গ্লেনডন গিবস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গ্লেনডন গিবস
গ্লেনডন গিবস.jpg
১৯৭৩ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে গ্লেনডন গিবস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামগ্লেনডন লিওনেল গিবস
জন্ম২৭ ডিসেম্বর, ১৯২৫
জর্জটাউন, ডেমেরারা, ব্রিটিশ গায়ানা
মৃত্যু২১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭৯
জর্জটাউন, ডেমেরারা, গায়ানা
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনস্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স
ভূমিকাউদ্বোধনী ব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ৮৫)
২৬ মার্চ ১৯৫৫ বনাম অস্ট্রেলিয়া
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ২৮
রানের সংখ্যা ১২ ১,৭৩০
ব্যাটিং গড় ৬.০০ ৩৬.৮০
১০০/৫০ ০/০ ৫/৬
সর্বোচ্চ রান ১২ ২১৬
বল করেছে ২৪ -
উইকেট ২৩
বোলিং গড় - ৫৩.৪৭
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং -/- ৬/৮০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/০ ১৫/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১ জুন ২০১৯

গ্লেনডন লিওনেল গিবস (ইংরেজি: Glendon Gibbs; জন্ম: ২৭ ডিসেম্বর, ১৯২৫ - মৃত্যু: ২১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭৯) তৎকালীন ব্রিটিশ গায়ানার ডেমেরারা এলাকার জর্জটাউনে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন।[১][২][৩] ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৫৫ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

কিছুটা রক্ষণাত্মক ভঙ্গীমায় খেলতেন। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে ব্রিটিশ গায়ানা দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ বামহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, দলের প্রয়োজনে মাঝে-মধ্যে স্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স বোলিং করতেন গ্লেনডন গিবস। ১৯৫০-এর দশকের পুরোটা সময় জুড়ে ব্রিটিশ গায়ানার পক্ষে খেলেন। তবে, বিখ্যাত ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার ল্যান্স গিবসের সাথে তার কোন আত্মীয়তার সম্পর্ক নেই।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৪৯-৫০ মৌসুম থেকে ১৯৬২-৬৩ মৌসুম পর্যন্ত গ্লেনডন গিবসের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। এ সময়ে ব্রিটিশ গায়ানা দলের পক্ষে খেলতেন। ১৯৫১ সালে জর্জটাউনের বোর্দা ক্রিকেট গ্রাউন্ডে স্মরণীয় খেলা উপহার দেন। বার্বাডোসের বিপক্ষে ২১৬ রান তুলেন। এ পর্যায়ে লেসলি উইটের সাথে প্রথম উইকেট জুটিতে ৩৯০ রান সংগ্রহ করেছিলেন। ঐ সংগ্রহটি অদ্যাবধি ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে রেকর্ড হিসেবে চিত্রিত হয়ে রয়েছে। লেসলি উইট করেছিলেন ২৬২ রান।[৪]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পেয়েছিলেন গ্লেনডন গিবস। ২৬ মার্চ, ১৯৫৫ তারিখে সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ১৯৫৪-৫৫ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ গমন করে। জ্যামাইকার কিংস্টনে সিরিজের প্রথম টেস্টে খেলেন।

প্রথম ইনিংসে ১২ রান তুলে রন আর্চারের বলে এলবিডব্লিউতে পরিণত হন। দ্বিতীয় ইনিংসে বিল জনস্টনের বলে শূন্য রানে বোল্ড নেন। বল হাতে ০/৫ ও ০/২ বোলিং পরিসংখ্যান গড়েন। অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় ইনিংসে এভারটন উইকসের বলে ১ রান করা আর্থার মরিসের ক্যাচ তালুবন্দী করেছিলেন। এটিই এভারটন উইকসের একমাত্র উইকেট লাভ করা ছিল। পোর্ট অব স্পেনে অনুষ্ঠিত পরের টেস্টে এক টেস্টের বিস্ময়কারী লেনক্স বাটলার তার স্থলাভিষিক্ত হন।

ঐ খেলায় তার দল ৯ উইকেটে জয় পেলেও পরবর্তী টেস্টে তাকে দল থেকে বাদ দেয়া হয়। ঐ সময়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে বিশ্বস্ত ও নির্ভরযোগ্য উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানের চাহিদা থাকলেও পরবর্তীতে আর তাকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে খেলার সুযোগ দেয়া হয়নি।

অবসর[সম্পাদনা]

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর আমৃত্যু গায়ানা ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের প্রশাসক ও সম্পাদকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন। এরফলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডে প্রতিনিধিত্ব করতেন। ১৯৭৩ সালে সহকারী ব্যবস্থাপক হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলকে নিয়ে ইংল্যান্ড গমন করেন। ২১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭৯ তারিখে ৫৪ বছর বয়সে গায়ানার জর্জটাউনে গ্লেনডন গিবসের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. List of West Indies Test Cricketers
  2. "West Indies – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুলাই ২০১৬ 
  3. "West Indies – Test Bowling Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুলাই ২০১৬ 
  4. British Guiana v Barbados 1951-52

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]