কালো ছত্রাক (কোভিড-১৯ জনিত অবস্থা)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
৪৭-বছর বয়স্ক মিউকরমাইকোসিসে আক্রান্ত ব্যক্তি (বামে) এবং ইলেকট্রন মাইক্রোগ্রাফে তার চামড়ায় মিউকোরালেস ছত্রাকের স্পোরাঞ্জিয়া দেখা যাচ্ছে।

কোভিড-১৯-সম্পর্কিত মিউকরমাইকোসিস,[১] যা সাধারণত কালো ছত্রাক বা কৃষ্ণ ছত্রাক হিসেবে উল্লেখিত হয়,[২] হলো কোভিড-১৯ এর সাথে সম্পর্কিত মিউকরমাইকোসিসের তথা অ্যাগ্রেসিভ ধাঁচের ছত্রাক সংক্রমণ।[৩] নাক, চোখ এবং মস্তিষ্কে আক্রান্ত করে, যার ফলে কখনো কখনো এটাকে 'রাইনো-অরবিটার-সেরেব্রাল (আরওসি) মিউকরমাইকোসিস' হিসেবেও উল্লেখ করা হয়ে থাকে।[৪]

কোভিড-সম্পর্কিত মিউকরমাইকোসিসের তথ্য সাধারণত বিরল ছিল।[১] চিকিৎসা সাহিত্যের পর্যালোচনা করে দেখা যায় ২০২১ সালের ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত সারা বিশ্বে এ ধরণের মাত্র ৮টি ঘটনা ঘটেছে।[১] এই প্রতিবেদন অনুযায়ী মিউকরমাইকোসিসের সবচেয়ে সাধারণ ঝুঁকির কারণ ছিল ডায়াবেটিস।[১] হাসপাতালে ভর্তির সময় (প্রায়শই ভর্তির ১০-১৪ দিন পরে) বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই রোগ দেখা যায় এবং আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে অনেকেই মারা যায়।[১] প্রথম থেকেই অ্যাগ্রেসিভ চিকিৎসা অপরিহার্য হিসেবে বিবেচিত হয়।[১] ধারণা করা হয় যে ৪০% থেকে ৮০% মিউকরমাইকোসিসের কোনো ধরণে আক্রান্তরা মৃত্যুবরণ করেন, যা সংক্রমণস্থল এবং অন্তর্নিহিত স্বাস্থ্য অবস্থার উপর নির্ভর করে।[৫]

কোভিড-সম্পর্কিত মিউকরমাইকোসিস ভারতের মানুষকে বিশেষভাবে প্রভাবিত করেছে।[২] রাশিয়াতেও এ সমস্যা দেখা দেয়।[৬] বাংলাদেশেও এই রোগী শনাক্ত করা হয়।[৭] ভারতে এই সংক্রমণের উচ্চমাত্রার কারণ হিসেবে কোভিড সংক্রমণের উচ্চ হার এবং ডায়াবেটিসের উচ্চ হারকে নির্দেশ করা হয়।[৮] ২০২১ সালের মে মাসে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চ কোভিড-সম্পর্কিত মিউকরমাইকোসিসকে শনাক্ত করে প্রয়োজনীয় চিকিৎসার জন্য নির্দেশিকা জারি করে।[৯]

দ্রুত ক্রমবর্ধমান আক্রান্ত ঘটনার ফলে রাজস্থান সরকার ১৯ মে ২০২১ তারিখে এই রোগকে মহামারী ঘোষণা করে। রাজস্থান সরকারের পাশাপাশি হরিয়ানা, তামিলনাড়ু, তেলেঙ্গানা এবং গুজরাট সরকারও এখন এই মহামারী ঘোষণা করেছে।[১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Garg D, Muthu V, Sehgal IS, Ramachandran R, Kaur H, Bhalla A, Puri GD, Chakrabarti A, Agarwal R (২০২১)। "Coronavirus Disease (Covid-19) Associated Mucormycosis (CAM): Case report and systematic review of literature"Mycopathologia186 (2): 289–298। ডিওআই:10.1007/s11046-021-00528-2পিএমআইডি 33544266 |pmid= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য)পিএমসি 7862973অবাধে প্রবেশযোগ্য |pmc= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য) 
  2. Biswas, Soutik (২০২১-০৫-০৯)। "Mucormycosis: The 'black fungus' maiming Covid patients in India"BBC News 
  3. "Black Fungus: Symptoms, IIMS & ICMR Guidelines PDF for Mucormycosis"S A NEWS (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২১-০৫-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-২১ 
  4. Sen M, Honavar SG, Sharma N, Sachdev MS (২০২১)। "COVID-19 and Eye: A review of ophthalmic manifestations of COVID-19"Indian Journal of Ophthalmology69 (3): 488–509। ডিওআই:10.4103/ijo.IJO_297_21পিএমআইডি 33595463 |pmid= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য)পিএমসি 7942063অবাধে প্রবেশযোগ্য |pmc= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য) 
  5. Cornely OA, Alastruey-Izquierdo A, Arenz D, ও অন্যান্য (২০১৯)। "Global guideline for the diagnosis and management of mucormycosis: an initiative of the European Confederation of Medical Mycology in cooperation with the Mycoses Study Group Education and Research Consortium" (PDF)The Lancet. Infectious Diseases19 (12): e405–e421। ডিওআই:10.1016/S1473-3099(19)30312-3পিএমআইডি 31699664 
  6. "Russia Confirms Rare, Deadly 'Black Fungus' Infections Seen in India"The Moscow Times (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২১-০৫-১৭। 
  7. হোসেন, আকবর (২৫ মে ২০২১)। "ব্ল্যাক ফাঙ্গাস সংক্রমণ থেকে সুরক্ষার সাতটি উপায়"বিবিসি বাংলা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০২১ 
  8. Runwal, Priyanka (২০২১-০৫-১৪)। "A rare black fungus is infecting many of India's COVID-19 patients—why?"National Geographic (ইংরেজি ভাষায়)। 
  9. "ICMR releases diagnosis and management guidelines for COVID-19-associated Mucormycosis"Firstpost। ২০২১-০৫-১৭। 
  10. Delhi/Jaipur/LucknowMay 19, Dev Ankur Wadhawan Pankaj Jain Samarth Shrivastava Kumar Kunal New; May 19, 2021UPDATED:; Ist, 2021 17:51। "Rajasthan declares black fungus an epidemic; cases pile up in several states | 10 points"India Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-২০