আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি (চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি
আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি পোস্টার.jpg
চলচ্চিত্রের ডিভিডি কভার
পরিচালকসের্গেই আইজেনস্টাইন
দিমিত্রি ইভানোভিচ ভাসিলিয়েভ
রচয়িতাসের্গেই আইজেনস্টাইন
পিওতর পাভ্লিয়েঙ্কা
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারসের্গেই প্রকোফিয়েভ
চিত্রগ্রাহকএদুয়ার্দ তিসে
প্রযোজনা
কোম্পানি
মসফিল্ম
মুক্তি
  • ১ ডিসেম্বর ১৯৩৮ (1938-12-01)
দৈর্ঘ্য১১১ মিনিট
দেশসোভিয়েত ইউনিয়ন
ভাষারুশ

আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি (রুশ: Алекса́ндр Не́вский) হল ১৯৩৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত রুশ ঐতিহাসিক নাট্য চলচ্চিত্র। এটি পরিচালনা করেছেন যৌথভাবে সের্গেই আইজেনস্টাইনদিমিত্রি ইভানোভিচ ভাসিলিয়েভ। ছবিটির চিত্রনাট্য লিখেছেন যৌথভাবে সের্গেই আইজেনস্টাইন ও পিওতর পাভ্লিয়েঙ্কা। ছবিটি প্রযোজনা করে মসফিল্মের পক্ষে গসকিনো। এতে ত্রয়োদশ শতাব্দীতে তেউতোনিক নাইট কর্তৃক পবিত্র রোম সাম্রাজ্যে নভ্‌গোরদের আক্রমণের প্রচেষ্টা এবং যুবরাজ আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি (১২২০-১২৬৩) কর্তৃক তাদের পরাজয় চিত্রায়িত হয়েছে। ছবিতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন নিকোলাই চের্কাসভ। ছবিটির সুরারোপ করেন সের্গেই প্রকোফিয়েভ। আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি হল আইজেনস্টাইনের তিনটি সবাক চলচ্চিত্রের প্রথম এবং সবচেয়ে জনপ্রিয় চলচ্চিত্র।

চলচ্চিত্রটি ১৯৩৮ সালের ১ ডিসেম্বর সোভিয়েত ইউনিয়নে মুক্তি পায়। ১৯৪১ সালে আইজেনস্টাইন, পাভ্লিয়েঙ্কা, চের্কাসভ ও আব্রিকোসভ এই চলচ্চিত্রের জন্য স্তালিন পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৭৮ সালে চলচ্চিত্রটি ইতালীয় প্রকাশনা সংস্থা আর্নলদো মন্দাদরি এদিরতরের এক জরিপে বিশ্বের সেরা ১০০ চলচ্চিত্র তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়।[১]

কাহিনী সংক্ষেপ[সম্পাদনা]

তেউতোনিক নাইটরা বিশ্বাসঘাতক তভেরদিলোর সাহায্যে পস্কোভ শহরে আক্রমণ করে শহর দখল করে এবং শহরের জনগণকে হত্যা করে। বোয়ার ও নভ্‌গোরদের বণিকদের প্রতিরোধের পাশাপাশি আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি নভ্‌গোরদের সাধারণ জনগণকে নিয়ে অগ্রসর হয় এবং বরফাচ্ছন্ন পেইপ্‌সি-পিহকভা হৃদের পাশে বরফের যুদ্ধে তেউতোনিক নাইটদের পরাজিত করে। পস্কোভ শহর পুনর্দখল করা হয় এবং সেখানে সাধারণ পদাতিক সৈন্যদের মুক্তি দেওয়া হয়, নাইটদের মুক্তিপণ প্রদান স্বার্থে বন্দী অবস্থায় রাখা হয় এবং তভেরদিলোকে প্রতিশোধ পরায়ণ জনগণের কাছে ছেড়ে দেওয়া হলে তাকে টুকরো টুকরো করা হয়।

কুশীলব[সম্পাদনা]

  • নিকোলাই চের্কাসভ - যুবরাজ আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি
  • নিকোলাই আখলোপকভ - ভাসিলি বুস্লিয়েভ
  • আন্দ্রেই আব্রিকোসভ - গাভ্রিলো আলেকসিচ
  • দিমিত্রি অরলভ - ইগ্নাত
  • ভাসিলি নভিকভ - পাভশা
  • নিকোলাই আর্ক্সি - দোমাশ তভিরদিস্লাভিচ
  • ভার্ভারা মাসালিতিনোভা - আমেলফা তিমোফিরেভনা
  • ভেড়া ইভাশোভা - অল্গা দানিলোভ্‌না
  • আলেক্সান্দ্রা দানিলোভা - ভাসিলিসা
  • ভ্লাদিমির ইয়েরশোভ - হেরমান বাঁক
  • সের্গেই ব্লিন্নিকভ - তভেরদিলো
  • ইভান লাগুতিন - আনানি
  • ল্যেভ ফেনিন - আর্কবিশপ
  • নাউম রগোঝিন - পূজারী

