আলাপ:অ্যালেস্টার ক্রোলি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

এলিস্টার ক্রাউলি পুরো নাম এডওয়ার্ড আলেকজান্ডার ক্রাউলি (১২ অক্টোবর ১৮৭৫- ১ ডিসেম্বর ১৯৪৭) একজন ইংরেজী গুপ্তধর্মী, আনুষ্ঠানিক যাদুকর, কবি, চিত্রশিল্পী, উপন্যাসী, এবং পর্বতারোহী ছিলেন। তিনি থেল্মা ধর্ম প্রতিষ্ঠা করেছিলেন, ২0 শতকের প্রথম দিকে Æon of Horus বইটি দ্বারা মানবতার পথ প্রদর্শনের মাধ্যমে নিজেকে নবী হিসাবে চিহ্নিত করেছিলেন। একজন প্রফুল্ল লেখক, যে জীবনের আবশ্যকতা বই এর মাধ্যমে ব্যাপকভাবে প্রকাশ করেছেন।

ওয়ারউইকশায়ারের রয়েল লিমিংটন স্পা-র একটি ধনী পরিবারে জন্মগ্রহণকারী ক্রাউলি তার পিতামাতার মৌলবাদী খৃস্টান প্লেমাউথ ব্রাদারহুডের বিশ্বাসকে পশ্চিমা গোষ্ঠীগত স্বার্থে আগ্রহী হওয়ার জন্য প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। তিনি ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রিনিটি কলেজে পড়াশোনা করেন, যেখানে তিনি পর্বতারোহণ ও কবিতার উপর তার দৃষ্টিভঙ্গিকে গুরুত্ব দেন। কিছু জীববিজ্ঞানী অভিযোগ করেছেন যে এখানে তিনি ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থায় নিয়োগ পেয়েছিলেন,তারা আরও বলতেন যে তিনি সারাজীবন গুপ্তচর ছিলেন।১৮৮৯ সালে তিনি গোল্ডেন ডন-এর রহস্যময় হার্মিটিক অর্ডারে যোগ দেন, যেখানে তিনি স্যামুয়েল লিডেল ম্যাকগ্রেগর ম্যাথারস এবং অ্যালান বেনেটের কাছে আনুষ্ঠানিক জাদু প্রশিক্ষণ লাভ করেন। তিনি ভারতে হিন্দু ও বৌদ্ধ ধর্ম অধ্যয়ন করার আগে অস্কার একেনস্টাইনের সাথে মেক্সিকোতে পর্বতারোহণ করেন। তিনি রোজ এডিথ কেলিকে বিয়ে করেন এবং ১৯০৪ সালে মিশরের কায়রোতে মধুচন্দ্রিমায় যান সেখানে ক্রাউলি দাবি করেছিলেন যে আইভাস নামক একটি অতিপ্রাকৃত সত্তা তাকে যোগাযোগ করেছেন, যিনি তাঁকে দ্য বুক অফ দ্য ল দিয়েছিলেন, যা থেল্মার ভিত্তি হিসাবে ব্যবহৃত একটি পবিত্র পাঠ্য।Æon of Horus এর শুরুতেবইটি ঘোষণা করেছে যে তার অনুগামীদের "যা ইচ্ছা তা করতে হবে" এবং ম্যাগিকের অভ্যাসের মাধ্যমে তাদের সত্যিকারের ইচ্ছার সাথে নিজেদেরকে সংলগ্ন করে তুলতে হবে। কাঞ্চনজঙ্গা আরোহণের ব্যার্থ প্রচেষ্টা এবং তারপর ভারত ও চীন সফর করে ক্রাউলি ব্রিটেনে ফিরে এসেছিলেন, যেখানে তিনি কবিতা, উপন্যাস, এবং গোপন সাহিত্য লেখক হিসাবে মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছিলেন। ১৯০৭ সালে, তিনি এবং জর্জ সিসিল জোন্স একটি রহস্যময় আদেশ এর কথা ছড়ায়, যার মাধ্যমে তারা থেল্মা প্রচার করেছিল। আলজেরিয়ায় একটা লম্বা সময় থাকার পর ১৯২১ সালে তিনি জার্মান ভিত্তিক অর্ডো টেম্পলি ওরিয়েন্টিস (ওটিও) নামে আরেকটি গোপনীয় আদেশের সূত্রপাত করেন,যা তিনি তারলেমীয় বিশ্বাস অনুসারে সংস্কার করেছিলেন এবং যা তার ব্রিটিশ শাখার নেতা হয়ে উঠা নিশ্চিত করল। O.T.O এর মাধ্যমে ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া এবং উত্তর আমেরিকায় থ্লেমাইট গ্রুপ প্রতিষ্ঠিত হয়। ক্রোলে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময়টা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কাটিয়েছিলেন, যেখানে তিনি ছবি আঁকাকে কর্ম রূপে নেন এবং ব্রিটেনের বিরুদ্ধে জার্মান যুদ্ধের প্রচেষ্টা করেছিলেন, পরে অবশ্য তিনি প্রকাশ করেছিলেন যে তিনি ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থার সহায়তার জন্য জার্মান-বিরোধী আন্দোলনে অনুপ্রবেশ করেছিলেন। ১৯২০ সালে তিনি থেলমা নামে একটি ধর্মীয় কমিউন প্রতিষ্ঠা করেন, সিফালু, সিসিলি তে তিনি বিভিন্ন অনুসারীদের সাথে বসবাস করেছিলেন। তাঁর স্বাধীন জীবনধারা নিয়ে ব্রিটিশ প্রেসে নিন্দা করা হয় এবং ১৯২৩ সালে ইতালীয় সরকার তাঁকে নির্বাসন দেয়। তিনি ফ্রান্স, জার্মানি এবং ইংল্যান্ডের মধ্যে পরবর্তী দুই দশক ধরে ঘুরেন এবং মৃত্যুর আগ পর্যন্ত থেলমা প্রচারে অব্যাহত থাকেন।

তার জীবনকাল সময়ে সে ব্যাপক কুখ্যাতি অর্জন, একটি বিনোদনমূলক ড্রাগ পরীক্ষক, উভকামী এবং সমাজ সমালোচক একটি ব্যক্তিত্ব হিসেবে। তিনি জনপ্রিয় সংবাদ মাধ্যমে "বিশ্বের সবচেয়ে দুষ্ট ব্যক্তি" এবং একটি শয়তানবাদী হিসাবে নিন্দিত হন। ক্রাউলি পশ্চিমা গোষ্ঠীবাদ এবং পাল্টা সংস্কৃতির উপর অত্যন্ত প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন, এবং থেলমাতে একজন নবীর বিবেচনায় রয়েছেন। বিভিন্ন আত্মজীবনী মূলক গবেষণা এবং একাডেমিক গবেষণার বিষয় হিসেবে তিনি পরিচিতি পান।

প্রথম জীবন

যৌবন (১৮৭৫-১৮৯৪)

