উইকিপিডিয়া:আলোচনাসভা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(উইকিপিডিয়া:আলোচনা সভা থেকে পুনর্নির্দেশিত)
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
  আলোচনাসভা
বাংলা উইকিপিডিয়ার সাধারণ বিষয় সংক্রান্ত আলোচনা
  প্রশাসকদের আলোচনাসভা
প্রশাসকদের নোটিশবোর্ড
  ব্যুরোক্র্যাটদের আলোচনাসভা
ব্যুরোক্র্যাটদের নোটিশবোর্ড
  সাহায্যকেন্দ্র
তথ্যকেন্দ্র  • যোগাযোগ
 
বাংলা উইকিপিডিয়ার আলোচনাসভায় স্বাগতম
  • এই পৃষ্ঠাটি বাংলা উইকিপিডিয়ার সাধারণ বিষয় সংক্রান্ত আলোচনার জন্য নিবেদিত পাতা। এখানে বাংলা উইকিপিডিয়া সংক্রান্ত বিষয়ে যেকোনো প্রসঙ্গ তুলে ধরতে পারেন।
  • কোন বিষয়ে প্রশাসকদের দৃষ্টিআকর্ষণের প্রয়োজন হলে অনুগ্রহ করে প্রশাসকদের আলোচনাসভায় বার্তা রাখুন।
  • নির্দিষ্ট কোন তথ্যের জন্য তথ্যকেন্দ্র ব্যবহার করুন। নতুন ব্যবহারকারীরা টিউটোরিয়াল পাতাটি দেখতে পারেন।
  • পুরনো কোন বিষয়ে মন্তব্য করতে চাইলে সংশ্লিষ্ট অনুচ্ছেদের শেষে আপনার মন্তব্য যোগ করুন।
  • আপনি বাংলা উইকিপিডিয়া বা উইকিমিডিয়ার বাংলা প্রকল্পসমূহের ব্যাপারে তথ্য অনুসন্ধানের জন্য info-bn@wikimedia.org ঠিকানায় ইমেইলও করতে পারেন।
  • আপনার নিজের নিরাপত্তার জন্যই, অনুগ্রহপূর্বক আপনার ই-মেইল ঠিকানা বা যোগাযোগের জন্য অন্য কোনো তথ্য এখানে দেবেন না
সরাসরি চলুন: সূচিপত্রেশীর্ষের আলোচনায়পাদদেশের আলোচনায়

কৃতঋণ শব্দ প্রসঙ্গে[সম্পাদনা]

সম্প্রতি উইকিতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিগত অনেক ক্ষেত্রে বাংলাকরণের প্রয়াস দেখছি। এমনিতেও দৈনন্দিন ব্যবহারের বহু বিদেশি শব্দের পরিভাষা বেরোচ্ছে। দূরালাপনী (টেলিফোন), দূরদর্শন (টেলিভিশন), দ্বিচক্রযান (সাইকেল), গাড়িশালা (গ্যারেজ), নভোদূরবীক্ষণ যন্ত্র (টেলিস্কোপ) এসব হাস্যকর ও দুর্বোধ্য হলেও প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাক্ষেত্রে বাংলা চালুর নামে ব্যবহার করা হচ্ছে এবং উইকিতেও দুয়েকটি দেখছি। বিদেশি ভাষা হতে কৃতঋণ শব্দ গ্রহণ ভাষার প্রবহমানতার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