নির্মাণ[সম্পাদনা]

চিত্রনাট্য উন্নয়ন[সম্পাদনা]

আলেক্সান্দ্‌র (নিকোলাই চের্কাসভ) মঙ্গোল দূতের গোল্ডেন হোর্ডে যোগ দেওয়া প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন।

আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি সের্গেই আইজেনস্টাইন নির্মিত প্রথম পূর্ণাঙ্গ চলচ্চিত্র। এটি নির্মাণে সময় লাগে ১০ বছর। স্তালিনের সময়ে যখন সোভিয়েত ইউনিয়ন ও নাৎসি জার্মানির মধ্যে সংকটময় পরিস্থিতি চলছিল তখন এই চলচ্চিত্র নির্মিত হয়। এই চলচ্চিত্র দুই দেশের মধ্যে চলমান রাজনৈতিক অবস্থা রূপকের মাধ্যমে চিত্রায়িত হয়। তেউতোনিক পদাতিক সৈন্যের শিরণাস্ত্র দেখতে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের স্টালহেমের ব্যঙ্গাত্মিক সংস্করণের মত দেখায়। আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি চলচ্চিত্রের প্রথম পাণ্ডুলিপিতে আক্রমণকারীদের শিরণাস্ত্র স্বস্তিকার মত দেখতে ছিল।[২]

চলচ্চিত্রে আলেক্সান্দ্‌রকে লোক বীর হিসেবে দেখানো হয়েছে, যে মঙ্গোলদের চেয়ে ভয়াবহ শত্রুর মোকাবেলা করার জন্য তাদের সাথে একটি যুদ্ধ পাশ কাটিয়ে যায়। চলচ্চিত্রটিতে উচ্চমাত্রার লিখন বিরোধী ও ক্যাথলিক বিরোধী বার্তা রয়েছে।[৩] সোভিয়েত ঔপন্যাসিক পিওতর পাভ্লিয়েঙ্কা চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্য রচনা করেন। প্রযোজক আইজেনস্টাইনের অংশের একপেশে প্রবণতা পরিহার করার জন্য পাভ্লিয়েঙ্কোকে "উপদেষ্টা" হিসেবে নিয়োগ দেয়।[৪]

আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি চলচ্চিত্রটি এর মূল বিষয়বস্তুর উপর জোর দেয়, যেখানে সাধারণ জনগণ রাশিয়াকে বাঁচাতে বদ্ধ পরিকর, অন্যদিকে অভিজাত ও বণিকশ্রেণিকে "বুর্জোয়া" হিসেবে দেখানো হয়েছে, যারা জনগণের শত্রু কারণ তারা তাদের জন্য কিছুই করছে না।[৫]

সঙ্গীত[সম্পাদনা]

আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি আইজেনস্টাইন পরিচালিত প্রথম সবাক চলচ্চিত্র। যদিও বিঝিন ওগ চলচ্চিত্রে তিনি প্রথম শব্দের ব্যবহার করেন, কিন্তু নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে যায় এবং বেশিরভাগ দৃশ্য নষ্ট হয়ে যায়। আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি চলচ্চিত্রের সঙ্গীতের সুর করেছেন সের্গেই প্রকোফিয়েভ। এই চলচ্চিত্রের নির্মাণ ছিল শব্দের পুর্ণাঙ্গ সমন্বয়। কিছু দৃশ্য প্রকোফিয়েভের সঙ্গীতের ভিত্তিতে চিত্রায়িত হয় এবং কিছু সুর রচিত হয় আইজেনস্টাইনের চিত্রায়নের ভিত্তিতে।[৬] প্রকোফিয়েভ এই চলচ্চিত্রের প্রারম্ভিক দৃশ্যায়ন দেখে এই অতুলনীয় সুর সৃষ্টি করেন। চলচ্চিত্রের সম্পাদনাকালীন আইজেনস্টাইন ও প্রকোফিয়েভের মধ্যে দৃঢ় ও সৃজনশীল সমন্বয় সঙ্গীত ও দৃশ্যের সংযোগ ঘটিয়েছে যা এখনো চলচ্চিত্র নির্মাতাদের জন্য আদর্শ হয়ে রয়েছে।[৭] এই চলচ্চিত্রের সুর সম্পর্কে লন্ডন সিম্ফনি অর্কেস্ট্রার প্রধান পরিচালক ভালেরি গের্গিয়েভ প্রকোফিয়েভের মন্তব্য হল, "চলচ্চিত্রের জন্য রচিত সর্বশ্রেষ্ঠ সুর।"[৮]

