কিউপ্রিক অক্সাইড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
কিউপ্রিক অক্সাইড
CopperIIoxide.jpg
নামসমূহ
আইইউপিএসি নাম
Copper(II) oxide
অন্যান্য নাম
কিউপ্রিক অক্সাইড
শনাক্তকারী
ত্রিমাত্রিক মডেল (জেমল)
সিএইচইএমবিএল
কেমস্পাইডার
ইসিএইচএ ইনফোকার্ড ১০০.০১৩.৮৮২
আরটিইসিএস নম্বর GL7900000
ইউএনআইআই
বৈশিষ্ট্য
CuO
আণবিক ভর ৭৯.৫৪৫ গ্রা/মোল
বর্ণ কালো হতে ধূসর পাউডার
ঘনত্ব ৬.৩১৫ গ্রা/সে মি3
গলনাঙ্ক ১,৩২৬ °সে (২,৪১৯ °ফা; ১,৫৯৯ K)
স্ফুটনাঙ্ক ২,০০০ °সে (৩,৬৩০ °ফা; ২,২৭০ K)
অদ্রবণীয়
দ্রাব্যতা অ্যামোনিয়াম ক্লোরাইডপটাসিয়াম সায়ানাইড এ দ্রবণীয়
অ্যালকোহল, অ্যামোনিয়াম হাইড্রোক্সাইডঅ্যামোনিয়াম কার্বোনেট এ অদ্রবণীয়
ব্যান্ড ব্যবধান ১.২ eV
প্রতিসরাঙ্ক (nD) ২.৬৩
গঠন
স্ফটিক গঠন মনোক্লিনিক, mS8[১]
Space group C2/c, #15
Lattice constant
তাপ রসায়নবিদ্যা
স্ট্যন্ডার্ড মোলার
এন্ট্রোফি
এস২৯৮
৪৩ J·mol−1·K−1
গঠনে প্রমান এনথ্যাল্পির পরিবর্তন ΔfHo২৯৮ −১৫৬ kJ·mol−1
ঝুঁকি প্রবণতা
ক্ষতিকর (Xn)
পরিবেশের জন্য বিপজ্জনক (N)
এনএফপিএ ৭০৪
Flammability code 0: Will not burn. E.g., water Health code 2: Intense or continued but not chronic exposure could cause temporary incapacitation or possible residual injury. E.g., chloroform Reactivity code 1: Normally stable, but can become unstable at elevated temperatures and pressures. E.g., calcium Special hazards (white): no codeNFPA 704 four-colored diamond
ফ্ল্যাশ পয়েন্ট অদাহ্য
যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য অনাবৃতকরণ সীমা (NIOSH):
TWA 0.1 mg/m3[২]
সম্পর্কিত যৌগ
কপার (২) সালফাইড
নিকেল (২) অক্সাইড
জিঙ্ক অক্সাইড
সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করা ছাড়া, পদার্থসমূহের সকল তথ্য-উপাত্তসমূহ তাদের প্রমাণ অবস্থা (২৫ °সে (৭৭ °ফা), ১০০ kPa) অনুসারে দেওয়া হয়েছে।
N যাচাই করুন (এটি কি YesYN ?)
তথ্যছক তথ্যসূত্র

কপার (২) অক্সাইড or কিউপ্রিক অক্সাইড (CuO) হল কপার এর উচ্চমানের অক্সাইড। খনিজ হিসেবে এটি টেনোরাইট হিসেবে পরিচিত।

রসায়ন[সম্পাদনা]

এটি একটি কালো কঠিন পদার্থ যার একটি আয়নিক গঠন রয়েছে, যা ১২০০° সে এর অধিক তাপমাত্রায় সামান্য অক্সিজেন হারিয়ে গলে যায়। কপারকে মুক্ত বাতাসে অক্সিজেনের উপস্থিতিতে উত্তপ্ত করে এটি প্রস্তুত করা যায়:

2 Cu + O2 → 2 CuO

যদিও এই ক্ষেত্রে কপার (১) অক্সাইড গঠিত হয়। তবুও বিশুদ্ধ কপার (২) অক্সাইড কপার (২) নাইট্রেট, কপার (২) হাইড্রোক্সাইড অথবা কপার (২) কার্বোনেট কে উত্তপ্ত করে তৈরী করা উচিত :

2 Cu(NO3)2 → 2 CuO + 4 NO2 + O2
Cu(OH)2 (s) → CuO (s) + H2O (l)
CuCO3 → CuO + CO2

কপার (২) অক্সাইড হল একটি অ্যাম্ফোটেরিক অক্সাইড। তাই এটি খনিজ এসিডসমূহ যেমন হাইড্রোক্লোরিক এসিড, সালফিউরিক এসিড অথবা নাইট্রিক এসিড এ দ্রবীভূত হয় এবং কপার (২) লবনসমূহ উৎপন্ন করে:

