এম. ভি. নরসিংহ রাও

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
এম. ভি. নরসিংহ রাও
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামমদিরেড্ডি ভেঙ্কট ববজি নরসিংহ রাও
জন্ম (1954-08-11) ১১ আগস্ট ১৯৫৪ (বয়স ৬৭)
সেকান্দারাবাদ, অন্ধ্রপ্রদেশ, ভারত
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনলেগ ব্রেক
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার, কোচ
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৪২)
২৯ ডিসেম্বর ১৯৭৮ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ টেস্ট২৬ অক্টোবর ১৯৭৯ বনাম অস্ট্রেলিয়া
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১০৮
রানের সংখ্যা ৪৬ ৪৮৪৫
ব্যাটিং গড় ৯.১৯ ৪০.৭১
১০০/৫০ -/- ৯/৩০
সর্বোচ্চ রান ২০* ১৬০*
বল করেছে ৪৬৩ ১৩২৬৫
উইকেট ২৪৫
বোলিং গড় ৭৫.৬৬ ২৮.০৫
ইনিংসে ৫ উইকেট - ১৫
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং ২/৪৬ ৭/২১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৮/- ১১১/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৩ আগস্ট ২০২০

মদিরেড্ডি ভেঙ্কট ববজি নরসিংহ রাও (এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ ; জন্ম: ১১ আগস্ট, ১৯৫৪) অন্ধ্রপ্রদেশের সেকান্দারাবাদ এলাকায় জন্মগ্রহণকারী কোচ ও সাবেক ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৭০-এর দশকের শেষদিকে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ভারতের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ভারতীয় ক্রিকেটে হায়দ্রাবাদ ও আইরিশ ক্রিকেটে আয়ারল্যান্ড দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার হিসেবে খেলতেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি লেগ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন ববজি নরসিংহ রাও নামে পরিচিত এম. ভি. নরসিংহ রাও

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৭১-৭২ মৌসুম থেকে ১৯৮৮-৮৯ মৌসুম পর্যন্ত এম. ভি. নরসিংহ রাওয়ের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ঘরোয়া ক্রিকেটে চমৎকার সফলতা লাভ সত্ত্বেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে নিজেকে মেলে ধরতে না পারাদের মধ্যে তিনি অন্যতম ছিলেন। ববজি নামে পরিচিত এম. ভি. নরসিংহ রাও ডানহাতি মাঝারিসারির ব্যাটসম্যান হিসেবে বেশ দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। এছাড়ও, প্রশস্ত হাতে বলেক বাঁকানো ও বাউন্স সহযোগে অর্থোডক্স লেগ স্পিন বোলিং করতেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সফল না হলেও দুই দশককাল রঞ্জী ট্রফিতে হায়দ্রাবাদের প্রধান চালিকাশক্তিতে পরিণত হয়েছিলেন। জাতীয় প্রতিযোগিতায় সেরা অল-রাউন্ড নৈপুণ্য প্রদর্শন করেন। ৪৭.৪০ গড়ে ৪১২৪ রান ও ২৪.২০ গড়ে ২১৮ উইকেট পান। আয়ারল্যান্ডে বেশ সফল ছিলেন ও জনপ্রিয় পেশাদার খেলোয়াড়ের ভূমিকায় অবতীর্ণ হন।

কাছাকাছি এলাকায় ফিল্ডিং করতেন এম. ভি. নরসিংহ রাও। আটটি ক্যাচ তালুবন্দী করেন। প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে বেশ ভালো খেলা উপহার দিয়েছিলেন। ৪৭.৪০ গড়ে ৪১২৪ রান ও ২৪.২০ গড়ে ২১৮ উইকেট দখল করেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে চারটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন এম. ভি. নরসিংহ রাও। ৩ জানুয়ারি, ১৯৭৯ তারিখে কলকাতায় সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ২৬ অক্টোবর, ১৯৭৯ তারিখে একই মাঠে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি। ১৯৭৮-৭৯ মৌসুমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই টেস্ট খেলার পর বিএস চন্দ্রশেখরকে তার স্থলাভিষিক্ত করা হয়।

পরের মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ খেলার জন্যে তাকে পুনরায় জাতীয় দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। কিম হিউজের নেতৃত্বাধীন অস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে দুই টেস্ট পর আবারও তাকে মাঠের বাইরে অবস্থান করতে হয়। ব্যাট কিংবা বল হাতে নিয়ে কোনটিতেই সফলতার স্বাক্ষর রাখতে পারেননি তিনি। তবে, কাছাকাছি এলাকায় ফিল্ডিং করে আটটি ক্যাচ তালুবন্দী করার দক্ষতা দেখান।

ইডেন গার্ডেন্সে সিরিজের পঞ্চম টেস্টে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে দলকে নিশ্চিত পরাজয়ের কবল থেকে রক্ষা করেন। শেষ দিন ভারতের জয়ের লক্ষ্যমাত্রা ২৪৭ নির্ধারিত হয় ও এক পর্যায়ে দলের সংগ্রহ ১২৩/৪ হয়। সুনীল গাভাস্কার, দিলীপ বেঙ্গসরকার, গুণ্ডাপ্পা বিশ্বনাথচেতন চৌহান - এ চারজন মূল ব্যাটসম্যান প্যাভিলিয়নে চলে যান। অপরাজিত ৮৫ রানে থাকা যশপাল শর্মা’র সাথে জুটি গড়েন। ২০০/৪ করলে টেস্টটি ড্রয়ে পরিণত হয়।[১] এটিই তার সর্বশেষ টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল।

অবসর[সম্পাদনা]

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর প্রতিযোগিতাধর্মী আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে কোচিং জগতের দিকে ধাবিত হন। ২০১১ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ড ক্রিকেট দলের সহকারী কোচ ছিলেন তিনি।

ডিসেম্বর, ২০১২ সালে প্রথম ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে এম. ভি. নরসিংহ রাওকে সম্মানসূচক এমবিই উপাধিতে ভূষিত করা হয়। ক্রীড়াক্ষেত্রে অনবদ্য অবদানসহ উত্তর আয়ারল্যান্ডে জাতিগত মোকাবেলায় ভূমিকা রাখেন তিনি।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Calcutta Test Scorecard - Ind/Aus: 1979-80"। Cricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ১ জুলাই ২০০৯ 
  2. http://www.thehindu.com/news/cities/Hyderabad/british-high-for-bobjee/article4246168.ece

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]