মুক্তি[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রটি ১৯৩৮ সালে ১ ডিসেম্বর মুক্তি পায় এবং দর্শকদের সাড়া লাভ করে। ১৯৩৯ সালের ১৫ এপ্রিল স্টেট কমিটি ফর সিনেম্যাটোগ্রাফির চেয়ারম্যান সেমেন দুকেল্‌স্কি জানায় ছবিটি ২৩,০০০,০০০ জন মানুষ দেখেছিল এবং সেই সময়ে নির্মিত সবচেয়ে জনপ্রিয় চলচ্চিত্র ছিল।[৯]

১৯৩৯ সালে ২৩ আগস্টের পর সোভিয়েত ইউনিয়ন জার্মানি ও সোভিয়েত ইউনিয়নের মধ্যে আগ্রাসন ও দ্বন্দ্ব পরিহারের লক্ষ্যে মলোতভ-রিবেন্ট্রপ চুক্তিতে স্বাক্ষর করলে আলেক্সান্দ্‌র নেভ্‌স্কি চলচ্চিত্রের প্রদর্শনী বন্ধ করে দেওয়া হয়। কিন্তু ১৯৪১ সালের ২২ জুন সোভিয়েত ইউনিয়নে জার্মান আগ্রাসনের ফলে পরিস্থিতি পূর্বে অবস্থায় ফেরত গেলে চলচ্চিত্রটি আবার সোভিয়েত ও অন্যান্য পশ্চিমা প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হতে থাকে।

সমালোচকদের প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

পর্যালোচনা ভিত্তিক ওয়েবসাইট রটেন টম্যাটোস-এ ১৮ জন সমালোচকের পর্যালোচনার ভিত্তিতে ৮.৮/১০ গড়ে চলচ্চিত্রটির রেটিং স্কোর ৯৪%।[১০] দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস-এর ফ্রাঙ্ক এস নুজেন্ট ছবিটি সম্পর্কে লিখেন, "আইজেনস্টাইনের যুদ্ধের উত্থাল তরঙ্গ কোন প্রচারণামূলক দামামা থেকে কম ছিল না। তার কর্মীরাও রক্তিম বরফে ফুটকির চেয়ে বেশি নয়।"[১১] দ্য গার্ডিয়ান-এর আলেক্স ভন তুনজেলমানও চলচ্চিত্রটিকে "স্তালিনবাদী প্রচারণা" বলে উল্লেখ করেন।[১২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Александр Невский (Киношкола)" (রুশ ভাষায়)। Ruscico.com। ১৯ এপ্রিল ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ নভেম্বর ২০১৭ 
  2. Unspecified (1998) and two elaborated swastikas do appear on the miter of the bishop of the Holy Roman Empire, who supervises his fighting German lackeys from just behind the lines. Eisenstein's Symphonic Vision. In Alexander Nevsky [DVD liner notes]. Chatsworth: Image Entertainment.
  3. Tatara, Paul। "Review - Alexander Nevsky"টার্নার ক্লাসিক মুভিজ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৭ 
  4. Goodwin, James (১৯৯৩)। Eisenstein, Cinema, and History (ইংরেজি ভাষায়)। Urbana IL: University of Illinois Press। পৃষ্ঠা 159। আইএসবিএন 0-252-01964-4 
  5. Overy, Richard। The Dictators: Hitler's Germany, Stalin's Russia (ইংরেজি ভাষায়)। পৃষ্ঠা 558। আইএসবিএন 0-393-02030-4 
  6. "Sergei Prokofiev"International Film: Other Traditions, Other Practices (ইংরেজি ভাষায়)। ফিল্ম রেফারেন্স। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৭ 
  7. González Cueto, Irene (২৩ মে ২০১৬)। "Warhol, Prokofiev, Eisenstein y la música - Cultural Resuena"Cultural Resuena (স্পেনীয় ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৭ 
  8. "Concert Programme for the 2011–2012 season" (ইংরেজি ভাষায়)। The Cambridge Philharmonic Society। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৭ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  9. Anderson, Kyril (২০০৫)। Kremlevskij Kinoteatr. 1928–1953: Dokumenty (রুশ ভাষায়)। Rospen Press। আইএসবিএন 978-5-8243-0532-6 . p. 539.
  10. "ALEKSANDR NEVSKIY (ALEXANDER NEVSKY) (1938)"রটেন টম্যাটোস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৭ 
  11. NUGENT, FRANK S. (২৩ মার্চ ১৯৩৯)। "THE SCREEN; Eisenstein's 'Alexander Nevsky' Opens at the Camea --New Films at Paramount, Criterion and Rialto"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস কোম্পানি। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৭ 
  12. von Tunzelmann, Alex (৮ অক্টোবর ২০০৯)। "Alexander Nevsky: Stalinist propaganda in the 13th century"দ্য গার্ডিয়ান (ইংরেজি ভাষায়)। গার্ডিয়ান নিউজ অ্যান্ড মিডিয়া লিমিটেড। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]