উর্দু লিপি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
উর্দু লিপি
اردو تہجی
Urdu example.svg
উর্দু লিপিতে শব্দ "উর্দু"
ধরন
আবজাদ
ভাষাসমূহউর্দু, বালটি, বুরুশাস্কি, অন্যান্য
উদ্ভবের পদ্ধতি
U+0600 to U+06FF

U+0750 to U+077F
U+FB50 to U+FDFF

U+FE70 to U+FEFF

উর্দু লিপি হলো উর্দু ভাষা লেখার জন্য ব্যবহৃত লিপি, যা ডান হতে বামে লেখা হয়। এই লিপিটি ফার্সি লিপিকে ভিত্তি করে গড়ে উঠেছে। উর্দুর ৩৯টি ভিত্তি বর্ণ সহ মোট ৫৮টি বর্ণ আছে। উর্দু লিপি মূলত ক্যালিগ্রাফিক নাস্তালিক লিপিতে লেখা হয়। যেখানে প্রমিত আরবির ক্ষেত্রে নস্খ লিপির ব্যবহার বেশী।

সাধারণত রোমান লিপিতে লেখা (রোমান উর্দু) অনেক উচ্চারণ বহন করে যা ঐতিহ্যগতভাবে অন্যান্য রোমান অক্ষরে লেখা ভাষাগুলিতে নেই। পাকিস্তানের জাতীয় ভাষা কর্তৃপক্ষ বেশকিছু পদ্ধতি তৈরি করেছে, যার দ্বারা রোমান অক্ষরে উর্দু লেখা সম্ভব হয়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

উর্দু ভাষা ভারত বিভাজনের আগেই হিন্দুস্তানী ভাষাকে ভিত্তি করে গড়ে ওঠে। ভাষাটি মুঘল সাম্রাজ্য দ্বারা সমগ্র ভারতে লিঙ্গুয়া ফ্রাঙ্কায় পরিণত হয়। ভাষাটির উপর ব্যাপক ফার্সির প্রভাব আছে। ১৯ শতাব্দীর আগ পর্যন্ত উর্দু ব্রিটিশ সরকারের অন্যতম সরকারি ভাষা হিসেবে স্বীকৃত থাকে।

উর্দু লিপিটি ১৩ শতাব্দীর দিকে ফার্সিকে ভিত্তি করে গড়ে ওঠে। এটি নাস্তালিক ক্যালিগ্রাফিক লিপিতে লেখা হয়। উর্দু হতে শাহমুখী লিপির জন্ম হয়, যা দিয়ে পাঞ্জাবি, সরাইকি সহ বিভিন্ন উত্তর ভারতীয় ভাষা লেখা হয়।

১৯১১ সালে সর্বপ্রথম উর্দু কী-বোর্ড লেআউট আবিষ্কৃত হয়। পরবর্তীতে ১৯৮০ পর্যন্ত সময় কাতিব এবং খুশ-নবীসদের দ্বারা উর্দু খবরেরকাগজ প্রকাশিত হতে থাকে। পাকিস্তানের জাতীয় দৈনিক পত্রিকা দৈনিক জঙ্গ হলো প্রথম প্রকাশিত নাস্তালিক উর্দু পত্রিকা যা কম্পিউটারে ছাপানো হয়। বর্তমানে নাস্তালিক ফন্টকে ছাপানো এবং ইন্টারনেটে ব্যবহারের জন্য আরও বেশী ব্যবহারকারীবান্ধব করার প্রক্রিয়া চলছে। বর্তমানে সকল উর্দু মুদ্রণ কম্পিউটারভিত্তিক।

ভারতে উর্দু এবং হিন্দি আলাদা দাফতরিক ভাষা হিসেবে স্বীকৃত পরন্তু ভাষা দুটি একই ভাষার দুটির আলাদা প্রমিত রূপ এবং দুটি ভাষা পরস্পর বোধগম্য ও একে অন্যের লেখনপদ্ধতিতে কোনোরূপ বিভ্রান্তি ছাড়া লেখা সম্ভব। ভাষা দুটির লিপি পরস্পরের ধর্মীয় বিশ্বাসকে প্রকাশ করে। অর্থাৎ মুসলিমরা ফার্স-আরবি লিপি এবং হিন্দুরা দেবনাগরী লিপি ব্যবহার করে। উর্দু ভাষা এবং লিপি পাকিস্তানের প্রাথমিক ভাষা এবং লিপি। অপরদিকে ভারতের পাঁচটি রাজ্য বিহার, জম্মু ও কাশ্মীর, তেলেঙ্গানা, দিল্লী এবং উত্তরপ্রদেশের অন্যতম দাফতরিক ভাষা।