১৮৭৫ সালের ১২ অক্টোবর ওয়ারউইকশায়ারের রয়েল লিমিংটন স্পাতে 30 ক্ল্যারেনডন স্কয়ারে এডওয়ার্ড আলেকজান্ডার ক্রাউলে জন্মগ্রহণ করেন।তাঁর পিতা, এডওয়ার্ড ক্রাউলি (১৮২৯-১৮৮৭), প্রকৌশলী হিসেবে প্রশিক্ষণ লাভ করেছিলেন, কিন্তু ক্রাউলি এর অ্যালটন অ্যালেসের একটি লাভজনক পারিবারিক প্রক্রিয়াকরণ ব্যবসায়ে তার ভাগের কারনে তার পুত্রের জন্মের আগে তিনি অবসর গ্রহণ করেন।তাঁর মা, এমিলি বার্থা বিশপ (১৮৪৮-১৯১৭), ডেভনশায়ার-সোমারসেট পরিবার থেকে এসেছিলেন । তার ছেলের সাথে তার এক বিরক্তিকর সম্পর্ক ছিল; তিনি তাকে "বীস্ট" হিসাবে বর্ণনা করেছিলেন, এটি এমন একটি নাম যা তিনি প্রকাশ করেছিলেন তার সম্পর্কে বলতে গিয়ে। এই দম্পতি ১৮৭৪ সালের নভেম্বরে লন্ডনের কেনসিংটন রেজিস্ট্রি অফিসে বিয়ে করেছিলেন এবং সুসমাচার প্রচারক খ্রিস্টান ছিলেন। ক্রাউলি এর বাবা কুএকার এ জন্মগ্রহণ করেন, কিন্তু এমিলি বিয়েতে তার সাথে যোগদান করার সাথে সাথে প্লেমাউথ ব্রাদারহুড নামে পরিচিত খ্রিস্টান মৌলবাদী গোষ্ঠীর একটি গোষ্ঠী এক্সক্লুসিভ ব্রাদারহুডে তিনি রূপান্তরিত হয়েছিলেন। ক্রাউলি এর বাবা বিশেষত ধার্মিক ছিলেন, তিনি ধর্মের প্রচারক হিসাবে সময় কাটিয়েছিলেন এবং সকালের নাস্তা পরে বাইবেল থেকে তার স্ত্রী ও ছেলেকে বাইবেল থেকে একটি অধ্যায় পড়তেন।১৮৮০সালে তাদের বাচ্চা মেয়ের মৃত্যুর পর, ১৮৮১ সালে ক্রাউলিস রেডহিলে চলে যান।৮ বছর বয়সে ক্রাউলিকে এইচটি তে পাঠানো হয়েছিল। হেস্টিংসের হবারশনের ইভাঞ্জেলিক্যাল খ্রিস্টান বোর্ডিং স্কুল, এবং তারপরে ক্যামব্রিজের ইবোর প্রস্তুতিমূলক স্কুল যা রেভারেন্ড হেনরি ডি আর্সি চ্যাম্পনে পরিচালিত, যাকে ক্রোলে একটি দুঃখবাদী হিসেবে বিবেচনা করেন।

১৮৮৭ সালের মার্চ মাসে ১১ বছর বয়সে তাঁর বাবার জিহ্বা ক্যান্সারে মারা যান। ক্রাউলি তার জীবনের সন্ধিক্ষণ হিসাবে এটিকে বর্ণনা করেছেন,এবং তিনি সর্বদা তাঁর বাবার প্রতি শ্রদ্ধা বজায় রেখেছিলেন, তিনি তাকে "আমার নায়ক এবং আমার বন্ধু" হিসাবে আখ্যায়িত করেছিলেন। তার পিতার সম্পদের এক তৃতীয়াংশ পেয়ে, তিনি স্কুলে বাজে ব্যাবহার শুরু করেন এবং চ্যাম্পনে দ্বারা কঠোরভাবে শাস্তিপ্রাপ্ত হয়; অ্যালবামিনুরিয়ায় আক্রান্ত হওয়ায় এসময় ক্রাউলের পরিবার তাকে স্কুল থেকে সরিয়ে নিয়েছিল।এরপর তিনি মালভেন কলেজ এবং টনব্রিজ স্কুলে পড়াশোনা করেন, উভয় জায়গাতেই তিনি পড়াশুনা অসমাপ্ত রেখে চলে যান। তিনি ধর্মীয় শিক্ষকদের কাছে বাইবেলে অসঙ্গতি তুলে ধরে খ্রিস্টধর্মের বিষয়ে ক্রমবর্ধমানভাবে সন্দিহান হয়ে উঠেছিলেন এবং ধূমপান, হস্তমৈথুন, এবং গনোরিয়া সংক্রামিত যৌনকর্মীদের সাথে যৌন সম্পর্কের মাধ্যমে তার খ্রিস্টান নৈতিকতার বিরুদ্ধে গিয়েছিলেন। ইস্টবোর্নে ব্রাদারহুডের শিক্ষকের সাথে থাকার জন্য তাকে ইস্টবোর্ন কলেজে রসায়ন পড়তে পাঠানো হয়। ক্রাউলে দাবা, কবিতা এবং পর্বত আরোহণে আগ্রহী ছিলেন এবং ১৮৯৪ সালে আল্পস পরিদর্শন এবং স্কটিশ মাউন্টেনারিং ক্লাবে যোগদান করার আগে বিচী হেড পর্বতারোহন করেন। পরের বছর তিনি ইনিগার, ট্রিফ্ট, জুংফ্রু, মঞ্চ এবং ওয়েটার্টারহনের উপরে আরোহণ করে বার্নিস আল্পসে ফিরে আসেন।

ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটি: ১৮৯৫-১৮৯৮

১৮৯৫সালের অক্টোবর মাসে ক্রাউলি ক্যামব্রিজের ট্রিনিটি কলেজে তিন বছরের কোর্স শুরু করেন, যেখানে তিনি নৈতিক বিজ্ঞান ট্রিপোস দর্শনশাস্ত্র অধ্যয়ন করেন।তিনি তার ব্যক্তিগত শিক্ষকের কাছ থেকে অনুমোদন নিয়ে, তিনি ইংরেজি সাহিত্যেও পড়েন, যা তখন তার পাঠ্যক্রমের অংশ ছিল না। ক্রাউলি বিশ্ববিদ্যালয়ে তার বেশিরভাগ সময় কাটায় চিত্তাকর্ষক অনুষ্ঠানে জড়িত থেকে,তিনি দাবা ক্লাবের সভাপতি হন এবং প্রতিদিন দুই ঘণ্টা খেলা অনুশীলন করতেন। তিনি সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য দাবা খেলোয়াড় হিসাবে পেশাদার হিসেবে বিবেচিত হয়েছিলেন।ক্রাউলি সাহিত্য এবং কবিতা, বিশেষ করে রিচার্ড ফ্রান্সিস বার্টন এবং পার্সি বিস শেল্লির রচনাগুলিকে খুবই ভালোবাসতেন ।তাঁর নিজস্ব কবিতাগুলি গ্রান্ট, ক্যামব্রিজ ম্যাগাজিন এবং কান্তাবের মতো ছাত্র প্রকাশনাগুলিতে উপস্থিত হয়েছিল।এদিকে তিনি তার পর্বতারোহণও অব্যাহত রাখেন, ১৮৯৪ থেকে ১৮৯৮ সাল পর্যন্ত প্রতি বছর পর্বত আরোহন করতে আল্পসে ছুটি কাটাতে যেতেন এবং তা ছিল প্রায়শই তার বন্ধু অস্কার ইকেনস্টাইনের সাথে।১৮৯৭ সালে তিনি কোন গাইড ছাড়াই মঞ্ছ পর্বতে প্রথম আরোহন করেন।পরবর্তীতে তার এই কৃতিত্বগুলি অ্যালপাইন পর্বতারোহণ সম্প্রদায়ের দ্বারা স্বীকৃতি লাভ করে। ১৮৯৬ সালের ডিসেম্বরে স্টকহোমের ছুটির দিনে ক্রাউলি তার প্রথম উল্লেখযোগ্য রহস্যময় অভিজ্ঞতা লাভ করেছিলেন। লরেন্স সুটিন, রিচার্ড ক্যাসিনস্কি এবং টোবিয়া চুর্টন সহ বেশ কয়েকজন জীববিজ্ঞানী বিশ্বাস করেন যে ক্রাউলি প্রথমবার সমকামিতার অভিজ্ঞতার ফলস্বরূপ, যা তাকে তার দ্বি-যৌনতা চিনতে সক্ষম করে। ক্যামব্রিজে, ক্রাউলি নারীদের সাথে তার যৌন জীবন বজায় রেখেছিল যার বেশিরভাগ মহিলা পতিতাদের নিয়ে ছিল, যাদের মধ্যে একজনের থেকে সে সিফিলিস আক্রান্ত হয়-কিন্তু অবৈধ হওয়া সত্ত্বেও যৌন কার্যকলাপে অংশ নেয়া সে বন্ধ করেনা। ১৮৯৭ সালের অক্টোবরে ক্রাউলির সাথে ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির ফুটবলস্ ড্রামাটিক ক্লাবের সভাপতি হার্বার্ট চার্লস পোলিটের দেখা হয় এবং তারা উভয়ই একটি সম্পর্কের মধ্যে প্রবেশ করেন।পরে তারা আলাদা হয়ে গিয়েছিল কারণ পোলিট,পাশ্চাত্যের গোপনীয়তাবাদ নিয়ে ক্রাউলি এর ক্রমবর্ধমান মতবাদে বিশ্বাসী ছিলনা, ক্রোলে অনেক বছর ধরে এটি নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছিলেন।

