গোয়ালন্দ ঘাট রেলওয়ে স্টেশন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গোয়ালন্দ ঘাট রেলওয়ে স্টেশন
বাংলাদেশের রেলওয়ে স্টেশন
অবস্থানরাজবাড়ী জেলা, ঢাকা বিভাগ
 বাংলাদেশ
মালিকানাধীনবাংলাদেশ রেলওয়ে
পরিচালিতবাংলাদেশ রেলওয়ে
লাইনপোড়াদহ-কালুখালী-গোয়ালন্দ ঘাট লাইন
প্ল্যাটফর্ম
ট্রেন পরিচালকপশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে
নির্মাণ
গঠনের ধরনমানক
পার্কিংআছে
সাইকেলের সুবিধাআছে
প্রতিবন্ধী প্রবেশাধিকারআছে
ইতিহাস
চালু১৮৭১
অবস্থান

গোয়ালন্দ ঘাট রেলওয়ে স্টেশন[১] বাংলাদেশের ঢাকা বিভাগের রাজবাড়ী জেলার একটি রেলওয়ে স্টেশন[২] কুষ্টিয়া- গোয়ালন্দ রেলপথের সর্বশেষ স্টেশন এটি।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৬২ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর ইস্টার্ন বেঙ্গল রেলওয়ে কলকাতা থেকে রাণাঘাট পর্যন্ত রেলপথ উদ্বোধন করে। এই লাইনকেই বর্ধিত করে ১৫ নভেম্বর ১৮৬২ সালে দর্শনা থেকে জগতী পর্যন্ত ৫৩.১১ কিমি ব্রডগেজ (১,৬৭৬ মিমি) রেললাইন শাখা উন্মোচন করা হয়। কুষ্টিয়া থেকে পদ্মার পাড়ে (পদ্মা ও যমুনার সংযোগস্থল) অবস্থিত অভ্যন্তরীণ নদীবন্দর গোয়ালন্দ ঘাট পর্যন্ত ৭৫ কিমি দীর্ঘ রেললাইন উদ্বোধন করা হয় ১ জানুয়ারি ১৮৭১ সালে।[৩][৪] এসময় কুষ্টিয়া(জগতি) থেকে গোয়ালন্দ ঘাট লাইনের সর্বশেষ স্টেশন হিসেবে গোয়ালন্দ ঘাট রেলওয়ে স্টেশন তৈরি করা হয়।

গোয়ালন্দ ঘাটের গুরুত্ব[সম্পাদনা]

পূর্ববর্তী কয়েক বছরে গোয়ালন্দ ঘাটের গুরুত্ব সম্পর্কে একটি সংক্ষিপ্ত বিবরণ রয়েছে: "কলকাতা থেকে ঢাকা পর্যন্ত রেললাইনটি গোয়ালন্দে শেষ হয়ে যায় এবং সেখানে থেকে নারায়ণগঞ্জ-এর সঙ্গে স্টিমারে যোগাযোগ অব্যাহত রাখা হয়। কলকাতা থেকে রাত্রি সকাল সকালের গোয়ালন্দে এক জমায়েত করে ... এটি (গোয়ালন্দ ঘাট) পদ্মা, বা গঙ্গা এবং ব্রহ্মপুত্রের সংযোগে অবস্থিত, এবং স্টিমারের দৈনিক পরিষেবা রেল ব্যবস্থার সাথে যুক্ত। নারায়ণগঞ্জ ও চাঁদপুরে এবং মাদারীপুর, বরিশাল, সিলেট ও ​​কাছার স্টিমার সার্ভিসের সাথে। শুকনো মৌসুমে দীঘা ঘাট থেকে পদ্মা পর্যন্ত এবং বর্ষাকালে বরাক এবং ব্রহ্মপুত্র নদী হয়ে ডিব্রুগড় পর্যন্ত স্টিমার পরিষেবা চালু ছিল। যেহেতু এটি দেখা যাবে যে গোয়ালন্দ ঘাট বাংলার জলপথের মধ্যে একটি অত্যন্ত শক্তিশালী কৌশলগত অবস্থান দখল করে নিয়েছে, এমন একটি অবস্থান যা রেলওয়ে উন্নয়নের চেয়ে অনেক শক্তিশালী হয়েছে। " [৫]

পরিষেবা[সম্পাদনা]

গোয়ালন্দ ঘাট রেলওয়ে স্টেশন দিয়ে যেসকল ট্রেন চলাচল করে নিম্নে তা উল্লেখ করা হলো:

সম্পর্কিত নিবন্ধ[সম্পাদনা]

ইস্ট বেঙ্গল এক্সপ্রেস

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. banerjee, Rahul। "Goalanda Ghat Railway Station Map/Atlas BR/Bangladesh Zone - Railway Enquiry"indiarailinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২২ 
  2. "স্টেশন মাষ্টারের ভুলে গোয়ালন্দ ঘাট গামী ট্রেন ফরিদপুর লাইনে"। ২০২০-০২-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২২ 
  3. "রেলওয়ে - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২২ 
  4. "কুষ্টিয়ায় দেশের প্রথম রেলওয়ে 'জগতি স্টেশন' বেহাল | সারাদেশ | The Daily Ittefaq"archive1.ittefaq.com.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২২ 
  5. "Goalundo Ghat - From the Hooghly to the Himalayas (1913)"। IRFCA। সংগ্রহের তারিখ ২১ অক্টোবর ২০১৭