ইব্রাহীম পেশাওয়ারি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মাওলানা

ইব্রাহীম পেশওয়ারী

ابراهیم پېښوری
উপাধিমাওলানা
ব্যক্তিগত
জন্ম
ইব্রাহীম

মোতাবেক ১৮৫০
মৃত্যুমোতাবেক ১৯৩০ (বয়স ৭৯–৮০)
সমাধিস্থলখাজে দেওয়ান কবরস্থান, পুরান ঢাকা
ধর্মইসলাম
আখ্যাসুন্নী
শিক্ষালয়হানাফী
বংশসম্ভবত ইঊসুফজঈ
আন্দোলনদেওবন্দী
শিক্ষাদারুল উলুম দেওবন্দ
এর প্রতিষ্ঠাতাচক বাজার মাদ্রাসা
মুসলিম নেতা
শিক্ষকরশিদ আহমদ গাঙ্গুহি
ভিত্তিকঢাকা
শিক্ষার্থী

ইব্রাহীম পেশওয়ারী (পশতু: ابراهیم پېښوری) ছিলেন একজন পাঠান আলিম ও আরবীবিদ যিনি বাংলায় বাস করতেন.[১]

ছোটবেলা ও তালীম[সম্পাদনা]

ইব্রাহীম পেশওয়ারী মোতাবেক ১৮৫০ ঈসায়ীতে মর্দান জেলার হুতী গাঁওয়ে একটি সম্ভ্রান্ত পাঠান মুসলিম খান্দানে পয়দা হয়েছিলেন। এই এলাকার অধিকাংশ লোক ইঊসুফজঈ গোষ্ঠীর ছিলেন।

ইব্রাহীম পেশওয়ারী উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশের কয়েক ওলামা-বুজুর্গদের তরে ইসলামী তালীম নেন। তার বাদে, উনি সাহারানপুর জেলার দারুল উলুম দেওবন্দ মাদ্রাসায় দাখেল হন। দেওবন্দে উনি হাদীস শিখেছিলেন এবং তা খতম করে উনি সাহারানপুর জেলার গঙ্গোহ শহরে চলে যান যেখানে উনি হাদীসের সনদ পেয়েছিলেন রশিদ আহমদ গাঙ্গুহির তরফ থেকে।[২]

পেশা[সম্পাদনা]

বেশ ইসলামী তালীম নিয়ে ইব্রাহীম পেশওয়ারী নৈনিতালের দাড়ো মাদ্রাসায় একজন উস্তাদ হিসাবে চাকরি পেয়েছিলেন। তার বাদে, উনি ঢাকার চকবাজারে এসে চকবাজার শাহী মসজিদ সংলগ্ন একটি মাদ্রাসা কায়েম করেছিলেন। ঐ মাদ্রাসায় উনি হাদীস শিখাতেন এবং উনার অন্যতম মশহুর শাগরেদ ছিলেন মাওলানা মুফতী দীন মুহম্মদ খাঁন (জন্ম ১৯০০)।

ওফাত[সম্পাদনা]

ইব্রাহীম পেশওয়ারী ঢাকা শহরে ১৩৪৯ হিজরী সনে (১৯৩০ খ্রীষ্টাব্দ) এন্তেকাল করেন। উনাকে পুরান ঢাকার খাজে দেওয়ান বড় মসজিদের সংলগ্ন কবরস্থানে দাফন করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. মুহম্মদ আব্দুল্লাহ (১৯৮৬)। বাংলাদেশের খ্যাতনামা আরবীবিদ, ১৮০১-১৯৭১ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ। পৃষ্ঠা ২৮৭। 
  2. মাওলানা নূর মুহম্মদ আজমী। "২.২ বঙ্গে এলমে হাদীছ"। হাদীছের তত্ত্ব ও ইতিহাস। এমদাদিয়া কুতুবখানা। পৃষ্ঠা ২৫।