৌলবাদঅন্ধবিশ্বাস এ সকল মতবাদের ধারকদের কাছ থেকে আসে।

চরমপন্থা সংজ্ঞায়নে সমস্যাসমূহ[সম্পাদনা]

বিভিন্ন সময়ের বিভিন্ন পরিপ্রেক্ষিতে চরমপন্থার বিভিন্ন আলাদা সংজ্ঞার্থ ছিল। ড. পিটার টি. কোলম্যান ও ড. আন্দ্রে বারটলি এই সংজ্ঞাগুলোর সংক্ষিপ্ত নিরীক্ষা প্রদান করেছেন:[৪]

আমূল সংস্কারবাদ ও চরমপন্থাবাদের সাদৃশ্য[সম্পাদনা]

চরমপন্থাবাদের তত্ত্বসমূহ[সম্পাদনা]

অর্থনীতিবিদ রোনাল্ড উইনট্রোব[৫] মতপোষণ করেন যে, বহু চরমপন্থী আন্দোলন তাদের আদর্শিক দিক থেকে পরস্পর সম্পূর্ণ আলাদা হলেও এরা সকলেই কিছু একই রকম বৈশিষ্ট্য ধারণ করে। উদাহরণস্বরূপ, তিনি "ইহুদি মৌলবাদীগণ" ও "হামাসের চরমপন্থীগণের" মাঝে নিম্নোক্ত সাধারণ মিলগুলো তুলে ধরেন:[৬]

মনস্তাত্ত্বিক[সম্পাদনা]

চরমপন্থার বিশ্লেষকদের মধ্যে একদল এটিকে মহামারী হিসেবে দেখেন।[৪] আরনো গ্রুয়েন বলেন, " চরমপন্থিদের স্বপরিচয়ের অভাববোধ হল আত্মবিধ্বংসী আত্মঘৃণার ফলস্বরূপ, যা তাঁদেরকে জীবনের প্রতি প্রতিশোধের অনুভূতির দিকে এবং নিজস্ব মানবতাবোধকে ধ্বংস করার দিকে পরিচালিত করে।" তাই, চরমপন্থাকে কোন যুদ্ধকৌশল, বা কোন মতাদর্শ হিসেবে নয় বরং একটি আবেগপূর্ণ অসুস্থতা হিসেবে দেখা হয় যা জীবন ধ্বংসের খোরাক যোগায়।[৪] ড. ক্যাথলিন টেইলর বিশ্বাস করেন যে মুসলিম মৌলবাদ একটি মানসিক অসুস্থতা এবং এটি "নিরাময়যোগ্য।"[৭]

আরেকটি অভিমত হল চরমপন্থা হল "নির্যাতনভোগ, নিরাপত্তাহীনতা, উপহাস, অপমানবোধ, ক্ষতি ও ক্রোধের সুদীর্ঘ অভিজ্ঞতা"র অবদমিত তীব্র অনুভূতিসমূহের একটি আবেগপূর্ণ বহিঃনিঃসরণ যেগুলোকে ব্যক্তি ও দলকে সংঘাতে জড়ানোর কৌশল অনুসরণের দিকে পরিচালিত করার" কারণ বলে মনে করা হয়।[৪]

অন্যান্য গবেষকগণ আবার চরমপন্থাকে "ক্ষমতা নিয়ে খেলা করার একটি যৌক্তিক কৌশল" হিসেবে দেখেন।[৪] উদাহরণস্বরূপ এলি বারম্যান'র কর্মকাণ্ড উল্লেখযোগ্য।

"মূলধারা"র রাজনীতিতে পরিভাষাটির ব্যবহার[সম্পাদনা]

ব্যারি গোল্ডওয়াটার ১৯৬৪ সালের রিপাবলিকান কনভেনশনে তার বক্তব্য রচয়িতা কার্ল হেস'র প্রশংসা করতে গিয়ে বলেন, "স্বাধীনতা প্রতিরক্ষার স্বার্থে চরমপন্থায় কোন দোষ নেই, ন্যায়বিচার অনুসরণে শিথিলতা প্রদর্শনে কোন গুণ নেই।"

রবার্ট এফ. কেনেডি বলেন, "চরমপন্থিদের ব্যাপারে যে বিষয়টি আপত্তিকর ও বিপজ্জনক তা তাঁদের চরমপন্থা নয় বরং তা তাঁদের অসহনশীলতা। তারা তাঁদের বিরোধী প্রতিপক্ষদের সম্পর্কে যা বলে সেটাই মূল সমস্যা, তারা নিজেদের স্বার্থে যা বলে তা নয়।"