দক্ষিণ এশিয়ার বাইরে সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরব, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশে প্রবাসী পাকিস্তানীদের দ্বারা এই লিপির ব্যবহার হয়।

নাস্তালিক[সম্পাদনা]

নাস্তালিক লিপির জন্ম পারশিক সংস্কৃতিতে। নস্খ এবং তালিকের মিশ্রণে এই ক্যালিগ্রাফির জন্ম। ভারতবর্ষে মুঘলরা এই লিপি নিয়ে আসেন। পরে উর্দু লেখার জন্য এই লিপিটির ব্যবহার শুরু হয়। এই লেখন পদ্ধতি পাকিস্তানের সর্বোচ্চ ব্যবহৃত লেখন পদ্ধতি এবং সারা বিশ্বের উর্দু ভাষীরা এই পদ্ধতিতে উর্দু লিখে থাকেন। নাস্তালিক লিপির অক্ষরগুলি নস্খের থেকে বেশি হেলানো, প্যাঁচানো এবং টানা।

বর্ণমালা[সম্পাদনা]

ফার্সি লিপি থেকে জন্ম নেয়া উর্দু লিপি একটি আব্জাদ লিপি। উর্দু লিপির প্রমিতকরণ করা হয় ২০০৪ সালে। পাকিস্তানের জাতীয় ভাষা কর্তৃপক্ষ এই কাজটি করেন। তাদের মতে উর্দুর ৫৮টি বর্ণ আছে, যেখানে ৩৯টি ভিত্তিবর্ণ এবং ১৮টি মহাপ্রাণ ব্যঞ্জন বর্ণ।

উর্দু লিপি একটি আব্জাদ লিপি। যে কারণে এই লিপিতে হ্রস্বস্বর লেখা হয়না। শুধুমাত্র দীর্ঘস্বরের সংকেত দেওয়া হয়। হ্রস্বস্বরগুলি সেমেটিক ভাষার মতো উহ্য থাকে। যদিও সেমেটিক ভাষায় যেমন রুট অক্ষরগুলি বাক্যগঠন নির্দেশ করে, উর্দুর ক্ষেত্রে তা হয়না। কারণ ইন্দোইউরোপীয় ভাষাগুলি এই রুট পদ্ধতি মেনে চলেনা। এক্ষেত্রে মুখস্থ করাটা বেশি জরুরি।

ফার্সি লিপির সাথে পার্থক্য[সম্পাদনা]

উর্দু লিপির উচ্চারণগুলি আরবি এবং ফার্সি হতে আলাদা। এছাড়াও উর্দুর নিজস্ব কিছু বর্ণ আছে যা আরবি বা ফার্সি কোনোটিতেই নেই। অক্ষরগুলি হলো: ٹ ট উচ্চারণের জন্য, ڈ ড উচ্চারণের জন্য, ڑ ড় উচ্চারণের জন্য, ں ঁ এর জনহ এবং ے‍ এ উচ্চারণের জন্য। এছাড়াও ভিন্ন চেহারায় দো চশমি হে ھ আছে মহাপ্রাণ ধ্বনিসমূহের জন্য।

সমগ্র উর্দু বর্ণমালা[সম্পাদনা]

ভিত্তিবর্ণ সমূহ[সম্পাদনা]

