ইয়াহিয়া ইবনে হাবাশ সোহরাওয়ার্দী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ইয়াহিয়া ইবনে হাবাশ সোহরাওয়ার্দী
জন্ম১১৫৪
পারস্য
মৃত্যু১১৯১ ও ১২০৮ এর মাঝামাঝি
অঞ্চলইসলামী দর্শন
ধর্মইসলাম
ধারাইশরাকি দর্শন

ইয়াহিয়া ইবনে হাবাশ সোহরাওয়ার্দী ছিলেন পারস্যের একজন দার্শনিক যিনি ইসলামী দর্শনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ধারা ইশরাকি দর্শনের প্রতিষ্ঠাতা।[১][২] তিনি শাইখ আল ইশরাক নামে অধিক পরিচিত।

জীবনী[সম্পাদনা]

১১৫৪ সালে তিনি তৎকালীন পারস্যের (বর্তমানে জানজান ও বিজার গারুসের মধ্যবর্তী) সোহরাওয়ার্দ নামক এক গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। মাত্র চল্লিশ বছরের কম সময় বেঁচে থাকলেও সোহরাওয়ার্দী অসংখ্য গুরুত্বপূর্ণ গ্রন্থ রচনা করেছেন যা তাকে ইসলামী দর্শনের নতুন এক ধারা তৈরিতে সাহায্য করেছে। ১১৮৬ সালে মাত্র বত্রিশ বছর বয়সে তিনি তার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ গ্রন্থ কিতাব হিকমাত আল ইশরাক রচনা করেন। তার মৃত্যুর বিষয়ে পরস্পর বিরোধী কয়েকটি মত পাওয়া যায়। তবে প্রচলিত মত হলো যে ১১৯১ ও ১২০৮ সালের মাঝামাঝি কোনো সময়ে মালিক আল জাহিরের নির্দেশে বাতিনি দর্শন চর্চার অভিযোগে তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Ziai, H.(1997), “Al-Suhrawardi”, Encyclopaedia of Islam, New Ed., vol. 9: 782-784. Quote: "AL-SUHRAWARDI, SHIHAB AL-DIN YAHYA b. Habash b. Amirak, Abu'1-Futuh, well known Persian innovative philosopher-scientist, and founder of an independent, non-Aristotelian philosophical school named the "Philosophy of Illumination" (Ḥikmat al-ʿishraq)"
  2. Seyyed Hossein Nasr, “The need for a sacred science”, SUNY Press, 1993. Pg 158: “Persian philosopher Suhrawardi refers in fact to this land as na-kuja abad, which in Persian means literally utopia, "no-place.”