এভিজি পিসি টিউনআপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এভিজি পিসি টিউনআপ
এভিজি পিসি টিউনআপ ২০১১.png
টিউনআপ ইউটিলিটিস স্টার্টআপ পাতা ২০১৪
টিউনআপ ইউটিলিটিস স্টার্টআপ পাতা ২০১৪
মূল উদ্ভাবকটিউনআপ ইউটিলিটিস
উন্নয়নকারীএভিজি টেকনোলজিস
প্রাথমিক সংস্করণ১৯৯৭; ২২ বছর আগে (1997)[১]
অপারেটিং সিস্টেমউইন্ডোজ এক্সপি, উইন্ডোজ ভিসতা, উইন্ডোজ সেভেন, উইন্ডোজ 8
প্লাটফর্মআইএ-৩২ এবং এক্স৬৪
আকার২৭.০ মেগাবাইট
উপলব্ধইংরেজী, জার্মান, ফ্রেন্ঞ্চ, স্প্যানিশ, ডাচ, ইতালীয়, জাপানিজ, রাশিয়ান ইত্যাদি[১]
ধরণইউটিলিটি সফটওয়্যার
লাইসেন্সট্রায়ালঅয়্যার
ওয়েবসাইটwww.tune-up.com

এভিজি পিসি টিউনআপ, মাইক্রোসফট উইন্ডোজের জন্য একটি ইউটিলিটি সফটওয়্যার সমষ্টি যার নকশা করা হয়েছে কম্পিউটার সিস্টেমকে রক্ষনাবেক্ষন, ব্যবস্থাপনা, উপযোগিতা ও সমস্যা সমাধান নির্ণয়ের জন্য। পূর্বে এটি শুধুমাত্র টিউনআপ ইউটিলিটিস নামে পরিচিত ছিল এবং আলাদা ছিল। এটি তৈরী ও উন্নয়ন করে টিউনআপ সফটওয়্যার জিএমবিএইচ। জার্মানির ডার্মসটাদে সফটওয়্যারটির প্রধান কার্যালয় অবস্থিত। টিবর স্কিম্যান এবং ক্রিস্টফ লোউম্যান যুগ্মভাবে এটি তৈরী করেন ১৯৯৭ সালে।[২][৩] ২০১১ সালে এভিজি টেকনোলজিস টিউনআপ সফটওয়্যারকে কিনে নেয়।[১]

২০১১ সালের তথ্য অনুযায়ী, টিউনআপ ইউটিলিটিসের নয়টি সংস্করন বেরিয়েছে এবং এতে প্রথম অবস্থায় থাকা ১৬টি বৈশিষ্ট্য থেকে ধীরে ধীরে ৩২টি বৈশিষ্ট্যে উন্নিত করা হয়েছে। টিউনআপ ইউটিলিটি হিসেবে সাধারণত ইতিবাচক নিরীক্ষার ফলাফল পেয়েছে। তবে কিছু নেতিবাচক নিরীক্ষার ফলাফলে একে এটির দামের তুলনায় মূল্যহীন বলা হয়েছে।

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

এর ২০১৪ সালে বের হওয়া সংস্করনে কার্য উপাদান ছিল ৩০টির মত, এগুলো মূল পাতা থেকে বেছে নেওয়া যেত। মূল পাতাটিকে ডাকা হয় টিউনআপ স্টার্ট সেন্টার। বেশিরভাগ উপাদানগুলোকে আবার স্টার্ট মেনু থেকেও বেছে নেওয়া যায়। সফটওয়্যারে উপাদানগুলোকে তালিকা দৃশ্য বা ছক দৃশ্য হিসেবেও সাজানো যায়।

স্ট্যাটাস এবং রেকমেন্ডেশন[সম্পাদনা]

এর অভ্যন্তরে আরো চারটি উপবিভাগ রয়েছে যেমন: ১ ক্লিক মেনটেইন্যান্স, পারফরমেন্স অপটিমাইজার, ফিক্স প্রবলেমস এবং লাইভ অপটিমাইজেশন। ১ ক্লিক মেনটেইন্যান্সে বহুধরনের হাতিয়ার একসঙ্গে চালানো হয়। পারফরমেন্স এবং ফিক্স প্রবলেম বিভাগে বিভিন্ন তথ্য ভিত্তিক ইঙ্গিত দেয়া হয় যেমন: অদরকারী দৃশ্যমান ইফেক্ট বন্ধ করা, উইন্ডোজে চলছে এমন অদরকারী সার্ভিস বাদ দেয়া ইত্যাদি। লাইভ অপটিমাইজেশন কোন চলতি এ্যাপ্লিকেশনের দ্রুততম ও নিরবিচ্ছিন্ন কার্যকারিতা নিশ্চিত করে।

