কিরণ চেমজং

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কিরণ চেমজং
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম কিরণ চেমজং লিম্বু
জন্ম (1990-03-20) ২০ মার্চ ১৯৯০ (বয়স ২৯)
জন্ম স্থান ধানকুটা, নেপাল
উচ্চতা ৬ ফুট ২ ইঞ্চি (১.৮৮ মিটার)
মাঠে অবস্থান গোলরক্ষক
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব টিসি স্পোর্টস ক্লাব
জার্সি নম্বর ১৩[১]
যুব পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন
মাছিন্দ্রা ফুটবল ক্লাব
জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন*
বছর দল উপস্থিতি (গোল)
২০০৮-২০০৯ মাছিন্দ্রা ফুটবল ক্লাব
২০০৯-২০১৬ থ্রি স্টার ক্লাব
২০১৬-২০১৭ মানাং মার্শিয়াদী ক্লাব
২০১৭- টিসি স্পোর্টস ক্লাব
জাতীয় দল
২০০৮- নেপাল ৪৯ (০)
  • পেশাদারী ক্লাবের উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগের জন্য গণনা করা হয়েছে।
† উপস্থিতি(গোল সংখ্যা)।

কিরণ চেমজং (নেপালি: किरण चेम्जोङ) (জন্ম ২০ মার্চ ১৯৯০) নেপালের একজন ফুটবলার। তিনি বর্তমানে টিসি স্পোর্টস ক্লাব ও নেপাল জাতীয় দলে গোলরক্ষক হিসেবে খেলেন। আনফা একাডেমি থেকে স্নাতক সম্পন্ন করে চেমজং মাছিন্দ্রা ফুটবল ক্লাব-এ যোগ দেন। সেখানে তিনি এক বছর থাকেন। ক্লাবের হয়ে ভাল পার্ফরম্যান্স করলে, পরবর্তীতে মেগা থ্রি স্টার ক্লাব তাকে তাদের দলে খেলার পাশাপাশি ২০৬৫ বি.এস তে চাকুরির প্রস্তাব দেয় এবং চেমজং এই প্রস্তাব গ্রহণ করেন। মেগা থ্রি স্টার ক্লাবের হয়ে তিনি অনেক টুর্নামেন্ট জিতেছেন, যার মধ্যে ব্রিটিশ গুরখা কাপ, আহা গোল্ড কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট উল্লেখযোগ্য।[২]

ক্লাব ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

চেমজং আনফা একাডেমি থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন এবং এর পূর্বে সেই দলের হয়েই ফুটবল খেলতেন। পরবর্তীতে ২০০৮ সালে তিনি মাছিন্দ্রা ফুটবল ক্লাবে যোগ দেন। ১ বছর সেই ক্লাবে থেকে তিনি তার পরের বছর ২০০৯ সালে [[থ্রি স্টার ক্লাবে যোগ দেন। সেখানে দীর্ঘদিন খেলার পর ২০১৬ সালে তিনি যোগ দেন, মানাং মার্শিয়াদী ক্লাবে। সেখানেও তিনি ১ বছর থাকেন। চেমজং সে সময়ে দক্ষিণ এশিয়ার সেরা গোলরক্ষক এর খেতাব পাওয়ার পর, মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস ক্লাব তাদের দলে খেলার জন্য প্রস্তাব দেয়। ক্লাবটি তাঁকে দুই বছরের জন্য চুক্তি করার প্রস্তাব দিলেও চেমজং ১ বছরের জন্য চুক্তি করেন। ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে টিসি স্পোর্টস ক্লাবের হয়ে চেমজং এর অভিষেক হয়। অভিষেক ম্যাচে তাঁর ভাল পার্ফরম্যান্সে তাঁর দল ১-০ ব্যাবধানে জয়লাভ করে। [৩]

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

বর্তমানে তিনি নেপালের ১ নাম্বার গোলরক্ষক হিসেবে বিবেচিত হন। তাঁর তুলনামূলক অধিক উচ্চতার জন্য দল নির্বাচনের সময়, তিনি বিকাশ মাল্লা এবং রিতেশ থাপা এর মত অভিজ্ঞ গোলরক্ষক এর চেয়ে বেশি সুবিধা পান। তিনি খেলার মাঠে কিছু অসাধারণ পারফরম্যান্স দেখান, যার জন্য তিনি অনেক সুখ্যাতি অর্জন করেন।[৪]

চেমজং, ২০০৮ সালে কম্বোডিয়ার রাজধানী নম পেন-এ অনুষ্ঠিত ২০০৮ এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপ এর বাছাইপর্বে নেপালের হয়ে নিজের অভিষেক ম্যাচ খেলেন। যদিও ওই ম্যাচে খেলার সময় তিনি তাঁর চোয়ালে চোট পান এবং পরে জানা যায় তাঁর চোয়াল ভেঙ্গে গিয়েছিল।[৩] ঘরের মাঠে নেপালের হয়ে তাঁর প্রথম ম্যাচটি ছিল আফগানিস্তান জাতীয় ফুটবল দল এর বিপক্ষে।[৫]

২০১২ নেহেরু কাপ টুর্নামেন্টে তিনি নেপাল দলের সাথে ভারতের খেলায় ম্যাচসেরার পুরস্কার লাভ করেন।[৬] তাঁর এই পারফরম্যান্সের পর তিনি ভারতীয় গণমাধ্যমের এবং মালদ্বীপ জাতীয় ফুটবল দল এর তৎকালীন কোচ ইস্তাভান উরবানিয়ি প্রশংসা অর্জন করেন।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Kiran Chemjong, Khukuri Sports profile"খুকুরি স্পোর্টস। ৪ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুন ২০১৪ 
  2. http://www.goalnepal.com/player_profile-pid-12.html
  3. "Kiran Chemjong, Goal.com profile"। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুন ২০১৪ 
  4. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ নভেম্বর ২০১৭ 
  5. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২৬ অক্টোবর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ নভেম্বর ২০১৭ 
  6. "Nepal Goalie Kiran Chemjong: We Should Have Won The Match Against India"গোল নেপাল। ২৮ আগস্ট ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুন ২০১৪ 
  7. "Nehru Cup 2012: Indian Media, Maldives Coach Praise Kiran Chemjong's Performance"গোল নেপাল। ২৯ আগস্ট ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুন ২০১৪