ক্রমবিকৃতি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
একটি শক্ত কাগজের বাক্সের একাংশের উপরে দীর্ঘ সময় ধরে চাপ প্রয়োগের কারণে ক্রমবিকৃতির ফলাফল

উপাদান বিজ্ঞানের আলোচনায় ক্রমবিকৃতি (Creep ক্রিপ) বলতে নতিবিন্দুর (Yield point ইল্ড পয়েন্ট) অনেক নিচে ক্রমাগত উচ্চমাত্রার যান্ত্রিক পীড়নের প্রভাবে সময়ের সাথে সাথে কোনও কঠিন উপাদানের (বিশেষত ধাতুর) স্থায়ীভাবে বিকৃত হবার প্রবণতাকে বোঝায়। যেসমস্ত উপাদান দীর্ঘ সময় ধরে উত্তপ্ত থাকে সেগুলিতে ক্রমবিকৃতি অধিকতর গুরুতর হয়ে থাকে এবং তাপমাত্রা গলনাংকে কাছাকাছি পৌঁছালে ক্রমবিকৃতির পরিমাণ বৃদ্ধি পায়।

বিকৃতির হার উপাদানের ধর্মাবলি, অনাবৃতির স্থায়িত্ব, অনাবৃতি তাপমাত্রা এবং প্রযুক্ত কাঠামোগত ভারের উপরে নির্ভর করে। প্রযুক্ত পীড়নের মান ও এর স্থায়িত্বের কারণে বিকৃতি এত বেশি হতে পারে যে কোনও গাঠনিক উপাদান আর তার উদ্দীষ্ট কার্য সম্পাদন করতে পারে না। যেমন কোনও ঘূর্ণযন্ত্র বা টার্বাইনের একটি ফলাতে (ব্লেড) ক্রমবিকৃতি ঘটলে ফলাটি টার্বাইনের আবরণীর সাথে ঘষা খেতে পারে, যার ফলে ফলাটির কাঠামোগত বৈকল্য (স্ট্রাকচারাল ফেইলিওর) ঘটতে পারে। আবার এর বিপরীতে কংক্রিটে মধ্যম পরিমাণের ক্রমবিকৃতি কদাচিৎ বাঞ্ছনীয়, কেননা এটি প্রসারণজনিত পীড়ন (টেনসাইল স্ট্রেস) লাঘব করে সম্ভাব্য ফাটল নিরোধ করে।

পীড়ন প্রয়োগের ফলে ভঙ্গুর ভাঙন (ব্রিটল ফ্র্যাকচার) যেমন হঠাৎ করে ঘটে, ক্রমবিকৃতি তেমন হঠাৎ করে সংঘটিত হয় না। এর বিপরীতে দীর্ঘমেয়াদী পীড়নের কারণে বিকৃতি ক্রমপুঞ্জিত হতে থাকে। সুতরাং ক্রমবিকৃতি এক ধরনের সময়ের উপরে নির্ভরশীল বিকৃতি।