করোনেশন সেতু

স্থানাঙ্ক: ২৬°৫৪′১০″ উত্তর ৮৮°২৮′২৩″ পূর্ব / ২৬.৯০২৭৮° উত্তর ৮৮.৪৭৩০৬° পূর্ব / 26.90278; 88.47306
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
করোনেশন ব্রিজ
Tourism 3.jpg
করোনেশন সেতুর আকাশ দৃশ্য
স্থানাঙ্ক২৬°৫৪′১০″ উত্তর ৮৮°২৮′২৩″ পূর্ব / ২৬.৯০২৭৮° উত্তর ৮৮.৪৭৩০৬° পূর্ব / 26.90278; 88.47306
বহন করেএকটি যানবাহন চলাচলের উপযোগী লেন
অতিক্রম করেতিস্তা নদী
স্থানসেবক, পশ্চিমবঙ্গ
অন্য নামসেবক সেতু
বৈশিষ্ট্য
নকশাখিলান সেতু
ইতিহাস
চালু১৯৪১
পরিসংখ্যান
টোলনা
অবস্থান

করোনেশন ব্রিজ ভারতের পশ্চিমবঙ্গ অঙ্গরাজ্যের সেবকে অবস্থিত। এটি রোডওয়ে ব্রিজসেবক সেতু নামেও পরিচিত। সেতুটি তিস্তা নদীর উপর নির্মিত হয়েছে এবং দার্জিলিংকালিম্পং জেলা দুটিকে সংযুক্ত করেছে। সেতুটি ১৭ নং জাতীয় সড়কের (পুরানো - জাতীয় সড়ক ৩১) অংশ। এই সেতুটি সেবক রেলওয়ে সেতুর সমান্তরালে বিস্তৃত, যা প্রায় ২ কিমি দূরে তিস্তা নদীর উপর অবস্থিত।

সেতুটির ভিত্তিপ্রস্তর বাংলার তৎকালীন গভর্নর জন অ্যান্ডারসন ১৯৩৭ সালে স্থাপন করেন। সেতুর নির্মাণ কাজ ১৯৪১ সালে ৬ লক্ষ টাকা ব্যয়ে সম্পন্ন হয়েছিল এবং এটির নামকরণ ১৯৩৭ সালে রাজা ষষ্ঠ জর্জ ও রাণী এলিজাবেথের রাজ্যাভিষেকের স্মরণে করা হয়েছিল।[১]

সেতুটির এক দিকের প্রবেশপথে দুটি বাঘের মূর্তি থাকায় স্থানীয়রা সেতুটিকে বাগপুল বা বাঘের সেতু বলে ডাকে। এই সেতুটির নকশা, অঙ্কন ও পরিকল্পনা দার্জিলিং ডিভিশন পাবলিক ওয়ার্কস ডিপার্টমেন্টের (পিডব্লিউডি) শেষ ব্রিটিশ এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার জন চেম্বারস করেছিলেন। বোম্বে থেকে আগত মেসার্স জেসি গ্যামনকে ঠিকাদার হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছিল। সেতুটি রিইনফোর্সড কংক্রিট পদ্ধতিতে নির্মিত হয়েছিল। যেহেতু জলের গভীরতা ও স্রোতের কারণে তিস্তা নদীর তলদেশ থেকে খুটি তৈরি সম্ভব ছিল না, তাই পুরো সেতুটি একটি নির্দিষ্ট খিলান আটকানো ছিল, যার দুটি প্রান্ত নদীর উভয় পাশে পাথরের উপর স্থাপন করা হয়েছিল।

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Archived copy"। ২৯ জুন ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১১