ইবনে বাজা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
ইবনে বাজা
Avempace
Ibn Bâjja ابن باجه
জন্ম ১০৯৫
জারাগোজা, আল আন্দালুস
মৃত্যু ১১৩৮ (৪২-৪৩ বছর)
ফেজ, মরক্কো
জাতীয়তা আন্দালুসিয়ান
কর্মক্ষেত্র জ্যোতির্বিজ্ঞান, দর্শন, চিকিৎসাবিজ্ঞান, পদার্থবিজ্ঞান, কবিতা, বিজ্ঞান
যাদেরকে প্রভাবিত করেছেন ইবনে তুফায়েল, আল বিতরুজি, ইবনে রুশদ

ইবনে বাজা (প্রায় ১০৯৫ – ১১৩৮) (ল্যাটিনকৃত আভেমপেস বলেও পরিচিত) পূর্ণ নাম আবু বকর মুহাম্মদ ইবনে ইয়াহিয়া ইবনে আস সাইগ আত তুজিবি ইবনে বাজা আল তুজিবি (أبو بكر محمد بن يحيى بن الصائغ) ছিলেন মধ্যযুগের আল আন্দালুসের একজন পলিমেথ। তিনি জ্যোতির্বিজ্ঞান, পদার্থবিজ্ঞান, মনোবিজ্ঞান, সঙ্গীত, যুক্তি, দর্শন, চিকিৎসাবিজ্ঞান, উদ্ভিদবিজ্ঞান, ও কাব্য নিয়ে লিখেছেন।[১]

ইবনে বাজা বর্তমান স্পেনের আরাগণের জারাগোজায় ১০৮৫ সালে জন্মগ্রহণ করেন[২] এবং ১১৩৮ সালে মরক্কোর ফেজে মৃত্যুবরণ করেন। জারাগোজার আলমোরাভি গভর্নর আবু বকর ইবনে ইবরাহিম ইবনে তিফিলউইতের উজির হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি কবিতায় লিখেছেন। তিনি কবি আল তুতিলির সাথে কবিতার প্রতিযোগিতায় যোগ দিয়েছিলেন। প্রায় ২০ বছর যাবত তিনি মরক্কোর আলমোরাভি সুলতান ইউসুফ ইবনে তাশুফিনের ভাই ইয়াহিয়া ইবনে ইউসুফ ইবনে তাশুফিনের উজির হিসেবে কাজ করেন।[৩] ইবনে বাজা কিতাবুল নাবাত নামক উদ্ভিদবিজ্ঞান বিষয়ক গ্রন্থের রচয়িতা। এতে উদ্ভিদের লিঙ্গ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। তার শিক্ষকদের মধ্যে ছিলেন সেভিলের চিকিৎসক আবু জাফর ইবনে হারুন আল তুরজালি

তার দার্শনিক মতামত ইবনে রুশদআলবার্টাস মেগণাসের উপর সরাসরি প্রভাব ফেলেছে। অল্প সময়ে মৃত্যুর কারণে তার অধিকাংশ লেখা ও বই অসম্পূর্ণ রয়ে যায়। ওষুধ, গণিত, জ্যোতির্বিজ্ঞান বিষয়ে তার অগাধ পান্ডিত্য ছিল। ইসলামি দর্শনের আত্মা বিষয়ে তার অবদান অসম্পূর্ণ রয়ে যায়।

তার সময়ে দর্শন ছাড়াও সঙ্গীত ও কবিতার একজন প্রখ্যাত ব্যক্তি হিসেবে তিনি পরিচিত ছিলেন। ১৯৫১ সালে তার দিওয়ান আবিষ্কৃত হয়।

তার অধিকাংশ কর্ম টিকে না থাকলেও জ্যোতির্বিজ্ঞানপদার্থবিজ্ঞান বিষয়ে তার তত্ত্ব মাইমোনিডসইবনে রুশদের মাধ্যমে সংরক্ষিত হয়েছে। এসকল তত্ত্ব পরবর্তী ইসলামি সভ্যতাগ্যালিলিও গ্যালিলিসহ ইউরোপের রেনেসাকে প্রভাবিত করেছে।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • Haque, Amber (২০০৪)। "Psychology from Islamic Perspective: Contributions of Early Muslim Scholars and Challenges to Contemporary Muslim Psychologists"। Journal of Religion and Health 43 (4): 357–377। ডিওআই:10.1007/s10943-004-4302-z 
  • Marcinkowski, M. Ismail (April 2002), "A Biographical Note on Ibn Bajjah (Avempace) and an English Translation of his Annotations to al-Farabi's Isagoge", in Iqbal Review (Lahore, Pakistan), vol. 43, no. 2, pp. 83–99.
  • The Diwan Attributed to Ibn Bajjah (Avempace),D. M. Dunlop, Bulletin of the School of Oriental and African Studies, University of London, Vol. 14, No. 3, Studies Presented to Vladimir Minorsky by His Colleagues and Friends (1952), pp. 463–477
  • Miquel Forcada (২০০৫)। "Ibn Bajja"। in Thomas F. Glick, Steven John Livesey, and Faith Wallis। Medieval Science, Technology, and Medicine: An Encyclopedia। Routledge। পৃ: 243–246। আইএসবিএন 0415969301 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  1. Jon Mcginnis, Classical Arabic Philosophy: An Anthology of Sources, p. 266, Hackett Publishing Company, আইএসবিএন ০-৮৭২২০-৮৭১-০.
  2. http://plato.stanford.edu/entries/ibn-bajja/#LifCir
  3. Vincent Lagardère, 1989, pp. 80 and 174-178)
  4. Ernest A. Moody (April 1951). "Galileo and Avempace: The Dynamics of the Leaning Tower Experiment (I)", Journal of the History of Ideas 12 (2), p. 163-193.