বিষয়বস্তুতে চলুন

ঔষধীয় রসায়ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ঔষধীয় রসায়ন (ইংরেজি: Medicinal chemistry) এবং ঔষধনির্মাণ রসায়ন (ইংরেজি: Pharmaceutical chemistry) বিজ্ঞানের দুইটি আন্তঃশাস্ত্রীয় ক্ষেত্র যেগুলি রসায়নশাস্ত্র, বিশেষত সংশ্লেষণী জৈব রসায়নশাস্ত্র, ঔষধবিজ্ঞান এবং আরও বিভিন্ন জীববৈজ্ঞানিক বিশেষায়িত ক্ষেত্রের সংযোগস্থলে অবস্থিত। এগুলিতে বাজারে মুক্তি দেবার উদ্দেশ্যে ঔষধীয় ক্রিয়াকারক কিংবা জৈব-সক্রিয় অণুসমূহের (ঔষধ) নকশাকরণ, রাসায়নিক সংশ্লেষণ ও নির্মাণ অধ্যয়ন করা হয়।[১][২]

ঔষধ হিসাবে ব্যবহৃত প্রায় সকল যৌগই সাধারণত জৈব যৌগ হয়ে থাকে, যাদের বেশিরভাগকে ক্ষুদ্র জৈব অণুর বিস্তৃত শ্রেণিতে বিভক্ত করা হয় (উদাঃ, এটোভাস্টাটিন, ফ্লুটিকাসোন, ক্লোপিডোগ্রেল) এবং "বায়োলজিকস" (ইনফিক্সিম্যাব, এরিথ্রোপোয়েটিন, ইনসুলিন গ্লারজিন। এদের মধ্যে বায়োলজিকস দ্বারা বেশিরভাগ সময় প্রোটিনের ঔষধীয় প্রস্তুতি (প্রাকৃতিক এবং রিকম্বিট্যান্ট অ্যান্টিবডিসমুহ, হরমোন, ইত্যাদি) কে বোঝানো হয়। অজৈব এবং জৈব- ধাতব যৌগসমূহও (উদাঃ লিথিয়াম এবং প্ল্যাটিনাম-ভিত্তিক এজেন্ট যেমন লিথিয়াম কার্বোনেটসিসপ্ল্যাটিন এবং গ্যালিয়াম) ওষুধ হিসাবে ব্যবহার করা যায়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Andrew Davis; Simon E Ward, সম্পাদকগণ (২০১৫)। Handbook of Medicinal Chemistry: Principles and Practice Editors। Royal Society of Chemistry। আইএসবিএন 978-1-78262-419-6ডিওআই:10.1039/9781782621836 
  2. Roland Barret (২০১৮)। Medicinal Chemistry: Fundamentals। London: Elsevier। আইএসবিএন 978-1-78548-288-5