নং. নাম[১] ALA-LC[২] হান্টারিয়ান[৩] আ-ধ্ব-ব সম্পূর্ণ বর্ণ বাংলা প্রতিবর্ণ
الف আলেফ ā, ʾ, – /ɑː, ʔ, ∅/ ا
با বে b /b/ ب
پا পে p /p/ پ
تا তে t /t̪/ ت
ٹا টে t /ʈ/ ٹ
ثا সে th th /s/ ث
جيم জিম j /d͡ʒ/ ج
چيم চে c ch /t͡ʃ/ چ
بڑی حا বড়ে হে h /h, ɦ/ ح
১০ خا খ়ে kh kh /x/ خ খ়
১১ دال দাল d /d̪/ د
12 ڈال ডাল d /ɖ/ ڈ
১৪ ذال জ়াল ṭh th /z/ ذ জ়
১৪ را রে r /r/ ر
১৫ ڑا ড়ে r /ɽ/ ڑ ড়
১৬ زاين জ়ে z /z/ ز জ়
১৭ ژاين ঝ়ে zh zh /ʒ/ ژ ঝ়
১৮ سین সিন s /s/ س
১৯ شین শিন sh sh /ʃ/ ش
২০ صاد সোয়াদ s /s/ ص
২১ ضاد জ়োয়াদ d d /z/ ض জ়
২২ طو তোয়ে t /t̪/ ط
২৩ ظو জ়োয়ে țh țh /țh/ ظ জ়
২৪ عین আইন ā, o, e, ʿ, – /ɑː, oː, eː, ʔ, ʕ, ∅/ ع
২৫ غین গ়েইন gh gh /ɣ/ غ গ়
২৬ فا ফ়ে f /f/ ف ফ়ে
২৭ قاف ক়াফ় q /q/ ق ক়
২৮ کاف কাফ় k /k/ ک
২৯ گاف গাফ় g /ɡ/ گ
৩০ لام লাম l /l/ ل
৩১ میم মিম m /m/ م
৩২ক نون নুন n /n, ɲ, ɳ, ŋ/ ن
৩২খ نون غنّه নুন গ়ুন্নাহ n /◌̃/ ں
৩৩ واؤ ওয়াও v, ū, o, au w, ū, o, au /ʋ, uː, oː, ɔː/ و
৩৪ چھوٹی ها
گول ها
ছোটি হে h /h, ɦ/ or /∅/ ہ‬
৩৫ دو چشمی ها দো-চশমি হে h /ʰ/ or /ʱ/ ھ
৩৬ همزه হামজ়া ʾ, – /ʔ/, /∅/ ء
৩৭ چھوٹی يا ছোটি ইয়ে y, ī, á /j, iː, ɑː/ ی য়
৩৮ بڑی يا বড়ি ইয়ে ai, e /ɛː, eː/ ے

মহাপ্রাণ ব্যঞ্জনসমূহ[সম্পাদনা]

উর্দু অক্ষর[২] ইংরেজি প্রতিবর্ণ[২] আ-ধ্ব-ব বাংলা প্রতিবর্ণ
بھ bh [bʱ]
پھ ph [pʰ]
تھ th [t̪ʰ]
ٹھ ṭh [ʈʰ]
جھ jh [d͡ʒʰ]
چھ ch [t͡ʃʰ]
دھ dh [d̪ʱ]
ڈھ ḍh [ɖʱ]
رھ ṛh [rʱ] র্হ
ڑھ ṛh [ɽʱ] ঢ়
کھ kh [kʰ]
گھ gh [ɡʱ]
لھ lh [lʱ] ল্হ
مھ mh [mʱ] ম্হ
نھ nh [nʱ] ন্হ
هھ hh [hʱ] হ্হ
وھ wh [ʋʱ] ভ়্হ
یھ yh [jʱ] য়্হ

স্বরসমূহ[সম্পাদনা]

উর্দু ভাষায় মোট ১০টি স্বরধ্বনি এবং ১০টি নাসিক্য স্বরধ্বনি রয়েছে। এগুলি লিখতে স্বরবর্ণের চারটি আলাদা আলাদা রূপ বিচ্ছিন্ন, প্রারম্ভিক, মধ্যম এবং প্রান্তিক ব্যবহার করা হয়, যা আরবিতেও বর্তমান। উর্দুতে স্বরধ্বনি প্রকাশের জন্য আলেফ, ওয়াও, ইয়ে এবং হে এর রূপগুলি ব্যবহার হয়।

স্বরবর্ণের তালিকা[সম্পাদনা]

উর্দুতে হ্রস্বস্বরের জন্য কোনো বর্ণের ব্যবহার হয়না। প্রয়োজনবোধে তাশদীদ(জবর, জের, পেশ) ব্যবহার করা হয়। শব্দের শুরু হ্রস্ব স্বরধ্বনি দিয়ে হলে ا (আলিফ)কে ভিত্তি ধরে লেখা হয়। তবে আরবি-ফার্সি ঋণকৃত শব্দের ক্ষেত্রে ع (আইন) এবং ء (হামজা)ও বসে থাকে। দীর্ঘস্বরের জন্য ا (আলিফ), ع (আইন), و (ওয়াও) এবং ی (ইয়া) ব্যবহার হয়। উর্দুতে সাধারণত শব্দের শেষে হ্রস্বস্বর ব্যবহার হয়না।

