এলি গোল্ডিং

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এলি গোল্ডিং
Ellie Goulding March 18, 2014 (cropped).jpg
১৮ মার্চ ২০১৪ সালে ডাইভারজেন্ট চলচ্চিত্রের প্রিমিয়ারে এলি গোল্ডিং
জন্ম
এলেনা জেন গোল্ডিং

(1986-12-30) ৩০ ডিসেম্বর ১৯৮৬ (বয়স ৩২)
হেয়ারফোর্ড, যুক্তরাজ্য
বাসস্থানলন্ডন, যুক্তরাজ্য
পেশা
  • গায়িকা
  • সঙ্গীতরচয়িতা
সঙ্গীক্যাসপার জপলিং (২০১৭-বর্তমান)
সঙ্গীত কর্মজীবন
ধরন
  • ইলেক্ট্রোপপ
  • সিন্থপপ
  • ইন্ডি পপ
  • ফোকট্রনিকা
বাদ্যযন্ত্রসমূহ
  • ভোকালস
  • গিটার
কার্যকাল২০০৯–বর্তমান
লেবেল
  • পলিডোর
  • নিয়ন গোল্ড
  • চেরিট্রি
  • ইন্টারস্কোপ
সহযোগী শিল্পী
  • টিনি টেম্পা
  • ক্যালভিন হ্যারিস
  • লিজি
  • স্ক্রিলেক্স]
ওয়েবসাইটelliegoulding.com

এলেনা জেন গোল্ডিং' (/ˈɡldɪŋ/ GOHL-ding; জন্ম ৩০ ডিসেম্বর ১৯৮৬) একজন ব্রিটিশ গায়িকা এবং সঙ্গীত রচয়িতা। রেকর্ড প্রযোজক স্টার্কস্মিথ এবং ফ্র্যাঙ্ক মিউজিকের সাথে দেখা হওয়ার পর থেকে তার সঙ্গীতজিবন শুরু হয়, এবং পরে তিনি জেমি লিলিহোয়াইটের দৃষ্টি আকর্ষন করেন, যে পরে তার ম্যানেজার ও এঅ্যান্ডআরের দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৯ সালের জুলাইয়ে পলিডোর রেকর্ডসে গান গাওয়ার পর এর পরের বছর গোল্ডিং তার প্রথম ইপি অ্যান ইন্ট্রোডাকশন টু এলি গোল্ডিং প্রকাশ করেন।[১]

২০১০ সালে, দ্বিতীয় সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে বিবিসির বার্ষিক পুলের শীর্ষ স্থানে পৌছান এবং একই বছর ২০১০ ব্রিট এ্যাওয়ার্ডসে ক্রিটিকস চয়েস এ্যাওয়ার্ড অর্জন করেন। ঐ বছর তিনি তার প্রথম স্টুডিও অ্যালবাম লাইটস প্রকাশ করেন। এটি ইউকে অ্যালবামস চার্টে শীর্ষ স্থান দখল করে এবং যুক্তরাজ্যে এর ৮,৫০,০০০ সংস্করণ বিক্রি হয়। ২০১০ সালের নভেম্বরে অ্যালবামটি ব্রাইট লাইটস নামে পুনঃপ্রকাশ করা হয় যাতে ছিল দুইটি একক। একটি হলো এলটন জনের সঙ্গ কভার ইওর সং, যা ইউকে সিঙ্গেল চার্টসে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। অন্যটি লাইটস, যা এলি গোল্ডিঙের বিলবোর্ড হট ১০০-তে সর্বোচ্চ চাটকৃত একক। এটি সেখানে দ্বিতীয় স্থান দখল করেছিল।

