কাটোয়ার যুদ্ধ (১৭৪২)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কাটোয়ার প্রথম যুদ্ধ
মূল যুদ্ধ: বর্গির হাঙ্গামা এবং বাংলায় মারাঠা আক্রমণ (১৭৪২)
তারিখ২৭ সেপ্টেম্বর ১৭৪২[১]
অবস্থানকাটোয়া, বাংলা (বর্তমান কাটোয়া, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত)
ফলাফল

বাংলার নবাবের বিজয়[১][২][৩]

  • মারাঠারা বাংলা থেকে সমস্ত সৈন্য প্রত্যাহার করে নেয়[২]
যুধ্যমান পক্ষ
Coat of Arms of Nawabs of Bengal.PNG বাংলা Flag of the Maratha Empire.svg মারাঠা সাম্রাজ্য
সেনাধিপতি
Coat of Arms of Nawabs of Bengal.PNG আলীবর্দী খান
Coat of Arms of Nawabs of Bengal.PNG গোলাম মুস্তফা খান
Flag of the Maratha Empire.svg ভাস্কর পণ্ডিত
Flag of the Maratha Empire.svg মীর হাবিব[১]
শক্তি
Coat of Arms of Nawabs of Bengal.PNG ২,৫০০[৪] Flag of the Maratha Empire.svg ১২,০০০
হতাহত ও ক্ষয়ক্ষতি
Coat of Arms of Nawabs of Bengal.PNG অজ্ঞাত Flag of the Maratha Empire.svg অজ্ঞাত, তবে প্রচুর[১][২]

কাটোয়ার প্রথম যুদ্ধ ১৭৪২ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর বর্তমান ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কাটোয়ায় বাংলার নবাব এবং মারাঠাদের মধ্যে সংঘটিত হয়। যুদ্ধে মারাঠারা শোচনীয়ভাবে পরাজিত হয়[১][২]

পটভূমি[সম্পাদনা]

১৭৪২ সালে মারাঠা নেতা প্রথম রঘুজী ভোঁসলের প্রধানমন্ত্রী ভাস্কর পণ্ডিতের নেতৃত্বে একটি বিরাট সৈন্যবাহিনী বাংলা আক্রমণ করে এবং সমগ্র বাংলা জুড়ে লুটপাট চালায়[১][২]। তারা বাংলার কাটোয়ায় তাদের প্রধান ঘাঁটি স্থাপন করেছিল[২]। এখান থেকেই তারা বাংলার বিভিন্ন স্থানে আক্রমণ চালাচ্ছিল ও লুটতরাজ করছিল[২]

যুদ্ধের ঘটনাবলি[সম্পাদনা]

বাংলার নবাব আলীবর্দী খান মারাঠাদের বিতাড়িত করার সংকল্প গ্রহণ করেন। এ উদ্দেশ্যে তিনি রাজধানী মুর্শিদাবাদ থেকে অগ্রসর হয়ে কাটোয়ায় মারাঠাদের প্রধান ঘাঁটির বিরুদ্ধে অগ্রসর হন[২]। মারাঠা নেতা ভাস্কর পণ্ডিত এসময় কাটোয়ায় মহা ধুমধামের সঙ্গে দুর্গাপূজা উদযাপন করছিলেন[১][৫]। ফলে আলীবর্দী মারাঠাদেরকে অপ্রস্তুত অবস্থায় পেয়ে যান। ১৭৪২ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর তিনি কাটোয়ার এক মাইল উত্তরে উদ্ধারনপুরের কাছে গঙ্গা পার হয়ে অকস্মাৎ ঘুমন্ত মারাঠা বাহিনীর ওপর আক্রমণ পরিচালনা করেন[২]। আকস্মিক এ আক্রমণে মারাঠারা দিশেহারা হয়ে পড়ে এবং বাংলা থেকে লুণ্ঠিত সমস্ত দ্রব্যসামগ্রী পিছনে ফেলে পলায়ন করে[২][৬]। মারাঠারা এরপর উড়িষ্যার কেন্দ্রস্থলের দিকে পশ্চাৎপসরণ করে[১]

ফলাফল[সম্পাদনা]

কাটোয়ার যুদ্ধে পরাজয়ের পর ভাস্কর পণ্ডিত বাংলার মূল ভূখণ্ডের সমস্ত ঘাঁটি থেকে সকল মারাঠা সৈন্যদের পশ্চাৎপসরণ করার নির্দেশ দেন[২]। এর ফলে বাংলার মূল ভূখণ্ডে মারাঠা আক্রমণের অবসান ঘটে[১]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ড. মুহম্মদ আব্দুর রহিম, (বাংলাদেশের ইতিহাস), আলীবর্দী ও মারাঠা আক্রমণ, পৃ. ২৯৩–২৯৪
  2. "Maratha raids into Bengal"। ১৮ অক্টোবর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  3. Jacques, Tony. Dictionary of Battles and Sieges. Greenwood Press. p. 516. আইএসবিএন ৯৭৮-০-৩১৩-৩৩৫৩৬-৫.
  4. "Relation of Alivardi with the Marathas" 
  5. সৌমেন দত্ত (১ অক্টোবর ২০১৪)। "ভাস্কর পন্ডিতের পূজোর সাক্ষ্য"। আনন্দবাজার পত্রিকা। সংগ্রহের তারিখ ২৪.০১.২০১৭  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  6. মারাঠা আক্রমণ। "ঐতিহাসিক পটভূমিকা"। ন্যাশনাল ইনফরমেশন সেন্টার। ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪.০১.১৭  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)