১৮৯৭ সালে, ক্রাউলি রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে ভ্রমণ করেন, পরে দাবি করেন যে তিনি রাশিয়ান ভাষা শেখার চেষ্টা করছেন, কারণ তিনি সেখানে ভবিষ্যতের কূটনৈতিক কর্মজীবনের কথা বিবেচনা করছেন।জীবনী লেখক রিচার্ড স্পেন্স এবং টোবিয়া চুর্টন মতামত দেন যে ক্রাউলি ব্রিটিশ কূটনীতিকের চাকরির অধীনে গোয়েন্দা এজেন্ট হিসাবে কাজ করেছিলেন, ধারণা করেছিলেন যে তিনি ক্যামব্রিজের সময় থেকেই তাদের তালিকাভুক্ত ছিলেন।

১৮৮২ সালের মার্চ মাসে তিনি এ.এ. ওয়েয়েটের দ্য বুক অফ ব্ল্যাক ম্যাজিক অ্যান্ড প্যাক্টস (১৮৯৮), এবং তারপরে কার্ল ভন ইকার্টসহাউসের দ্য ক্লাউড উপন দ্য সানক্যুয়ারি (১৮৯৬) অর্জন করেন, যা তার গোপনীয় স্বার্থকে আরও বাড়িয়ে তোলে।১৮৯৮ সালে ক্রাউলি ব্যক্তিগতভাবে তার কবিতার ১০০ টি কপি প্রকাশ করেছিলেন-"আলেডামামা: এ প্লেস টু বুরি অ্যারিজেন ইন", কিন্তু এটি একটি বিশেষ সাফল্যজনক ছিল না। একই বছরে তিনি হোয়াইট স্টেইন সহ আরও কয়েকটি কবিতা প্রকাশ করেছিলেন, যা বিদেশে ছাপানো ছদ্মবেশী কবিতার এককালীন সংগ্রহ এবং ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষের দ্বারা প্রকাশ করা নিষিদ্ধ ছিল। ১৮৯৮ সালের জুলাই মাসে তিনি ক্যামব্রিজ ত্যাগ করেন,১৮৯৭ সালের পরীক্ষায় দেখানো "প্রথম শ্রেণীর"এবং তারপর ধারাবাহিকভাবে "দ্বিতীয় বর্গ সম্মাননা"পাওয়া সত্ত্বেও তিনি কোনও ডিগ্রী নেননি।

গোল্ডেন ডন (১৮৯৮-১৮৯৯)

১৮২২ সালের আগস্টে, ক্রাউলি সুইজারল্যান্ডের জেরম্যাটে ছিলেন, যেখানে তার আলাপ হয় রসায়নবিদ জুলিয়ান এল বেকারের সাথে এবং উভয়ই ্সাধারন আগ্রহের বিষয় আলকেমি নিয়ে আলোচনা শুরু করেন। তখন লন্ডনে, বেকার ক্র্যাউলিকে বেকারের জ্যেষ্ঠ শ্যালক জর্জ সিসিল জোন্স এর সাথে পরিচয় করায় যে ১৮৮৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হর্মেটিক অর্ডার অফ দ্য গোল্ডেন ডন নামে পরিচিত গোপনীয় সমাজের সহকর্মী ছিলেন ।

১৮নভেম্বর১৮৮৯ এ গ্রুপের নেতা স্যামুয়েল লিডেল ম্যাকগ্রেগর ম্যাথারের দ্বারা ক্রাউলি গোল্ডেন ডন এর সদস্য হয়। অনুষ্ঠানটি লন্ডনের মার্ক মেসস হল এ গোল্ডেন ডন এর ইসিস-উরানিয়া মন্দিরের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়েছিল, যেখানে ক্রাউলি তাদের জাদু নীতি এবং "ফ্রেটার পেরদুরাবো" নামটি গ্রহণ করেছিলেন, যার অর্থ তিনি "শেষ পর্যন্ত সহ্য করবেন"।জীবনী লেখক রিচার্ড স্পেন্স এবং টোবিয়া চুর্টন পরামর্শ দিয়েছেন যে ক্রাউলি ব্রিটিশদের গোপন পরিষেবাদির আওতায় ক্রমলিলে যোগ দেন, যা ক্যাথলিস্ট হিসাবে পরিচিত মাথার ক্রিয়াকলাপগুলির নিরীক্ষণের জন্য।

ক্রাউলি ৬৭-৬৯ চ্যান্সারী লেনে নিজের বিলাসবহুল ফ্ল্যাটে চলে যান এবং শীঘ্রই তার ব্যক্তিগত যাদুকর শিক্ষক হিসাবে তার সাথে বসবাস করার জন্য একজন সিনিয়র গোল্ডেন ডন সদস্য, অ্যালান বেনেটকে আমন্ত্রণ জানান। বেনেট ক্রাউলিকে আনুষ্ঠানিক জাদুবিদ্যা এবং ড্রাগ এর ব্যবহার সম্পর্কে আরও শিখিয়েছিলেন, এবং একসঙ্গে তারা গয়েটিয়ার অনুষ্ঠানগুলি সম্পাদন করেছিলেন,পরে বেনেট বৌদ্ধধর্মের অধ্যয়নের জন্য দক্ষিণ এশিয়ায় চলে যান।১৮৯৯সালের নভেম্বরে, ক্রাউলে স্কটল্যান্ডের লেক নেসের তীরে ফয়েয়ার্সের বোলেসকিন হাউস কিনেছিলেন। তিনি স্কটিশ সংস্কৃতিতে প্রেম গড়ে তোলেন, নিজেকে "বোলসকিনের লেয়ার্ড" বলে বর্ণনা করেন এবং লন্ডনে বেড়ানোর সময়ও ঐতিহ্যবাহী হাইল্যান্ডের পোষাক পরিধান করেন।তিনি কবিতা লেখা অব্যাহত রেখেছিলেন, ইজবেবেল এবং অন্যান্য ট্র্যাজিক কবিতা প্রকাশ করেছিলেন, আর্কাইসের গল্প, আত্মার গান, আমেরিকান প্রজাতন্ত্রের আপিল, এবং১৮৯৮-১৮৯৯সালে ইফতেহাহ; বেশিরভাগ সাহিত্য সমালোচকদের কাছ থেকে মিশ্র রিভিউ অর্জন করেছেন, যদিও ইফতেহাকে একটি বিশেষ সমালোচনামূলক সাফল্য বলে মনে করা হয়েছিল। ক্রাউলি খুব শীঘ্রই গোল্ডেন ডন এর নীচু শ্রেণীর মধ্য দিয়ে অগ্রসর হন এবং দলের অভ্যন্তরের দ্বিতীয় স্তরে প্রবেশ করতে প্রস্তুত হন। তিনি দলের অনানুষ্ঠানিক সদস্য হন; তার দ্বিমত ও স্বাধীনতা জীবনধারা তাকে কুখ্যাতি দিয়েছিল, এবং তিনি ডব্লিউ বি ইয়েটস সহ কয়েকজন সদস্যের সাথে বিদ্রোহ গড়ে তোলেন। গোল্ডেন ডন-এর লন্ডন লজ দ্বিতীয় স্তরে ক্রাউলিকে অস্বীকার করলে তিনি প্যারিসের ম্যাথারদের সাথে সাক্ষাত করেন, যিনি ব্যক্তিগতভাবে তাকে অ্যাডাপ্টাস মাইনর গ্রেডে ভর্তি করেছিলেন।ম্যাথার এবং গোল্ডেন ডন এর লন্ডনের সদস্যদের মধ্যে একটি দ্বন্দ্ব গড়ে উঠেছিল, যারা তাঁর স্বৈরাচারী শাসন থেকে অসন্তুষ্ট ছিলেন।ম্যাথার আদেশের অধীনে তার মালিকানার সহায়তায় ক্রাউলি - এবং সহকর্মী এলেন সিম্পসন - লন্ডনের লজ সদস্যদের কাছ থেকে ওয়েস্ট কেনসিংটনের ৩৬ ব্লিথ রোডে একটি মন্দিরের স্থান, অ্যাডপটসের ভল্টটি জব্দ করার চেষ্টা করেছিলেন। মামলাটি যখন আদালতে নেয়া হয় তখন বিচারক লন্ডনের লজ পক্ষে রায় দেন, ফলে ক্রোলে এবং ম্যাথার উভয় গ্রুপ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