১৯৯০ সাল থেকে, যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিতে সিস্টার সউলজাহ আন্দোলন পরিভাষাটি কোন রাজনীতিবিদের নিজ দলের সাথে সম্পৃক্ত চরমপন্থি ব্যক্তি, দল, মন্তব্য, বা অবস্থানকে জনগণের সামনে অস্বীকার করাকে বোঝাতে ব্যবহৃত হতো।

রাশিয়ায় চরমপন্থি কর্মকাণ্ড দমনকারী আইনকে অতি বিস্তৃত ও নমনীয় ব্যাখ্যার মাধ্যমে বাকস্বাধীনতা রোধে ব্যবহার করা হয়।[৮] জনগণের যে সকল প্রকাশ্য কর্মকাণ্ডকে চরম্পথি হিসেবে শ্রেণিভুক্ত ও বিচারাধীন করা হয়েছিলো তাদের মধ্যে অন্যতম হল বলতনায়া চত্বর মামলার রায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ মিছিল (বেআইনি পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান), স্থানীয় সরকারের অতিরিক্ত মেয়াদ পর্যন্ত বহাল থাকা (কর্তৃপক্ষকে তিরস্কার করা), ইউক্রেনের সমর্থনে কবিতা রচনা (সহিংসতার উস্কানি),[৯][১০] লেখক পলিনা জেরেবকভার লেখা চেচনিয়ায় যুদ্ধের বিরুদ্ধে খোলা চিঠি,[১১] রাশিয়ার জেহভাহর সাক্ষী আন্দোলন, [১২] রাফায়েল লেমকিন এবং ১০৪৮ সালের গণহত্যা সম্মেলনের প্রবক্তাদের লেখা নিবন্ধসমূহ।[১৩]

অন্যান্য পরিভাষা[সম্পাদনা]

"বিধ্বংসী" পরিভাষাটি প্রায়শই "চরমপন্থী"র সাথে আন্তঃপরিবর্তনশীলভাবে ব্যবহার করা হত, অন্তত যুক্তরাষ্ট্রে, স্নায়ুযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে, যদিও এই দুটি শব্দ সমার্থক নয়।

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Extremism - definition of extremism by The Free Dictionary"The Free Dictionary। সংগৃহীত ৪ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  2. "Definition of extremism by Merriam-Webster"Merriam-Webster Dictionary। সংগৃহীত ৪ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  3. Mogahed, Dalia (২০০৬)। "The Battle for Hearts and Minds: Moderate vs. Extremist Views in the Muslim World"Wikileaks: 2। 
  4. Dr. Peter T. Coleman and Dr. Andrea Bartoli: Addressing Extremism, pp. 3–4
  5. "Economics at Western"। Economics.uwo.ca। সংগৃহীত ২০১৩-০৯-০৮ 
  6. Wintrobe (2006), p. 5
  7. Bruxelles, Simon de (২০১৩-০৫-৩০)। "Science ‘may one day cure Islamic radicals'"The Times (London) (London)। সংগৃহীত ২০১৩-০৫-৩১ 
  8. Paul Goble (২০১৫-০৩-২৯)। "FSB Increasingly Involved in Misuse of 'Anti-Extremism' Laws, SOVA Says"The Interpreter Magazine। সংগৃহীত ২০১৫-০৪-০১ 
  9. "Examples of forbidden content"। Zapretno.info। ২০১৪। সংগৃহীত ২০১৪-১০-২৯ 
  10. Neef, Christian; Schepp, Matthias (২০১৪-০৪-২২)। "The Propaganda War: Opposition Sings Kremlin Tune on Ukraine"Spiegel Online। সংগৃহীত ২০১৫-০৬-১০ 
  11. "https://meduza.io/news/2015/07/08/otkrytoe-pismo-hodorkovskomu-o-voyne-v-chechne-priznali-ekstremistskim"meduza.io। সংগৃহীত ২০১৫-০৭-০৮ 
  12. "Russian Appellate Court Decision Reverses Ban of JW.ORG Website"। সংগৃহীত ২০১৫-০৮-২০ 
  13. "Федеральный список экстремистских материалов дорос до п. 3152"SOVA Center for Information and Analysis। সংগৃহীত ২০১৫-১১-২৮ 

সূত্রিত প্রকাশনা[সম্পাদনা]

অধিকন্তু পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]