গ্যারিসন ক্যাডেট কলেজ কোহাট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গ্যারিসন ক্যাডেট কলেজ কোহাট
অবস্থান
,
পাকিস্তান
তথ্য
ধরনক্যাডেট বা মিলিটারি কলেজ
নীতিবাক্যالعلم قوة
(জ্ঞানই শক্তি)
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৯০; ৩২ বছর আগে (1990)
বিদ্যালয় বোর্ডফেডারেল বোর্ড অফ ইন্টারমিডিয়েট এবং সেকেন্ডারি এডুকেশন, ইসলামাবাদ
অধ্যক্ষব্রিগেডিয়ার নাদিম আখতার হোসেন
শ্রেণী১২
আয়তন৮৫ একর[রূপান্তর: অজানা একক]
ঘর
রঙ    
স্লোগানএকবার গ্যারিসনিয়ান, সর্বদা গ্যারিসনিয়ান
Demonymগ্যারিসনিয়ান
ওয়েবসাইট

গ্যারিসন ক্যাডেট কলেজ কোহাট একটি বোর্ডিং স্কুল, যা কোহাট শহরের উপকণ্ঠে অবস্থিত। একটি লিখিত পরীক্ষা, সাক্ষাৎকার এবং মেডিকেল পরীক্ষার সমন্বয়ে গঠিত একটি তিন-পদক্ষেপ নির্বাচন প্রক্রিয়ার পরে শিক্ষার্থীদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়।৮ম শ্রেণীর প্রবেশিকা পরীক্ষা কোহাট, মারদান, রাওয়ালপিন্ডি, গুজরানওয়ালা, লাহোর, মুলতান, ডিআইখান, শিয়ালকোট এবং করাচির পরীক্ষা কেন্দ্রে পরিচালিত হয়।একাদশ শ্রেণীর প্রবেশিকা পরীক্ষা কোহাটে পরিচালিত হয়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

এটি কোহাট গ্যারিসন কলেজ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। পরবর্তীতে তৎকালীন সেনাপ্রধান জেনারেল পারভেজ মোশাররফের অনুমোদনে এর নামকরণ করা হয় গ্যারিসন ক্যাডেট কলেজ কোহাট। পাকিস্তান সেনাবাহিনী গ্যারিসন ক্যাডেট কলেজ কোহাটকে এ জমি দিয়েছিল । ১৯৯০ সালের ১ মার্চ তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো কলেজটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। মৌলিক অবকাঠামোর সমাপ্তিতে, ১৯৯৩ সালে ক্লাস শুরু হয়। ১৯৯৩ সালের ১০ মে কলেজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল আরিফ বঙ্গশ। কলেজটি ব্রিগেডিয়ার পদমর্যাদার একজন সেনা অফিসার দ্বারা পরিচালিত হয় যিনি চেয়ারম্যান বোর্ড অফ গভর্নরস (জিওসি ৯ ডিভিশন, কোহাট) এর সচিব। সমস্ত সিদ্ধান্ত অধ্যক্ষ দ্বারা গৃহীত হয় যার সিদ্ধান্তকে কোন আইনের আদালতে চ্যালেঞ্জ করা যায় না।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

কলেজের প্রথম অধ্যক্ষ ছিলেন কর্নেল ড. ইদ্রিস নিয়াজী (অব.) যিনি ১৯৯২ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ১৯৯৫ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত কলেজে ছিলেন। ব্রিগেডিয়ার তালাত ইমতিয়াজ নকভি (অব.) ডিসেম্বর ১৯৯৫ থেকে ডিসেম্বর ২০০১ পর্যন্ত দ্বিতীয় অধ্যক্ষ ছিলেন। ব্রিগেডিয়ার তারিক সাইদ ২৫ মার্চ, ২০০২ থেকে কলেজের তৃতীয় অধ্যক্ষ।