মেক্সিকো, ভারত, প্যারিস, এবং বিয়ে (১৯০০-১৯০৩)

১৯০০ সালে, ক্রাউলি মেক্সিকো ভ্রমণ করেন, মেক্সিকো সিটিতে বসতি স্থাপন করেন এবং একজন স্থানীয় মহিলার সাথে সম্পর্ক শুরু করেন। তিনি জন ডিয়ের এননোচিয়ান সাথে কাজ করে এবং তার আনুষ্ঠানিক জাদু দিয়ে পরীক্ষা চালিয়ে যান সেখানে। পরে তিনি সেখানে ফ্রিমস্রোরিয়ায় অভিযান শুরু করার দাবি করেন এবং রিচার্ড ওয়াগনারের তানহাসসারের পাশাপাশি ওরাকলস (১৯০৫) নামে প্রকাশিত কবিতাগুলির একটি সিরিজের উপর ভিত্তি করে একটি নাটক রচনা করেন। ইকেনস্টাইন সেই বছর পরে তার সাথে যোগ দেন, এবং একসঙ্গে তারা বেশ কয়েকটি পর্বত আরোহণ করেন, যার মধ্যে রয়েছে ইজটাকসিহাটলাল, পপোকটপেটল এবং কোলিমা, যা পরবর্তীকালে আগ্নেয়গিরির অগ্নিকুণ্ডের কারণে পরিত্যক্ত হয়েছিল।স্পেন্স পরামর্শ দিয়েছেন যে ট্রিপের উদ্দেশ্য যাতে ব্রিটিশ গোয়েন্দা তথ্যের জন্য মেক্সিকোর তেলের সম্ভাবনাগুলি আবিষ্কার করতে পারে। মেক্সিকো ছাড়ার সময়, ক্রুইলি নিপন মারুতে হাওয়াইয়ের জন্য যাত্রা করার আগে সান ফ্রান্সিসকো যান। জাহাজে তার মেরি এলিস রজার্স নামে একটি বিবাহিত মহিলার সাথে একটি সংক্ষিপ্ত সম্পর্ক ছিল; তিনি তার সাথে প্রেমে পড়ে গিয়েছিলেন, তিনি রোম্যান্স সম্পর্কে কবিতাগুলির একটি ধারাবাহিক লিখেছেন যা এলিস: এ অ্যাডলারি (১৯০৩) হিসাবে প্রকাশিত। জাপান ও হংকংয়ে সংক্ষিপ্তভাবে থেমে ক্রাউলি সিলন পৌঁছেন, যেখানে তিনি এলভেন বেনেটের সাথে দেখা করেছিলেন, যিনি শাইভিজম অধ্যয়নরত ছিলেন। বেনেট থেরভাদ ঐতিহ্যতে বৌদ্ধ সন্ন্যাসী হয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, বেনেট ভ্রমণ করার আগে এই যুগল কান্ডিতে কিছু সময় কাটিয়েছিল।ক্রাউলে ভারত সফর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, নিজেকে রাজা যোগের হিন্দু অনুশীলনে নিয়োজিত করেছিলেন, যার থেকে তিনি ধ্যানের আধ্যাত্মিক রাষ্ট্র অর্জনের দাবি করেছিলেন। মাদুরার মিনাক্ষী মন্দির এ সময় তিনি বেশিরভাগ সময় কাটিয়েছিলেন। এই সময়ে তিনি রচনা করেছিলেন এবং কবিতাও রচনা করেছিলেন, যা দ্য সোয়ার্ড অফ গান (১৯০৪) হিসাবে প্রকাশিত হয়েছিল। তিনি ম্যালেরিয়া সংক্রামিত হন এবং কলকাতা ও রেঙ্গুনে এই রোগ থেকে পুনরুদ্ধার হন।১৯০২ সালে তিনি ইকেনস্টাইন এবং অন্যান্য বেশ কয়েকজন পর্বতারোহী গাই নোলস, এইচ.পফানল, ভি.ওয়েসলি, এবং জুলস জ্যাকোট-গুইলমর্ম কে সাথে নিয়ে কে-২ আরহনের চেষ্টা করেছিল, যা কখনোই চড়া হয়নি। যাত্রা পথে, ক্রাউলি ইনফ্লুয়েঞ্জা, ম্যালেরিয়া, এবং তুষার অন্ধত্বের সাথে নিপীড়িত হয়েছিল, এবং অন্যান্য অভিযান সদস্যও অসুস্থতার শিকার হন। তারা ফিরে যাওয়ার আগে ২০,০০০ ফুট (৬১০০মিটার) উচ্চতায় পৌঁছেছিল।

১৯০২ সালের নভেম্বরে প্যারিসে আসার পর তিনি বন্ধু এবং ভবিষ্যৎ শালা, চিত্রকর গেরাল্ড কেলির সাথে সামাজিকীকরণ করেন এবং তার মাধ্যমে প্যারিসের শিল্পকলা দৃশ্যের দৃঢ়তা অর্জন করেন। যদিও সেখানে, ক্রাউলি একটি ভাস্কর্য আগস্ট রডিনের কাজের উপর একটি কবিতা সিরিজ লিখেছেন। এই কবিতাগুলি পরে রডিন ইন রাইম (১৯০৭) হিসাবে প্রকাশিত হয়,এই সামাজিকতায় থাকা একজন ডব্লিউ.সোমারসেট মাহাম, যিনি ক্রোলি সাথে সামান্য সাক্ষাৎ করার পরে পরে তার উপন্যাস দ্য ম্যাজিশিয়ান,১৯০৮ সালে অলিভার হাদ্দোর চরিত্রের জন্য একটি মডেল হিসাবে ব্যবহার করেছিলেন।এপ্রিল ১৯০৩ সালে বোলসকিনে ফিরে আসার পর অগাস্ট ক্রাউলে জেরাল্ডের বোন রোজ এডিথ কেলিকে বিয়ে করেছিলেন।এই বিবাহ কেলির পরিবারকে অসন্তুষ্ট করেছিল এবং জেরাল্ডের সাথে তার বন্ধুত্বকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছিল।ক্রাউলি রোজের প্রতি ভালোবাসে এবং তার প্রেমে প্রমাণ করতে প্যারিস, কায়রো এবং তারপরে সিলনে হানিমুনে যায়। হানিমুনে থাকাকালীন, তিনি রোনা মুন্ডি এবং অন্যান্য প্রেমের গান (১৯০৬) হিসাবে প্রকাশিত প্রেম কবিতাগুলির একটি ধারাবাহিকতায় লিখেছিলেন, সেইসাথে যিশু ওয়েপ্ট (১৯০৪) নামে ধর্মীয় বিদ্রুপের লেখক হিসাবে লেখেন।

