কুজুল কদফিসেস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
কুজুল কদফিসেস
কুষাণ সম্রাট
কুজুল কদফিসেসের মুদ্রা
রাজত্বকাল ৩০-৮০
পূর্বসূরি হেরায়ুস
উত্তরসূরি ভীম তক্তো
সন্তানাদি ভীম তক্তো

কুজুল কদফিসেস (রাজত্বকাল ৩০–৮০ খ্রিস্টাব্দ) (গ্রিক: Κοζουλου Καδφιζου বা Κοζολα Καδαφες) প্রথম কুষাণ সম্রাট ছিলেন যিনি ইউয়েঝি জনজাতির জিউমি (চীনা ভাষায়: 休密), গুইশুয়াং (চীনা ভাষায়: 貴霜), শুয়াংমি (চীনা ভাষায়: 雙靡), জিদুন (চীনা ভাষায়: 肸頓) ও দুমি (চীনা ভাষায়: 都密) নামক পাঁচটি গোষ্ঠীকে[১] একত্র করে কুষাণ সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেন।

চীনা উৎস[সম্পাদনা]

হোউ হান শু নামক চীনা গ্রন্থে কুজুল কদফিসেস দ্বারা কুষাণ সাম্রাজ্য পত্তনের ইতিহাস বর্ণিত রয়েছে। এই গ্রন্থানুসারে, ইউয়েঝি জনজাতির দ্বারা গ্রিক-ব্যাক্ট্রিয় রাজ্য আক্রমণের একশো বছরেরও পরে গুইশুয়াংয়ের রাজপুত্র চিউজিউকিউ (=কুজুল কদফিসেস) ইউয়েঝি জনজাতির বাকি চারটি গোষ্ঠীকে আক্রমণ ও ধ্বংস করে নিজেকে গুইশুয়াং রাজা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন। তিনি আংজি আক্রমণ করেন ও গাওফু অধিকার করেন। এছাড়া তিনি পুদা, কপিশাজিবিন অধিকার করে নেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল আশি বছর।[পা ১]

রবাতক শিলালিপি[সম্পাদনা]

১৯৯৩ খ্রিস্টাব্দে আফগানিস্তানের রবাতক নামক স্থান থেকে আবিষ্কৃত ব্যাক্ট্রিয় ভাষায় গ্রিক লিপিতে উৎকীর্ণ একটি শিলালিপি থেকে কুষাণ সম্রাট কণিষ্কের পিতৃপুরুষদের নাম পাওয়া যায়। এই লিপি থেকেই জানা যায় যে, কণিষ্কের প্রপিতামহ ছিলেন কুজুল কদফিসেস এবং পিতামহ ছিলেন ভীম তক্তো[৪][৫][৬]

মুদ্রা[সম্পাদনা]

কুজুল কদফিসেসের মুদ্রায় ইন্দো-গ্রিক শাসক এর্মাইওস সোতেরের প্রতিকৃতি

কুজুল কদফিসেসের প্রথম জীবনের বেশ কিছু মুদ্রার এক পিঠে বাসিলেওস স্তিরোস্সু এর্মাইওউ (গ্রিক: ΒΑΣΙΛΕΩΣ ΣΤΗΡΟΣΣΥ ΕΡΜΑΙΟΥ) কথাটি উৎকীর্ণ রয়েছে, যা ইন্দো-গ্রিক শাসক এর্মাইওস সোতেরের নাম ও উপাধি চিহ্নিত করে। মুদ্রাগুলিতে দিয়াদেম পরিহিত এর্মাইওস সোতেরের প্রতিকৃতিও মুদ্রিত রয়েছে। এই মুদ্রাগুলির অপর পিঠে গদা হাতে সিংহচর্ম পরিহিত হেরাক্লিসের চিত্র ও খরোষ্ঠী লিপিতে কুজুল কসস কুষাণ যবুগস ধর্মতিধস কথাটি উৎকীর্ণ রয়েছে। এই মুদ্রাগুলি যখন নির্মিত হয়, তখন কুজুল কদফিসেস একজন কুষাণ যুবরাজ (=যবুগস) ছিলেন।

