কার্তিক আর্যন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কার্তিক আর্যন
Kartik Aaryan in 2018.jpg
সোনু কে টিটু কি সুইটি ছবির একটি অনুষ্ঠানে কার্তিক, ২০১৮
জন্ম
কার্তিক তিওয়ারি

(1990-11-22) ২২ নভেম্বর ১৯৯০ (বয়স ২৮)
শিক্ষাডি. ওয়াই. পাতিল কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিং, নবী মুম্বই
পেশাঅভিনেতা
কার্যকাল২০১১ – বর্তমান

কার্তিক আর্যন (জন্মগত নাম: কার্তিক তিওয়ারি; জন্ম: ২২ নভেম্বর, ১৯৯০) হলেন একজন ভারতীয় অভিনেতা। তিনি হিন্দি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। কার্তিকের জন্ম ও বেড়ে ওঠা গোয়ালিয়র শহরে। পরে তিনি জৈবপ্রযুক্তিতে ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি অর্জনের লক্ষ্যে চলে আসেন নবী মুম্বইতে। পড়াশোনা করতে করতেই তিনি শখ হিসেবে মডেলিং করতে শুরু করেন এবং চলচ্চিত্র জগতে কর্মজীবন শুরু করার চেষ্টা করতে থাকেন। ক্রমাগত তিন বছর চেষ্টার পর ২০১১ সালে কার্তিক প্যার কা পাঞ্চনামা নামে একটি বন্ধুত্ব-বিষয়ক চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে অভিনয় জগতে পদার্পণ করেন। এই ছবিটির মূল উপজীব্য ছিল তিন যুবকের প্রণয়ঘটিত কষ্ট। ছবিটি পরিচালনা করেন লব রঞ্জন এবং এই ছবিতে কার্তিকের বিপরীতে অভিনয় করেন নুসরত ভরুচা

তারপর কার্তিক আকাশ বাণী (২০১৩) ও কাঞ্চী: দি আনব্রেকেবল (২০১৪) ছবিতে নায়িকার প্রণয়ীর চরিত্রে অভিনয় করেন। কিন্তু এই ছবি দু’টি তাঁর কর্মজীবনকে সম্মুখে চালনা করতে অসমর্থ হয়। এরপরেই তিনি রঞ্জন ও ভারুচার সঙ্গে প্যার কা পাঞ্চনামা ২ (২০১৫) ও সোনু কে টিটু কি সুইটি (২০১৮) নামে দু’টি বন্ধুত্ব-বিষয়ক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। দু’টি ছবিই বাণিজ্যিকভাবে সাফল্য অর্জন করে। কিন্তু নারীবিদ্বেষমূলক বিষয়বস্তুর জন্য এগুলি সমালোচিতও হয়। শেষোক্ত ছবিটি কার্তিকের কর্মজীবনের একটি বিরাট সাফল্য প্রতিপন্ন হয়। এরপরই তিনি লুকা ছুপি (২০১৯) নামে একটি রোম্যান্টিক কমেডি চলচ্চিত্রে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেন।

অভিনয় ছাড়াও কার্তিক বিভিন্ন ব্র্যান্ড ও পণ্যের বিজ্ঞাপন এবং দু’টি পুরস্কার-বিতরণী অনুষ্ঠানের সহ-সঞ্চালকের ভূমিকাও পালন করেছেন।

জীবন ও কর্ম[সম্পাদনা]

প্রথম জীবন ও কর্মজীবনের সূত্রপাত (১৯৯০–২০১৪)[সম্পাদনা]

১৯৯০ সালের ২২ নভেম্বর মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের গোয়ালিয়র শহরে কার্তিক তিওয়ারি (পরবর্তীকালে আর্যন)[ক] জন্মগ্রহণ করেন।[১][২] তাঁর বাবা-মা দু’জনেই চিকিৎসক। তাঁর বাবা একজন শিশুরোগ-বিশেষজ্ঞ এবং মা মালা একজন স্ত্রীরোগবিশারদ। কার্তিক নবী মুম্বইতে আসেন সেখানকার ডি. ওয়াই. পাতিল কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিং-এ জৈবপ্রযুক্তিতে ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি অর্জনের জন্য। কিন্তু তাঁর মনে চলচ্চিত্রে অভিনয় করার একটি গোপন উচ্চাকাঙ্ক্ষা ছিল।[৩][৪] তিনি বলেছেন যে, ক্লাস কামাই করে দুই ঘণ্টার পথ অতিক্রম করে তিনি অডিশন দিতে যেতেন।[৫][৬] বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময়েই কার্তিক মডেলিং করতে শুরু করেন। চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিন বছর ধরে বারংবার অডিশন দিয়ে ব্যর্থ হওয়ার পর তিনি ক্রিয়েটিং ক্যারাক্টারস ইনস্টিটিউটে একটি অভিনয় পাঠক্রমে ভর্তি হন। প্রথম ছবিতে সাক্ষর করার আগে তিনি তাঁর বাবা-মার কাছে অভিনেতা হওয়ার ইচ্ছার কথা প্রকাশ করেননি।[৩][৭]