চিত্র:TuneUp Utilities in list view mode.png
টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০১২ সংস্করনের সকল উপাদান একসাথে

সিস্টেম অপটিমাইজেশন[সম্পাদনা]

অপটিমাইজ সিস্টেম বিভাগে রয়েছে প্রোগ্রাম ডিএকটিভেটর যার কাজ হল মেমোরি থেকে কোন প্রোগ্রাম আনলোড করা এবং ভবিষ্যতে যাতে অপ্রয়োজনে লোড না হয় তা ব্যহত করা। এটি প্রোগ্রাম আনইনস্টলের একটি বিকল্প উপায়। ডিজেবল করা থাকলে এটি ডিস্ক স্পেস নেয় কিন্তু সিস্টেমের স্টার্টআপ সময়, সাটডাউন সময় ও সিস্টেমের কার্যকারিতাকে ব্যহত করে না।[৪] অন্যান্য উপাদানগুলো আছে যেমন ডিফ্রেগমেনটেশন টুল, রেজিষ্ট্রি ক্লিনার এবং স্টার্টআপ ম্যানেজার যা এমএসকনফিগের বিকল্প।

ডিস্ক ক্লিনআপ[সম্পাদনা]

গেইন ডিস্ক স্পেস বিভাগের একটি উপাদান ডিস্ক ক্লিনআপ যা উইন্ডোজে বিদ্যমান উইন্ডোজ ডিস্ক ক্লিনআপের বিকল্প ও শক্তিশালী একটি টুলস। এতে আরো উপাদান যেমন ডিস্কস্পেস এক্সপ্লোরার বা ডিস্ক স্পেস এ্যনালাইজার এবং শ্রেডার (ডাটা ইরেজার)যা কোন ডাটাকে একেবারের জন্য মুছে দিতে পারে এমন টুলস রয়েছে।

সমস্যা নিরসন হাতিয়ার[সম্পাদনা]

ফিক্স প্রোবলেমস বিভাগের আওতায় রয়েছে রিপেয়ার উইজার্ড যা ব্যবহারকারীকে সমস্যা চিহ্ণিত করতে সহায়তা করে যা কিনা সফটওয়্যারের মাধ্যমে সয়ংক্রিয়ভাবে করা যায় না। যেমন: আইকন দেখা না যাওয়া, ডেস্কটপ থেকে মাই কম্পিউটার বা রিসাইকেল বিন আইকন উধাও হয়ে যাওয়া ইত্যাদি।

ডিস্ক ডকটর হার্ড ডিস্কে সংরক্ষিত ফাইলের সমন্বয়তা পরীক্ষা করে এবং ক্ষতিগ্রস্থ ফাইল উদ্ধারের চেষ্টা চালায়। এটি হার্ড ডিস্কের ব্যাড সেক্টর খুজে পেতে সাহায্য করে এবং তাদের অবরুদ্ধ করে রাখে। এটি আসল উইন্ডোজে বিদ্যমান চেক ডিস্ক টুলের চিত্রভিত্তিক রূপ। এতে আরো আছে টাস্ক ম্যানেজার, সিস্টেম তথ্য এবং আনডিলিশন টুল।

উইন্ডোজ পরিবর্তন[সম্পাদনা]

শেষ বিভাগে রয়েছে স্টাইলার ও সিস্টেম কন্ট্রোল। সিস্টেম কন্ট্রোল টুলের মাধ্যমে সফটওয়্যারটি ব্যবহারকারীকে উইন্ডোজের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ন ও কষ্টসাধ্য সেটিংস পরিবর্তন করার সুবিধা দিয়ে থাকে, যা সাধারণত ব্যবহারকারীর কাছ থেকে লুকানো থাকে। স্টাইলার দিয়ে ব্যবহারকারীর ইন্টারফেস পরিবর্তনের সুযোগ দেয়া হয় যার ফলে আইকন, ডেস্কটপের আবহ, লগঅন ও স্টার্টআপ পর্দার পরিবর্তন সাধন করা যায়।

