কৃষ্ণের মাখন নাড়ু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কৃষ্ণের মাখন নাড়ু

কৃষ্ণের মাখন নাড়ু (অপর নাম: বাণ ইরাই কল[১]কৃষ্ণের বিশালাকায় মাখন নাড়ু) হল ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের ইতিহাস-প্রসিদ্ধ শহর মহাবলীপুরমে অবস্থিত বিশালাকার একটি গ্র্যানাইট প্রস্তরখণ্ড। ভূমিতল থেকে ১.২-মিটার (৪ ফু) উচ্চতায় একটি ঢালু অংশে সামান্য নত অবস্থায় অথচ ভারসাম্য বজায় রেখে দাঁড়িয়ে রয়েছে এই পাথরটির।[২] এটির উচ্চতা প্রায় ৬ মিটার, প্রস্থ ৫ মিটার ও ওজন প্রায় ২৫০ টন।[৩] একাংশ ক্ষয়প্রাপ্ত হওয়ায় পাথরটিকে এখন অর্ধ-গোলাকৃতি মনে হয়। প্রচলিত বিশ্বাস অনুসারে, বিগত ১,২০০ বছর ধরে পাথরটি একই স্থানে রয়েছে।[১][৪] কথিত আছে, পল্লব সম্রাট নরসিংহবর্মণ পাথরটি স্থানচ্যূত করার চেষ্টা করতে গিয়ে ব্যর্থ হন। ১৯০৮ সালে মহাবলীপুরমের তৎকালীন গভর্নর আর্থার হ্যাভলক নিরাপত্তাজনিত কারণে সাতটি হাতির সাহায্যে পাথরটি সরানোর চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু তাঁর প্রচেষ্টাও সফল হয়নি।

কৃষ্ণের মাখন নাড়ুর পার্শ্বচিত্র

পাথরটির প্রকৃত নাম বাণ ইরাই কলঅ্যাটলাস অবস্‌কুরার মতে, তামিল ভাষায় এই নামের অর্থ আকাশ দেবতার পাথর[১] হিন্দু পুরাণে বালক কৃষ্ণের মাখন চুরির গল্প পাওয়া যায়। সম্ভবত সেই উপাখ্যানের পরিপ্রেক্ষিতেই এই পাথরটির বর্তমান নামটি রাখা হয়েছে।[১] ১৯৬৯ সালে প্রকাশিত একটি পর্যটন সহায়িকায় উল্লিখিত তথ্য অনুসারে, মহাবলীপুরম সফরে এসে ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী এই পাথরটির নাম রাখেন কৃষ্ণের মাখন নাড়ু (মূল ইংরেজিতে: Krishna’s Butterball)।[৫]

কথিত আছে, দক্ষিণ ভারতের তামিল চোল সম্রাট প্রথম রাজারাজ চোল বিশালাকায় এই পাথরটির ভারসাম্য বজায় রাখার অদ্ভুত ক্ষমতা দেখে অনুপ্রাণিত হয়ে তাঞ্জাভুর বোম্মাই নামে এক বিশেষ ধরনের পুতুল তৈরি করেন। এই পুতুলটি একটি অর্ধ-গোলাকৃতি ভিত্তির উপর দাঁড়িয়ে থাকে এবং কেউ সেটিকে ফেলে দেওয়ার চেষ্টা করলে সেটি পড়ে না গিয়ে আবার আগের জায়গায় ফিরে আসে।[৬]

কৃষ্ণের মাখন নাড়ু নামে পরিচিত প্রস্তরখণ্ডটি পেরুর ওলানটাইটাম্বোমাচু পিচুর একশিলা স্তম্ভগুলির চেয়েও বড়ো ও বেশি ভারী।[৭] কৃষ্ণের মাখন নাড়ু শহরের একটি জনপ্রিয় পর্যটন আকর্ষণ[৮] এবং ভারতীয় পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণের ঐতিহাসিক স্মারক তালিকার অন্তর্ভুক্ত।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Krishna's Butter Ball"Atlas Obscura। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৯-২৭ 
  2. Eric Grundhauser (৪ আগস্ট ২০১৫)। "The Delicately Balanced Beauty of Krishna's Butter Ball"Slate। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১৬ 
  3. Samonway Duttagupta (৫ এপ্রিল ২০১৬)। "7 of the most incredible natural wonders in India"India Today। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১৬ 
  4. Neha Borkar (ফেব্রুয়ারি ৭, ২০১৬)। "This Is Krishna's Mysterious 'Butter Ball' Rock And It Has Never Rolled Downhill"IndiaTimes। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৬ 
  5. "Krishna's Butter Ball - Ancient Aliens In India? ~ Places on the planet you must see"। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১৬ 
  6. Physics Class 9। Pearson Education India। পৃষ্ঠা 184। আইএসবিএন 8131728463 
  7. Neha Borkar (৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৬)। "This Is Krishna's Mysterious 'Butter Ball' Rock And It Has Never Rolled Downhill"indiatimes.com। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১৬ 
  8. Neha Vashishth (১৬ এপ্রিল ২০১৬)। "These Mysterious Places In India Totally Defy Gravity!"dailybhaskar। সংগ্রহের তারিখ ২২ মে ২০১৬ 
  9. "List of Ancient Monuments and Archaeological Sites and Remains of Chennaiand Thrissur Circle - Archaeological Survey of India"asi.nic.in। সংগ্রহের তারিখ ২২ মে ২০১৬ 

স্থানাঙ্ক: ১২°৩৭′০৯″ উত্তর ৮০°১১′৩২″ পূর্ব / ১২.৬১৯১° উত্তর ৮০.১৯২৩° পূর্ব / 12.6191; 80.1923