গোল্ডিঙের দ্বিতীয় স্টুডিও অ্যালবাম হ্যালিসিয়ন মুক্তি পায় ২০১২ সালের অক্টোবরে। অ্যালবামের প্রধান একক হলো এনিথিং কুড হ্যাপেন। মুক্তির পর অ্যালবামটি ইউকে অ্যালবামস চার্টে দ্বিতীয় স্থান দখল করে এবং ৬৫ সপ্তাহ পর এটি শীর্ষ স্থানে চলে আসে। হ্যালিসিয়ন বিলবোর্ড ২০০-তে নবম স্থান অধিকার করে। হ্যালিসিয়নের নতুন সংস্করণ হ্যালিসিয়ন ডেইস ২০১৩ সালের আগস্টে মুক্তি পায়। এই অ্যালবামের অন্যতম একটি একক হলো বার্ন, যেটি যুক্তরাজ্যে প্রথম স্থান অর্জন করা তার প্রথম একক। ২০১৪ ব্রিট এ্যাওয়র্ডে তিনি ব্রিটিশ নারী সোলো আর্টিস্ট পুরষ্কার গ্রহন করেন। ২০১৫ সালের ৬ নভেম্বর এলি গোল্ডিং ডিলিরিয়াম শিরোনামে তার তৃতীয় অ্যালবাম প্রকাশ করেন, যার প্রধান একক ছিল অন মাই মাইন্ড। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে তার লাভ মি লাইক ইউ ডু এককের জন্য সেরা পপ সোলো পরিবেশনা বিভাগে তিনি গ্র্যামি এ্যাওয়ার্ডে প্রথমবারের জন্য মনোনয়ন পান।[২]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

এলেনা জেন গোল্ডিং ১৯৮৬ সালের ৩০ ডিসেম্বর[৩] যুক্তরাজ্যের হেয়ারফোর্ডে জন্মগ্রহণ করেন এবং কিংটন হেয়ারফোর্ডশায়ারের নিকট একটি ছোট গ্রাম লিয়নশেল-এ বেড়ে ওঠেন। চার ভাই-বোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয় (তার এক ভাই ও দুই বোন রয়েছেন)।[৪]

৯ বছর বয়সে তিনি ক্লেরিনেট বাজানো শুরু করেন এবং ১৪ বছর বয়সে গিটার শেখা শুরু করেন। তিনি কিংটনের লেডি হকিন'স হাই স্কুলে যেতেন এবং ১৫ বছর বয়সে গান লেখা শুরু করেন।[9]

ইউনিভার্সিটি অব কেন্ট থেকে অভিনয়, রাজনীতি ও ইংরেজিতে কোর্স শুরু করার পর, তার সাথে জেমি লিলি হোয়াইটের সাথে দেখা হয় যিনি পরে তার ম্যানেজার হন এবং রেজর্ড প্রযোজক স্টারস্মিথের সাথে আলাপ করান, যে তার চিফ কোলাবোরেটর এবং লাইটস-এর প্রাথমিক প্রযোজক হন।[৪]

পেশাজীবন[সম্পাদনা]

২০০৯-২০১০: প্রারম্ভ[সম্পাদনা]

২০১০ সালে নোকিয়া ওয়ার্ল্ডে গোল্ডিং সঙ্গীত পরিবেশনা করছেন

যদিও এলি গোল্ডিং ২০০৯ সালের জুলাইয়ে পলিডর রেকর্ডসের সাথে চুক্তিবদ্ধ হন, কিন্তু তার প্রথম একক গান আন্ডার দ্য শিটস ২০০৯ সালের ১৫ নভেম্বর স্বাধীন লেবেল নিয়ন গোল্ড রেকর্ডসের মাধ্যমে ডিজিটাল সংস্করণে মুক্তি পায়।[৫][৬][৭] এককটি ইউকে সিঙ্গেলস চার্টে ৫৩তম স্থান অর্জন করে।[৮][৯][১০] ২০০৯ সালের ২২-২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত "আই উইশ আই স্টেইড সিঙ্গেল অব দ্য উইক হিসেবে বিনামূল্যে ডাউনলোডের জন্য আইটিউনস স্টোর ইউকেতে উপলব্ধ ছিল।[১১]