পরবর্তী জীবন


তিউনিশিয়া, প্যারিস, এবং লন্ডন (১৯২৩-১৯২৯)


ক্রাউলে এবং হিরসিগ, তিউনিস গিয়েছিলেন যেখানে, খারাপ স্বাস্থ্যের কারনে ইচ্ছার বিরুদ্ধে তিনি আবারো হেরোইন ছেড়ে দিতে ব্যর্থ হয়েছিলেন এবং তিনি তার "আত্মহত্যা", দ্য কনফেশনস অফ অ্যালিস্টার ক্রাউলে লিখতে শুরু করেছিলেন।তারা তিউলেমিতে থলেমাইট নর্মান মুডের সাথে যোগ দেন, যিনি ক্রাউলি এর জনসংযোগ পরামর্শদাতা হয়ে ওঠে।স্থানীয় চাকরির দায়িত্বে নিয়োজিত মোহাম্মদ বিন ইব্রাহিম তার চাকর হিসাবে ক্রাউলির সাথে নেফাতে ফিরে যান, যেখানে তারা একসঙ্গে যৌন জাদু প্রদর্শন করেছিল১৯২৪ সালের জানুয়ারিতে, ক্রাউলি ফ্রান্সের নাইস ভ্রমণ করেন, যেখানে তিনি ফ্রাঙ্ক হ্যারিসের সাথে দেখা করেন, ম্যান অফ হরমোনিয়াস ডেভেলপমেন্ট অফ ইনস্টিটিউট পরিদর্শন করেন এবং তার প্রতিষ্ঠাতা জর্জ গার্ডজিফের সম্পর্কে ইতিবাচক মতামত প্রকাশ করেন। তিনি একজন ধনী ছাত্র, আলেকজান্ডার জু জোলারকে নিয়ে যান, অন্য আমেরিকান অনুসারী ডরোথি ওলসেনকে গ্রহণ করার আগে। ক্রাউলে ওলসেনকে নেফতায় একটি জাদুকরী পশ্চাদপসরণের জন্য তিউনিশিয়ার দিকে নিয়ে যান, যেখানে তিনি লিখেছেন টো ম্যান (১৯২৪), যিনি থেম্মাকে মানবতার কাছে আনতে একজন নবী হিসাবে নিজের অবস্থান ঘোষণা করেছিলেন।প্যারিসে শীতকালীন অবকাশ ব্যয় করার পর, ১৯২৫ এর প্রথম দিকে ক্রাউলি ও ওলসন তিউনিশ ফিরে এসেছিলেন, যেখানে তিনি একটি হৃদয়বিদারীর অভিজ্ঞতা হিসেবে একটি দ্য হার্ট অফ দ্য মাস্টার (১৯৩৮) লিখেছিলেন।মার্চ মাসে ওলসেন গর্ভবতী হয়ে গেলেন, এবং হরিসকে তার যত্ন নেওয়ার জন্য ডেকে আনা হয়েছিল; তিনি গর্ভপাত করেন, ক্রললি ফ্রান্সে ফিরে এসে ওলসেনকে ফিরিয়ে নিয়ে যান। পরে হিরশ নিজেকে ক্রাউলে থেকে দূরে সরিয়ে নিয়েছিলেন, যিনি তখন তার নিন্দা করেছিলেন।

ক্রাউলির মতে, রেস তাকে ওটিওর প্রধানের নাম দেন। তার মৃত্যুতে, কিন্তু জার্মান ওটিওর নেতা হেনরিচ ট্রানকারের দ্বারা এটি চ্যালেঞ্জ করা হয়। Tränker জার্মানি, Thuringia মধ্যে Hohenleuben সম্মেলন বলা হয়,যেখানে ক্রাউলি উপস্থিত ছিলেন। সেখানে কার্ল জার্মার এবং মার্থা কুটেনজেলের মতো বিশিষ্ট সদস্য ক্রাউলি নেতৃত্বকে চ্যাম্পিয়ন করেছিলেন, কিন্তু অ্যালবিন কাউ, ওস্কর হফফার এবং হেনরি বীরভেনের মতো অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব ট্র্যান্সকার তার বিরোধিতা করেছিলেন এবং এর ফলে এটি ওটিও তে বিভক্ত হয়েছিল১৯২৬ সালে তিনি ওলসেনের সাথে সম্পর্ক ভাঙ্গেন। পরবর্তী বছরগুলিতে ক্রাউলি বেশ কয়েকজন প্রেমিকের মধ্য দিয়ে গিয়েছিলেন, যার সাথে তিনি যৌন জাদু ব্যবহার করেছিলেন। সর্বোপরি, তিনি দুর্বল স্বাস্থ্যের অধিকারি হয় পড়েন যা হয় মূলত তার হেরোইন এবং কোকেইন আসক্তির কারণে।১৯২৪ সালে, ক্রাউলি তরুণ ইংরেজ ইজরায়েল রেগার্ডিকে পরিচয় করিয়েছিলেন, যিনি থেল্মাকে গ্রেফতার করেছিলেন এবং পরবর্তী তিন বছরের জন্য ক্রাউলির সেক্রেটারি হয়েছিলেন।সেই বছর, ক্রাউলিও জেরাল্ড ইয়র্কয়ের সাথে সাক্ষাৎ করেছিলেন, যিনি ক্রাউলির সাথে আর্থিক অর্থোপার্জন শুরু করেছিলেন কিন্তু থেলমাইট হয়ে উঠেননি।তিনি সমকামী সাংবাদিক টম ড্রবার্গএর সাথেও বন্ধুত্ব করেছিলেন এবং সেও থেল্মাকেও গ্রহণ করেনি।এখানেই ক্রাউলি তার সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য কাজগুলির একটি প্রকাশ করেছেন, ম্যাজিক থিওরি অ্যান্ড প্র্যাকটিস, যা সে সময়ে সামান্য মনোযোগ পেয়েছিল।

১৯২৪ সালের ডিসেম্বর মাসে ক্রাউলি নিকারাগুয়ান মারিয়া তেরেসা সানচেজের সাথে দেখা করেন।ক্রাউলি কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ফ্রান্স থেকে নির্বাসিত হন,যারা তার খ্যাতি অপছন্দ করত এবং ভয় পেত যে তিনি একটি জার্মান এজেন্ট ছিল ও ব্রিটেনের সাথে সে যোগ দিতে পারে তাই।ক্রাউলি ১৯২৯ সালের আগস্ট মাসে সানচেজের সাথে বিয়ে করেন। তখন তার লন্ডনের জীবন ভিত্তি করে, ম্যান্ড্র্যাক প্রেস তার আত্মজীবনীটির সীমিত সংস্করণ ছয়টি ভলিউম সেট প্রকাশ করতে রাজি হয়েছিলেন, তার উপন্যাস মুনচিল্ড এবং ছোট গল্প দ্য স্ট্রাটেজম বইটিও তারা প্রকাশ করেছিলেন।১৯৩০ সালের নভেম্বরে ক্রাউলি এর কনফেশন প্রকাশিত হওয়ার আগে ম্যানড্রেক তরল পদে চলে যান।ম্যান্ড্র্যাকের মালিক পি.পি.স্টিফেনসন এদিকে দ্য লেজেন্ড অফ অলিস্টার ক্রাউলে লিখেছেন।

বার্লিন এবং লন্ডন (১৯৩০-১৯৩৮)

