উদ্ধব ভরালী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
উদ্ধব ভরালী
Uddhab Bharali.jpg
উদ্ধব ভরালী
জন্মউত্তর লক্ষীমপুর
বাসস্থানকে. বি. রোড, উত্তর লক্ষীমপুর
নাগরিকত্বভারতীয়
প্রাক্তন ছাত্রযোরহাট ইঞ্জিনিয়ারিং মহাবিদ্যালয়
পরিচিতির কারণ১১৮ যন্ত্রের উদ্ভাবক
উল্লেখযোগ্য
পুরস্কার
  • নাসার ক্রিয়েট দি ফিউচার ডিজাইন প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় পুরস্কার
    *রাজীব গান্ধী লীডারশ্বীপ এওয়ারড,
    *'মেশিন মেন’ আখ্যা

উদ্ধব ভরালী আসামের লক্ষীমপুর জেলার একজন বিজ্ঞানী এবং ইঞ্জিনিয়ার।[১] ২০১২ সালের জুলাই মাসের ৫ তারিখে,[২] ভরালী তার আবিস্কৃত ডালিমের গুটি তোলার যন্ত্রের (benchtop pomegranate de-seeder) জন্য The Create the Future Design Contest এর দ্বিতীয় পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হন। [৩] বিজ্ঞানীর নামএ তার আবিস্কৃত প্রযুক্তির মধ্যে প্রায় ৩৯টা পেটেন্ট আছে। [৪] তিনি প্রায় ১১৮টা যন্ত্র উদ্ভাবন করেছেন।[৫] ১৯৮৮ সালে তিনি প্রথম কম খরচে পলিথিন নির্মাণ করার যন্ত্র আবিস্কার করেন। তিনি World Technology Award এর জন্যও মনোনিত হয়েছিলেন। [৬]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

উদ্ধব ভরালীর জন্ম লক্ষীমপুর জেলার উত্তর লক্ষীমপুর নগরে, তার বাবা ছিলেন একজন সাধারণ ব্যবসায়ী। উত্তর লক্ষীমপুর সরকারি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে উদ্ধব ভরালী স্কুলের শিক্ষা গ্রহণ করেন। স্কুলে থাকা অবস্থায় তিনি দুবার এক বছরে দুটা শ্রেণীতে উতীর্ণ হয়েছিল। পরে তিনি যোরহাট ইঞ্জিনিয়ারিং মহাবিদ্যালয় এ ম্যাকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিদ্যায় (Mechanical Engineering) ভর্তি হন। কিন্তু পারিবারিক আর্থিক দুরাবস্থার কারণে কলেজের বেতন দিতে না পারার তার ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষা মাঝপথে থেমে যায়৷ [১] তার পর তিনি চেন্নাইর Institute of Engineers- Madras ভর্তি হন, কিন্তু দুর্ভাগ্যবসতঃ পিতার মৃত্যুর কারণে তার শিক্ষা অর্ধেক সমাপ্ত করে পরিবারের দায়িত্ব নিতে হয়। [৭]

অবদান[সম্পাদনা]

