চন্দ্রাভিযান কর্মসূচি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

চন্দ্রযান কর্মসূচি (সংস্কৃত: চন্দ্রীয় চন্দ্রায়ণ, চাঁদে অভিযান [১][২] এই শব্দটি উচ্চারণ (সাহায্য · তথ্য)), যা চন্দ্রাভিযান কর্মসূচি নামেও পরিচিত। এটি ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ইসরো) দ্বারা বহিরাগত মহাকাশ অভিযানের একটি চলমান কর্মসূচি। এই প্রোগ্রামটি ভবিষ্যতের অভিযানের জন্য মহাকাশযানে একটি চন্দ্রগামী উপগ্রহ, ল্যন্ডার এবং রোভার অন্তর্ভুক্ত করেছে।

কর্মসূচি কাঠামো[সম্পাদনা]

চন্দ্রযান (ইন্ডিয়ান লুনার এক্সপ্লোরেশন প্রোগ্রাম) কর্মসূচিটি চাঁদে একাধিক অভিযান নিয়ে গঠিত; ২০০০৮ সালে চাঁদের কক্ষপথে একমাত্র চন্দ্রযান-১ পাঠানো হয়েছে, এর জন্য ইসরো পিএসএলভি রকেট ব্যবহার করেছে। দ্বিতীয় মহাকাশযানটি ২০১৯ সালের প্রথম দিকে প্রস্তুত করা হচ্ছে - জিএসএলভি রকেট ব্যবহার করে।

পর্যায় ১: অরবিটাল মিশন[সম্পাদনা]

প্রথম পর্যায়ের অভিযান চাঁদের কক্ষপথে উপগ্রহ স্থাপনের দ্বারা চাঁদের কক্ষপথে ভ্রমনের সূচনা করে।

  • ২২ অক্টোবর ২০০৮ সালের একটি পিএসএলভি-এক্সএল রকেট উৎক্ষেপণ করে, চন্দ্রযান-১। মহাকাশযানটির প্লেলোডে থাকা "মুন ইমপ্যাক্ট প্রোব" নামে একটি যন্ত্র চাঁদ চাঁদে জল আবিষ্কার করেছে। জল আবিষ্কার ছাড়াও চন্দ্রাযান ১ মিশন চাঁদের মানচিত্র এবং বায়ুমণ্ডলীয় পর্যবেক্ষন সহ অন্যান্য কিছু কাজ পরিচালনা করে।

পর্যায় ২: নরম অবতরণকারী/রোভার্স[সম্পাদনা]

দ্বিতীয় পর্যায়ের প্রস্তুতি হিসাবে, ২০১৯ সালের চাঁদের উপর নরম-অবতরণে সক্ষম মহাকাশযানকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে এবং চন্দ্র পৃষ্ঠায় একটি রোবোটিক রোভার স্থাপন করা হবে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "chandra"। Spoken Sanskrit। সংগ্রহের তারিখ ৫ নভেম্বর ২০০৮ 
  2. "yaana"। Spoken Sanskrit। সংগ্রহের তারিখ ৫ নভেম্বর ২০০৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]