কৃত্রিম নির্বাচন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
এই মিশ্র চিহুয়াহুয়া গোত্র(Chihuahua mix) আর গ্রেট ডেইন গোত্র(Great Dane) কৃত্রিম নির্বাচনের মাধ্যমে সৃষ্ট কুকুর প্রজাতির বিচিত্র গোত্রের প্রতিনিধিত্ব করে।
Selective breeding transformed teosinte's few fruitcases (left) into modern corn's rows of exposed kernels (right).

কৃত্রিম নির্বাচন বলতে বিশেষ কোন বৈশিষ্ট্য বা বৈশিষ্ট্য সমষ্টির জন্য প্রজনন করানোকে বোঝায়। চার্লস ডারউইন শব্দটি "প্রাকৃতিক নির্বাচন" এর বিপরীতে ব্যবহার করেছিলেন, যেখানে কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট্য ধারণকারী প্রাণীর পার্থক্যযুক্ত প্রজননের পেছনে উন্নততর প্রজননগত অথবা টিকে থাকার যোগ্যতার ভুমিকা থাকে। প্রাকৃতিক নির্বাচনের ক্ষেত্রে যেখানে পরিবেশ কিছু বিশেষ প্রকরণকে টিকে থাকতে দিয়ে একটি ছাকনির মত কাজ করে, সেখানে কৃত্রিম নির্বাচনের ক্ষেত্রে মানুষই এই "ছাকনি" এর ভূমিকা পালন করে।

কৃত্রিম নির্বাচন পরীক্ষামূলক জীববিজ্ঞানের পাশাপাশি নতুন নতুন ঔষধ উদ্ভাবনের ক্ষেত্রেও ব্যবহৃত হচ্ছে।

কৃত্রিম নির্বাচন অনিচ্ছাকৃতও হতে পারে; ধারণা করা হয় যে প্রাচীন মানুষ না বুঝেই ফসলকে পোষ মানিয়েছিল।[১]

ঐতিহাসিক বিকাশ[সম্পাদনা]

রোমানরা কৃত্রিম নির্বাচনের চর্চা করত।[২] ২০০০ বছরের মত পুরনো রোমান পুস্তকগুলোতে নানা কাজের জন্য প্রাণী নির্বাচনের জন্য উপদেশ দেওয়া হয়েছিল এবং সেই পুস্তকগুলোতে আরও প্রাচীন পুস্তকের উদ্ধৃত দেওয়া হয়েছিল, যাদের রচয়িতার মধ্যে রয়েছে ম্যাগো দ্যা কারথেজিনিয়ান।[৩] পরে একাদশ শতকে ফার্সি মুসলমান বহুবিদ্যাজ্ঞ আবু রায়হান বিরুনি কৃত্রিম নির্বাচন নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি তাঁর ইন্ডিয়া নামক গ্রন্থে এই বিষয়ে আলোচনা করেন এবং বেশ কিছু উদাহরণ পেশ করেন।[৪]

চার্লস ডারউইন প্রাকৃতিক নির্বাচন ব্যাখ্যা করার উদ্দেশ্যে এই শব্দটি উদ্ভাবন করেন। ডারউইন খেয়াল করেছিলেন যে পোষ মানানো প্রাণী ও উদ্ভিদের কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা তাদের আদিম পুর্বসূরীদেরকে প্রজননে উৎসাহী করার মাধ্যমে বিকশিত করা হয়েছিল, যেসব আদিম পূর্বসূরীদের এই বৈশিষ্ট্যগুলো ছিল না তাদের প্রজনন নিরুৎসাহিত করা হয়েছিল।

ডারউইন ১৮৫৯ সালে প্রকাশিত তাঁর অরিজিন অব স্পিসিজ গ্রন্থের চতুর্থ ও ষষ্ঠ অধ্যায়ে দু'বার শব্দটি ব্যবহার করেন।

প্রাকৃতিক নির্বাচনের সাথে বৈসাদৃশ্য[সম্পাদনা]

প্রাকৃতিক নির্বাচন ও কৃত্রিম নির্বাচনের অধঃস্থ জিনগত প্রক্রিয়ার মাঝে কোন পার্থক্য নেই, এবং চার্লস ডারউইন এই ধারণাটিকেই ব্যবহার করে আরও বিস্তৃত প্রাকৃতিক নির্বাচনের ধারণাটি ব্যাখ্যা করেছিলেন। নির্বাচন প্রক্রিয়াটিকে তখনই "কৃত্রিম" বলা হয় যখন কোন নির্দিষ্ট জনগোষ্ঠী কিংবা প্রজাতির বিবর্তনে মানব সংশ্লিষ্টতার গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব থাকে। বস্তুত, অনেক বিবর্তনীয় জীববিজ্ঞানী পোষণকে(domestication) এক প্রকার প্রাকৃতিক নির্বাচন ও অভিযোজনীয় পরিবর্তন হিসেবে দেখেন যা মূলত মানুষের নিয়ন্ত্রণে থাকা প্রাণীদের মধ্যে ঘটে থাকে।

