ইসমত চুগতাই

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ইসমত চুগতাই
عصمت چُغتائی
জন্ম(১৯১৫-০৮-২১)২১ আগস্ট ১৯১৫
বাদাউন, যুক্তপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, ব্রিটিশ ভারত
মৃত্যু২৪ অক্টোবর ১৯৯১(১৯৯১-১০-২৪) (৭৬ বছর)
মুম্বই, মহারাষ্ট্র, ভারত
পেশালেখিকা, পরিচালক
ভাষাউর্দু
জাতীয়তাভারতীয়
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানআলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়
ধরনছোটগল্প এবং উপন্যাস
সাহিত্য আন্দোলনসর্বভারতীয় প্রগতিশীল লেখক সংঘ
উল্লেখযোগ্য রচনাবলিইসমত চুগতাইয়ের কাজ
উল্লেখযোগ্য পুরস্কারপদ্মশ্রী (১৯৭৬)
গালিব পুরষ্কার (১৯৮৪)
দাম্পত্যসঙ্গীশহিদ লতিফ (১৯৪১-১৯৬৭)
সন্তানসীমা সহনি
সব্রিনা লতিফ

ইসমত চুগতাই (অথবা চুঘতাই বা চুগ়তাই )একজন উর্দু ভাষার ভারতীয় লেখিকা ছিলেন। ১৯৩০-এর দশকে তিনি মার্কসবাদী দৃষ্টিকোণ থেকে মহিলা যৌনতা এবং নারীবাদ, মধ্যবিত্ত কৌলীন্য এবং শ্রেণী সংগ্রামের মত বিষয়গুলিতে লিখতেন। সাহিত্যিক বাস্তবতার মাধ্যমে তিনি বিংশ শতাব্দীর উর্দু সাহিত্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ কন্ঠস্বর হিসাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন, এবং ১৯৭৬ সালে তাঁকে ভারত সরকার দ্বারা পদ্মশ্রী প্রদান করা হয়।

জীবনী[সম্পাদনা]

প্রাথমিক জীবন এবং কর্মজীবনের শুরুর দিক (১৯১৫-৪১)[সম্পাদনা]

ইসমত চুগতাইয়ের জন্ম ২১শে আগস্ট ১৯১৫ সালে, বাদাউন, উত্তরপ্রদেশের নুসরত খানাম এবং মির্জা কাসিম বেগ চুগতাইয়ের ঘরে। ইসমত ছিলেন দশ ভাই-বোনের মধ্যে নবম। বাবা পদস্থ সরকারি আমলা হওয়ার ফলে ইসমতদের পরিবারকে প্রায়শই বাসস্থান বদল করতে হত। তাঁর বাল্য বয়সেই সব দিদিদের বিবাহ হয়ে যাওয়াতে তাঁকে যোধপুর, আগ্রা এবং আলিগড়ের মত শহরে বড় হয়ে উঠতে হয়েছিল তাঁর দাদাদের সাহচর্যেই। চুগতাই নিজেই বলেছেন কীভাবে তাঁর বড় হয়ে ওঠার বছরগুলোতে তার ব্যক্তিত্বতে তাঁর দাদাদের প্রভাব পরেছে। তিনি তাঁর দ্বিতীয়-জ্যেষ্ঠ ভাই ঔপন্যাসিক মির্জা আজিম বেগ চুগতাইকে পরামর্শদাতা হিসেবে মানতেন। তাঁর বাবার অবসরের পর তাঁরা আগ্রাতেই স্থায়ীভাবে বসবাস করতেন।

উপযুক্ত প্রশংসা এবং চলচ্চিত্রে রূপান্তর (১৯৪২-৬০)[সম্পাদনা]

সমালোচনামূলক মূল্যায়ন এবং পরবর্তীকালে প্রশংসা (১৯৬১-৯১)[সম্পাদনা]

প্রভাব এবং লিখন শৈলী[সম্পাদনা]

জনপ্রিয় সংস্কৃতিতে ইসমত চুগতাই[সম্পাদনা]

ইসমত চুগতাইয়ের বিষয়ের প্রকাশনা[সম্পাদনা]

চুগতাইয়ের লেখার নাট্যরূপ[সম্পাদনা]

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

পুরস্কার এবং সম্মাননা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]