ইরানের জাতিগোষ্ঠী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ইরানে জাতিগত গোষ্ঠী (বিশ্ব ফ্যাক্টবুক)[১]
জাতিগত গোষ্ঠী শতকরা
ফার্সি (গিলাক ও মাজান্দারানীসহ)
  
৬১%
আজারবাইজানি
  
১৬%
কুর্দি
  
১০%
লুর (বখতিয়ারি অধিবাসীসহ)
  
৬%
তুর্কমেন (এবং ইরানে অন্যান্য উপজাতি তুর্কি)
  
২%
আরব
  
২%
বেলুচ
  
২%
অন্যান্য
  
১%
ইরানের জাতিগোষ্ঠী ও ধর্ম

ইরানের জনসংখ্যার অধিকাংশ লোকই ইরানীয় (প্রায় ৬৭-৮০%)। ইরানের সর্ববৃহৎ জাতিগোষ্ঠী হলো পারসিক (যারা ইরানের জনসংখ্যার অধিকাংশই গঠন করে) এবং কুর্দি, এছাড়া গিলাকি জাতি, মাজান্দারানি জাতি, লুর জাতি, বেলুচি জাতি, তুর্কমেন জাতি, আজেরি জাতি, তালিশ জাতি এবং ট্যাট জাতিসহ অনেক জাতিগোষ্ঠীন সমন্বয়ে রয়েছে।

তুর্ক জাতি প্রায় ১৫-২৮ শতাংশ লোকের সমন্বয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী, আজেরি জাতিগোষ্ঠী, গঠন করে যা ইরানের দ্বিতীয় জাতিগোষ্ঠী এবং সে সাথে ইরানের বৃহত্তম ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী। অন্য তুর্ক জাতি গোষ্ঠীগুলো তুর্কমেন এবং কাশকি অধিবাসীর সমন্বয়ে গঠিত।

ইরানিভাষী লোকজন[সম্পাদনা]

ফার্সি লোক[সম্পাদনা]

১৯৩৫ সাল পর্যন্ত ইরান পারস্য নামে পরিচিত ছিল, এই হিসাবে সকল ইরানিরা ফার্সি লোক হিসেবে বিবেচনা করা হয়। পারসিক শব্দটি এমন একটি জাতিগত গোষ্ঠীকে বুঝায় যারা তাদের জন্য ব্যবহৃত হয় যারা পারস্য ভাষায় কথা বলে এবং বর্তমানে ইরানসহ ইরান থেকে অন্য দেশে দেশান্তরিত হয়ে সে দেশে বসবাস করছেন তাদের।

কুর্দি[সম্পাদনা]

কুর্দি জাতি ইরানের কুর্দিস্তান বলে পরিচিত অঞ্চলে বসবাস করে।কুর্দিস্তান অঞ্চল ইরান, ইরাক, সিরিয়াতুরস্কজুড়ে বিস্তৃত। কুর্দিদের সংখ্যা প্রায় ৩ কোটি।তাদের ভাষা কুর্দি ভাষা। এটি ইরানি ভাষার শাখা উত্তর পশ্চিম ইরানি ভাষার অংশ। অধিকাংশ কুর্দিদের আবাস পশ্চিম এশিয়ায়। কুর্দিস্তানের বাইরে পশ্চিম তুরস্কে কুর্দিদের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক উপস্থিতি রয়েছে। ইরাকের স্বায়ত্ত্বশাসিত কুর্দিস্তানে কুর্দিরা সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগোষ্ঠী। প্রতিবেশী তুরস্ক, সিরিয়াইরানে কুর্দিরা সংখ্যালঘু। এসব অঞ্চলে কুর্দি জাতীয়তাবাদীরা স্বায়ত্ত্বশাসনের জন্য আন্দোলন করছে।

লুর[সম্পাদনা]

ইরানের দক্ষিণ-পশ্চিম এলাকায় লুরিস্তান প্রদেশের পাহাড়ী এলাকায় লুর আদিবাসীরা বসবাস করে। এরা মূলত লোরি ও ফার্সি ভাষায় কথা বলে। এদের অধিকাংশই শিয়া মতাবলম্বী। লুরিরা প্রধানত বাস করে লোরেস্তান, খুজেস্তান, হামাদান, চাহারমহল, বখতিয়ারি, ইস্পাহান ও ইলাম এলাকায়। বিংশ শতাব্দীর সূচনালগ্নে বেশির ভাগ লুর ছিল যাযাবর, এদের বৃত্তি ছিল পশুপালন। এ সময় কিছু লুর খোররমাবাদ নগরে বসবাস করত। পাহলভি সরকার লুর জাতির একটি অংশকে বসতি স্থাপনে বাধ্য করেছিল। এ জন্য কয়েকবার প্রচেষ্টা গ্রহণ করা হয়।

তুর্কি[সম্পাদনা]

তুর্ক বলতে একটি বৃহত্তর জাতিকে বোঝায়, যার মধ্যে বর্তমানের কাজাখ, উজবেক, কিরগিজ, এবং তুর্কি জাতির লোকেরা, এবং অতীতের বুলগার, হুন, সেলজুক, উসমানীয়, তৈমুরীয়, ইত্যাদি জাতিগুলি অন্তর্ভুক্ত। ধারণা করা হয় আদি তুর্ক জাতিটি মধ্য এশিয়া থেকে সাইবেরিয়া পর্যন্ত বিস্তৃত একটি এলাকায় বসবাস করত। কোন কোন ইতিহাসবেত্তা মনে করে হুনেরা ছিল একটি আদি তুর্ক জাতি। অন্যরা হুনদেরকে একটি মঙ্গোলীয় জাতি মনে করেন।[২৬] অটো মেনশেন-হেলফেনের ভাষাবৈজ্ঞানিক গবেষণায় হুনদের তুর্ক উৎসকে সমর্থন করা হয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. CIA World Factbook: Iran