তার অভিষেক অ্যালবাম মুক্তি পাওয়ার পূর্বেই এলি গোল্ডিং বিবিসি সাউন্ড অব ২০১০ অর্জন করেন, যা সঙ্গীতে উদীয়মান তারকাদের কাছে বহুল আকাঙ্ক্ষিত।[১২] এছাড়াও তিনি ২০১০ ব্রিট এ্যাওয়ার্ডে ক্রিটিকস চয়েস এ্যাওয়ার্ড লাভ করেন। তিনি দ্বিতীয় শিল্পী হিসেবে একই বছর উল্লিখিত দুইটি পুরস্কার অর্জন করেন।[১৩] গোল্ডিং গ্যাব্রিয়েলা কিলমির দ্বিতীয় অ্যালবাম টেন-এর গান লাভ মি কজ ইউ ওয়ান্ট টুএবং ডায়ানা ভাইকার্সের অভিষেক অ্যালবাম সংস ফ্রম দ্য টেইন্টেড চেরি ট্রিজ-এর তিনটি গানের (রিমেক মি + ইউ, নোটিশ, জাম্পিং ইনটু রিবার্স) সহ-রচয়িতা।[১৪] গোল্ডিঙের নট ফলোয়িং গানটি জার্মান শিল্পী লিনা মেয়ার ল্যান্ডরাট তার অভিষেক অ্যালবাম মাই ক্যাসেট প্লেয়ার-এ ব্যাবহার করেন।[১৫] ২০১০ সালে এলি গোল্ডিং র্যাপার টিনি টেম্পা'র অভিষেক অ্যালবাম ডিস্ক অভেরির একক ওয়ান্ডারম্যান-এ সমন্বয় করেন।

২০১০–২০১১: লাইটস এবং ব্রাইট লাইটস[সম্পাদনা]

গোল্ডিঙের অভিষেক অ্যালবাম ‘’লাইটস'’ মুক্তি পায় ২০১০ সালের মার্চে, যা ইউকে অ্যালবামস চার্টে ১ম এবং আইরিশ অ্যালবামস চার্টে ৬ষ্ঠ স্থান দখল করে। [১৬][১৭][১৮] এর একক স্টেরি আইড, গানস অ্যান্ড হর্সেস এবং দ্য রাইটার যথাক্রমে ৪,২৬ এবং ১৯তম স্থান অর্জন করে।[১০] ২০১২ সালের জুন মাস পর্যন্ত যুক্তরাজ্যে অ্যালবামটির ৮,৫০,০০০ এবং ১.৬ মিলিয়ন সংস্করণ বিশ্বব্যাপী বিক্রি হয়। [১৯] ২০১০ সালের আগস্ট, ‘’লাইটস-এর গানের রিমিক্সসহ সে তার দ্বিতীয় ইপি, রান ইনটু দ্য লাইট মুক্তি দেয়। অ্যালবামটিতে নাইকি সহযোগিতা করে এবং গোল্ডিঙের গানকে চলমান উপসংসস্কৃতি পর্যন্ত নেওয়ার লক্ষ্যে এটিকে পলিডর-এর মাধ্যমে চলমান সাউন্ডট্র্যাক হিসেবে মুক্তি দেওয়া হয়েছিল।[২০] ২০১০ সালের নভেম্বরে ছয়টি নতুন ট্র্যাক যুক্ত করে ‘’লাইটসকে ‘’ব্রাইট লাইটস'’ নামে পুনরায় মুক্তি দেওয়া হয়। প্রকৃতপক্ষে ঘোষনা করা হয়েছিল যে, ‘’ব্রাইট লাইটস-এর প্রধান একক হবে গোল্ডিঙের একক ‘’লাইটস-এর নতুন সম্পাদনা, এবং এর মুক্তির তারিখ ঘোষণা করা হয়েছিল ২০১০ সালের ১ লা নভেম্বর।[২১]

ডিস্কোগ্রাফি[সম্পাদনা]

  • লাইটস (২০১০)
  • হ্যালসিয়ন ডেইস (২০১২)
  • ডিলেরিয়াম (২০১৫)

চলচ্চিত্র তালিকা[সম্পাদনা]