প্রসঙ্গত, বাংলা ভাষায় শব্দার্থের ক্ষেত্রে সূক্ষ্ণতার কারবার কম, ভাষাবিদ পণ্ডিতরাও সম্ভবত এদিকে মনোযোগ দেননি (অভিধানে প্রবন্ধ, নিবন্ধ, রচনা, সন্দর্ধ সবগুলোর অর্থ একই; সংসদ, বাএ)। ইংরেজি ও অন্যান্য ভাষার ক্রমবর্ধমান শব্দভাণ্ডারের বিপরীতে বাংলায় শব্দকোষের ক্ষয়িষ্ণুতা লক্ষণীয়। একদিকে প্রচুর শব্দ প্রচলন হারিয়ে অভিধানে আশ্রয় নিয়েছে, অন্যদিকে কৃতঝণ শব্দকে প্রমিত বলে স্বীকৃতি দিতেও আমাদের (বাংলা একাডেমি, সংসদ) আগ্রহ নেই; ইংরেজির বেলাতে আমাদের বাংলাপ্রেম জেগে ওঠে, অথচ বাংলা মানেই তৎসম/সংস্কৃত নয়। আশা করি, অপ্রয়োজনে প্রচলিত শব্দ বাদ দিয়ে এরকম বাংলাকরণের চেষ্টা এবং অম্লযান, মজ্জাকোষার্বুদ-জাতীয় অনুবাদ আর ব্যবহার করতে হবে না।

রঙের ক্ষেত্রে লালের যতো শেড, সেগুলোর ইংরেজি নাম গ্রহণে আপত্তি অনুচিত। ভাষার সীমাবদ্ধতা ও পশ্চাৎপদতার কারণে আমরা অল্পকিছু রঙনাম ব্যবহার করি। pink ও rosy দুটোকেই লেখি গোলাপি, এক্ষেত্রে প্রথমটিকে পিঙ্ক ও অন্যটি গোলাপি বলে গ্রহণ করা যায়। আসলে বাংলায় রঙনাম অনেক কম, অভিধানেও ৫০টির বেশি নেই। red, crimson, scarlet = লাল বা violet, fuchsia, purple = বেগুনি বা pink, rose = গোলাপি এসব স্থুলতা সাহিত্যে চললেও কর্মক্ষেত্রে (বৈজ্ঞানিক গবেষণা, টেক্সটাইল শিল্পে) অচল। শ্যাম, হরিৎ, কপিশ, পিঙ্গল, পাটল প্রভৃতি অপ্রচলিত শব্দগুলো আবার চালু করার চেষ্টা করা যেতে পারে, তবে জানার ও ব্যবহারের প্রয়োজনে রঙের বিভিন্ন শেডের নামগুলো ধার করতে তো আসুবিধা নেই। বিদেশি শব্দ গ্রহণে ভাষার মানহানি হবেনা, বরং ব্যবহারিক প্রয়োজনও মিটবে এবং শব্দভাণ্ডারও সমৃদ্ধ হবে। - রেজওয়ান (আলাপ) ১৬:৩৭, ৭ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)

অতি বাংলাকরণ আমিও পছন্দ করি না তবে এটাও বলব অন্ধভাবে ইংরেজিও অনুসরণ করা উচিত নয়। যেগুলির বাংলা করা যায় তা বাংলায় ব্যবহার করা উচিত। বিভিন্ন ভাষা বিভিন্ন শব্দের পরিভাষা ব্যবহার করে, তবে কেন বাংলায় পরিভাষা ব্যবহার করলে তা হাস্যকর মনে হবে।আফতাব (আলাপ) ১৫:১৫, ১০ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
অবশ্যই পরিভাষা নতুন শব্দের কার্যকর উৎস এবং প্রশাসন ও শিক্ষাক্ষেত্রে তার ব্যবহার আমরা দেখতেই পাচ্ছি। তবে প্রদত্ত উদাহরণগুলোর মতো নিশ্চয়ই নয়। ভাষার সীমাবদ্ধতা বুঝে নতুন শব্দ সৃজন (পরিভাষা) ও গ্রহণ (বিদেশি শব্দ) দুটোই করতে হবে। কেবল বাংলাকরণের কথা ভাবলে বাংলা ভাষায় আজ সংস্কৃত বাদে অন্য কোনো ভাষার শব্দই থাকতো না। আশা করি, সংস্কৃত-আরবি-ফার্সির মতো প্রয়োজনীয় ইংরেজি শব্দও আমরা গ্রহণ করবো। - রেজওয়ান (আলাপ) ১৮:০১, ১০ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)