কাঞ্চী: দি আনব্রেকেবল ছবির একটি অনুষ্ঠানে কার্তিক আর্যন, ২০১৪

কার্তিক যখন লব রঞ্জন পরিচালিত প্যার কা পাঞ্চনামা (২০১১) নামে একটি বন্ধুত্ব-বিষয়ক ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতে পদার্পণ করেন, সেই সময় তিনি কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। এই ছবিটিতে তাঁর সঙ্গে অভিনয় করেছিলেন দিব্যেন্দু শর্মা, রায়ো এস বাখিরতা ও নুসরত ভরুচা। ছবির গল্পটির বিষয়বস্তু তিন যুবকের প্রণয়ঘটিত কষ্ট।[৮][৯] ফেসবুকে একটি কাস্টিং কল পাওয়ার পর ছয় মাস অডিশন দিয়ে তিনি এই ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ পান।[৩] সেই সময় তাঁর আর্থিক অবস্থা স্বচ্ছল ছিল না। বারো জন অন্য উঠতি অভিনেতার সঙ্গে একটি অ্যাপার্টমেন্টে থাকতেন কার্তিক এবং তাঁদের জন্য রান্না করে অর্থ উপার্জন করতেন।[৩][১০] প্যার কা পাঞ্চনামা ছবিতে তাঁর অভিনীত চরিত্রটির একটি চার মিনিটের স্বগতোক্তি রয়েছে। এটি সেই সময় পর্যন্ত হিন্দি চলচ্চিত্রের ইতিহাসে দীর্ঘতম একক শটগুলির অন্যতম।[১১] রিডিফ.কম ওয়েবসাইটে সেটি পর্যালোচনা করা সময় শেখ আয়াজ বলেন যে, "মেয়েরা মেয়েদের মতো কেন এবং কেন তাদের কখনও ঠিকমতো বোঝা যায় না, [সেই সম্পর্কে কার্তিকের স্বগতোক্তিটি] অত্যন্ত মজাদার।"[১২] ছবির প্রতিটি নারী চরিত্রকে "নির্দয় খলনায়িকা" হিসেবে চিত্রিত করার জন্য আউটলুক পত্রিকার নম্রতা যোশী ছবিটির সমালোচনা করলেও কার্তিকের স্বগতোক্তি এবং তিনজন পুরুষের মধ্যেকার রসায়নটির প্রশংসা করেছেন।[১৩] ছবিটি সুপারহিট তকমা পায় এবং এই ছবিতে অভিনয়ের জন্য কার্তিক শ্রেষ্ঠ নবাগত অভিনেতা বিভাগে প্রোডিউসার্স গিল্ড চলচ্চিত্র পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।[১৪][১৫]

চলচ্চিত্র তালিকা[সম্পাদনা]

লাক্সের একটি অনুষ্ঠানে কার্তিক, ২০১৬

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

সূত্র
Films that have not yet been released চিহ্নিত ছবিগুলি এখনও মুক্তি পায়নি
বছর চলচ্চিত্র চরিত্র টীকা
২০১১ প্যার কা পাঞ্চনামা রজত (রাজ্জো)
২০১৩ আকাশ বাণী আকাশ
২০১৪ কাঞ্চী: দি আনব্রেকেবল বিন্দা
২০১৫ প্যার কা পাঞ্চনামা ২ অংশুল (গোগো)
২০১৬ সিলবত আনোয়ার স্বল্পদৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র
২০১৭ গেস্ট ইন লন্ডন আর্যন শেরগিল
২০১৮ সোনু কে টিটু কি সুইটি সোনু শর্মা
২০১৯ লুকা ছুপি বিনোদ "গুড্ডু" শুক্ল
২০১৯ পতি পত্নী আউর ওহ ছবিটি এখনও মুক্তি পায়নি চিন্টু ত্যাগী চলচ্চিত্রায়ন চলছে[১৬][১৭]
২০২০ ইমতিয়াজ আলির পরবর্তী ছবি (নাম স্থির হয়নিছবিটি এখনও মুক্তি পায়নি ঘোষণা করা হবে চলচ্চিত্রায়ন চলছে[১৮][১৯]

