আলব্রেক্ট মার্তজ ফন কুইরেনহেইম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
আলব্রেক্ট মার্ত‌জ ফন কুইরেনহেইম
আলব্রেক্ট মার্ত‌জ ফন কুইরেনহেইম
জন্ম (১৯০৫-০৩-২৫)২৫ মার্চ ১৯০৫
মিউনিখ, জার্মান সাম্রাজ্য
মৃত্যু ২১ জুলাই ১৯৪৪(১৯৪৪-০৭-২১) (৩৯ বছর)
বার্লিন, নাৎসি জার্মানি
৫২°৩০′২৮″ উত্তর ১৩°২১′৪৪″ পূর্ব / ৫২.৫০৭৮৯২° উত্তর ১৩.৩৬২১৯° পূর্ব / 52.507892; 13.36219 (Execution Site of Nazi Germany Resistance)
আনুগত্য  ভাইমার প্রজাতন্ত্র
 নাৎসি জার্মানি
সার্ভিস/শাখা ভারমাক্ট
কার্যকাল ১৯২৩–১৯৪৪
পদমর্যাদা কর্নেল
যুদ্ধ/সংগ্রাম দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ

আলব্রেক্ট মার্ত‌জ ফন কুইরেনহেইম (২৫ মার্চ ১৯০৫ - ২১ জুলাই ১৯৪৪) ছিলেন একজন জার্মান কর্নেল। হিটলারের বিরুদ্ধে প্রণীত ২০ জুলাই পরিকল্পনায় তিনি অংশ নিয়েছিলেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

কুইরেনহেইম ১৯০৫ সালে মিউনিখে জন্মগ্রহণ করেন। পরবর্তীতে তার পরিবার পটসডামে চলে আসে।

সামরিক জীবন[সম্পাদনা]

কুইরেনহেইম ১৯২৩ সালে রাইখসভারে যোগ দেন। ১৯২৫ সালে ক্লজ ফন স্টফেনবার্গ‌ের সাথে তিনি পরিচিত হন।[১]

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ[সম্পাদনা]

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় তিনি স্টাফ অফিসার হিসেবে নিয়োগ পান। ১৯৪২ সালে তিনি লেফটেন্যান্ট কর্নেল হিসেবে পদন্নোতি লাভ করেন। এরপর তিনি পূর্বাঞ্চলীয় রণাঙ্গনে ২৪তম আর্মি কর্প‌সের স্টাফ প্রধান হন। ১৯৪৩ সালে তিনি কর্নেল পদে উন্নীত হন।

বান্ডলারব্লকে স্মৃতিফলক

২০ জুলাই পরিকল্পনা[সম্পাদনা]

১৯৪৩ সালে কুইরেনহেইম হিটলারকে হত্যার জন্য প্রণীত ২০ জুলাই পরিকল্পনায় যুক্ত হন। হিটলারকে হত্যার উদ্দেশ্যে কর্নেল ক্লজ ফন স্টফেনবার্গ‌ বোমা স্থাপন করেছিলেন। বোমাটি বিস্ফোরিত হলেও হিটলার নিহত হননি। এই তথ্য পরিকল্পনাকারীরা জানতে পারেননি। তারা পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়া শুরু করেন। কিন্তু অভ্যুত্থান দ্রুত স্তিমিত হয়ে পড়ে এবং পরিকল্পনায় জড়িত কুইরেনহেইম, ওলব্রিক্ট, স্টফেনবার্গ‌হেফটেন গ্রেপ্তার হন। গ্রেপ্তারের পর কর্নেল জেনারেল ফ্রেডরিক ফ্রম সামরিক আদালতে তড়িঘড়ি করে সম্পন্ন একটি সংক্ষিপ্ত বিচারে তাদের মৃত্যুদন্ড দেন। পরিকল্পনাকারীদের জীবিত গ্রেপ্তারের জন্য হিটলারের নির্দেশ সত্ত্বেও ফ্রম তাদের মৃত্যুদন্ড দিয়েছিলেন। নীরব সমর্থন দানের অভিযোগ থেকে নিজেকে বাঁচানোর জন্য ফ্রম তাদের মৃত্যুদন্ড দিয়েছিলেন এমন মত রয়েছে। বান্ডলারব্লকের উঠানে ফায়ারিং স্কোয়াড গুলি করে তার মৃত্যুদন্ড কার্যকর করে। প্রথমে ওলব্রিক্টকে গুলি করার পর কুইরেনহেইমকে গুলি করা হয়।

দন্ড কার্যকরের পর তাদের লাশ বার্লিনের ম্যাথাউস চার্চে দাফন করা হয়। পরে হেনরিক হিমলারের নির্দেশে লাশ কবর থেকে তুলে পুড়িয়ে ফেলে ছাই ছড়িয়ে দেয়া হয়েছিল। তাদের দন্ড কার্যকরের স্থানে একটি স্মৃতিফলক রয়েছে।

চরিত্রায়ন[সম্পাদনা]

কুইরেনহেইমের চরিত্রে নিম্নোক্ত অভিনেতারা অভিনয় করেছেন:

  • পল বের্ন্ড‌ট (লিবারেশন চলচ্চিত্রে) (১৯৭১)
  • রাইনার বুক (স্টফেনবার্গ‌ চলচ্চিত্রে) (২০০৪)
  • ক্রিশ্চিয়ান বার্কে‌ল (ভেলকুরি চলচ্চিত্রে) (২০০৮)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Hoffman, P. (1995) Stauffenberg (A Family History), 1905-1944, Mcgill-Queen's University Press, Canada, p. 81, p. 223 আইএসবিএন ০-৭৭৩৫-২৫৯৫-৫

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]