আলোচনায় অংশগ্রহণের আহবান[সম্পাদনা]

প্রিয় সুধী, সকলকে আলাপ:গোলাপী এই পাতায় চলমান আলোচনায় অংশগ্রহণের অনুরোধ জানানো যাচ্ছে। বিশেষ করে, বোধি দা, মহীন রিয়াদ, সুব্রত দা, নাহিদ, আশিক ভাই, অর্ণব দা, ওয়াকিম (ট্যাগ দেবার জন্য দুঃখিত), ধন্যবাদ। -মেরাজ (আলাপ) ০৪:৩১, ১৫ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)

আশা করি কেউ তাৎক্ষণিক মন্তব্য করবেন না, কারণ হতে পারে আপনি যা বলতে চান তা অন্যকেউ আগেই উত্থাপন করেছেন; পুরো আলোচনাটি পড়ে মতামত জানান। - রেজওয়ান (আলাপ) ০৮:৩৭, ১৫ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)

বাংলাতে ব্যবহৃত কমন্সের যে ফাইলগুলো অপসারণ আবেদন করা হয়েছে[সম্পাদনা]

সুধী, বাংলা উইকিপিডিয়াতে ব্যবহার হচ্ছে এমনসব ফাইল যেগুলো কমন্সে অপসারণ প্রস্তাব করা হয়েছে তার একটি তালিকা c:User:SteinsplitterBot/DR/bnwiki পাতায় পাবেন। পাতাটি সংশ্লিষ্ট বট কর্তৃক নিয়মিত হালনাগাদ করা হয়। ধন্যবাদ।--যুদ্ধমন্ত্রী আলাপ ১৩:১৯, ১৫ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)

CIS-A2K Newsletter July 2017[সম্পাদনা]

Envelope alt font awesome.svg

Hello,
CIS-A2K has published their newsletter for the months of July 2017. The edition includes details about these topics:

  • Telugu Wikisource Workshop
  • Marathi Wikipedia Workshop in Sangli, Maharashtra
  • Tallapaka Pada Sahityam is now on Wikisource
  • Wikipedia Workshop on Template Creation and Modification Conducted in Bengaluru

Please read the complete newsletter here.
If you want to subscribe/unsubscribe this newsletter, click here. --MediaWiki message delivery (আলাপ) ০৩:৫৮, ১৭ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)

ব্যক্তি না ব্যক্তিত্ব ব্যবহার[সম্পাদনা]

বাংলা উইকিপিডিয়ায় ইংরেজি উইকির ".... people of.... " / "People from...." (যেমন: Bangladeshi people of american descent/People from London) বিষয়শ্রেণী অনুবাদ করার সময় ব্যক্তি/ব্যক্তিত্ব/মানুষ ব্যবহার করা হয়। এক শব্দের একাধিক অনুবাদ করায় বিষয়শ্রেণীর সমন্বয় করতে ও নামের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সমস্যা হচ্ছে। আমাদের বিষয়শ্রেণীর নামের ক্ষেত্রে যে কোন একটি ব্যবহার করা দরকার।

আমার প্রশ্ন : আমরা কোনটি ব্যবহার করব? ব্যক্তি না ব্যক্তিত্ব? আফতাব (আলাপ) ১৯:০৭, ১৭ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)