বছর শিরোনাম ভূমিকা মন্তব্য
টেলিভিশন
২০১৩ হু ইজ...? নিজে সংযুক্ত শিল্পী
দ্য সাউন্ড চেইঞ্জ লাইব অতিথি
চলচ্চিত্র
২০১৪ এলি গোল্ডিং: হেলদি ইটিং অন ট্যূর নিজে শট প্রামাণ্যচিত্র
লেনন অর ম্যাকার্থি প্রামাণ্যচিত্র

সঙ্গীত ভ্রমণ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "The BRIT Awards 2013"। ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ 
  2. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; 58Grammys নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  3. Leahey, Andrew। "Ellie Goulding Biography"AllMusic। ১৮ নভেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  4. "Introducing… Starsmith"। BBC। ৭ আগস্ট ২০১৫। ৩০ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা 
  5. "Interview with Sarah Stennett"HitQuarters। ২১ জানুয়ারি ২০১৩। ৫ জুন ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জানুয়ারি ২০১৩ 
  6. Ferguson, Paul (৪ সেপ্টেম্বর ২০০৯)। "Herefordshire singer, Ellie Goulding, signs recording deal with Polydor"Hereford TimesNewsquest। ২৭ আগস্ট ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জানুয়ারি ২০১০ 
  7. "Under the Sheets – EP by Ellie Goulding"iTunes Store। ২২ ডিসেম্বর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১০ 
  8. "Later... with Jools Holland, Series 35, Episode 7"। BBC। ৩০ অক্টোবর ২০০৯। ২৭ অক্টোবর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ডিসেম্বর ২০০৯ 
  9. Leanne (২৮ সেপ্টেম্বর ২০০৯)। "Little Boots To Release New Single 'Earthquake'"। Glasswerk National। ২৫ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০০৯ 
  10. "Ellie Goulding"Official Charts Company। ৪ জুলাই ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০১৮ 
  11. "Wish I Stayed – Single of the Week by Ellie Goulding"iTunes Store (UK)। ১২ নভেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ ডিসেম্বর ২০০৯ 
  12. Youngs, Ian (৮ জানুয়ারি ২০১০)। "Ellie Goulding tops BBC Sound of 2010 music list"। BBC News। সংগ্রহের তারিখ ৮ জানুয়ারি ২০০৮ 
  13. "Newcomer Ellie Goulding scoops Critics' Choice"The Independent। London। Press Association। ৯ ডিসেম্বর ২০০৯। ১৩ ডিসেম্বর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ ডিসেম্বর ২০০৯ 
  14. Smyth, David (১৫ জানুয়ারি ২০১০)। "Diana Vickers: proper bow"Popjustice। ১৯ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ ফেব্রুয়ারি ২০১০ 
  15. "Lena Meyer-Landrut kriegt von Ellie Goulding Song geschenkt" (German ভাষায়)। Klatsch-Tratsch। ১৩ মে ২০১০। ১৯ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১১ 
  16. "Ellie Goulding debut tops album chart"। BBC News। ৭ মার্চ ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ৮ মার্চ ২০১০ 
  17. "Ellie Goulding reveals debut album details – exclusive"NME। ৬ জানুয়ারি ২০১০। ৮ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ জানুয়ারি ২০১০ 
  18. "Top 75 Artist Album, Week Ending 4 March 2010"Irish Recorded Music Association. Chart-Track। ৭ জুন ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ মার্চ ২০১০ 
  19. Williams, Paul (১৫ জুন ২০১২)। "Polydor celebrates as Goulding goes global"Music Week: 3। ৪ নভেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুন ২০১২  (সদস্যতা প্রয়োজনীয়)
  20. Sabbagh, Dan (২০ ফেব্রুয়ারি ২০১১)। "Music is thriving, but the business is dying. Who can make it pay again?"The Observer। ২১ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১১ 
  21. Ellie Goulding [@elliegoulding] (৮ সেপ্টেম্বর ২০১০)। "Excited to announce that my next single is called "Lights" and is out on the 1st of November." (টুইট) – টুইটার-এর মাধ্যমে।