ক্লেয়ার কনর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ক্লেয়ার কনর
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামক্লেয়ার জোয়ান কনর
জন্ম (1976-09-01) ১ সেপ্টেম্বর ১৯৭৬ (বয়স ৪৩)
ব্রাইটন, ইংল্যান্ড
ডাকনামদেস ও
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনস্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১২০)
১০ ডিসেম্বর ১৯৯৫ বনাম ভারত
শেষ টেস্ট২৪ আগস্ট ২০০৪ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ওডিআই অভিষেক১৯ জুলাই ১৯৯৫ বনাম ডেনমার্ক
শেষ ওডিআই১ সেপ্টেম্বর ২০০৫ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ওডিআই শার্ট নং
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৯১–বর্তমানসাসেক্স মহিলা
২০০৪–২০০৫সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টস হিন্ডস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই টি২০আই
ম্যাচ সংখ্যা ১৬ ৯৩
রানের সংখ্যা ৫০২ ১০৮৭ ১৫
ব্যাটিং গড় ২০.০৮ ১৬.৪৬ ১৫.০০
১০০/৫০ ০/১ ০/৫ –/–
সর্বোচ্চ রান ৬১ ৮৫* ৯*
বল করেছে ২০৬১ ৩৫৮০ ৩৬
উইকেট ২৪ ৮০
বোলিং গড় ২৭.৯১ ২৬.০১
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৫/৬৫ ৫/৪৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৭/– ২৫/০ ২/০
উৎস: ক্রিকেটআর্কাইভ.কম, ৫ মে ২০১৭

ক্লেয়ার জোয়ান কনর, ওবিই (ইংরেজি: Clare Connor; জন্ম: ১ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৬) ব্রাইটনে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা সাবেক ইংরেজ প্রমিলা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। বর্তমানে তিনি আইসিসি’র মহিলাবিষয়ক কমিটির প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন।[১] ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার। ডানহাতে ব্যাটিংসহ স্লো লেফট আর্ম স্পিন বোলিংয়ে দক্ষতা প্রদর্শন করেছেন ক্লেয়ার কনর[২]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

১ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৬ তারিখে পূর্ব সাসেক্সের ব্রাইটন এলাকায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি।[৩] ম্যানচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিষয়ে পড়াশোনা করেন ও ১৯৯৮ সালে স্নাতকধারী হন। ম্যানচেস্টারে অবস্থানকালে ক্লেয়ার হিউম হলে বসবাস করতেন।

ব্রাইটন কলেজে থাকাকালে ব্যক্তিগত সম্পর্ক কার্যক্রমে অংশ নেন ও ইংরেজি, পিএসএইচই এবং পিই শিক্ষা লাভ করেন। এছাড়াও চ্যানেল ফোরে খণ্ডকালীন চাকুরী করতেন।

সাসেক্সের শীর্ষস্থানীয় ক্লাব প্রেস্টন নোম্যাডসের অনূর্ধ্ব-১৬ দলে খেলেন ও অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন। এছাড়াও তিনি সংক্ষিপ্তকালের জন্য ব্রাইটন কলেজ পুরুষ দলে খেলেন। এরপরই ইংল্যান্ড দলে বর্ণাঢ্যময় খেলোয়াড়ী জীবনের সূত্রপাত ঘটে। ২০০২ সালে মহিলাদের উদ্বোধনী ক্রিকেটার কাপে অংশ নেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৫ সালে ইংল্যান্ডের পক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে তার। ঐ মৌসুমেরই শীতকালে প্রথম টেস্টে অংশগ্রহণ করেন তিনি। ১৯৯৯ সালে ভারতের বিপক্ষে হ্যাট্রিক করে বসেন। ২০০০ সাল থেকে অবসর নেয়ার পূর্ব-পর্যন্ত ইংল্যান্ড দলের অধিনায়কত্ব করেন।

২০০৫ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপে দলকে সেমি-ফাইনালে নিয়ে যান। ঐ মৌসুমের শীতকালে নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া ক্রিকেটে সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টস ওম্যান দলের পক্ষে রাজ্য ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেন। ২০০৪-০৫ মৌসুমে ইংল্যান্ড দলের অধিনায়কের দায়িত্ব লাভ করেন।

সম্মাননা[সম্পাদনা]

২০০৪ সালে মহিলাদের ক্রিকেটে অসামান্য অবদান রাখায় রাণীর জন্মদিনের সম্মাননায় এমবিই পদবীতে ভূষিত হন। এরপর ২০০৬ সালে নববর্ষের সম্মাননায় তাকে ওবিই পদবী প্রদান করা হয়। একই সময়ে পুরুষদের অ্যাশেজ বিজয়ী দলকেও সম্মানিত করা হয়েছিল। ২০০৬ সালে প্রথম মহিলা হিসেবে ল্যাশিংস বিশ্ব একাদশের পক্ষে সর্বতারকা দাতব্য দলে খেলেন।[৪][৫]

২০০৬ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেন তিনি।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ICC announces major boost to Women's World Cup prize-money"ESPN Cricinfo। ৫ মে ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৭ 
  2. "Clare Connor"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১২ আগস্ট ২০১৫ 
  3. "CONNOR, Clare Joanne"Who's Who 2016। Oxford University Press। নভেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ৫ এপ্রিল ২০১৬ 
  4. BBC News article, 13 March 2006
  5. "Lashings player biography"। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ অক্টোবর ২০১৬ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]