আলোচনার উত্থাপক হিসেবে আমার মতামত হল: আমি "ব্যক্তি" ব্যবহার করার পক্ষে। ব্যক্তি বলতে একজন মানুষকে বুঝানো হয় আর কিছু না। অন্যদিকে "ব্যক্তিত্ব" বলতে শুধু একজন মানুষকে নয়, সেই সাথে তার আচার আচরণ, বৈশিষ্ট্য, অবস্থা ইত্যাদি বুঝানো হয়। কিন্তু বিষয়শ্রেণীর মূল উদ্দেশ্য এইসব কিছুই নয়, শুধু তিনি যে একজন মানুষ তাই বুঝানো (যেমন: অমুক জেলার ব্যক্তি, অমুক শতাব্দীর ব্যক্তি, ইংরেজ বংশোদ্ভূত মার্কিন ব্যক্তি)। আফতাব (আলাপ) ১৯:১৮, ১৭ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
কোন স্থানের বুঝাতে "People from...." কে "স্থানের ব্যক্তি", যেমন "ঢাকার ব্যক্তি" রাখার পক্ষপাতী। অন্যদিকে জাতি বুঝাতে "..... people" এর ক্ষেত্রে শুধু জাতির নাম লেখাই সঠিক বলে মনে করি। কারণ "Bengali people" বা "Indian people" কে "বাঙালি ব্যক্তি" বা "ভারতীয় ব্যক্তি" লেখার চেয়ে শুধু "বাঙালি" বা "ভারতীয়" লেখাটাই যুক্তিযুক্ত। -- ওয়াকিম (আলাপ) ২০:৩১, ১৭ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
ব্যক্তিত্বের তুলনায় এক্ষেত্রে ব্যক্তি ব্যবহার যুক্তিযুক্ত। ফেরদৌস • ২২:৩৪, ১৮ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
উপরের সকলের সঙ্গেই একমত। "ব্যক্তি" ব্যবহার প্রাসঙ্গিক হবে। ~মহীন (আলাপ) ২২:৫১, ১৮ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
একমত "ব্যক্তি" ব্যবহার যুক্তিযুক্ত। >>কায়সার আহমাদ (আলাপ) ০৪:০৩, ১৯ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
ওয়াকিমের সাথে একমত।--যুদ্ধমন্ত্রী আলাপ ০৫:৩০, ১৯ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
একমত । ওয়াকিমের সাথে সম্মতি জ্ঞাপন করছি । --- Muḥammad (আলাপ) ১১:০৪, ১৯ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
'ব্যক্তি' ব্যবহারের পক্ষে একমত। - রেজওয়ান (আলাপ) ১১:০৮, ১৯ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
ব্যক্তি ব্যবহারে সম্মতি জানাচ্ছি। এই বিষয়ে একমতArian Writing আলাপ ১১:২৪, ১৯ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)

রং এর নাম সমন্ধে কিছু প্রস্তাবনা[সম্পাদনা]

ইংরেজি ভাষায় শেড অনুসারে রং এর নামে ৪৭৮~ টি । ইংরেজি উইকিতে তারা প্রত্যেকটির স্বতন্ত্র নাম ব্যাবহার করেছে তবে প্রত্যেকটির জন্য স্বতন্ত্র পাতা তৈরি করেনি। কিছু ক্ষেত্রে "প্রধান রং" এর পাতার শেড অংশে অনুচ্ছেদ তৈরি করে লিঙ্ক করা হয়েছে । এটাকেই আমার সঠিক বলে মনে হয়েছে।

বাংলা ভাষা ও উইকিতে ব্যাবহার[সম্পাদনা]

নিবন্ধের নামের শেষে বন্ধনী , দ্যার্থতা নিরসন পাতা এবং অন্য নামের পুনঃ নির্দেশনা পাতা তৈরি করেই এই সমস্যার সমাধান করা যেত যদি বাংলা শব্দভাণ্ডারে যথেষ্ট রংনাম থাকত । আছে শুধুমাত্র ৫০~ টি। শুধুমাত্র জানার প্রয়োজনে হলেও বাকি নামগুলোকে যুক্ত করতে হবে ( ইংরেজি উইকির মত)। কর্মক্ষেত্রে যুক্ত (বৈজ্ঞানিক গবেষণা, টেক্সটাইল শিল্প) ব্যাক্তিরাও এখন বাংলা উইকি ব্যাবহার করে এবং নিকট ভবিষ্যতে এর হার বাড়বে । সুতারাং আগামী দশ বছর পর যে সমস্যার সৃষ্টি হবে তার সমাধানের জন্য এখনই চিন্তা করা উচিৎ বলে মনে করি ।