১৯৩০ সালের এপ্রিল মাসে ক্রাউলি বার্লিনে চলে যান, যেখানে তিনি হ্যানি জাইগারকে তার সহকারি যাদুকর হিসাবে গ্রহণ করেছিলেন সম্পর্কটা হতাশাজনক ছিল।সেপ্টেম্বর মাসে তিনি কবি ফার্নান্দো পেরোয়ার সাথে দেখা করতে পর্তুগালের লিসবন যান। সেখানে, তিনি বোকার ডি ইনফর্নো রক গঠনে পেসোয়ার সাহায্যের মাধ্যমে নিজের মৃত্যুর মিত্থ্যা অভিনয় করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।এরপর তিনি বার্লিনে ফিরে আসেন, যেখানে গ্যালারি নিউম্যান-নাইরেডর্ফ-এ তার শিল্প প্রদর্শনী খোলার তিন সপ্তাহ পরে তিনি পুনরায় আবির্ভূত হন। ক্রোলি এর চিত্রগুলি জার্মান এক্সপ্রেসনজিমমের জন্য ফ্যাশন দিয়ে সজ্জিত, তাদের কয়েকটি বিক্রি হয়, কিন্তু প্রেস রিপোর্টগুলি বেশিরভাগ অবিক্রিত ছিল।১৯৩১ সালের আগস্টে তিনি তার নতুন প্রেমিকা হিসেবে বার্থা বুশকে নিরবাচন করে।তাদের সম্পর্কটি একটি সহিংস সম্পর্ক ছিল, এবং প্রায়ই শারীরিকভাবে তারা একে অপরকে আক্রমণ করতো। তিনি শহরে থাকাকালে পুরুষ ও মহিলাদের উভয়ের সাথে কাজ চালিয়ে যান এবং অ্যালডাস হাক্সলে এবং আলফ্রেড অ্যাডলারের মতো বিখ্যাত ব্যক্তিদের সাথে দেখা করেন।তার সাথে বন্ধুত্ব করার পর ১৯৩২ সালের জানুয়ারিতে তিনি কমিউনিস্ট গেরাল্ড হ্যামিল্টনকে লজার হিসাবে গ্রহণ করেন, যার মাধ্যমে বার্লিনের অনেক বামপন্থির মধ্যে তাঁকে পরিচয় দেওয়া হয়েছিল; এটা সম্ভব যে তিনি এই সময়ে ব্রিটিশ গোয়েন্দা হিসাবে কাজ করছেন, কমিউনিস্ট আন্দোলনের পর্যবেক্ষণ করতে।

ক্রাউলি বুশ ছেড়ে লন্ডনে ফিরে আসেন, যেখানে তিনি পার্ল ব্রুকসমিথ কে তার নতুন বারবনিতা হিসাবে গ্রহণ করেন।আরও স্নায়ু অস্ত্রোপচারের সময় ১৯৩২ সালে তিনি ফয়লেস লিটারারি লিনচেনে সম্মাননা দানের জন্য আমন্ত্রিত হন, এছাড়াও হ্যারি প্রাইসের আমন্ত্রণে মনস্তাত্ত্বিক গবেষণার ন্যাশনাল ল্যাবরেটরিতে বক্তব্য রাখেন।অর্থের প্রয়োজনে, তিনি জনগণের বিরুদ্ধে আদালত মামলার একটি ধারা চালু করেছিলেন যেগুলোকে তিনি বিশ্বাস করেছিলেন যে তারা, তাকে নিষিদ্ধ করেছিলেন, এর মধ্যে কয়েকটি সফল প্রমাণিত হয়েছিল। তিনি নিনা হ্যামনেটসের লঘিং টর্স (১৯৩২) প্রকাশের জন্য কনস্টেবল এবং কো-এর বিরুদ্ধে তার মামলার পক্ষে অনেক প্রচারণা অর্জন করেছিলেন -এই একটি বই যা তাকে চিন্তিত করে তোলে - কিন্তু মামলাটি হারিয়ে ফেলে।আদালতের মামলা ক্রাউলি এর আর্থিক সমস্যা যোগ করে, এবং ফেব্রুয়ারী ১৯৩৫ তাকে দেউলিয়া ঘোষণা করা হয়। শুনানির সময় এটি প্রকাশিত হয়েছিল যে ক্রাউলি বহু বছর ধরে তার আয়ের তিনগুন ব্যয় করেছেন।

ক্রাউলি, ডেড্রে প্যাট্রিসিয়া ডোহার্টির সঙ্গে বন্ধুত্ব ্করেন এরপর এবং যে ১৯৩৭ সালের মে মাসে ক্রাউলির সন্তানকে জন্ম দেয়। তার নাম রাখা হয় রান্ডাল গেইর এবং ক্রাউলি তাকে আলেস্টার আতাতুর্ক নাম দেয়।ক্রাউলি বন্ধুদের সাথে সামাজিকীকরণ অব্যাহত রেখেছিলেন, কারী পার্টি অভ্যাহত রেখেছিলেন, যেখানে তিনি বিশেষ করে তাদের জন্য মসলাযুক্ত খাবার রান্না করেছিলেন।১৯৩৬ সালে তিনি ছয় বছরে তাঁর প্রথম বই প্রকাশ করেছিলেন, দ্য ইকিনক্স অফ দ্য গডস, যা আইন বইয়ের একটি ফ্যাসিমিলিল ছিল এবং ইক্যুইনক্স সাময়িকী এর তৃতীয় সংখ্যা বলে বিবেচিত হয়েছিল। কাজ ভাল হওয়ায় তা ভালই বিক্রি হয়ে যায়, ফলে দ্বিতীয় মুদ্রণ বের করতে হয় বইটির।১৯৩৭ সালে তিনি সোহোর যোগব্যায়ামের একটি পাবলিক বক্তৃতা দেন। ক্রাউলি বর্তমানে রকেট বিজ্ঞানী জন হোয়েসাইডের "জ্যাক" পারসনসের নেতৃত্বে ক্যালিফোর্নিয়ার ওটিও এর অ্যাগ্যাপ লজ সরবরাহকৃত অবদানগুলি ছাড়িয়েছিলেন।ক্রোলেই জার্মানিতে নাৎসিবাদের উত্থান দ্বারা উদ্দীপ্ত ছিলেন এবং তার বন্ধু মার্থা কুন্টেলেলের দ্বারা প্রভাবিত ছিলেন বিশ্বাস করেন যে অ্যাডল্ফ হিটলার থলেমা রূপান্তর করতে পারে; যখন নাৎসি জার্মান O.T.O বিলুপ্ত। এবং জার্মানিতে কারাগারে বন্দী হয়েছিলেন, ক্রাউলি তখন হিটলারকে কালো জাদুকর হিসাবে সাব্যস্থ করেছিলেন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ ও মৃত্যু-(১৯৩৯-১৯৪৭)

