কুহেলিকা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
কুহেলিকা
লেখক কাজী নজরুল ইসলাম
প্রচ্ছদ শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী
দেশ ভারত
বাংলাদেশ
ভাষা বাংলা
ধরন উপন্যাস
প্রকাশিত ১৯৩১
প্রকাশক নওরোজ ও সওগাত (১৯২৭)

কুহেলিকা বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম রচিত একটি উপন্যাস। ১৩৩৪ বঙ্গাব্দের আষাঢ় মাসে কলকাতা থেকে প্রকাশিত মাসিক নওরোজ পত্রিকায় "কুহেলিকা" উপন্যাসের প্রথম অংশ প্রকাশিত হয়। তার কিছুদিন পর নওরোজ বন্ধ হয়ে গেলে সওগাত পত্রিকায় তা ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হয়।[১] ১৯৩১ সালে এটি প্রথম গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হয়।[২] এই উপন্যাসের মধ্য দিয়ে নজরুলের রাজনৈতিক আদর্শ ও মতবাদ প্রতিফলিত হয়েছে। বিপ্লবী যুবক জাহাঙ্গীর চরিত্র দিয়ে সমাজনীতি, রাজনীতি, ধর্মনীতির সফল প্রতিফলন ঘটেছে এই উপন্যাসে।[৩] উপন্যাসের রূপরেখা সমসাময়িক হলেও লেখক কাহিনী পরিচর্যা করেছেন নিজের মত করে। ব্যঙ্গ, হাস্যরস ও প্রাণের স্পর্শের পাশাপাশি মিথ-কথনের প্রয়াস রয়েছে।[৪]

কাহিনী সংক্ষেপ[সম্পাদনা]

তরুণ কবি হারুনের মেসে তার রচিত 'নারী কুহেলিকা' কবিতা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। জাহাঙ্গীর একজন বিপ্লবী স্বদেশী দলের কর্মী। নারী সম্পর্কে তার ধারণা নেতিবাচক। সে মনে করে ইহারা মায়াবিনীর জাত। ইহারা সকল কল্যাণের পথে মায়াজাল পাতিয়া রাখিয়াছে। ইহারা গহণ পথের কণ্টক, রাজপথের দস্যু। জাহাঙ্গীরের সাথে যোগসূত্র রয়েছে হিন্দু বিপ্লবী প্রমথের।

প্রধান চরিত্র[সম্পাদনা]

  • জাহাঙ্গীর - বিপ্লবী স্বদেশী দলের কর্মী
  • হারুন - তরুণ কবি
  • প্রমথ - হিন্দু বিপ্লবী
  • চম্পা
  • তাহমিনা (ভুণী)
  • ফিরদৌস বেগম

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. অধ্যাপক মতিউর রহমান, "নজরুলের গদ্য সাহিত্য"
  2. ইমন, নাজমুল হক (২৭ আগস্ট ২০১৫)। "কাজী নজরুল ইসলামের কয়েকটি বই"দৈনিক মানবকণ্ঠ। সংগ্রহের তারিখ ১২ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  3. অপু, পংকজ দেব (২৮ আগস্ট ২০১৫)। "নজরুলের উপন্যাসে ।। নিম্নজীবী মানুষের প্রতিবাদী স্বর"দৈনিক আজাদী। সংগ্রহের তারিখ ১২ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  4. আহমদ, বোরহান উদ্দিন (২৯ মে ২০১৬)। "নজরুলের উপন্যাস"দৈনিক জনতা। সংগ্রহের তারিখ ১২ ডিসেম্বর ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]