স্বরবর্ণসমূহ[সম্পাদনা]

রোমানীকরণ বাংলা প্রতিবর্ণ উচ্চারণ প্রান্তিক রূপ মধ্যম রূপ প্রারম্ভিক রূপ বিচ্ছিন্ন রূপ
a /ə/ سَر اَندر اَ
ā /aː/ وفا
موسَی
ویژَه
باغ آم آ
i /ɪ/ دِن اِدھر اِ
ī /iː/ گِھڑِی‎ تِیسرا اِینٹ اِی
e /eː/ لڑکے میرا ایک اے
ai /ɛː/ هَے کَیسا اَیسا اَے
u /ʊ/ سُلطان اُلفت اُ
ū /uː/ قابُو دُور اُوپر اُو
o /oː/ کو دوست اوس او
au /ɔː/ نَو مَوسم اَور اَو

আলিফ[সম্পাদনা]

আলিফ (ا) হলো উর্দুর ভিত্তি স্বরবর্ণ। অর্থাৎ শব্দের শুরুতে যেকোনো হ্রস্বস্বরের জন্য আলিফ ব্যবহার হয়। যেমন: اب (ab), اسم (ism), اردو (urdū)। দীর্ঘ আ ধ্বনির জন্য উর্দুতে آ (মদ্দে আলিফ) ব্যবহার হয়। কিন্তু সেটা শুধু শব্দের শুরুতে। শব্দের মাঝে স্বাভাবিক আলিফ ব্যবহার হয়। যেমন: آپ (āp) এবং بھاگنا‬ (bhāgnā)।

ওয়াও[সম্পাদনা]

ওয়াও বর্ণটি দীর্ঘ উ[uː][oː] এবং অ[ɔː] এর জন্য ব্যবহার হয়। এছাড়াও মাঝেমাঝে হ্রস্ব উ[ʊ] এর জন্যও ব্যবহার হয়। ওয়াও দ্বারা ওঅ[w] এবং ভ়[ʋ] উচ্চারণ প্রকাশ করা হয়।

ইয়ে[সম্পাদনা]

উর্দুতে দুটি ইয়ে বিদ্যমান। একটি ی (ছোটি ইয়ে) এবং অপরটি ے (বড় ইয়ে)।

ছোটি ইয়ে সকল আরবি এবং ফার্সি ঋণকৃত শব্দ সহ সকল দীর্ঘ ই [ɪː] এর জন্য ব্যবহার হয়।

বড় ইয়ে দ্বারা শব্দের শেষের দীর্ঘ এ [eː] এবং অ্যা [ɛː] উচ্চারণ লেখা হয়। বড় ইয়ে কখনো শব্দের শুরুতে বা মধ্যে ব্যবহার হয়না।

ইয়ে বর্ণের রূপভেদ:

বর্ণের নাম প্রান্তিক রূপ মধ্যম রূপ প্রারম্ভিক রূপ বিচ্ছিন্ন রূপ
ছোট ইয়ে ـی ـیـ یـ ی
বড় ইয়ে ـے ے

হে সমূহ[সম্পাদনা]

উর্দুতে হে দুটি। একটি গোল হে অপরটি দো চশমি হে

গোল হে ফার্সি থেকে নেয়া হলেও এর ব্যবহার এবং রূপ কিছুটা ভিন্ন। এটি সাধারণ হ[h] ধ্বনি এবং শব্দের শেষের আ[a] এর জন্য কিছুক্ষেত্রে ব্যবহার হয়।

দো চশমি হে সম্পূর্ণ আরবি হা এর রূপেই ব্যবহার হয়। তবে এই হে শুধুমাত্র মহাপ্রাণ ধ্বনির জন্য ব্যবহার করা হয়।

হে এর রূপভেদ:

বর্ণের নাম প্রান্তিক রূপ মধ্যম রূপ প্রারম্ভিক রূপ বিচ্ছিন্ন রূপ
گول ہے
গোল হে
ـہ ـہـ ہـ ہ
دو چشمی ہے
দো চশমি হে
ـھ هـ ھ

আইন[সম্পাদনা]