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ ভেঙ্গে গেলে, ক্রাউলি নৌবাহিনীর গোয়েন্দা বিভাগকে তার সেবা প্রদানের কথা লিখেছিলেন, কিন্তু তারা তাকে অস্বীকার করেছিল। তিনি ডেনিস হুইটলি, রোল্ড ডাহ্ল, ইয়ান ফ্লিমিং এবং ম্যাক্সওয়েল নাইট সহ ব্রিটেনের গোয়েন্দা সম্প্রদায়ের বিভিন্নভাবে সাথে যুক্ত ছিলেন, এবং "বি ফর ভিক্টরি" চিহ্নের পেছনে রয়েছে বলে দাবি করেছেন যেটি প্রথমে বিবিসি দ্বারা হয় তা প্রমাণিত হয় নি। 1১৯৪০ সালে, তার হাঁপানি খারাপ পর্যায়ে চলে গিয়েছিল, এবং তা জার্মান-উত্পাদিত ঔষধের সাথে অনুপলব্ধ ছিল,ফলে সে আবারো আসক্ত হয়ে ওঠে হেরোইনে। ব্লিটস লন্ডনে আঘাত হানায় ক্রাউলি টোকাইয়ে স্থানান্তরিত হন, যেখানে তাকে অল্পসময়ের জন্য হাঁপানি (অ্যাস্থমা) হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং স্থানীয় দাবা ক্লাবের ভিজিটর হয়ে তিনি নিজেকে বিনোদিত করেন। টোকাইয়ের ক্লান্তিকর সফর শেষে, তিনি লন্ডনে ফিরে যান, যেখানে তিনি আমেরিকান থলেমাইট গ্র্যাডি ম্যাকমার্ট্রি দ্বারা পরিদর্শিত হন ,যার কাছে ক্রাউলি "হিমেনিয়াস আলফা" শিরোনামের ভূষিত হন। তিনি নির্ধারণ করেছিলেন যে জার্মার তার তাৎক্ষনিক উত্তরাধিকারী হবেন, তবে ম্যাকমুর্টিকে অবশ্যই ওটিওর প্রধান হিসাবে জার্মারে সফল হতে হবে। পরবর্তীকালে O.T.O. সঙ্গে লেডি ফ্রিডা হ্যারিসকে প্রবর্তন করে, ক্রাউলি তার পরিকল্পিত টরট কার্ড সেট তৈরির পরিকল্পনা করেন এবং হ্যারিসের আঁকা ছবি আঁকেন। এটি নিয়ে একটি বই ছিল, যা ১৯৪৪ সালে চিসউইক প্রেসের থিওথ বইয়ের সীমিত সংস্করণে প্রকাশিত হয়েছিল।যুদ্ধের প্রচেষ্টাকে সাহায্য করার জন্য তিনি মানবতা, লাইবার ওজ এবং ফ্রান্সের মুক্তিযুদ্ধের জন্য লি কবিওয়েসের একটি কবিতা প্রকাশ করেছিলেন।ক্রাউলি তাঁর জীবনকালের শেষ প্রবন্ধটি কবিতা, অলা: এন এনথোলজি অফ সিক্স্টি ইয়ার্স অফ গান।তার আরেকটি প্রকল্প, অ্যালিস্টার সবকিছু ব্যাখ্যা করে,যা তার মৃত্যুর পরে ম্যাগিক বিহীন টিউমার হিসাবে প্রকাশিত হয়।

১৯৪৪ সালের এপ্রিল মাসে ক্রাউলি অল্পকালের জন্য বাকিংহামশায়ারের অ্যাস্টন ক্লিন্টনে চলে যান, যেখানে তিনি কবি ন্যান্সি কানার্ডের সাথে সফর করেছিলেন, সাসেক্সের হেস্টিংসে স্থানান্তরিত হওয়ার আগে, তিনি নেদারউড বোর্ডিং বোর্ডে বসবাস করেন। তিনি কেনেথ গ্রান্ট নামে একজন যুবককে তার সেক্রেটারি হিসাবে গ্রহণ করেছিলেন, তাকে মজুরির বদলে যাদুকর শিক্ষায় অর্থ প্রদান করেছিলেন। তিনি জন সাইমন্ডসের সাথেও পরিচিত হন, যাকে তিনি তাঁর সাহিত্য নির্বাহক নিযুক্ত করেছিলেন; সাইমন্ডস ক্রোলে একটু চিন্তা করেছিলেন, পরে তার নেতিবাচক জীবনী প্রকাশ করেছিলেন।ভ্রান্তিবাদী আর্নল্ড ক্রোথারের সাথে সম্পর্কযুক্ত, তার মাধ্যমে ক্রাউলিকে গার্ডনারিয়ান উইক্কার ভবিষ্যৎ প্রতিষ্ঠাতা গেরাল্ড গার্ডনারের সাথে পরিচয় করানো হয়েছিল। তারা বন্ধু হয়ে ওঠে, ক্রাউলি গার্ডনারকে ব্রিটেনের অসুস্থ ওটিও পুনরুজ্জীবিত করার অনুমতি দেয়। আরেকজন পরিদর্শক এলিজা মারিয়ান বাটলার,যার সাথে ক্রাউলে তার বই দ্য মাইথ অফ দ্য ম্যাগাসের সাক্ষাত্কারে সাক্ষাত্কার করেছিলেন। অন্যান্য বন্ধুদের ও পরিবারও তার সাথে সময় কাটায়, তাদের মধ্যে ডোহার্টি এবং ক্রাউলে ছেলে আলিস্টার আতাতুর্ক ছিল।১৯৪৭ সালের ১ ডিসেম্বর, ক্রোলি ক্রনিক ব্রঙ্কাইটিস এর নেদারল্যান্ডে মারা যান, ৭২ বছর বয়সী প্লুরুরিসি এবং মায়োকার্ডিয়াল ডিজেনারেশন দ্বারা ক্রমবর্ধমান।৫ ডিসেম্বর তারিখে ব্রাইটন শ্মশানীতে তাঁর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠিত হয়; প্রায় ডজন ডজন লোক উপস্থিত ছিলেন, এবং লুই উইলকিনসন নোস্টিক ম্যাস, বইয়ের আইন, এবং "হিম টু প্যান" থেকে উদ্ধৃতিগুলি পড়েছিলেন। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া প্রেস বিতর্ক উত্পন্ন, এবং ট্যাবলেট দ্বারা একটি কালো ভর লেবেল ছিল। ক্রাউলি এর অ্যাশে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কার্ল জার্মারকে পাঠানো হয়েছিল, যিনি নিউ জার্সির হ্যাম্পটনের বাগানে তাদের বাগানে দাফন করেছিলেন।

উত্তরাধিকার এবং প্রভাব

ক্রোলেই এক প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব ছিল,জনপ্রিয় সংস্কৃতির মধ্যে, বিশেষত ব্রিটেনের,ও বিশ্বের অন্য অংশগুলির মধ্যে। ২০০২ সালে, বিবিসি জরিপে ১০০ জন গ্রেট ব্রিটনের তালিকায় করা হয় ক্রাউলির অবস্থান ৭৩তম ছিল।রিচার্ড কাভেন্ডিশ তার সম্পর্কে লিখেছেন যে "স্থানীয় প্রতিভা, তীক্ষ্ণ বুদ্ধিমত্তা এবং দৃঢ়তার মধ্যে, অ্যালিস্টার ক্রাউলি সপ্তম শতাব্দীর পর থেকে আবির্ভূত সেরা সজ্জিত জাদুকর ছিলেন।"গোপনীয়তাবাদের পণ্ডিত ইগিল এসপ্রেম তাঁকে "সবচেয়ে বেশি" হিসাবে বর্ণনা করেছেন আধুনিক গোপনীয়তা মধ্যে সুপরিচিত পরিসংখ্যানে "।গোপনীয়তাবাদের পণ্ডিত ওয়াটার হেনগ্রাফ্ফ দৃঢ়ভাবে বলেছিলেন যে ক্রাউলিই "বিদ্বেষের অন্ধকার দিক" এর অত্যন্ত চরম উপস্থাপনা ছিল, সেই সাথে যোগ করেছিলেন যে তিনি "বিংশ শতাব্দীর সবচেয়ে কুখ্যাত প্রগতিশীল জাদুকর" ছিলেন।দার্শনিক জন মুর বলেছিলেন যে, জর্জ গার্ডজিফ, পিডি ওসপেনস্কি, রুডলফ স্টিনার বা হেলেন ব্লাভ্যাস্কির অন্যান্য বিশিষ্ট গুপ্তধর্মের তুলনায় ক্রাউলি "আধুনিক মাস্টার" হিসাবে দাঁড়িয়েছিলেন ওসওয়াল্ডের "জীবন্ত অঙ্গ" হিসাবে বর্ণনা করেছেন। স্পেনলারের "ফাউস্টিয়ান ম্যান"।জীবনী লেখক টোবিয়া চুর্টন ক্রাউলিকে "চেতনা গবেষণার অগ্রগামী" বলে মনে করেন।হুটন উল্লেখ করেছিলেন যে ক্রাউলি "প্রাচ্যগত আধ্যাত্মিক ঐতিহ্যের আধুনিক পশ্চিমা প্রতিক্রিয়াগুলির ইতিহাসে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান" ছিল,এবং সুতিন মনে করেছিলেন যে তিনি পশ্চিমের যোগব্যায়ামের গবেষণায় "স্বতন্ত্রভাবে অবদান" করেছেন।