কুজুল কদফিসেসের অপর কিছু মুদ্রার এক পিঠে তাঁর প্রতিকৃতি ও অপর পিঠে গদা হাতে হেরাক্লিসের চিত্র রয়েছে। মুদ্রাগুলিতে গ্রিক লিপিতে কোজোলা কাদাফেস কোষানোউ জাওউ কথাটি উৎকীর্ণ রয়েছে। ঐতিহাসিকদের মতে, এই মুদ্রাগুলিতে তাঁর প্রতিকৃতির সঙ্গে রোম সম্রাট আউগুস্তুসের মিল রয়েছে।[৭]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. More than a hundred years later, the prince [xihou] of Guishuang, named Qiujiuque [Kujula Kadphises], attacked and exterminated the four other xihou. He established himself as king, and his dynasty was called that of the Guishuang [Kushan] King. He invaded Anxi [Indo-Parthia], and took the Gaofu [Kabul] region. He also defeated the whole of the kingdoms of Puda [Paktiya] and Jibin [Kapisha and Gandhara]. Qiujiuque [Kujula Kadphises] was more than eighty years old when he died.[২][৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Hill, John E. (2004). The Peoples of the West from the Weilüe 魏略 by Yu Huan 魚豢: A Third Century Chinese Account Composed between 239 and 265 CE.
  2. Chavannes, Édouard (১৯০৬)। Trois Généraux Chinois de la dynastie des Han Orientaux. Pan Tch’ao (32–102 p.C.); – son fils Pan Yong; – Leang K’in (112 p.C.). Chapitre LXXVII du Heou Han chou.। T’oung pao 7। 
  3. Hill, John E. (২০০৯)। Through the Jade Gate to Rome: A Study of the Silk Routes during the Later Han Dynasty, First to Second Centuries CE। BookSurge। আইএসবিএন 978-1-4392-2134-1 
  4. Sims-Williams, Nicholas and Cribb, Joe 1996, "A New Bactrian Inscription of Kanishka the Great", Silk Road Art and Archaeology, volume 4, 1995-6, Kamakura, pp. 75–142.
  5. Sims-Williams, Nicholas (2008). "The Bactrian Inscription of Rabatak: A New Reading." Bulletin of the Asia Institute 18, 2008, pp. 53-68.
  6. Fussman, Gérard (1998). "L’inscription de Rabatak et l’origine de l’ère saka." Journal asiatique 286.2 (1998), pp. 571-651.
  7. J. M. Rosenfield, The Dynastic Arts of the Kushans, Berkeley and Los Angeles, 1967.

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • O. Bopearachchi, “The Posthumous Coinage of Hermaios and the Conquest of Gandhara by the Kushans,” in Gandharan Art in Context. East-West Exchanges at the Crossroads of Asia, ed. R. Allchin, B. Allchin, N. Kreitman, and E. Errington, New Delhi, 1997, pp. 189–213.
  • O. Bopearachchi, “Les premiers souverains kouchans: Chronologie et iconographie monétaire,” Jounal des Savants, January-June 2008, pp. 3–56.
  • M. Mitchiner, Oriental Coins and Their Values: The Ancient and Classical World 600 B.C.-A.D. 650, London, 1978.
  • R. C. Senior, Indo-Scythian Coins and History, London, 2001.
  • F. Thierry, “Yuezhi et Kouchans. Pièges et dangers des sources chinoises,” in Afghanistan, ancien carrefour entre l’est et l’ouest, ed. O. Bopearachchi and M.-F. Boussac, Indicopleustoi. Archaeologies of the Indian Ocean, Turnhout, 2005, pp. 421–539.
কুজুল কদফিসেস
রাজত্বকাল শিরোনাম
পূর্বসূরী
হেরায়ুস
কুষাণ সম্রাট
৩০ খ্রিস্টাব্দ - ৮০ খ্রিস্টাব্দ
উত্তরসূরী
ভীম তক্তো