গিলগিত বিমানবন্দর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গিলগিট বিমানবন্দর
Gilgit Airport.jpg
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
বিমানবন্দরের ধরনসর্বো সাধারন বা পাবলিক
পরিচালকপাকিস্তান সিভিল অভিয়েশন অথরিটি
সেবা দেয়গিলগিট, গিলগিত-বালতিস্তান, (ভারত-পাকিস্তানের বিতর্কিত অঞ্চল)
এএমএসএল উচ্চতা৪,৭৯৬ ফুট / ১,৪৬২ মিটার
মানচিত্র
GIL পাকিস্তান-এ অবস্থিত
GIL
GIL
রানওয়েসমূহ
দিকনির্দেশনা দৈর্ঘ্য পৃষ্ঠতল
ফুট মি
০৭/২৫ ৫,৪০০ ১,৬৪৬ অ্যাসফল্ট

গিলগিট বিমানবন্দর হল পাকিস্তান এর অধীনস্ত গিলগিত-বালতিস্তান এর একটি প্রধান বিমান বন্দর। গিলগিট শহর থেকে বিমানবন্দরটি ২.৩ কিলোমিটার (১.৪ মা)।বিমানবন্দরটি সঙ্গে ইসলামাবাদ বিমানবন্দরের বিমান পরিসেবা চালু রয়েছে। এই বিমানবন্দর প্রধানত ব্যবহার করে পর্যটকেরা। ইসলামাবাদ থেকে কারাকোরাম হাইওয়ে হয়ে গাড়িতে গিলগিট আসতে সময় লাগে ১৫ ঘন্টা এবং বাসে সময় লাগে ২৪ ঘন্টা কিন্তু বিমানে লাগে ১ ঘন্টা ফলে পর্যটকেরা বিমান পরিবহন ব্যবহার করে গিলগিট আসতে। ইসলামাবাদ-গিলগিট রুটে শুধুমাত্র পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স বিমান চালায়। বিমান পরিবহন সংস্থাটি এই রুটে ৪২ আসনের এটিআর-৪২ বিমান পরিচালনা করে। পর্যটন মরশুম যেমন শীতকালে এই বিমান বন্দরে যাত্রী চলাচল বৃদ্ধি পায়।[২]

অবস্থান[সম্পাদনা]

বিমান বন্দরটি ৩৫.৫৫ উত্তর ও ৭৪.১৮ পূর্বে অবস্থিত। এটি সমুদ্র সমতল থেকে ১৪৬২ মিটার উচ্চতায় অবস্থিত। এই বিমান বন্দরটি পার্বত্য অঞ্চলে অবস্থিত হওয়ায় এর রানওয়ে ছোট।

পরিকাঠামো[সম্পাদনা]

গিলগিট বিমানবন্দর
গিলগিট বিমানবন্দরে একটি বিমান

বিমানবন্দরটির রানওয়ে ১৬৪৬ মিটার হওয়ায় বোরিং ৭৩৭ এর মত বড় বিমান বিমানবন্দরটিতে নামতে পারেনা। ছোট বিমান চালু রয়েছে বিমানবন্দরটিতে। পাকিস্তান ইন্টারনেশনাল এয়ারলাইন এটিআর-৪২ বিমান এই বিমানবন্দর থেকে চালায়। এই পরিসেবার অগে সেনাবাহীনির লোকহেড সি-১৩০ হারকিউলাস বিমান পরিচালনা করা হত ইসলামাবাদ-গিলগিট রুটে। এর পর এই রুটে কিছু দিন ফোকার এফ-২৭ ফ্রেন্ডশিপ বিমান চালানো হয়। বর্তমানে এই বিমানের পরিবর্তে এটিআর -৪২ বিমান পরিচালনা করা হয়। গিলগিত-ইসলামাবাদ রুটে। ২০১৪ সালে পাকিস্তানএর প্রধান মন্ত্রী নওয়াজ শরিফ গিলগিট বিমানবন্দরে একটি নতুন ও আধুনিক টার্মিসান নির্মাণের প্রস্তাব করেন। বর্তমানে এই বিমানবন্দরে একটি নতুন আধুনিক টার্মিনাসের নির্মাণ চলছে।[৩] এই টার্মিনাসে থাকবে অত্যাধুনিক ব্যাগ পরীক্ষা ব্যবস্থা, বৃহৎ অপেক্ষা বা বসবার ব্যবস্থা, পানীয় জল ও শৌচালয়ের সুব্যবস্থা। এই বিমানবন্দরের সঙ্গেই রয়েছে একটি সুন্দর হ্রদ। এই হ্রদকে কেন্দ্র করে একটি পার্ক গড়ে উঠেছে। এই পার্কটি সিএএ পার্ক বা গিলগিট সিটি পার্ক হিসাবে পরিচিত। গিলগিত শহর থেকে বিমানবন্দরটি ২.৩ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। ফলে এই বিমাবন্দরকে যুক্তকারি ২.৩ কিলোমিটার পথের আধুনিকীকরণ ও এই পথে যাত্রী পরিবহনের উন্নয়নে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে পাকিস্তান সরকারগিলগিত-বালতিস্তান সরকারের থেকে। ওই পথের আধুনিকীকরণ সম্পূর্ন হলে শহরের কেন্দ্রীয় এলাকা থেকে বিমানবন্দরে যোগাযোগ সহজ ও আরামদায়ক হবে।

সমস্যা[সম্পাদনা]

বিমান্দরটিতে কিছু সমস্যা রয়েছে। এই বিমানবন্দরের রানওয়ে ১৬৪৬ মিটার। বলে এই ছোট রানয়েতে বড় বিমান অবতরন করানো যায় না। আবার বিমানবন্দরটিতে কুয়াশার সমস্যা রয়েছে। ফলে কুয়াশা বিমান পরিচালনায় বাধা সৃষ্টি করে। এছাড়া বিমান বন্দরটি থেকে রাতে বিমান পরিচালনার কোনো ব্যবস্থা নেই।

বিমান পরিবহন সংস্থা ও গন্তব্য[সম্পাদনা]

বিমান পরিবহন সংস্থা গন্তব্য ধরন
পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স ইসলামাবাদ অভ্যান্তরিন

দুর্ঘটনা[সম্পাদনা]

১৯৯৮ সালের ২৫ আগস্ট এই বিমানবন্দরে ফোকার F-২৭ বিমান ৫৪ জন যাত্রিনিয়ে দুর্ঘটনার কবলে পরে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Gilgit-Pakistan World Airport Codes"। সংগ্রহের তারিখ ০৩-১১-২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "Muharram, Gilgit gives peace a chance"Dawn। সংগ্রহের তারিখ ০৩-১১-২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "AIP Pakistan:OPGT-Gilgit" [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]