ঋতাভরী চক্রবর্তী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ঋতাভরী চক্রবর্তী
ঋতাভরী
জন্ম (1992-06-26) ২৬ জুন ১৯৯২ (বয়স ২৯)
জাতীয়তাভারতীয়
অন্যান্য নামপলিন
শিক্ষাযাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়, কলকাতা
পেশাঅভিনেত্রী
কর্মজীবন২০০৯ - বর্তমান
পিতা-মাতাউৎপলেন্দু চক্রবর্তী (বাবা)
শতরূপা সান্যাল (মা)

ঋতাভরী চক্রবর্তী (জন্ম: জুন ২৬, ১৯৯২) একজন ভারতীয় বাঙালি চলচ্চিত্র নির্মাতা এবং অভিনেত্রী।[১]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

তিনি যখন হাইস্কুলে ছিলেন তখন তার মডেলিং ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন।দশম বোর্ড পরীক্ষার পর তিনি স্টার জলসার জনপ্রিয় ভারতীয় বাংলা ধারাবাহিক ওগো বধু সুন্দরীর মূল চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে টেলিভিশনে প্রথম উপস্থিত হন।উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হয়েও তিনি ব্যাক টু ব্যাক প্রকল্পে কাজ করেছিলেন । তিনি ইতিহাস ও বাংলা ভাষায় দ্বাদশ বোর্ড পরীক্ষায় সর্বভারতীয় তালিকায় শীর্ষে স্থান পান।[২] হাই স্কুল শেষ করার পরে তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাসে ভর্তি হন।[৩] তার মায়ের দিদা ছিলেন ময়মনসিংহের মুক্তাগাছার আচার্য্য জমিদার পরিবারের বংশধর।[৪]

অভিনয় জীবন ও অন্যান্য[সম্পাদনা]

তিনি জনপ্রিয় ভারতীয় বাঙালি টেলিভিশন ধারাবাহিক "ওগো বধূ সুন্দরী"-এর নায়িকা হিসাবে টেলিভিশনে তার প্রথম আত্মপ্রকাশ[৫]। ২০১১ সালে, তিনি 'তোমার সঙ্গে প্রাণের খেলা' তে তার বড় পর্দার যাত্রা শুরু হওয়ার কথা ছিল কিন্তু চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায়নি।

ঋতাভরী তার মা চলচ্চিত্র নির্মাতা শতরূপা সান্যালএর সাথে "এসসিইউডি" নামে একটি চলচ্চিত্র নির্মাতা কোম্পানি চালান, তাদের নির্মমিত চলচ্চিত্র 'নেকেড' এবং 'অনু' জাতীয় চলচ্চিত্রের পুরস্কার পেয়েছে।

২০১৮ সালে, মুক্তি পাওয়া প্রসিত রায়ের ‘পরী’ ছবিতে তিনি কাজ করছেন। এই ছবিতে তার সঙ্গে বলিউড অভিনেত্রী আনুশকা শর্মা, পরমব্রত ও রজত কাপুর ছিলেন। বর্তমানে তিনি চলচ্চিত্র ও বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন। বিজ্ঞাপনের জগতে তার নাম হয়েছে এই মুহূর্ততে তিনি চন্দ্রানী পার্লস, রূপায়ণ জুয়েলার্স, শাহনাজ, রাজলক্ষ্মী জুয়েলার্স, বাজার কলকাতা, ড। পল এর স্কিন ক্লিনিক, নকোডা হ্যালমার্কিং, এএমআরআই ডেন্টাল ক্লিনিক, সানরাইজ মসলা, সিদ্ধা, পিসিও ক্লাব, পরিধান, অরুম জুয়েলার্স, এনকর ইলেকট্রনিক্স, রিমি নায়েক ইন্ডিয়া, রেশম শিল্পী, মানিনী, অনন্যা ইত্যাদিতে কাজ করছেন।

তিনি সম্প্রতি কাজ করেছেন শ্রীমতী ভয়ঙ্করী, শেষ থেকে শুরু ও ব্রহ্মা জানেন গোপন কম্মটি চলচ্চিত্রে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "এ বার ছবি প্রযোজনায় ঋতাভরী"আনন্দবাজার পত্রিকা। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ৯ জানুয়ারি ২০২১ 
  2. "Actress by accident"টেলিগ্রাফ ইন্ডিয়া। ৬ ডিসেম্বর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৯ জানুয়ারি ২০২১ 
  3. "প্রেমে পড়েন, প্রেমেই বাঁচেন, কিন্তু কারও সঙ্গে জড়িয়ে পড়তে ঘোর আপত্তি ঋতাভরীর"আনন্দবাজার পত্রিকা। ৬ জানুয়ারি ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ৯ জানুয়ারি ২০২১ 
  4. "রাজবাড়িতে মালাবদল করে, লস এঞ্জেলসে আইবুড়ো ভাত খেয়ে বিয়ে হবে চিত্রাঙ্গদার"anandabazar.com। আনন্দবাজার। ৩০ জানুয়ারি ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জানুয়ারি ২০২১‘আমার মায়ের দিদা ছিলেন বাংলাদেশের মুক্তাগাছার রাজকন্যা। জমিদারি বংশের কিছু তো প্রভাব পড়বেই। 
  5. Desk, Bangla (২০১৯-১১-২৬)। "টেলিভিশন থেকে বড় পর্দা, ঋতাভরীর যাত্রা কেমন ছিল দেখুন ছবিতে"Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading online Newspaper (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-২৪ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]