টার্বো মোড[সম্পাদনা]

টার্বো মোড র্স্টাট সেন্টারের নিচে থেকে ব্যবহার করা যায়। এটি সিস্টেমের কার্যকারীতাকে বৃদ্ধি করে সাময়িকভাবে উইন্ডোজের কিছু সেবাকে বন্ধ রেখে। অবশ্যই এগুলো ব্যবহারকারীকে নির্বাচন করতে দেয়া হয়। যেমন: উইন্ডোজ এইরো থিমস এবং ভিজুয়াল ইফেক্টস।[৪][৫]

ইকোনমি মোড[সম্পাদনা]

টার্বো মোডের মত এটিও স্টার্ট সেন্টারের নিচে থেকে ব্যবহারযোগ্য। এটি চালু থাকলে ব্যাটারির উপর চাপ কমাতে ব্যাকগ্রাউন্ড প্রোগ্রাম বন্ধ করা হয় এবং সিপিউ যদি আন্ডারক্লক করা যায় তাও করা হয়।

অনুলিপি সন্ধান[সম্পাদনা]

অনুলিপি সন্ধান সুবিধাটি ১৪ সংস্করনের সাথে এসেছে, এটি র্স্টাট সেন্টারের "ক্লিন আপ" ট্যাব থেকে দেয়া যায়। এটি একই রকমের একাধিক ফাইল, ফটো, গান, ভিডিও ইত্যাদি খুজে বের করতে ব্যবহৃত হয়। একাধিক ফাইল বিভিন্ন জায়গায় থেকে ডিস্কে স্পেস কমিয়ে দিতে পারে।[৬]

ফ্লাইট মোড[সম্পাদনা]

ফ্লাইট মোড ইকোনমি মোডের বর্ধিত সংস্করন। কিন্তু এতে ওয়াইফাই, ব্লুটুথ, ইনফ্রারেড ইত্যাদি ডিভাইসগুলো বন্ধ করে রাখা হয়।[৭]

উন্নয়ন[সম্পাদনা]

সমর্থিত অপারেটিং সিস্টেম
অপারেটিং সিস্টেম পূর্ববর্তী
সংস্করণ
সর্বশেষ
সংস্করণ
 
উইন্ডোজ ৯৫ ৯৭ ২০০৩ [৮]
উইন্ডোজ ৯৮ ৯৭ ২০০৭ [৯]
উইন্ডোজ মি ২০০৩ ২০০৭ [৯]
উইন্ডোজ ২০০০ ২০০৩ ২০০৮ [১০]
উইন্ডোজ এক্সপি, উইন্ডোজ এক্সপি সার্ভিস প্যাক ১ ২০০৩ ২০০৮ [১০]
উইন্ডোজ এক্সপি, উইন্ডোজ এক্সপি সার্ভিস প্যাক ২ ২০০৯ ২০১৪ [১১][১২]
উইন্ডোজ এক্সপি প্রফেশনাল এক্স৬৪ সংস্করন ২০০৬ ২০১৪ [১১][১২]
উইন্ডোজ ভিসতা ২০০৭ ২০১৪ [১১][১২]
উইন্ডোজ ৭ ২০১০ ২০১৪ [১১][১২]
উইন্ডোজ ৮ ২০১৩ ২০১৪ [১২]
উইন্ডোজ ১০ ২০১৪ ২০১৫ [১২]

সফটওয়্যারটির প্রথম সংস্করন ছিল টিউনআপ ৯৭ যা ১৯৯৭ সালে ছাড়া হয়। তখন থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৯টি সংস্করন ছাড়া হয়েছে।[১৩]

টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০০৩
প্রথম সংস্করন ইংরেজি[৮], ফ্রেঞ্চ[১৪] ও জার্মান ভাষায় ছাড়া হয়। এতে ১৬টি উপাদান ছিল যা সফটওয়্যারটির স্টার্ট সেন্টার ও উইন্ডোজের স্টার্ট মেনু থেকে শুরু করা যেত। এতে হার্ড ডিস্ক ক্লিন, ডিফ্রেগ রেজিষ্ট্রি, ক্লিন রেজিষ্ট্রি, উইন্ডোজ অপটিমাইজ, ইন্টারনেট সংযোগ দ্রুতগতির করা, উইন্ডোজের দৃশ্যায়ন পরিবর্তন করার সুবিধা অন্তর্ভুক্ত করা ছিল। ব্যবহারকারীদের জ্ঞান অনুযায়ী সফটওয়্যার ব্যবহারের জন্য এতে ইন্টারমেডিয়েট থেকে এডভান্স স্তরের ব্যবহারকারীর ব্যবস্থা ছিল। এতে করে নবীন বা সাধারন ব্যবহারকারীদের কোন উচ্চ স্তরের ব্যবস্থাপনা ও সম্পাদনা যেমন রেজিষ্ট্রি সম্পাদনা, প্রসেস ব্যবস্থাপনা, প্রোগ্রাম আনইন্সটল করা, ফাইল শ্রেড করা, তথ্য কিভাবে দেখাবে তা প্রক্রিয়াকরণ প্রভৃতি সুবিধা দেয়া হত না। সয়ংক্রিয় ব্যবস্থায় এগুলো অল্প কিছু নির্বাচন সুবিধায় ব্যবহারকারীদের দেখানো হত। অন্যদিকে উচ্চ স্তরের ব্যবহারকারী যারা এসকল কম্পিউটারের বিষয় সম্পর্কে জ্ঞাত তাদের জন্য এডভান্স মোড এসকল সুবিধা প্রদান করত।[১৫] এই সংস্করনটি উইন্ডোজ ২০০০, মি এবং এক্সপি সমর্থন করত।[৮]
টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০০৪
এই সংস্করনে টিউনআপ ১-ক্লিক মেইনটেন্যান্স এবং টিউনআপ উইনস্টাইলার (আগে টিউনআপ স্টাইলার[১৬])[২] চালু করা হয়। এছাড়া উইন্ডোজ ২০০০ ও এক্সপিতে রেজিষ্ট্রি ডিফ্রেগমেনটেশন সুবিধা চালু হয়।[১০]
টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০০৬
মোজিলা ফায়ারফক্স ব্রাউজার অপটিমাইজেশন, পরিবর্তন ও ডিস্ক ক্লিনিং সুবিধা রাখা হয়। টিউনআপ স্টার্টআপ ম্যানেজার সম্পাদকীয় মান এবং নামি দামি প্রোগ্রামের ব্যাখ্যা দেখাতে শুরু করে। উইন্ডোজ এক্সপির বুট লোগো পরিবর্তন সুবিধা যোগ হয়।[১৭][১৮]
টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০০৭
নতুন দুটি উপাদান যোগ হয় টিউনআপ ডিস্ক ডকটর[১৯] এবং টিউনআপ ডিস্ক স্পেস এক্সপ্লোরার[১৯]। এটি উইন্ডোজ ভিসতা সমর্থন করত।[৯]
টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০০৮

আরো দুটি নতুন উপাদান যোগ হয় টিউনআপ ড্রাইভ ড্রিফেগ এবং রিপেয়ার উইজার্ড (সমস্যা চিহ্ণিতকরন ও নিরসন)। এই সংস্করনে আলাদা করে ডিস্ক ক্লিনআপ উপাদান রাখা হয়নি। ডিস্ক ক্লিনআপ স্টার্ট সেন্টারে চলে আসে নতুন বিভাগ হিসেবে যার নাম হয় গেইন ডিস্ক স্পেস।

টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০০৯
স্টার্ট সেন্টারে নতুন ভাগ যোগ হয় যা সিস্টেম নিরীক্ষন করে এবং সিস্টেমের বর্তমান অবস্থা দেখায় সেই সাথে পর্যাপ্ত সুপারিশ ব্যবস্থাও ছিল। সুপারিশগুলো তিন দিক থেকে করা হত: দ্রুততা, সিস্টেমের অবস্থা বিবেচনায় ও রক্ষনাবেক্ষন।[২০] নতুন উপাদান ছিল স্পিড অপটিমাইজার এবং সর্টকার্ট ক্লিনার। নতুন স্টাইলার ভিসতার বুট লোগো পরিবর্তন করতে পারত।[২০]
টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০১০
উইন্ডোজ ৭ সমর্থিত সংস্করন।[২১] নতুন টার্বো মোড যুক্ত করা হয় যা ব্যাকগ্রাউন্ড কার্যক্রম থামিয়ে উইন্ডোজকে দ্রুততা দিত। ব্যাকগ্রাউন্ড কার্যক্রম ও ভিজুয়াল ইফেক্টস যেমন এইরো, সার্চ, এরর রিপোর্ট, মোবাইল ডিভাইসের সাথে সিংক্রোনাইজ করা এবং ইনস্টল করা বিভিন্ন প্রোগ্রামের অকার্যকর সার্ভিস এই পদ্ধতিতে বন্ধ করা হয়।[৫] এতে টিউনআপ লাইভ অপটিমাইজেশন সুবিধাও যোগ হয়।[২১][২২]
টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০১১
প্রোগ্রাম ডিএকটিভেটর বৈশিষ্ট্য যোগ হয় যার মাধ্যমে প্রোগ্রামকে আনইন্সটল না করে অকার্যকর করে রাখা যায়। যখন ব্যবহারকারীর প্রয়োজন হয় তখনই শুধুমাত্র কার্যকর হয় প্রোগ্রামটি।[১১] নতুন প্রোগ্রাম রেটিং সুবিধা আসে যাতে অন্য ব্যবহারকারীরা (এই সফটওয়্যারের) কিভাবে একে রেটিং দিয়েছে তা দেখানো হত।[১১] স্টার্ট সেন্টারে টিউনিং স্ট্যাটাস আসে যা অপটিমাইজেশন অগ্রগতি এবং সম্ভাব্যতা দেখাত।[৪]
টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০১২
এই সংস্করনে ইকোনমি মোড চালু হয় যা ল্যাপটপের ব্যাটারি বাচানোয় কাজে আসে।
টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০১৩
ডিস্ক ক্লিনআপ কার্যক্রম এবং কার্যক্ষমতা অপটিমাইজ সক্ষমতাকে উন্নয়ন করা হয়। উইন্ডোজ ৮ সমর্থন সুবিধা যোগ হয়।[১২][২৩]
টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০১৪
২০১৪ সংস্করনে নতুন রূপে হাজির হয় সফটওয়্যারটি। নতুন সংস্করনটিতে অনুলিপি সন্ধান, উইন্ডোজ ৮.১ সংস্করনের এ্যপ ক্লিনার, ফ্লাইট মোড ইত্যাদি সুবিধা যোগ হয়।[২৪]
টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০১৫
২০১৫ সংস্করনে এভিজি পিসি টিউনআপের সাথে টিউনআপ ইউটিলিটিসের সমন্বয় করা হয়।[২৫]

সমালোচনা[সম্পাদনা]

সাধারনভাবে এটি ইতিবাচক ধারণা তৈরী করে নিরীক্ষাকারীদের মনে, যদিও পন্যটি ইন্সটলের সময় গোপনে পপআপ বিজ্ঞাপন ইন্সটল করত ব্যবহারকারীকে না জানিয়েই। কম্পিউটার শপার ম্যাগাজিন টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০০৯ সংস্করন নিরীক্ষা করে এবং দশে আট দেয়। তারা মন্তব্য করে এতে এন্টিভাইরাস ও একটি ব্যক্তিগত ফায়ারওয়াল ব্যবস্থার অভাব রয়েছে[২৬] এবং অন্য দিকে বিভিন্ন উপাদানগুলো দারুনভাবে সাজানো রয়েছে। টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০০৯ ভোটে ৩৭ তম স্থান লাভ করে এবং কম্পিউটার শপার কর্তৃপক্ষ থেকে "বেস্ট ইউটিলিটি সুইট" হিসেবে পুরস্কার অর্জন করে।[২৭]

সিনেটও টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০০৯ নিরীক্ষা করে এবং পাঁচে পাচ দিয়ে নিরীক্ষক মন্তব্য করে যে, "একে শুধুমাত্র উপকারী বললে কম বলা হবে"। তিনি সারমর্মে বলেন এটি অতন্ত্য শক্তিশালী এবং সহজ ব্যবহার উপযোগী হাতিয়ার। এর ডিস্ক ক্লিনআপ এবং রেজিষ্ট্রি ক্লিনার হল সবচেয়ে দারুন সুবিধার ও উপকারী।[২৮]