CuO + 2 HNO3 → Cu(NO3)2 + H2O
CuO + 2 HCl → CuCl2 + H2O
CuO + H2SO4 → CuSO4 + H2O

এটি গাঢ় ক্ষারের সাথে বিক্রিয়া করে অনুরূপ কিউপ্রেট লবনসমূহ উৎপন্ন করে:

2 XOH + CuO + H2O → X2[Cu(OH)4]

হাইড্রোজেন অথবা কার্বন মনোক্সাইড ব্যবহার করেও এটি হতে কপার ধাতু মুক্ত করা যায়:

CuO + H2 → Cu + H2O
CuO + CO → Cu + CO2

পরীক্ষাগারে কপার (২) অক্সাইড প্রস্তুতির একটি পদ্ধতি হল: নির্দিষ্ট ভোল্টেজে একটি কপার অ্যানোডের সহিত পানি সাথে মিশ্রিত সোডিয়াম বাইকার্বোনেটে তড়িত্‍চালনা করা হয়, এরপর অদ্রবণীয় কপার হাইড্রোক্সাইড, মৌলিক কপার কার্বোনেট ও অধ:ক্ষিপ্ত কপার কার্বোনেট এর মিশ্রণ সংগ্রহ করা হয়, এবং মিশ্রণটিকে উত্তপ্ত করে হাইড্রােজেন, কার্বন সাথে অতিরিক্ত অক্সিজেন মুক্ত করা হয়।

স্ফটিক গঠন[সম্পাদনা]

কপার (২) অক্সাইড মনোক্লিানিক স্ফটিকাকার গঠন এর অন্তর্ভুক্ত, যার ক্রিস্টালোগ্রাফিক পয়েন্ট গ্রুপ হল 2/m অথবা C2h। এটির একক সেল এর স্পেস গ্রুপ হল C2/c, এবং এটির lattice parameterসমূহ হল a = 4.6837(5), b = 3.4226(5), c = 5.1288(6), α = 90°, β = 99.54(1)°, γ = 90°.[১] কপার পরমাণুটি আনুমানিক বর্গাকার সমতলীয় আকৃতির ৪টি অক্সিজেন পরমাণু দ্বারা সমন্বিত।[১]

CuO এর একক কোষ CuO এর স্ফটিকাকার গঠন এর অংশ
কপার (২) অক্সাইডের একক কোষ
CuO এর স্ফটিকাকার গঠন এর অংশ

স্বাস্থ্যে প্রভাব[সম্পাদনা]

কপার (২) অক্সাইড হল একধরনের উত্তেজক। এটি দ্বারা অন্তঃক্ষরা তন্ত্র এবং কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্র এর ক্ষতি হতে পারে। চোখ অথবা চামরার সংস্পর্শেে এলে উপদ্রব দেখা দিতে পারে। কিউপ্রিক অক্সাইড পাউডার খেলে ধাতব স্বাদ, বমি বমি ভাব, বমি এবং পেটে ব্যথা প্রভৃতি ফলাফল হতে পারে। আরো গুরুতর ক্ষেত্রে, বমির সাথে রক্ত বেড়িয়ে আসবে, জন্ডিস এবং যকৃত সম্প্রসারিত হবে। রক্তের কোষসমূহে ভাঙ্গন ধরে ও পর্যায়ক্রমে সংবহনতন্ত্রের পতন ঘটে। শ্বসনে ফুসফুস এবং নাসামধ্য পর্দার ক্ষতি হতে পারে। কিউপ্রিক অক্সাইড পাউডার বিগলনের সময় উৎপন্ন ধোঁয়ার শ্বসনে একটি রোগ ধাতু ধূম্র জ্বর হতে পারে এবং এর উপসর্গসমূহ ফ্লু এর মত হতে পারে। তামা (২) অক্সাইড পাউডার পরিচালনার সময়, ভাল বায়ু চলাচলের সুব্যবস্থা রয়েছে এমন জায়গায় পরিচালনা করা উচিত এবং খুব যত্নসহকারে করা উচিত যেন চামড়া বা চোখের সঙ্গে যোগাযোগ এড়ানো যায়।[৩] অতিরিক্ত জিঙ্ক এবং মলিবডেনাম গ্রহন দেহ থেকে কপার নিষ্কাশন করে। কপার অক্সাইড কপারের একটি নিরাপদ উৎস হিসেবে ভিটামিন সম্পূরকগুলির মধ্যে ব্যবহৃত হয়।[৪] প্রসাধনী এবং জীবাণু বিরোধী বৈশিষ্ঠের কারণে কপার অক্সাইড ভোগ্যপণ্যের উৎস যেমন বালিশের কভার এবং মোজা ইত্যাদিতে ব্যবহার করা হয়। [৫][৬][৭][৮] কপারের ত্বক্-সংক্রান্ত সংবেদনশীলতার ঝুঁকি অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত বিবেচনা করা হয়। [৯]