টেলিভিশন[সম্পাদনা]

বছর নাম ভূমিকা
২০১৮ ১৯শ আন্তর্জাতিক ভারতীয় চলচ্চিত্র অ্যাকাডেমি পুরস্কার সহকারী সঞ্চালক[২০]
২০১৯ ২০১৯ জি সিনে পুরস্কার সহকারী সঞ্চালক[২১]

পুরস্কার ও মনোনয়ন[সম্পাদনা]

বছর চলচ্চিত্র পুরস্কার বিভাগ ফলাফল তথ্যসূত্র
২০১২ প্যার কা পাঞ্চনামা প্রোডিউসার্স গিল্ড চলচ্চিত্র পুরস্কার শ্রেষ্ঠ নবাগত অভিনেতা মনোনীত [১৫]
২০১৬ প্যার কা পাঞ্চনামা ২ স্টারডাস্ট পুরস্কার শ্রেষ্ঠ হাস্যোদ্রেককারী অভিনেতা বিজয়ী [২২]
বিগ স্টার এন্টারটেইনমেন্ট পুরস্কার সর্বাধিক চিত্তবিনোদনকারী শিল্পীদল বিজয়ী [২৩]
বিগ স্টার এন্টারটেইনমেন্ট পুরস্কার একটি হাস্যোদ্রেককারী চরিত্রে সর্বাধিক চিত্তবিনোদনকারী অভিনেতা মনোনীত [২৪]
প্রোডিউসার্স গিল্ড চলচ্চিত্র পুরস্কার শ্রেষ্ঠ হাস্যোদ্রেককারী অভিনেতা মনোনীত [২৫]
টাইমস অফ ইন্ডিয়া চলচ্চিত্র পুরস্কার শ্রেষ্ঠ হাস্যোদ্রেককারী অভিনেতা মনোনীত [২৬]
২০১৮  — ভগ বিউটি অ্যাওয়ার্ডস হার্টথ্রব অফ দ্য ইয়ার বিজয়ী [২৭]
পেটা ইন্ডিয়া হটেস্ট ভেজিটেরিয়ান সেলিব্রিটি বিজয়ী [২৮]
২০১৯ সোনু কে টিটু কি সুইটি দাদাসাহেব ফালকে উৎকর্ষ পুরস্কার বছরের শ্রেষ্ঠ বিনোদনশিল্পী বিজয়ী [২৯]
নিকেলোডিয়ন কিডস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস ইন্ডিয়া ডায়নামিক পারফর্মার অ্যাওয়ার্ড বিজয়ী [৩০]
জি সিনে পুরস্কার শ্রেষ্ঠ হাস্যোদ্রেককারী অভিনেতা বিজয়ী [৩১]
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা মনোনীত [৩২]

টীকা[সম্পাদনা]