পিসি ওয়ার্ল্ডের প্রিসটন গ্রালা ২০১০ সংস্করন নিরীক্ষা করে বলেন এটি একটি সম্পূর্ন ইউটিলিটি ব্যবস্থা যাতে সব কিছু রয়েছে। যদিও এর দাম কেনার ব্যাপারে ক্রেতাদের দ্বিধায় ফেলবে।[৫] একই ব্যক্তি টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০০৯ সংস্করন নিরীক্ষা করেছিলেন পিসি এডভাইসরের জন্য। তখন তিনি একে ৪.৫ স্টার দেন পাচেঁ।[২৯]

পিসি ম্যাগাজিন ২০১১ সংস্করন নিরীক্ষা করে এবং পাঁচে চার স্টার দেয়। পিসি ম্যাগাজিনের সফটওয়্যার বিশ্লেষক এর ওয়ান ক্লিক রিপেয়ার সুবিধা ও পিসি বুষ্ট টাইম অপটিমাইজ সুবিধার প্রশংসা করেন। তিনি দামের ব্যাপারে সিস্টেম ম্যাকানিকের সাথে তুলনা করে একে সমালোচনা করেন।[৪]

সফটপিডিয়া একে সম্পাদকীয় "পিক আপ" পুরষ্কার দেয়।[৩০] যদিও সম্পাদক দামের ব্যাপারে একে পাঁচে তিন দেন। তিনি টিউনআপ ইউটিলিটিস ২০০৬ সংস্করনের কারিগরি সমর্থনের বিষয়ে আলোকপাত করেন এবং তার উদ্বেগ প্রকাশ করেন।[৩১]

ক্রিষ্টিন ইমলার টিউনআপ ইউটিলিটিসকে টিউনিং হাতিয়ারের মধ্যে মান সম্পন্ন বলে চিহ্নিত করেন।[৩২]

সিনেটে ২০১৫ সালের সংস্করনকে ব্যবহারকারীরা পাঁচের মধ্যে দুই স্টার রেটিং দেন।[৩৩]

টিকা[সম্পাদনা]

  1. ^ ^ Only Windows XP Home Edition, Professional Edition and Media Center Edition are supported.

তথ্য সূত্র[সম্পাদনা]

