গিল সান্স

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গিল সান্স
GillSansEG.svg
Categoryসেন্স-সেরিফ
Classificationদার্শনিক
Designer(s)এরিক গিল
Foundryমনোটাইপ
Date created১৯২৬
Date released১৯২৮ (মনোটাইপ)
Design based onজনস্টন
Variationsএরিক গিল

গিল সান্স হল একটি সান্স-সেরিফ মুদ্রাক্ষর, যা এরিক গিল দ্বারা পরিকল্পিত এবং ১৯২৮ খ্রিষ্টাব্দে থেকে মনোটাইপ ব্রিটিশ শাখা দ্বারা প্রকাশিত হয়।

গিল সান্স মুদ্রাক্ষর, যা এডওয়ার্ড জনস্টন দ্বারা তৈরি ১৯১৬ সালে লন্ডন ভূগর্ভস্থ কর্পোরেট ফন্ট বা "ভূগর্ভস্থ বর্ণমালা"র উপর ভিত্তি করে নির্মিত হয়। গিল একজন তরুণ শিল্পী হিসাবে ভূগর্ভস্থ বর্ণমালা নির্মানের প্রারম্ভিক উন্নয়ন পর্যায়ে জনস্টনকে সহায়তা করেছিল। ১৯২৬ সালে ব্রিটেনের একটি ছোট মুদ্রক-প্রকাশক ডগলাস ক্লিভার্ডন একটি বইয়ের দোকান খুললেন ব্রিস্টলে এবং গিল তাঁর দোকানের জন্য একটি ফ্যাসিটি আঁকেন সেন্স-সেরিফ মুদ্রাক্ষরে।[১] উপরন্তু, গিল ক্লাইসারনের জন্য বর্ণমালা তৈরি করেন এবং ভবিষ্যতে নোটিশ ও ঘোষণার জন্য তাকে ব্যবহার করতে হবে বলে একটি নির্দেশিকাও বর্ণনা করেছিলেন। এই সময়ের মধ্যে গিল একজন বিখ্যাত স্টোনমেসন, শিল্পী এবং স্বতন্ত্র লেখার স্রষ্টা হয়ে উঠেছিলেন এবং মুদ্রাক্ষরের নকশা তৈরিতে কাজ শুরু করেছিলেন।

গিল তার বন্ধু স্ট্যানলি মরিসনের কাছে ধাতব বর্ণমালাকে তৈর করার দায়িত্ব দিয়েছিলেন, তার বন্ধু ছিলেন প্রকাশনার একজন প্রভাবশালী মনোটাইপ নির্বাহী এবং ঐতিহাসিক। মরিসন আশা করেছিলেন যে এটি একটি নতুন "জ্যামিতিক" শৈলীতে নির্মিত ধাতব বর্ণমালা হবে এবং জার্মান সান্স-সেরিফ বর্ণমালার পরিবারগুলির জন্য মনোটাইপের প্রতিদ্বন্দ্বী হতে পারে, যার মধ্যে রয়েছে ইরবার, ফুতুরা এবং কেলব, যা ১৯২০-এর দশকের শেষের দিকে জার্মানিতে উল্লেখযোগ্য ভাবে সকলের মনোযোগ আকর্ষণ করেছিল। গিল সান্স ১৯২৮ সালে মনোটাইপ দ্বারা মুক্তি পায়, প্রাথমিকভাবে শিরোনামের ক্ষেত্র একটি সেট হিসাবে এটি দ্রুত নিম্নতর সেট বা ছোট অক্ষর দ্বারা অনুসরণ করা হতে থাকে। গিল প্রভাবিত ছিলেন জনস্টন, ক্লাসিক সেরিফ মুদ্রাক্ষর এবং রোমান লিপি তৈরির নকশা দ্বারা, যা একই সময়ে পরিষ্কারভাবে আধুনিক ও ক্লাসিক দেখায়।

"ঐতিহ্যগত সরলতা এবং বাস্তব সৌন্দর্য"-এর নকশা হিসাবে মনোটাইপ গিল সান্স বর্ণমালা বাজারজাত করা হয়।[২] এটি পোষ্টার এবং বিজ্ঞাপনের জন্য এবং সেইসাথে দস্তাবেজের পাঠ্যের জন্য ব্যবহৃত একটি প্রদর্শন মুদ্রাক্ষ হিসাবে বিবেচিত ছিল, সেইসাথে দস্তাবেজের পাঠ্যগুলির জন্য যা ছোট আকারে বা দূরত্ব থেকে স্পষ্টভাবে সুবিন্যস্ত করা প্রয়োজন, যেমন বই ব্লবার, সময়সীমা এবং মূল্য তালিকা। সেন্স-সেরিফ পাঠ্যে সম্পূর্ণরূপে ডকুমেন্ট তৈরির করার আগে নকশা করা হয়েছিল, তার অর্থ হল সবচেয়ে আধুনিক শারীরিক পাঠ্য বরণের চেয়ে উল্লেখযোগ্যভাবে সাহসী ছিল।

সাফল্যের পর, মুক্তিপ্রাপ্ত বছরেই লন্ডন এবং উত্তর-পূর্ব রেলওয়ের সব পোস্টার, সময়সীমা এবং প্রচারের উপাদানগুলির জন্য এই বর্ণমালাকে বেছে নেওয়া হয়েছিল। ১৯৪৮ সালে রেলওয়ে কোম্পানিগুলির জাতীয়করণ করা হলে ব্রিটিশ রেলগুলির জন্য গিল সান্সকে তার আদর্শ অক্ষরের ভিত্তি হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছিল। গিল সান্স খুব শীঘ্রই আধুনিকতাবাদী, পেঙ্গুইন প্রকাশনার বইগুলির ইচ্ছাকৃতভাবে সরল মলাট ব্যবহার করা হয়েছে এবং খুব বড় আকারের বিক্রি করা হতো যা প্রায়ই ব্রিটিশ পোস্টারগুলিতে ব্যবহৃত হত এবং সময়কালের বিজ্ঞপ্তিতেও এই বর্ণমালা ব্যবহৃতসহত। বছরের পর বছর ধরে ব্রিটিশ প্রকাশনাগুলিতে গিল সান্স প্রভাবশালী মুদ্রাক্ষরে পরিণত হয়েছিল এবং এটি অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিল: এই ব্রিটিশ নকশার দীর্ঘস্থায়ী জনপ্রিয়তার কারণে "ব্রিটিশ হেললেটিকা" হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছে। গিল সান্স আরো অনেক ধরনের মুদ্রাক্ষরে প্রভাব ফেলেছে এবং সান-সেরিফের একটি ধরনকে সংজ্ঞায়িত করতে সাহায্য করেছে, যা মানবতার শৈলী হিসাবে পরিচিত।

একটি মৌলিক সেট কিছু মাইক্রোসফ্ট সফটওয়্যার এবং ম্যাকোসের সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Sedley, Stephen। "What happened to the manuscript of 'Under Milk Wood'"London Review of Books। সংগ্রহের তারিখ ২৭ অক্টোবর ২০১৭ 
  2. "Promotional Poster, 1928"Red List। Monotype। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]