ব্যবহার[সম্পাদনা]

কিউপ্রিক অক্সাইড সিরামিকে একটি রঞ্জক পদার্থ হিসাবে নীল, লাল, এবং সবুজ (কখনও কখনও ধূসর, গোলাপী, বা কালো) চক্চকে প্রলোপ উৎপাদনে ব্যবহার করা হয়। রেয়ন তৈরীর জন্য ব্যবহৃত কিউপ্র্যামোনিয়াম হাইড্রোক্সাইড উৎপাদনেও এটি ব্যবহৃত হয়। এটি মাঝে মাঝে পশুদের শরীরে কপারের অভাব দূরীকরণে একটি খাদ্যতালিকাগত সম্পূরক হিসাবে ব্যবহার করা হয়।[১০] কপার (২) অক্সাইডের একটি পি-টাইপ অর্ধপরিবাহী হিসাবে প্রয়োগ রয়েছে, কারণ এটির ১.২ eV এর একটি সরু ব্যান্ড ব্যবধান রয়েছে। এটি একটি অপঘর্ষক পদার্থ যা বিভিন্ন দৃষ্টিসম্পর্কীয় সরঞ্জাম পালিশের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। শুষ্ক কোষ তৈরীতেও কিউপ্রিক অক্সাইড ব্যবহার করা যায়। অন্যান্য কপার লবনসমূহ উৎপাদনেও কপার (২) অক্সাইডের অবদান রয়েছে। কিউপ্রিক অক্সাইডের অরেকটি ব্যবহার হল এটি থার্মাইটের মধ্যে আয়রন অক্সাইডের একটি বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত হয়। এটি থার্মাইটকে একটি ছোট বিস্ফোরকে পরিনত করে।

বৈশিষ্ঠ[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. The effect of hydrostatic pressure on the ambient temperature structure of CuO, Forsyth J.B., Hull S., J. Phys.: Condens. Matter 3 (1991) 5257-5261 , ডিওআই:10.1088/0953-8984/3/28/001
  2. "NIOSH Pocket Guide to Chemical Hazards #0151" (ইংরেজি ভাষায়)। ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর অকুপেশনাল সেফটি অ্যান্ড হেলথ (NIOSH)। 
  3. "Material safety data sheet: Copper (II) oxide"। Iowa State University। ২০০৩। সংগৃহীত ২০০৭-০১-২৬ 
  4. "Vitamin Supplements:" 
  5. Borkow G এবং অন্যান্য (২০০৯)। "Improvement of facial skin characteristics using copper oxide containing pillowcases: a double-blind, placebo-controlled, parallel, randomized study"। Int J Cosmet Sci 31 (6): 437–43। ডিওআই:10.1111/j.1468-2494.2009.00515.xপিএমআইডি 19467028  |author-separator= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  6. Borkow G এবং অন্যান্য (২০০৯)। "Reducing the risk of skin pathologies in diabetics by using copper impregnated socks"। Med Hypotheses 73 (6): 883–6। ডিওআই:10.1016/j.mehy.2009.02.050পিএমআইডি 19559540  |author-separator= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  7. Borkow G এবং অন্যান্য (২০০৫)। "Copper as a biocidal tool"। Curr Med Chem 12 (18): 2163–75। ডিওআই:10.2174/0929867054637617পিএমআইডি 16101497  |author-separator= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  8. Borkow G এবং অন্যান্য (২০০৪)। "Copper-impregnated products with potent biocidal activities"। FASEB J. 18 (14): 1728–30। ডিওআই:10.1096/fj.04-2029fjeপিএমআইডি 15345689  |author-separator= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  9. Hostynek JJ, and Maibach HI (২০০৩)। "hypersensitivity: dermatologic aspects-an overview"। Rev Environ Health 153 (3): 153–83। পিএমআইডি 14672513 
  10. "Uses of Copper Compounds: Other Copper Compounds"। Copper Development Association। ২০০৭। সংগৃহীত ২০০৭-০১-২৭ 
  11. F. P. Koffyberg and F. A. Benko (১৯৮২)। "A photoelectrochemical determination of the position of the conduction and valence band edges of p-type CuO"। J. Appl. Phys. 53 (2): ১১৭৩। ডিওআই:10.1063/1.330567 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:অক্সাইডসমূহ