কাজী সিরাজুল ইসলাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কাজী সিরাজুল ইসলাম
ফরিদপুর-১ আসন আসনের
সংসদ সদস্য
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
জুন ১৯৯৬ - ২০০১
২০০১ - জুন ২০০৫
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৬ অক্টোবর ১৯৪০
গড়ানিয়া, বানা, আলফাডাঙ্গা, ফরিদপুর, ঢাকা, British Raj Red Ensign.svg ব্রিটিশ ভারত
(বর্তমান  বাংলাদেশ)
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (২০০৫ থেকে ২০০৮ সাল)
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

কাজী সিরাজুল ইসলাম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন রাজনীতিবিদ। তিনি ফরিদপুর -১ (মধুখালী, আলফাডাঙ্গাবোয়ালমারী) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য[১][২]

জন্ম ও পারিবারিক জীবন[সম্পাদনা]

কাজী সিরাজুল ইসলাম ১৬ অক্টোবর ১৯৪০ সালে British Raj Red Ensign.svg ব্রিটিশ ভারতের (বর্তমান  বাংলাদেশ) ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গাবানার গড়ানিয়া গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা মৃত কাজী আব্দুল ওয়াহেদ ইউনিয়নের দীর্ঘদিন প্রেসিডেন্ট ছিলেন। মাতা আমেনা খাতুন। তিনি দুই পুত্র ও দুই কন্যা সন্তানের জনক।

শিক্ষা জীবন[সম্পাদনা]

কাজী সিরাজুল ইসলাম শিরগ্রাম হাই স্কুল থেকে এস.এস.সি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ১৯৬২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গ্রাজুয়েশন ডিগ্রী লাভ করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

কাজী সিরাজুল ইসলাম ব্যাংকের শিক্ষানবীস কর্মকর্তা হিসাবে কর্ম জীবন শুরু করেন। ১৯৬৬ সালে বায়তুল মোকাররম মার্কেটে আমিন জুয়েলার্স নামে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান শুরু করেন। তিনি প্রাইম ব্যাংকের উদ্যোক্তা পরিচালক ও প্রাক্তন চেয়ারম্যান। তিনি বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির (বাজুস) নির্বাহী সদস্য। এ ছাড়া তিনি সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে নিয়োজিত রয়েছেন। [৩]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

জুন ১৯৯৬ এবং ২০০১ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়ে ফরিদপুর-১ (মধুখালী, আলফাডাঙ্গাবোয়ালমারী) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।[৪][৫] এমপি থাকা অবস্থায় জুন ২০০৫ সালে বেগম খালেদা জিয়ার হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে আওয়ামী লীগ ছেড়ে বিএনপিতে যোগদান করেন। দল ত্যাগ করার কারণে সংসদ সদস্য পদ হারান তিনি। উপনির্বাচনে তিনি প্রথমে বিএনপি থেকে দলীয় মনোনয়ন পেলেও তৃণমূল নেতা-কর্মীদের প্রবল প্রতিরোধের মুখে প্রার্থিতা ছেড়ে দিতে বাধ্য হন। বিএনপির মনোনয়ন পান শাহ মোহাম্মদ আবু জাফর। কাজী সিরাজুল স্বতন্ত্র নির্বাচন করে পরাজিত হন।[৬][৭][৮][৯][১০]

এরপর ২০০৮ সালের ডিসেম্বরের নবম সংসদ নির্বাচনে বিএনপি দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়ে পরাজিত হন। এরপর আবারো আওয়ামী লীগে যোগ দেন। বর্তমানে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ও কৃষক লীগের সহ-সভাপতি। [১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফরিদপুর-১: জনপ্রিয়তার শীর্ষে আ'লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী কাজী সিরাজ"Jugantor। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-০৩ 
  2. "কাজী সিরাজুল ইসলাম"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-০৩ 
  3. "কাজী সিরাজুল ইসলাম"প্রিয়.কম (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-০৩ 
  4. "৭ম জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা" (PDF)জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  5. "৮ম জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা" (PDF)জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  6. "আওয়ামী লীগের নমিনেশন নিলেন কাজী সিরাজুল ইসলাম"Risingbd.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-০৩ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  7. "Kazi Sirajul Islam MP joins BNP"bdnews24.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মার্চ ২০১৮ 
  8. "Kazi Sirajul Islam MP joins BNP, UPDATE"bdnews24.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মার্চ ২০১৮ 
  9. "Rebellion sees change in alliance nomination"archive.thedailystar.net। The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মার্চ ২০১৮ 
  10. "AL, BNP both active to vie for Faridpur-1 constituency"The Asian Age (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মার্চ ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]