এডওয়ার্ড ড্রিঙ্কার কোপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
Edward Drinker Cope
Cope Edward Drinker 1840-1897.jpg
জন্ম(১৮৪০-০৭-২৮)২৮ জুলাই ১৮৪০
ফিলাডেলফিয়া, পেনসিলভানিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
মৃত্যু১২ এপ্রিল ১৮৯৭(1897-04-12) (বয়স ৫৬)
ফিলাডেলফিয়া, পেনসিলভানিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
নাগরিকত্বমার্কিন
কর্মক্ষেত্রপ্যালিওন্টোলোজি, প্রাণিবিদ্যা, হারপেটোলজি
উল্লেখযোগ্য
পুরস্কার

এডওয়ার্ড ড্রিঙ্কার কোপ (ইংরেজি: Edward Drinker Cope ;জন্ম: ২৮শে জুলাই, ১৮৪০, মৃত্যু: ১২ই এপ্রিল ১৮৯৭) ছিলেন একজন আমেরিকান প্যালিওন্টোলোজিস্ট এবং তুলনামূলক শরীরস্থানবিদ। এরই সঙ্গে তিনি একজন হারপেটোলজিস্ট এবং মৎস্যবিদ হিসেবেও পরিচিত। তিনি নিও-ল্যামার্কিজম "স্কুল অব থঠ" স্থাপন করেন। তিনি এক ধনী Quaker পরিবারে জন্ম নেন। কোপ ছোট থেকেই নিজের বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিয়েছেন। ১৯ বছর বয়সেই তিনি তাঁর প্রথম বৈজ্ঞানিক গবেষণা পত্র প্রকাশ করেন। যদিও তাঁর বাবা তাঁকে gentleman farmer হিসেবে বড় করতে চেয়েছিলেন, তা সত্ত্বেও তিনি কোপের বৈজ্ঞানিক আকাঙ্ক্ষাকে সমর্থন করতেন। বিবাহের পর তাঁদের একটি সন্তান হয় এবং তাঁর পরিবার ফিলাডেলফিয়া থেকে হেডনফিল্ড, নিউ জার্সিতে চলে যায়। যদিও পরবর্তীকালে, ফিলাডেলফিয়ায় তিনি এক বাসস্থান এবং একটি জাদুঘর দেখাশোনা করতেন।

কোপের সামান্যতম বৈজ্ঞানিক প্রশিক্ষণ ছিল, এবং তিনি একটি ফিল্ড ওয়ার্ক প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করতে। তিনি ১৮৭০ ও ১৮৮০-এর দশকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক সার্ভে দলের সদস্য হিসেবে আমেরিকার ওয়েস্টে নিয়মিত ভ্রমণ করতেন। কোপ এবং প্যালিওন্টোলোজিস্ট ওথনিয়েল চার্লস মার্শ -এর মধ্যে ব্যক্তিগত দ্বন্দ্বের ফলে, এখন পরিচিত Bone Wars নামক এক তীব্র জীবাশ্ম সংগ্রহের প্রতিযোগিতা শুরু হয়। ১৮৮০-এর দশকে ব্যর্থ খনির উদ্যোগের পর কপের আর্থিক সমস্যা দেখা যায়। ফলে তাঁকে তাঁর অধিকাংশ জীবাশ্ম সংগ্রহ বিক্রি করে দিতে হয়। জীবনের শেষের দিকে তাঁর কর্মজীবনে পুনরুত্থান হয়। ১৮৯৭ সালে এপ্রিলের ১২ তারিখে তিনি মারা যান।

যদিও কোপের বৈজ্ঞানিক কর্মকান্ডগুলি তাকে প্রায় অর্থশূন্য করে দিয়েছিল, তার অবদান মার্কিন জীবাশ্ম বিদ্যায় অবিস্মরণীয়। তিনি একজন বিস্ময়কর লেখক ছিলেন এবং তার সম্পুর্ন জীবনকালে ১৪০০-র বেশি গবেষণা পত্র প্রকাশ করেছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বীরা যদিও সেইসব পত্রের নির্ভুলতা নিয়ে প্রশ্ন তুলতেন। হাজারেরও বেশি মেরুদন্ডী প্রজাতি, সত সত মাছ এবং প্রচুর ডাইনোসরের নামকরণ, ব্যাখ্যা এবং বিশ্লেষণ করেছিলেন। স্তন্যপায়ী মোলার দাঁতের উৎপত্তির তিনি যে প্রস্তাব দিয়েছিলেন সেটা তার তাত্ত্বিক অবদানের মধ্যে অন্যতম উল্লেখযোগ্য। "কোপের নিয়ম", যা অনুমান যে স্তন্যপায়ী বংশবৃদ্ধি ধীরে ধীরে ভূতাত্ত্বিক সময়ের উপর বড় হয়ে ওঠে, তাঁর নামে নামকরণ করা হলেও তাঁর কাজ সম্পূর্ণরূপে সুস্পষ্ট ও নিরপেক্ষ নয়। [১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Polly & Alroy, 1998