ক্রাউলির মৃত্যুর পর থেল্মা বিকাশ ও বিস্তার অব্যাহত রয়েছে।১৯৬৯ সালে, ওটিও গ্র্যাডি লুই ম্যাকমার্টরির নেতৃত্বে ক্যালিফোর্নিয়াতে পুনরায় সক্রিয় হন;১৯৮৫ সালে ব্রাজিলের থেলমাইট মার্সেলো রামোস মোত্তার নেতৃত্বাধীন সোসাইটি অরডো টেম্পলি ওরিয়েন্টিসের প্রতিদ্বন্দ্বী দলের শিরোনামটির শিরোনামের অধিকারটি সফলভাবে চ্যালেঞ্জ করা হয়।আরেকটি আমেরিকান থেম্লেইট চলচ্চিত্র নির্মাতা কেনেথ এঞ্জার, যিনি অল্প বয়সে ক্রাউলি এর লেখার দ্বারা প্রভাবিত হন।যুক্তরাজ্যে কেনেথ গ্রান্ট তার প্রতিষ্ঠান, টাইফোনীয় ওটিও-এর মাধ্যমে টাইফোনীয় থেল্মা নামে পরিচিত একটি ঐতিহ্য প্রচার করেছিলেন, পরে তার নাম টাইফোনীয় অর্ডার নামে।এছাড়াও ব্রিটেনে, আমাদো ক্রাউলি নামে পরিচিত একটি occultist Crowley এর পুত্র হতে দাবি করা হয়; এই একাডেমিক তদন্ত দ্বারা বাতিল করা হয়েছে। আমাদো যুক্তি দিয়েছিলেন যে থলেমা একটি সত্য ধর্ম যা ক্রাউলি তার সত্যিকারের গোপন শিক্ষাকে গোপন করার জন্য তৈরি করেছিলেন, যা আমাদো প্রচারণা চালানোর দাবি করেছিল।

থেলেমা ব্যতীত অন্যান্য পশ্চিমা গোষ্ঠীগত ঐতিহ্যগুলিও ক্রাউলি দ্বারা প্রভাবিত ছিল, জার্দজেভিচ পর্যবেক্ষণ করেছিলেন যে "বিংশ শতাব্দীতে ক্রাউলি এর প্রভাব এবং সমসাময়িক গুপ্তধর্মের প্রভাব ব্যাপক ছিল"।গার্ডনারিয়ান উইক্কা প্রতিষ্ঠাতা গেরাল্ড গার্ডনার গার্ডনারের অনুষ্ঠানটি প্রকাশ করার সময় ক্রোলে প্রকাশিত প্রকাশিত সামগ্রীর বেশিরভাগ উপাদান ব্যবহার করেছিলেন,এবং অস্ট্রেলিয়ান উইচ Rosaleen Norton এছাড়াও Crowley এর ধারনাগুলির দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিল।আরও ব্যাপকভাবে, ক্রাউলি আধুনিক পেগান সম্প্রদায়ের মধ্যে "একটি প্রভাবশালী ব্যক্তি" হয়ে ওঠে।এল.রন হুবার্ড, সায়েন্টোলজিটির আমেরিকান প্রতিষ্ঠাতা, ১৯৪০ এর দশকে (জ্যাক পারসনের সাথে) থেলমাতে জড়িত ছিলেন এবং এটি যুক্তিযুক্ত ছিল যে ক্রাউলের ​​ধারণাগুলি হুবার্ডের কিছু কাজকে প্রভাবিত করেছিল। ধর্মের পণ্ডিত আস্বজরন ডিরেন্ডেল, জেমস আর লেভিস এবং জেসপার পিটারসেন উল্লেখ করেছিলেন যে ক্রাউলি একজন শয়তানবাদী ছিল না সত্ত্বেও, তিনি "অনেক উপায়ে তার জীবনধারা এবং তার দর্শনের মাধ্যমে শয়তান ও শয়তানবাদের উপর প্রাক্তন শয়তানবাদী গোপনীয় বক্তৃতাটি উদ্ভাবন করেন" , তার "চিত্র এবং কর্তব্য" ধর্মীয় শয়তানবাদের পরবর্তী বিকাশের উপর "গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব" হয়ে ওঠে। উদাহরণস্বরূপ, ধর্মীয় শয়তানবাদ, আন্তন লাভি এবং মাইকেল অ্যাকুইনোতে দুটি বিশিষ্ট পরিচয় ক্রলির কাজ দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিল।

ব্রিটিশ জনপ্রিয় সংস্কৃতিতে ক্রাউলি ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করেছিলেন। সেফালুতে তার সময় পরে যা তাকে ব্রিটেনের জনসাধারণের দিকে মনোযোগ দিয়ে নিয়ে আসে, বিভিন্ন "সাহিত্যিক ক্রাউলি" হাজির হয়; তার উপর ভিত্তি করে কথাসাহিত্য অক্ষর। জন বুখানের (১৯২৬) উপন্যাস দ্য ডান্সিং ফ্লোরে কবি শেলি আরবিনের প্রথম দিক থেকে এক। তাঁর উপন্যাস দ্য ডেভিল রাইডস আউটে, লেখক ডেনিস হুইটলেলে ক্রাউলিকে ড্যামিয়েন মরকাতার চরিত্রের জন্য আংশিক ভিত্তিতে ব্যবহার করেছিলেন, যা কালো ম্যাজিকের সাথে জড়িত একটি পল্লী গালিগালাজযুক্ত যাজক। দ্য টেকসই অফ দ্য ডক্টর টাওয়ারার (১৯২৬) এবং দ্য উইংড্ড বুল (১৯৩৫) বইয়ের চরিত্রগুলির জন্য দ্য অকল্লিস্ট ডিয়েন ফরচুন ক্রাউলি ব্যবহার করেছিলেন। [312] তিনি বিটলস অ্যালবাম Sgt কভার আর্ট উপর পরিসংখ্যান এক হিসাবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। পেপারের লোনলি হার্টস ক্লাব ব্যান্ড (১৯৬৭),এবং "ডট ওয়াট উইল্ট" এর মূল উদ্দেশ্য লেড জেপেলিনের অ্যালবাম লেড জেপেলিন তৃতীয় (১৯৭০) এর ভিনাইলের উপর লেখা হয়েছিল।লেড জেপেলিনের সহ-প্রতিষ্ঠাতা জিমি পেজ ১৯৭১ সালে বোলেসকিন কিনেছিলেন এবং ব্যান্ডের চলচ্চিত্র দ্য গান রেবেন্স দ্য সেমের অংশটিতে অভিনয় করেছিলেন। তিনি ১৯৯২ সালে এটি বিক্রি করেন।ডেভিড Bowie তার গান "Quicksand" (১৯৭১),গানের ক্রাউলি কে রেফারেন্স করেছেন,যখন ওজি Osbourne এবং তার গীতিকার বব Daisley "্মিস্টার ক্রাউলি" (১৯৮০) শিরোনাম একটি গান লিখেছেন। ক্রাউলি 1990 এর দশকের শেষের দিকে শিক্ষাবিদদের কাছ থেকে পাণ্ডিত্যপূর্ণ মনোযোগ পেতে শুরু করেন।

Israt Sultana Tamanna (আলাপ) ১২:৩০, ১৫ জুলাই ২০১৯ (ইউটিসি)Israt Sultana Tamanna