পারিবারিক আর্থিক দুরবস্থা এবং ব্যাংকের ঋণের বোজা দূর ক্রার প্রচেষ্টায় প্রথমে উদ্ধব ভরালীকে আৱবিস্করের কথা ভাবায়, ১৯৮৮ সালে তিনি প্রথম একটি কম খরচী পলিথিন তৈরির যন্ত্র আৱিস্কার করেন যার দাম সেই সময়কার প্রচলিত পলিথিন তৈরির যন্ত্রের থেকে যতেষ্ঠ কম ছিল[১]। তার পর থেকেই উদ্ধব ভরালী এটাকে গ্রাম্য জীবন এবং ব্যবসায়তে ব্যবহারযোগ্য যন্ত্র হিসেবে রুপ দেন যদিও গ্রহণযোগ্যতা পায়নি। ২০০৫ সালে আহমেদাবাদের জাতীয় উদ্ভাবন সংস্থা National Innovation Foundationর দৃষ্টি ভরালীর ওপরে পরে এবং তারা ভরালীকে নিয়ে বিভিন্ন পত্রপ্ত্রিকায় ও লেখালেখি করে, ২০০৬ সালে তার ডালিম এর গুটি উলিওৱা যন্ত্রটি পৃথিবীর একমাত্র এধরণেের যন্ত্র হিসাবে স্বীকৃত হয় এবং আমেরিকার মহাকাশ সংস্থা NASAThe Create the Future Design Contest এ দ্বিতীয় পুরস্কার লাভ করে। তার আবিস্কার সমূহের মধ্যে ৩৯টা পেটেন্ট তার নামে আছে, এপর্যনন্ত তিনি ১১৮টা যন্ত্র আবিস্কার করেছেন। তার অন্যান্য ঊল্লেখযোগ্য আবিস্কার হচ্ছে চা গাছের পাতাা তোলার যন্ত্র (mini CTC tea plant), তামোলএর খোসা ছড়ানোর যন্ত্ৰ, আদার খোসা তোলার যন্ত্র ইত্যাদি।[৫]

পুরষ্কার এবং সম্মান[সম্পাদনা]

তার প্রাপ্ত কয়েকটা পুরষ্কারের মধ্যে ঊল্লেখযোগ্য কিছু হল,

  • জাতীয় উদ্ভাবনী সংস্থার সৃষ্টি সম্মান (২০০৭)
  • উদ্ভাবনের জন্য রাষ্ট্রপতি পদক (২০০৯)
  • বিজ্ঞান প্রযুক্তিবিদ্যা মন্ত্রনালয় থেকে Meritorious Invention Award (২০১১)
  • নাসার The Create the Future Design Contest এর দ্বিতীয় পুরস্কার [৬][৮]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

উদ্ধব ভরালী লক্ষীমপুর জেলার উত্তর লক্ষীমপুর নগরের কমলাবরীয়া রোডে মা, পরিবার এবং পুত্র সন্তান নিয়ে বাস করেন।

সামাজিক জীবন[সম্পাদনা]

উদ্ধব ভরালীর উদ্ভাবন সমূহ গ্রাম্য জীবন এবং কৃষি কেন্দ্রিক, তার উদ্ভাবন সমূহ দেশ বিদেশেের দরিদ্র সীমার নিচে বাস করা জনগণেের কাজে অর্থাৎ তাদের গুরুত্ব প্রদান করে। তিনি প্রতি মাসে পেটেন্ট রয়েলিটি থেকে পাওয়া টাকার ১০ শতাংশ এখন বৃদ্ধাশ্রমে এবং ১০ শতাংশ এখন অনাথ আশ্রমে দান করেন। [১]

বহিঃ সংযোগ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "AMAZING: Meet the Indian engineer with 98 INNOVATIONS!"। Rediff India। ২০১২-০৭-১৬। 
  2. "Assam innovator in Nasa prize shortlist"। Seven Sister's Post India। ২০১২-০৭-০৫। 
  3. "Innovator selected for Nasa award"। The Telegraph India। ২০১২-০৭-১৩। 
  4. "NASA shortlists Assam innovator for award"। Hindustan Times। ২০১২-০৭-১০। 
  5. "His experiments with life"। The Hindu। ২০১২-০৮-০১। 
  6. "You need to starve to innovate"। Mid Day। ২০১২-০৭-২২। 
  7. "Sanki Dropouts: Uddhab Bharali nominated for NASA award"। Sanki। ২০১২-০৮-০১। ২৭ নভেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  8. "ফিউচাৰ ডিজাইন প্ৰতিযোগিতাৰ নম্বৰ তালিকা"। টেক ব্ৰিফ। ২০১২-১০-১০।