আলাপ:ঢাকেশ্বরী মন্দির

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ছবি[সম্পাদনা]

গতমাসে বেলায়েত ও রাজিবুলের সাথে মিলে ঢাকেশ্বরী মন্দিরের যে ছবি তুলেছিলাম, তা এখানে যোগ করে দিয়েছি। ছবিগুলোর বিন্যাস ও উপস্থাপনা দৃষ্টিনন্দন ভাবে কেউ করে দিলে খুব ভালো হয়। আমি মন্দির সম্পর্কে তথ্যাবলী আস্তে আস্তে যোগ করবো। --রাগিব (আলাপ | অবদান) ২২:০৯, ২০ জানুয়ারি ২০০৭ (UTC)

নাম পরিবর্তনের প্রস্তাব[সম্পাদনা]

কলকাতাতেও একটি ঢাকেশ্বরী মন্দির রয়েছে। এখানে দেখুন। এই নিবন্ধের নাম তাই ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির নামে স্থানান্তরিত করার প্রস্তাব রাখছি। --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ২১:১২, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)

তা আছে বটে, কিন্তু আপনার লিংক দেয়া পাতা দেখেই বোঝা যাচ্ছে, মূল ঢাকেশ্বরী মন্দিরের বিগ্রহটি নিয়ে এসে কলকাতার এই মন্দির প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। উল্লেখযোগ্যতার দিক থেকে মূল ঢাকেশ্বরী মন্দিরের ধারে কাছেও এটি নয়। তাই মূল মন্দিরকে বর্তমান শিরোনামেই রেখে কলকাতার ঢাকেশ্বরী মন্দিরের উপরে নিবন্ধকে ঢাকেশ্বরী মন্দির (কলকাতা) শিরোনামে সরানো যেতে পারে। আর দ্ব্যর্থতা নিরসনের জন্য ঢাকেশ্বরী মন্দির (দ্ব্যর্থতা নিরসন) পাতা খোলা যায়। --রাগিব (আলাপ | অবদান) ২৩:৩৬, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
ঠিকই বলেছেন। শুধু ঢাকার ঢাকেশ্বরী কেন, কলকাতার বড়ো মন্দিরগুলোর তুলনাতেও কিছুই নয়। কলকাতার মন্দির সম্পর্কে ঢাকেশ্বরী মন্দির (কলকাতা) নামেই নিবন্ধ তৈরি করব। আমার ধারণা ছিল, ঢাকার ঢাকেশ্বরী মন্দিরের পোষাকি নাম ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির। তাই ওই নামটি প্রস্তাব করেছিলাম। --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ০৩:৫৮, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
অবশ্য অধিকতর পরিচিত নাম কোনটি সেটা আমি জানি না। "ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির" কথাটা আমি জেনেছি উইকিপিডিয়ার সৌজন্যে। সাধারণত, আমরা পশ্চিমবঙ্গবাসীরা মন্দিরটিকে "ঢাকেশ্বরী মন্দির" নামেই চিনি। মন্দিরের পোষাকি নাম সবসময় লোকপ্রচলিত নাম হয় না। দক্ষিণেশ্বর কালীবাড়ির পোষাকি নাম "ভবতারিণী মন্দির"। কিন্তু ওই নাম বললে অনেকেই মন্দিরটিকে চিনবেন না। তাই প্রচলিত নামটি ব্যবহার করাই উচিত। যেটি ঢাকেশ্বরীর প্রচলিত নাম সেটিই ব্যবহার করা হোক। --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ০৪:১১, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
ধন্যবাদ। ঢাকেশ্বরী মন্দিরটিকে জাতীয় মন্দির হিসাবে ঘোষণা সম্ভবত দেয়া হয়েছে, যদিও আমি সেটার রেফারেন্স দিতে পারছিনা। বায়তুল মুকাররম বাংলাদেশের জাতীয় মসজিদ (তবে সেটাকে সবাই বায়তুল মুকাররমই বলে, জাতীয় অংশটি কেবল বিশেষণ হিসাবে ব্যবহৃত),ওরকম ভাবে হয়তো ঘোষণা দেয়া আছে। ২০০৬ এর ডিসেম্বরে আমি আর বেলায়েত ঐখানে ছবি তুলতে গেছিলাম, সেখানে সম্ভবত "ঢাকেশ্বরী মন্দির" লেখা সাইনবোর্ড দেখেছিলাম, তবে মনে নেই বিস্তারিত। পুরানো অ্যালবাম ঘেঁটে দেখতে হবে। যাই হোক, এটা পাবলিকের কাছে ঢাকেশ্বরী মন্দির নামেই পরিচিত।
অফ টপিক - ঢাকেশ্বরী মন্দিরের মূল বিগ্রহটি কলকাতায় ১৯৪৭/৮ সালের দিকে নেয়া হয়, এই তথ্যটা নতুন ও বেশ ইন্টারেস্টিং। এই তথ্যটা বাংলা/ইংরেজি উইকিতে ঢাকেশ্বরী নিবন্ধে যোগ করা যেতে পারে। আমি যে বিগ্রহের ছবি তুলেছিলাম, সেটা বেশ নতুন ... বিশ বছরও সম্ভবত হয়নি। ১৯৯২ সালে বাবরী মসজিদ সংক্রান্ত দাঙ্গায় ঢাকেশ্বরী মন্দিরে আক্রমণ হয়েছিলো, এটা হয়তো তার পরে নতুন করে যোগ করা হয়েছে। এই বিগ্রহের ইতিহাসগুলা নিবন্ধে যোগ করা যেতে পারে। --রাগিব (আলাপ | অবদান) ০৪:৫২, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
তবে "ঢাকেশ্বরী মন্দির"-ই থাক, "ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির"-কে রিডায়ারেক্ট করে দিলেই হবে। ইংরেজি নিবন্ধে ঢাকেশ্বরীর উপর কিছু লেখা আছে। কিন্তু তথ্যসূত্র নেই। সেখানে বলছে পাকিস্তানি বাহিনী ঢাকেশ্বরীর আদি বিগ্রহটি ধ্বংস করেছিল। সেটাও সম্ভবত ভুল। কারণ উক্ত বিগ্রহটি ১৯৪৭-৪৮ নাগাদ কলকাতায় নিয়ে আসা হয়; ১৯৭১ সালে সেই বিগ্রহ পাক বাহিনীর নাগালের বাইরে ছিল। তাছাড়া, মন্দির সংক্রান্ত যে সব গল্প ইতিহাস বলে প্রচলিত, সেগুলির সত্যতা নিয়েও আমার মনে প্রশ্ন আছে। তথ্যসূত্র ছাড়া কিছু লেখা ঠিক হবে না। --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ০৬:৫৮, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)