  1. "About us"। TuneUp Corporation। সংগ্রহের তারিখ ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  2. "TuneUp Utilities 2004"MajorGeeks.com। ৫ এপ্রিল ২০০৪। ১৪ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  3. "Unternehmen"TuneUp Deutschland। TuneUp Distribution GmbH। সংগ্রহের তারিখ ৩ জানুয়ারি ২০১১ 
  4. Wilson, Jeffrey L. (২৭ অক্টোবর ২০১০)। "TuneUp Utilities 2011"PC Magazine। Ziff Davis, Inc। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০১০ 
  5. Gralla, Preston (৩ ডিসেম্বর ২০০৯)। "TuneUp Utilities 2010 Replaces Many Other Utilities"PC World। PCWorld Communications, Inc.। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০১০ 
  6. "TuneUp Duplicate Finder"। ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৩। 
  7. "TuneUp Flight Mode"। ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৩। 
  8. "TuneUp Utilities 2003"cnet download.com। ১৪ জুলাই ২০০৩। সংগ্রহের তারিখ ৩০ নভেম্বর ২০১০ 
  9. "TuneUp Utilities 2007"cnet download.com। ১৩ জুলাই ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ১ ডিসেম্বর ২০১০ 
  10. "Table of operating systems supported by TuneUp Utilities"। TuneUp Corporation। ১৯ জুলাই ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ৭ ডিসেম্বর ২০১০ 
  11. Williams, Mike (২৯ অক্টোবর ২০১০)। "Review: TuneUp Utilities 2011"Softwarecrew। সংগ্রহের তারিখ ৩০ নভেম্বর ২০১০ 
  12. Wilson, Jeffrey L (২৬ সেপ্টেম্বর ২০১২)। "TuneUp Utilities 2013"PC WorldIDG। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  13. "TuneUp Utilities Download Archive"। TuneUp Corporation। ২ জানুয়ারি ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ ডিসেম্বর ২০১০ 
  14. Condo, Jean-Charles (২৪ জুলাই ২০০৩)। "TuneUp Utilities 2003 (optimisation Windows et PC)"BRANCHEZ-VOUS!। ১০ অক্টোবর ২০০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ নভেম্বর ২০১০ 
  15. Price, Mike (১২ জানুয়ারি ২০০৪)। "TuneUp Utilities 2003 review"Expert Reviews। সংগ্রহের তারিখ ৭ ডিসেম্বর ২০১০ 
  16. "Customize Windows"TuneUp Utilities website। TuneUp Corporation। ৩০ ডিসেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জানুয়ারি ২০১১Improves the appearance of your Windows interface with TuneUp Styler 
  17. "TuneUp Utilities 2006"Online-BestellungDigital River GmbH। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জানুয়ারি ২০১১ 
  18. Muradin, Alex (১৩ ডিসেম্বর ২০০৫)। "TuneUp Utilities 2006 Rocks!"Softpedia। SoftNews NET SRL। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জানুয়ারি ২০১১ 
  19. Copestake, Stephen (৯ জানুয়ারি ২০০৭)। "Review: Tuneup Utilities 2007 Windows optimiser"PersonalComputerWorld। ৮ ডিসেম্বর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ নভেম্বর ২০১০ 
  20. Wilson, Jeffrey L. (২৪ এপ্রিল ২০০৯)। "TuneUp Utilities 2009"LAPTOP Magazine – Online (www.laptopmag.com)। Bedford Communications, Inc.। সংগ্রহের তারিখ ২০ জুলাই ২০১০ 
  21. McKinnon, David (২৪ জানুয়ারি ২০১০)। "TuneUp Utilities 2010 review"Expert Reviews। সংগ্রহের তারিখ ৩০ নভেম্বর ২০১০ 
  22. "TuneUp - Utilities 2010 review"IT Reviews। ১৬ ডিসেম্বর ২০০৯। ২৮ এপ্রিল ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ ডিসেম্বর ২০১০The wealth of tools available is impressive and most are well structured enough for anyone to get involved, and the improvements on offer build nicely on the core benefits of the suite. 
  23. "TuneUp 2013: New Cleaning Features and Benchmarks (Part 1)"TuneUp BlogAVG Technologies। ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১২। ১১ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  24. Dragomir, Alexandru (২৪ এপ্রিল ২০১৪)। "TuneUp Utilities 2014"www.filesgang.com। ২৩ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ এপ্রিল ২০১৪ 
  25. AVG PC TuneUp - Homepage
  26. "TuneUp Utilities 2009"Computer Shopper। SX2 Media Labs, LLC। মার্চ ২০০৯। ২০ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জানুয়ারি ২০১১ 
  27. Anderson, Sarah E.; Burek, John A.; Haselton, Lauren; Jerome, Will; Krawczyk, Konrad; Rougeot, Jonathan; Safford, Matt; Smith, Catharine (২০০৯)। "Best Utilities Suite: TuneUp Utilities 2009"Computer Shopper। SX2 Media Labs, LLC। ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ নভেম্বর ২০১০ 
  28. Rosenblatt, Seth (২৫ নভেম্বর ২০০৮)। "TuneUp Utilities 2010 9.0.4300.7 — CNET Editors' review"Download.com। সংগ্রহের তারিখ ২০ জুলাই ২০১০ 
  29. Gralla, Preston (২০ জানুয়ারি ২০০৯)। "TuneUp Utilities 2009 review"PC Advisor magazine – Online (www.pcadvisor.co.uk)International Data Group (IDG)। সংগ্রহের তারিখ ২০ জুলাই ২০১০ 
  30. "TuneUp Utilities 2011"Softpedia। SoftNews NET SRL। সংগ্রহের তারিখ ২৯ নভেম্বর ২০১০ 
  31. Muradin, Alex (১৩ ডিসেম্বর ২০০৫)। "TuneUp Utilities 2006 Rocks!"Softpedia। SoftNews NET SRL। সংগ্রহের তারিখ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১১ 
  32. Immler, Christian। Das PC-Handbuch [The PC-manual] (German ভাষায়)। Pearson Education। পৃষ্ঠা 690। আইএসবিএন 978-3-8272-4464-2। সংগ্রহের তারিখ ৫ ডিসেম্বর ২০১০Die TuneUp Utilities (www.tuneup.de) sind ein Klassiker unter den Tuning-Tools. [TuneUp Utilities represent a classic amongst tuning tools.] 
  33. টেমপ্লেট:Cite url

বহিঃ সংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:ডিস্ক স্পেস এ্যানালাইজার টেমপ্লেট:ডাটা ইরেজার