আইনের আলাদা কোনো উচ্চারণ উর্দুতে নেই। এটা শুধুমাত্র আরবি থেকে আগত শব্দগুলিতেই ব্যবহার হয়।

নুন গুন্নাহ[সম্পাদনা]

নাসিক্য স্বরের জন্য নুন গুন্নাহ (ں) ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও উলটা জজম দিয়েও নাসিক্য ধ্বনি লেখা হয়।

নুন গুন্নাহ গুলি:

রূপ উর্দু রোমান লিপ্যন্তর বাংলা উচ্চারণ
Orthography ں
End Form میں maiṉ ম্যাঁ
Middle Form کن٘ول kaṉwal কঁওল

হামজা[সম্পাদনা]

উর্দুতে হামজা-এ-ইজাফত ছাড়া হামজা নীরব থাকে। মূলত স্বরগুচ্ছকে নির্দেশ করতেই হামজার ব্যবহার হয়।

চিহ্নসমূহ[সম্পাদনা]

উর্দুতে স্বরচিহ্নসমূহ সাধারণ ব্যবহার করা হয়না। তবে প্রমিত লেখনীতে জবর, জের এবং পেশ এর ব্যবহার দেখা যায়। চিহ্নগুলি আরবি লিপি ভিত্তিক হলেও উর্দুতে এগুলি ফার্সি হয়েই ঢুকেছে। এছাড়াও জজম দ্বারা বিরামচিহ্নের প্রকাশ করা হয় এবং শাদ(তাশদীদ) দ্বারা দ্বিত্বব্যঞ্জন লেখা হয়। এছাড়াও খাড়া জবর, দুই জবরের ব্যবহার দেখা যায়। যদিও তা শুধুই আরবি থেকে ঋণকৃত শব্দেই দেখা যায়।

এসব ছাড়াও উর্দুর কিছু নিজস্ব চিহ্ন আছে। কিছু অনিয়মিত উচ্চারণের জন্য এসব ব্যবহার করা হয়। চিহ্নগুলি সাধারণত শিক্ষা এবং মুদ্রণে ব্যবহার হয়। এদের সাধারণ ব্যবহার খুবই কম। এদের মধ্যে কাসরাহ-এ-মাজহুল, ফাতহা-এ-মাজহুল, দাম্মাহ-এ-মাজহুল, মাগনুনা, উলটা জজম এবং আলিফ-এ-ওয়াবি অন্যতম। এদের ভিতর মাগনুনার ব্যবহার সর্বাধিক। এর ইউনিকোড রেঞ্জ U+0658। অন্যগুলির ব্যবহারও মুদ্রণ ক্ষেত্রে খুব সামান্যই হয়ে থাকে।

ইজাফত[সম্পাদনা]

দুটি বিশেষ্যকে জুড়তে যে হ্রস্ব স্বর ব্যবহার করা হয় তাকে ইজাফত বলে। এক্ষেত্রে প্রথম বিশেষ্যটি নির্ধারিত বিশেষ্য এবং দ্বিতীয়টি নির্ধারক। এই পদ্ধতিটি ফার্সি থেকে নেয়া।

একটি হ্রস্ব ই ধ্বনি প্রথম শব্দের শেষে বসে এই কাজটি করে। এটি জের দ্বারা লিখিত হতেও পারে আবার নাও পারে। প্রথম শব্দটি যদি ছোট হে বা ইয়ে দ্বারা শেষ হয়, সেক্ষেত্রে এই অক্ষরদ্বয়ের উপরে হামজা বসে। আবার শব্দের শেষে যদি কোনো দীর্ঘস্বর থাকে, সেক্ষেত্রে শব্দের শেষে বড় ইয়ের এর উপরে হামজা বসে।

রূপ উদাহরণ রোমান লিপ্যন্তর বাংলা উচ্চারণ অর্থ
ــِ شیرِ پنجاب sher-i Panjāb শের-ই-পাঞ্জাব পাঞ্জাবের সিংহ
ۂ غزوهٔ هند ghazwah-yi Hind গজওয়াহ-এ-হিন্দ ভারত বিজয়
ئ ولئ کامل walī-yi kāmil ওয়ালি-এ-কামিল সাধু
ئے روئے زمین -yi zamīn রু-এ-জমিন ভূপৃষ্ঠ
صدائے بلند ṣadā-yi buland সদা-এ-বুলন্দ উচ্চাওয়াজ

