আলাপ:মুহাম্মাদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ভালো নিবন্ধ মুহাম্মাদ দর্শন ও ধর্ম বিষয়ক ভালো নিবন্ধের মানদণ্ড অনুসারে একটি ভালো নিবন্ধ হিসেবে চিহ্নিত। আপনি যদি নিবন্ধটির আরো উন্নয়ন করতে সমর্থ হন, তবে অনুগ্রহপূর্বক তা করুন। আপনি যদি মনে করেন যে নিবন্ধটিতে মানদণ্ড অনুসৃত হয়নি তাহলে এটির পুনঃপর্যালোচনা আহবান করতে পারেন।
মার্চ ১, ২০১৮ প্রস্তাবিত ভাল নিবন্ধ তালিকাভুক্ত


আল্লাহ্ ভূল হইলে মাফ কইরা দিও। mak 20:53, ১২ এপ্রিল ২০০৬ (UTC)

ভুল বানানটা ভুল হয়েছে : ) । --Amr ১৯:৩৫, ৫ আগস্ট ২০০৬ (UTC)
ধন্যবাদ । --mak ১৫:১৩, ২২ আগস্ট ২০০৬ (UTC)


এইটাকে কি মুহাম্মাদ এ সরানো যায়? NPOV বলে কথা... --ইমাম তাশদীদ উল আলম ০৭:৫৬, ১১ সেপ্টেম্বর ২০০৬ (UTC)

বাংলা ভাষাভাষীদের অনেক বড় অংশ মুসলিম। তাঁর (হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)) মহত্ব অন্যান্য ধর্মেও স্বীকৃত। উইকিপিডিয়া ব্যবহারকারীরা হযরত লিখেও তাঁর সম্পর্কে নিবন্ধ খুঁজতে পারে। বাংলা উইকিপিডিয়া মাত্র বিকশিত হচ্ছে, আর এর মধ্যেই স্পর্শকাতর বিষয়ে NPOV টেনেে আনা কি সমিচিন। আপনার ব্যবহারকারী নাম Uchchwhash কিন্তু সেটার label এ আপনার পুরো নাম দিয়েছেন। আপনার নামটি খুবই সুন্দর, শুনতেও ভাল লাগে, কেমন যেন একটা Rythm আছে। আপনার নিজেরও তা ভাল লাগে বোধ করি। তাই label এ সম্পূর্ণ নামটি ব্যবহার করেছেন। আর পৃথিবী শ্রেষ্ঠ একজন মহামানবের নিবন্ধকে সম্বোধন করলেন এইটাকে (third person) বলে। আপনাকে যদি এইটা বলে সম্বোধন করি, কেমন লাগবে? নিশ্চয়ই ভাল লাগবে না আপনার কাছে। আমাকে হয়তো Emotional বলবেন। হ্যাঁ ভাই, কিছু ব্যাপারে আমি তাই। আমার ব্যক্তিগত মতামত তাঁর নিবন্ধের শিরোনাম যেরকম আছে, সেরকমই থাকুক। শ্রীরাম কে রাম বললে কি কেউ চিনবে? হয়তো চিনবে, কিন্তু তাঁর মহত্ব প্রকাশ পাবেনা। সবাইকে অনুরোধ করছি, দয়া করে ইমাম সাহেবের সুপারিশ বাস্তবায়ন করবেন না। --mak ১৬:১১, ১১ সেপ্টেম্বর ২০০৬ (UTC)
শিরোনাম ও দোয়া নাম হতে আলাদা করার চেষ্টা করেছি। হচ্ছে না। প্রশাসকগণ সাহায্য করুন। ব্যাপারটা আশা করি কেউ স্পর্শকাতর হিসেবে নিবেন না। --Amr ১০:০৮, ৩১ অক্টোবর ২০০৬ (UTC)

আরবি উইকিপিডিয়াতে শিরোনামঃ محمد_بن_عبد_الله(অর্থাৎ মুহাম্মদ বিন আবদুল্লাহ; আবদুল্লাহ্-র পুত্র মুহাম্মদ) ফারসিতেঃ محمد پسر عبدالله (আবদুল্লাহ্-র পুত্র মুহাম্মদ) উর্দুতেঃ محمد صلی اللہ علیہ و آلہ و سلم(উর্দুভাষীরা দোয়াটা রেখেছে।) ইন্দোনেশীয় ভাষায়ঃ Muhammad (সবচেয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম দেশের লোকেরা কেবল মুহাম্মদ রেখেছে) কুর্দীতেঃ Mihemmed Pêxember (কুর্দী ভাষীরা, "পয়গম্বর মুহম্মদ" রেখেছে) তুর্কীতেঃ Muhammed_bin_Abdullah (আরবি ও ফার্সির মত)

--অর্ণব (আলাপ | অবদান) ১১:১৩, ৩১ অক্টোবর ২০০৬ (UTC)

আমরা ইচ্ছা করলে "মুহাম্মাদ"এর সাথে "সঃ" যুক্ত করতে পারি। এতে সংক্ষিপ্তভাবে দোয়া উল্লেখ করা সম্ভব হবে।আশা করি, এতে করে কারো অন্তরে এ নিয়ে কোন প্রশ্ন আসবে না। Mumin (talk) ১৬:২৯, ১০ নভেম্বর ২০০৯ (UTC)
Mumin bhaya, eta bhalo sidhannto.

