আলাপ:বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

বাংলাদেশে পুরকৌশল নিয়ে পড়াশোনাঃ[সম্পাদনা]

বাংলাদেশে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বা পুরকৌশল নিয়ে পড়াশোনা খুবই কমন একটা বিষয়। অনেকেই জানতে চান বুয়েট ছাড়া অন্যান্য যে প্রতিষ্ঠান গুলো রয়েছে এর জন্য এর মধ্যে ভালো কোন গুলো। আমরা চেষ্টা করেছি একটা কমপ্লিট সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ইউনিভার্সিটি লিস্ট তৈরি করতে বাংলাদেশের মধ্যে, যা ভবিষ্যৎ ইঞ্জিনিয়ারিং স্টুডেন্টদের অনেক হেল্প করবে।

SoforAli (আলাপ) ১৪:৫৯, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ (ইউটিসি)

@SoforAli: শুধু চাররির জন্যই কি বিশ্ববিদ্যালয় পড়া আমাদের উদ্দেশ্য, উচ্চ শিক্ষিত হয়েই বা কি যদি দুইটা বাংলা বাক্য বাংলায় লেখা না যায়, আপনার লেখা বাক্যে ৬টা শব্দই বাংলিশ লিখা --আফতাবুজ্জামান (আলাপ) ১৬:০৭, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ (ইউটিসি)

আলাপ ভাই, এখানে বাংলা কিংবা ইংলিশ নিয়ে তো আর কথা হচ্ছে না। ইংরেজি শুধু একটা ভাষা, এটাকে ভাষা হিসেবেই দেখি।

SoforAli (আলাপ) ০২:৫৪, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ (ইউটিসি)

কৃতি/উল্লেখযোগ্য ছাত্র/শিক্ষক[সম্পাদনা]

এই ধরনের অনুচ্ছেদের কি আসলেই কোনো প্রয়োজন আছে? বুয়েটের অসংখ্য কৃতি ছাত্র-শিক্ষক রয়েছে। তাদের সবার নাম অন্তর্ভুক্ত করাও সম্ভব না। যে কয়জেনের নাম নিবন্ধে আছে তাদের সবার নামেও আবার স্বতন্ত্র নিবন্ধ নেই। উল্লেখযোগ্য শিক্ষার্থী নামে একটি অনুচ্ছেদ যুক্ত করা যেতে পারে। যেখানে গবেষণা কর্ম ও অন্যান্য কারণে ব্যপকভাবে আলোচিত দুয়েকজনের নাম থাকতে পারে। কৃতি শব্দটিও গ্রহণযোগ্য নয়। —ইয়াহিয়াবলুন... ১৭:৫১, ১ মার্চ ২০২০ (ইউটিসি)

@YahyA: বিষয়টি নিয়ে আমিও আলোচনা শুরু করতে চাইছিলাম। নিবন্ধ ছাড়া শুধুমাত্র ২/১টা তথ্যসূত্র দিয়ে যদি কৃতি শিক্ষার্থী/শিক্ষক অনুচ্ছেদে নাম যোগ করতে চাই তাহলে বোধয় ওসব নাম দিয়েই বিশাল একটা তালিকা হয়ে যাবে। তাই আমার মতামত হচ্ছে উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্বের নাম যোগের ক্ষেত্রে যেমন নিবন্ধ ছাড়া ব্যক্তির নাম অপসারণ করা হয়, ঠিক তেমনি উল্লেখযোগ্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থী অনুচ্ছেদেও এমনটা করলে ভালো হবে। — আল রিয়াজ উদ্দীন (আলাপ) ১৮:০২, ১ মার্চ ২০২০ (ইউটিসি)