কম্পিউটারে উর্দু লেখন[সম্পাদনা]

প্রথমদিকে উর্দু লেখার জন্য কোনো নির্দিষ্ট কোড পৃষ্ঠা কম্পিউটারে বরাদ্দ ছিলোনা। ১৯৯০ সালের দিকে আইবিএম কোড পেজ ৮৬৮ দ্বারা উর্দু প্রকাশ করা হতো। এরপরে উইন্ডোজ-১২৫৬ এবং ম্যাকআরবি এনকোডিং দ্বারা উর্দু প্রকাশিত হতো। তবে এই পদ্ধতিও ৯০ এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে ব্যবহার হতো। ইউনিকোডে উর্দুকে আরবির ব্লকে দেখানো হয়েছে। পার্সো-অ্যারাবিক স্ক্রিপ্ট কোড ফর ইনফরমেশন ইন্টারচার্জ নামক একটি ভারতভিত্তিক কোড পৃষ্ঠা দ্বারাও উর্দু লেখা হয়। পাকিস্তানে উর্দু জাবতা তখতি নামক একটি ৮ বিট কোড পৃষ্ঠা ব্যবহার করা হয় যা পাকিস্তানের জাতীয় ভাষা কর্তৃপক্ষ দ্বারা নির্মিত হয়েছে। এই পৃষ্ঠার মোটামুটি উর্দুর সকল চরিত্র এবং বিশেষ চিহ্নসমূহ আছে। যদিও এই ডিজাইনটি লাতিন লিপির সমান্তরাল না।

ইউনিকোডে উর্দু[সম্পাদনা]

আরবি থেকে আসা অন্যান্য লিপির মতো উর্দু ইউনিকোডের 0600–06FF রেঞ্জ ব্যবহার করে। [৪] কিছু বর্ণ আলাদা হলেও ইউনিকোড রেঞ্জে একই রকম দেখা যায়(বা একই পরিচয় ব্যবহার করে), পরন্তু এদের এনকোডিং ভিন্ন। উদাহরণস্বরূপ শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ে জন শেক্সপিয়রের লেখা A Dictionary, Hindustani & English এ 'بهارت‬' (ভারত) শব্দটি যুক্ত করেছেন। শব্দকোষটির ইলেক্ট্রনিক প্রিন্টে بھارت‬ লিখে অনুসন্ধান করলে কোনো শব্দ পাওয়া যায়না, অপরদিকে بهارت‬ লিখাতে শব্দার্থ পাওয়া যায়। এর কারণ হলো উর্দুর দো চশমি হে (U+06BE) এর মধ্যমরূপ যা মহাপ্রাণ ধ্বনির জন্য ব্যবহার করা হয় তা আরবি লিপির হা (U+0647) এর মধ্যমরূপের চেহারার সাথে হুবহু মিলে যায়। আরবি হা অক্ষরটি সাধারণ [/h/] উচ্চারণে ব্যবহার হয়। অপরদিকে উর্দুতে একই উচ্চারণের জন্য গোল হে বা ছোট হে (U+06C1) ব্যবহার করা হয়।

উর্দু এবং আরবির বিভ্রান্তিকর রূপ
উর্দু অক্ষর আরবি অক্ষর
ہ (U+06C1), ھ (U+06BE) ه (U+0647)
ی (U+06CC) ى (U+0649), ي (U+064A)
ک (U+06A9) ك (U+0643)

২০০৩ সালে সেন্টার ফর রিসার্চ ইন উর্দু ল্যাঙ্গুয়েজ প্রোসেসিং যা পাকিস্তানের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব কম্পিউটার অ্যান্ড ইমার্জিং সাইন্সেস এর অধিভুক্ত একটি প্রতিষ্ঠান উর্দু জাবতা তখতির একটি ১ বাইটের এনকোডিং ম্যাপ ইউনিকোডে প্রস্তাব করে। এই প্রস্তাবে প্রতিটি উর্দু অক্ষরকে আলাদা রূপে দেখানোর প্রস্তাব দেয়া হয়।

সফটওয়ার[সম্পাদনা]