  1. ২০১৩ সালে তিনি তাঁর আর্যন পদবিটির ব্যবহার শুরু করেন।[৩৩][৩৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Hegde, Rajul (২২ নভেম্বর ২০১৫)। "A happy woman is a myth, says Pyaar Ka Punchanama's Kartik Aaryan"Rediff.com। ১৬ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৬ 
  2. Malik, Ektaa (১২ এপ্রিল ২০১৮)। "Kartik Aaryan: New Chip of the Old Block"The Indian Express। ২৫ এপ্রিল ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  3. N, Patcy (৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮)। "The engineer who became a Bollywood hero"। Rediff.com। ২৩ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  4. Rawal Kukreja, Monika (১৩ মে ২০১৮)। "Mother's Day: Kartik Aaryan says his mom googles his name every day, adds his girlfriends on Facebook"Hindustan Times। ২ জুলাই ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ জুলাই ২০১৮ 
  5. Rakshit, Nayandeep (২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮)। "Sonu Ke Titu Ki Sweety actor Kartik Aaryan: Now, people are calling me a 'hot-chocolate boy'"Daily News and Analysis। ১০ এপ্রিল ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  6. Srivastava, Abhishek (২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮)। "Kartik Aaryan says contrary to popular belief, Sonu Ke Titu Ki Sweety is not a recreation of Pyaar Ka Punchnama"Firstpost। ১২ মার্চ ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  7. Loynmoon, Karishma (২৪ এপ্রিল ২০১৪)। "I didn't know how to kiss"Filmfare। ২০ অক্টোবর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  8. Khuranaa, Amann (২১ অক্টোবর ২০১৫)। "Kartik Aaryan: My mom still feels that being in films is a gamble"The Times of India। ২৬ জুলাই ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  9. "B-town's new faces in 2011"Sify। ১৮ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ জানুয়ারি ২০১৩ 
  10. Singh, Raghuvendra (২৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৬)। "Kartik Aaryan reveals his food secrets"Filmfare। ৫ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  11. Tuteja, Joginder (১৩ মে ২০১১)। "Debutant breaks record with four minute comic monologue?"Bollywood Hungama। ২৫ মার্চ ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ জানুয়ারি ২০১৩ 
  12. Ayaz, Shaikh (২০ মে ২০১১)। "Review: Pyaar Ka Punchnama could have been better"। Rediff.com। ৭ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮  অজানা প্যারামিটার |Quote= উপেক্ষা করা হয়েছে (|quote= ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে) (সাহায্য)
  13. Joshi, Namrata (৬ জুন ২০১১)। "Pyaar Ka Punchnama"Outlook। ২ জুলাই ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  14. Vats, Rohit (২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮)। "Decoding the success of Pyaar Ka Punchnama: How it became a sleeper hit"Hindustan Times। ২১ মার্চ ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  15. "Nominations for 7th Chevrolet Apsara Film and Television Producers Guild Awards"। Bollywood Hungama। ২৫ জানুয়ারি ২০১২। ২ জুলাই ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  16. "Pati Patni Aur Woh: Check out Kartik Aaryan's first look as 'samarpit pati' Chintu Tyagi"Hindustan Times। ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  17. "It's Kartik Aaryan vs Arjun Kapoor! Pati Patni Aur Woh to clash with Panipat on December 6, 2019"Times Now News। ২৪ মার্চ ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মার্চ ২০১৯ 
  18. "Kartik Aaryan and Sara Ali Khan 'caught and clicked' on the sets of their film in Delhi"Daily News and Analysis। ১১ মার্চ ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১১ মার্চ ২০১৯ 
  19. "First Look: Sara Ali Khan and Kartik Aaryan are in LOVE in Imtiaz Ali's romance drama, film to release on February 14, 2020"Bollywood Hungama। ২০ মার্চ ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০ মার্চ ২০১৯ 
  20. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; iifa নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  21. "Zee Cine Awards 2019: From performances to hosts, all you need to know about the ceremony on 19 March"Firstpost। ১৯ মার্চ ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মার্চ ২০১৯ 
  22. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; first award নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  23. Ghosh, Raya (১৪ ডিসেম্বর ২০১৫)। "Big Star Entertainment Awards 2015: Salman, Deepika Are Big Winners"। NDTV। ৩০ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  24. "Big Star Entertainment Awards 2015"Star India। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৫। ১৪ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মার্চ ২০১৬ 
  25. "Nominations for 11th Renault Sony Guild Awards"। Bollywood Hungama। ২১ ডিসেম্বর ২০১৫। ৩০ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মার্চ ২০১৬ 
  26. Mehta, Ankita (১০ মার্চ ২০১৬)। "TOIFA Awards 2016: Parineeti Chopra-Riteish Deshmukh to host event, SRK, Varun Dhawan to perform; list of nominees"International Business Times। ১১ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ মার্চ ২০১৬ 
  27. "Vogue Beauty Awards 2018: Best of Bollywood"Vogue India। ৩১ জুলাই ২০১৮। ১ আগস্ট ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৮ 
  28. "Anushka Sharma and Kartik Aaryan are PETA India's Hottest Vegetarians – Media Centre"People for the Ethical Treatment of Animals India। ১১ ডিসেম্বর ২০১৮। ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  29. "Kartik Aaryan bags Dadasaheb Phalke Excellence award for best entertainer"Hindustan Times। ১৯ এপ্রিল ২০১৮। ১৯ এপ্রিল ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ এপ্রিল ২০১৮ 
  30. "Nickelodeon Kids Choice Awards 2018 winners list - IWMBUZZ"Dailyhunt 
  31. "Winners of Zee Cine Awards 2019"Bollywood Hungama। ১৯ মার্চ ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মার্চ ২০১৯ 
  32. "Zee Cine Awards 2019: Nominations list (viewer's choice)"। সংগ্রহের তারিখ ১৬ মার্চ ২০১৯ 
  33. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; indiatoday15 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  34. "Kartik Tiwari Changes His Name To Kartik Aryan"Mid Day। ১৯ জুলাই ২০১৩। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]