ভালো নিবন্ধের পর্যালোচনা[সম্পাদনা]

এই পর্যালোচনা আলাপ:মুহাম্মাদ/ভালো নিবন্ধ১ থেকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এই অনুচ্ছেদের সম্পাদনা লিঙ্ক পর্যালোচনায় মন্তব্য যোগ করতে ব্যবহার করা যেতে পারে।

পর্যালোচক: ওয়াকিম (আলাপ · অবদান) ১০:১৭, ১ মার্চ ২০১৮ (ইউটিসি)


ভালো নিবন্ধ পর্যালোচনা (কোনগুলো ভালো নিবন্ধের গুণাবলী এবং কোনগুলো গুণাবলী বিবেচিত হয়না সেগুলো সম্পর্কে জানুন)

  1. সুলিখিত
    ক) গদ্য:
    খ) রচনাশৈলী সহ বিন্যাস, তালিকা ইত্যাদি:
    উত্তীর্ণ
  2. তথ্যগতভাবে নির্ভুল এবং যাচাইযোগ্য
    ক) তথ্যসূত্র:
    খ) নির্ভরযোগ্য উৎস থেকে উদ্ধৃতি করা হয়েছে:
    গ) মৌলিক গবেষণা:
    ঘ) তথ্যসূত্র হালনাগাদ করা হয়েছে:
    উত্তীর্ণ
  3. নিবন্ধের ব্যাপকতা বা ব্যপ্তি রয়েছে
    ক) প্রধান বিষয়:
    খ) মূল বিষয়েই নিবন্ধ আছে কিনা:
    উত্তীর্ণ
  4. নিরপেক্ষভাবে লিখিত
    পক্ষপাত ব্যতীত তুল্যমূল্য উপস্থাপনা:
    উত্তীর্ণ
  5. নিবন্ধটি স্থিতিশীল
    কোনো সম্পাদনা যুদ্ধ নেই, ইত্যাদি:
    উত্তীর্ণ
  6. যথাযথ স্থানে বর্ণনাসহ চিত্র ব্যবহৃত হয়েছে।
    ক) (সকল মুক্ত ছবি আছে কিনা বা কোনো সৌজন্যমূলক ছবি থাকলে তা ঠিক বর্ননা করা আছে কিনা):
    খ) (ছবিতে ছবির উপযোগী বর্ণনা আছে কিনা):
    উত্তীর্ণ
  1. সিদ্ধান্ত:
    উত্তীর্ণ/অনুত্তীর্ণ:

প্রধান পাতার জন্য সূচনাংশ[সম্পাদনা]

আরবিতে লিখিত মুহাম্মাদ (সঃ)-এর নাম

মুহাম্মাদ যিনি মুসলমানদের কাছে সম্মানসূচকার্থে মুহাম্মাদ (সা.) হিসেবে পরিচিত হলেন ইসলামের কেন্দ্রীয় ব্যক্তিত্ব এবং ইসলামী বিশ্বাস মতে আল্লাহ কর্তৃক প্রেরিত সর্বশেষ নবী, যার উপর ইসলামী প্রধান ধর্মগ্রন্থ আল-কুরআন অবতীর্ণ হয়েছে। অমুসলিমদের মতে তিনি ইসলামী জীবন ব্যবস্থার প্রবর্তক। অধিকাংশ ইতিহাসবেত্তা ও বিশেষজ্ঞদের মতে, মুহাম্মাদ ছিলেন পৃথিবীর ইতিহাসে অন্যতম প্রভাবশালী রাজনৈতিক, সামাজিক ও ধর্মীয় নেতা। তার এই বিশেষত্বের অন্যতম কারণ হচ্ছে আধ্যাত্মিক ও জাগতিক উভয় জগতেই চূড়ান্ত সফলতা অর্জন। তিনি ধর্মীয় জীবনে যেমন সফল তেমনই রাজনৈতিক জীবনেও। সমগ্র আরব বিশ্বের জাগরণের পথিকৃৎ হিসেবে তিনি অগ্রগণ্য; বিবাদমান আরব জনতাকে একীভূতকরণ তার জীবনের অন্যতম সফলতা। মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত মুহাম্মাদের নিকট আসা ওহীসমূহ কুরআনের আয়াত হিসেবে রয়ে যায় এবং মুসলমানরা এই আয়াতসমূহকে ‘আল্লাহর বাণী’ বলে বিবেচনা করেন। এই কুরআনের উপর ইসলাম ধর্মের মূল নিহিত। কুরআনের পাশাপাশি হাদিস ও সিরাত (জীবনী) থেকে প্রাপ্ত হযরত মুহাম্মাদের শিক্ষা ও অনুশীলন (সুন্নাহ) ইসলামী আইন (শরিয়াহ) হিসেবে ব্যবহৃত হয়। (বাকি অংশ পড়ুন...)