প্রতিটি বাড়িতে একজন হাউস মাস্টার এবং একজন হাউস টিউটার থাকে যারা বাড়ির ক্যাডেটদের দেখাশোনা করে। তারা ২৪ ঘন্টা তাদের ক্যাডেটদের উপর নজর রাখে। তারা বিভিন্ন কাজের জন্য ক্যাডেট নির্বাচন করে।তারা নিয়োগের জন্য তাদের ক্যাডেটদের সুপারিশ করে। হাউস মাস্টারদের একজন হাউস কমান্ডার (এফএসসিএলএল এর ছাত্র) এবং দুইজন সেকশন কমান্ডার (এফএসসিএলএল) দ্বারা সহায়তা করা হয়। প্রতিটি বাড়িতে একজন ড্রিল প্রশিক্ষক, একজন বাবা, একজন মেডিকেল সুপারিনটেনডেন্ট রয়েছে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

গ্যারিসন ক্যাডেট কলেজ কোহাট, সদর দপ্তর ৯ম পদাতিক ডিভিশন, কোহাট দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। কলেজটি ৯ম পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং এর নেতৃত্বে একটি বোর্ড অফ গভর্নর এর নিয়ন্ত্রণ ও পরিচালনার অধীনে রয়েছে। প্রত্যেক সদস্যের মেয়াদ তিন বছর।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

ছাত্রজীবন[সম্পাদনা]

গ্যারিসন ক্যাডেট কলেজ, কোহাটে পড়া ছাত্রদের ক্যাডেট বলা হয়।

ক্লাস সকালে এবং প্রস্তুতি (স্বতন্ত্র নীরব অধ্যয়নের সময়কাল) রাতে পরিচালিত হয়।

ঘরবাড়ি[সম্পাদনা]

রঙ গৃহ নামকরণ করা
     
হালকা নীল কায়ানি বিচারপতি (র.) রুস্তম কিয়ানি
     
লাল জাঙ্গি নূর আদ-দ্বীন জাঙ্গী
     
হালকা সবুজ জিন্নাহ মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ
     
নীল গাজ্জালী ইমাম গাজ্জালী রহ
     
কমলা সিনা বো আলী সিনা
     
গাঢ় সবুজ আইয়ুবী সালাহ-আল-দ্বীন আইয়ুবী

পৃষ্ঠপোষক-ইন-চিফ[সম্পাদনা]

পৃষ্ঠপোষক[সম্পাদনা]

চেয়ারম্যান[সম্পাদনা]

  • জেনারেল অফিসার কমান্ডিং ৯ম পদাতিক ডিভিশন, কোহাট

সদস্যরা[সম্পাদনা]

  • লেফটেন্যান্ট জেনারেল আরিফ বঙ্গশ (অব.) এইচআই (এম), এসবিটি ( খাইবার পাখতুনখোয়ার সাবেক গভর্নর)
  • লেফটেন্যান্ট জেনারেল আলী কুলি খান খট্টক (অব.), এইচআই (এম)
  • লেফটেন্যান্ট জেনারেল হুমায়ুন খান বঙ্গ (অব.), এইচআই (এম) (তুরস্কে সাবেক রাষ্ট্রদূত)
  • মেজর জেনারেল আশুর রশিদ কোরেশি (অব.)
  • ব্রিগেডিয়ার আবদুর রশিদ কোরেশী (অব.)
  • কমান্ডার ১১৭ ব্রিগেড, কোহাট
  • কমান্ডার আর্টিলারি ৯ম ডিভিশন, কোহাট
  • স্টেশন কমান্ডার, কোহাট
  • কমান্ড্যান্ট সিগন্যাল ট্রেনিং সেন্টার, কোহাট
  • বেস কমান্ডার, পিএএফ ঘাঁটি, কোহাট
  • জেলা নাজিম কোহাট
  • ডিসিও কোহাট

সচিব[সম্পাদনা]

  • অধ্যক্ষ

আরো দেখুন[সম্পাদনা]