তবে পরিবেশ নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে অনিচ্ছাকৃতভাবে সাধিত কৃত্রিম নির্বাচন থেকে গবেষণাগারে ডিএনএ সিকোয়েন্স পরিবর্তন করে সাধিত ইচ্ছাকৃত কৃত্রিম নির্বাচন আলাদা করা জরুরী। গবেষণাগারে জিন রদলবদল করার সাথে প্রকৃতিতে ঘটমান প্রক্রিয়ার খুব কমই সাদৃশ্য রয়েছে।

গবেষণাগারে ব্যবহার[সম্পাদনা]

পরীক্ষামূলক জীববিজ্ঞান, বিশেষ করে অণুজীববিজ্ঞান এবং জেনেটিক্সের ক্ষেত্রে প্রায়ই নির্বাচনী শক্তিকে কাজে লাগানো হচ্ছে। জিন প্রকৌশলে একটি অতি ব্যবহৃত পদ্ধতি হল ট্রান্সফেকশন, যেখানে ব্যাকটেরিয়ার প্লাসমিড নামক গোলাকার ডিএনএতে জিন ঢুকিয়ে দেওয়া হয়। প্লাসমিডে কাঙ্খিত জিনের পাশাপাশি প্রতিবেদক জিন(reporter gene) কিংবা "নির্বাচ্য নির্দেশক"(selectable marker) থাকে, যা জীবাণুনাশক বিরোধী প্রতিরোধক্ষমতা কিংবা প্রচন্ড লবণাক্ত পরিবেশে বেড়া উঠতে পারার মত বৈশিষ্ট্য সৃষ্টি করে। কোষগুলোকে এরপর এমন একটি পরিবেশে চাষ করা হয় যেখানে তারা সাধারণ কোষগুলোকে মেরে ফেলবে কিন্তু ওই বিশেষ জিন ধারণকারী প্লাসমিডওয়ালা কোষগুলোকে ছাড় দিবে। এভাবে প্রতিবেদক জিনের ক্রিয়া থেকে বোঝা যায় কাঙ্খিত জিনটিও ঠিকমত ক্রিয়া করছে।

ঔষধ প্রস্তুতকরণ।ঔষধ প্রস্তুতকরণের ক্ষেত্রে ইন ভিট্রো নির্বাচনের সাহায্যে এপটেমার অথবা কিছু বিশেষ জৈব যৌগের প্রতি রাসায়নিক আসক্তি আছে এমন নিউক্লেইক এসিড খন্ড কৃত্রিমভাবে বিবর্তিত করা হয়।

বিবর্তনীয় শারীরবৃত্ত, আচরণগত জেনেটিক্স সহ জীববিজ্ঞান।জীববিজ্ঞানের অন্য ক্ষেত্রগুলোতেও কৃত্রিম নির্বাচন কাজে লাগানো হয়েছে, যদিও দীর্ঘ প্রজন্ম কাল এবং প্রজননসংক্রান্ত জটিলতার কারণে মেরুদন্ডী প্রাণীদের উপর এরুপ গবেষণা বেশ কষ্টসাধ্য প্রমাণিত হয়েছে।[৭][৮][৯]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Artificial Selection PowerPoint, University of Wisconsin-Madison
  2. Buffum, Burt C. Arid Agriculture; A Hand-Book for the Western Farmer and Stockman , p. 232. Accessed at [১], June 20, 2010.
  3. Lush, Jay L. Animal Breeding Plans , p. 21. Accessed at [২], June 20, 2010.
  4. Jan Z. Wilczynski (ডিসেম্বর ১৯৫৯)। "On the Presumed Darwinism of Alberuni Eight Hundred Years before Darwin"। Isis 50 (4): 459–466 [459–61]। 
  5. Darwin 1859, পৃ. [৩]
  6. Darwin 1859, পৃ. 197–198
  7. Swallow JG, Garland T, Jr. (2005). Selection experiments as a tool in evolutionary and comparative physiology: insights into complex traits—an introduction to the symposium. Integr Comp Biol , 45:387–390.PDF
  8. Garland T, Jr. (2003). Selection experiments: an under-utilized tool in biomechanics and organismal biology. Ch.3, Vertebrate Biomechanics and Evolution ed. Bels VL, Gasc JP, Casinos A. PDF
  9. Garland T, Jr., Rose MR, eds. (2009). Experimental Evolution: Concepts, Methods, and Applications of Selection Experiments . University of California Press, Berkeley, California. In press.