দৈনিক জঙ্গ হলো প্রথম উর্দু পত্রিকা যা ডিজিটালি কম্পিউটার টাইপসেটে নাস্তালিক ফন্টে ছাপানো হয়। উর্দুকে আরও বেশি বাস্তবসম্মত এবং ব্যবহারকারীবান্ধব করার প্রক্রিয়া চলছে, যাতে করে কম্পিউটার এবং ইন্টারনেটে সহজে উর্দু লেখা যায়। বর্তমানে অধিকাংশ উর্দু জার্নাল, পত্রিকা, বইপত্র বিভিন্ন উর্দু ডিজিটাল সফটওয়ার দিয়ে কম্পিউটারেই ছাপানো হয়। তবে ইনপেজ সফটওয়ারটির ব্যবহার সর্বাধিক যা একটি ডেস্কটপ পাবলিশিং প্যাকেজ। মাইক্রোসফট তার সকল ভার্শনকে উর্দু সমর্থনযোগ্য করেছে, সকল উইন্ডোজ ভিস্টা এবং মাইক্রোসফট অফিস ২০০৭ ল্যাঙ্গুয়েজ ইন্টারফেস প্যাকের মাধ্যমে অ্যাপলিকেশনগুলি উর্দুতে পাওয়া যায়। বেশিরভাগ লিনাক্স ডেস্কটপে উর্দু ইন্সটলেশন সমর্থন করে এবং অনুবাদেরও ব্যবস্থা আছে। অ্যাপল ২০১৪ এর সেপ্টেম্বরে আইওএস৮এ উর্দু কী-বোর্ড মোবাইল ডিভাইজের জন্য সুলভ করে।

প্রমিত রোমানীকরণ পদ্ধতি[সম্পাদনা]

লাতিন লিপিতে উর্দু লেখার বেশকিছু পদ্ধতি চালু আছে। যদিও তার একটাও তেমন জনপ্রিয় না, কারণ উর্দুকে ঠিকমত প্রকাশ করা যায়না। প্রমিত রোমানীকরণের বদলে গণমাধ্যম, মোবাইল ফোন, ইন্টারনেটে ইংরেজি অর্থগ্রাফি ভিত্তিক রোমান উর্দু ব্যবহার করা হয়। এই রোমানীকরণ খুব একটা কার্যকর নয়, উর্দু ভাষীরা ছাড়া অন্যদের কাছে এটি পড়া বেশ কষ্টসাধ্য হবে। সকল রোমানীকরণের মধ্যে এএলএ-এলসি রোমানীকরণ সব থেকে উপযুক্ত যেটাকে জাতীয় ভাষা কর্তৃপক্ষও সমর্থন করেছে। অন্যান্য রোমানীকরণ বাতিল করা হয়েছে, কারণ তাতে উর্দুর উচ্চারণ প্রকাশ পায়না এবং উর্দুর ধ্বনিসমূহ রক্ষা হয়না, এছাড়াও ঐ সকল রোমানীকরণ উর্দুর বর্ণবিন্যাসের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়।

পাকিস্তান এবং উত্তরভারতের খ্রিস্টান সম্প্রদায় রোমান উর্দু ব্যবহার করেন। ১৯-২০ শতাব্দীদের মাঝে উর্দু ছিলো উত্তরভারতের খ্রিস্টানদের প্রধান ভাষা। তাদের আবাস করাচী, লাহোর, মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, রাজস্থান জুড়ে ছিলো। এখনো এই অঞ্চলের খ্রিস্টানরা উর্দু ব্যবহার করে। ১৯৬০ পর্যন্ত রোমান উর্দু ছিলো এই অঞ্চলের খ্রিস্টানদের প্রধান ভাষা। ভারতের বাইবেলীয় সমাজ ১৯৬০ পর্যন্ত রোমান উর্দু বাইবেল ছাপিয়েছে(যদিও এখনো তা চলমান)। চার্চের সঙ্গীতগুলিও রোমান উর্দুতে লেখা হয়। যদিও এই অঞ্চলের উর্দুর ব্যবহার হিন্দি এবং ইংরেজির প্রভাবে কমতে বসেছে।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

উৎস[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Urdu topics টেমপ্লেট:Arabic alphabets

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Delacy 2003, পৃ. XV–XVI।
  2. "Urdu romanization" (PDF)। The Library of Congress। 
  3. Geographical Names Romanization in Pakistan. UNGEGN, 18th Session. Geneva, 12–23 August 1996. Working Papers No. 85 and No. 85 Add. 1.
  4. http://www.unicode.org/charts/PDF/U0600.pdf