করনীয়[সম্পাদনা]

করার মধ্যে শুধু এই দুটি কাজই করার আছে।

ক। বাংলা ভাষার ৫০~ টি সহ বাকি ৪২৮~ টি শব্দ ইংরেজি ভাষা হতে কৃতঋণ গ্রহন। বা শুধু প্রচলিতগুলোকে রেখে বাকী সবগুলোর জন্য কৃতঋণ গ্রহণ।

খ। অপ্রচলিত আভিধানিক নামগুলো চালু করার চেষ্টা অথবা নতুন শব্দ (পরিভাষা) সৃজন করা।

কুফল (ক)[সম্পাদনা]

১। বিদেশি ইংরেজি ভাষা হতে অতিরিক্ত ৪২৮~ টি নতুন শব্দ নিতে হবে। বিতর্কিত।

২। রং এর ক্ষেত্রে বাংলা শব্দের স্বকীয়তা হারানো।

৩।

কুফল (খ)[সম্পাদনা]

১। বাংলা একাডেমী ও আভিধানিকদের থেকে প্রস্তাবনা এলেও প্রচলন ঘটাতে দীর্ঘদিন লাগবে।

২। পুনরায় অভিধানে ফেরত গিয়ে একই ঘটনার পুনরাবৃতি ঘটার সম্ভাবনা রয়েছে।

৩।

সম্মানিত সম্পাদকগন । দয়া করে এই আলোচনাটিতে অংশগ্রহণ করুন। (আফতাব ভাই, মেরাজ ভাই। দয়া করে পথ দেখান)। সবাইকে ধন্যবাদ।

মতামত[সম্পাদনা]

আমার ব্যাক্তিগত অভিমতঃ ক । শব্দভাণ্ডার হিসেবে বাংলা ভাষার রংনাম খুবই অপরিণত। -- Muḥammad (আলাপ) ১৬:২০, ১৯ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)

আমার হিসাব সহজ: রঙের প্রচলিত নাম ব্যবহার করা, তবে প্রচলিত নাম না থাকলে নতুন পরিভাষা সৃষ্টি (এক্ষেত্রে অভিধানে সাহায্য নেয়া যেতে পারে), তারপরেও যদি পরিভাষা সৃষ্টি সম্ভব না হয় তবেই কৃতঋণ গ্রহণ। --আফতাব (আলাপ) ১৬:৪৮, ১৯ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
আফতাব ভাইয়ের সাথে একমত >>কায়সার আহমাদ (আলাপ) ০২:০৬, ২০ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
আফতাব ভাইয়ের সাথে আমিও একমতবাউন্ডুলে দার্শনিক (আলাপ) ০৭:১৫, ২০ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)
আমি সাধারণত কোনো রঙের যতো প্রতিশব্দ পাওয়া যায় (অভিধান, সাহিত্য, বইপত্র হতে) একত্র করে নিজে প্রচলন (লোহিত না লাল), বোধগম্যতা (হরিৎ না সবুজ), প্রায়োগিকতা (নীললাল না নীললোহিত) ইত্যাদি আলোচনা ও বিচার করে যেটা বেশি উপযুক্ত সেটা ব্যবহার করি। এককভাবে কোনোটাতেই নির্ভর করি না। কারণ প্রচলন দ্ব্যর্থবোধক হতে পারে, অভিধানে 500 নামের অর্থ হিসেবে 50টাই ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে থাকে, আর পরিভাষা যথার্থ নাও হতে পারে। সুতরাং উপযুক্ততা বিচার করে (উইকি, বই ঘেঁটে) প্রচলিত, অপ্রচলিত, আভিধানিক, পারিভাষিক/নতুন বা বিদেশি (সংস্কৃত-ফার্সি-ইংরেজি-) নাম ব্যবহার করবো। - রেজওয়ান (আলাপ) ১৬:০৬, ২০ আগস্ট ২০১৭ (ইউটিসি)