আলকুসুম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

আলকুসুম
Yellow Orange Tip
Close wing position of Ixias pyrene Linnaeus, 1764 – Yellow Orange-tip.jpg
ডানা বন্ধ অবস্থায়
Open wing position of Ixias pyrene Linnaeus, 1764 – Yellow Orange-tip.jpg
ডানা খোলা অবস্থায়
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: আর্থ্রোপোড
শ্রেণী: কীট
বর্গ: লেপিডোপ্টেরা
পরিবার: Pieridae
গণ: Ixias
প্রজাতি: I. pyrene
দ্বিপদী নাম
Ixias pyrene
Linnaeus 1764

আলকুসুম[১] (বৈজ্ঞানিক নাম: Ixias pyrene) এরা হলুদ ও কমলা বর্ণের মাঝারি আকারের প্রজাপতি এবং এরা ‘পিয়েরিডি’ পরিবারের সদস্য।[২] এই প্রজাপতির ওপর পিঠ বাসন্তী হলুদ রঙের। সামনের ডানার শীর্ষকোণে চওড়া কালো পটির মধ্যে কমলা চওড়া পটি দেখা যায়। পিছনের ডানার পাশে মাঝারি বা কালো সরু পটি দেখা যায়।

আকার[সম্পাদনা]

আলকুসুমের প্রসারিত অবস্থায় ডানার আকার ৫০-৫৫ মিলিমিটার দৈর্ঘের হয়।[৩]

উপপ্রজাতি[সম্পাদনা]

ভারতে প্রাপ্ত আলকুসুম এর উপপ্রজাতি হল- [৪]

  • Ixias pyrene sesia Fabricius, 1777 – Dakhan Yellow Orange-tip
  • Ixias pyrene kausala Moore, 1877 – West Himalayan Yellow Orange-tip
  • Ixias pyrene familiaris Butler, 1874 – East Himalayan Yellow Orange-tip
  • Ixias pyrene andamana Moore, 1877 – Andaman Yellow Orange-tip

বিস্তার[সম্পাদনা]

সাধারণত এই জাতীয় প্রজাপতিটি মরু অঞ্চল বাদে সমগ্র ভারতে এদের দেখা যায়।[৫] হিমালয়ের ৭০০০ ফুট উচ্চতা অবধি এবং উপত্যকা অঞ্চলে দেখা মেলে। এছাড়া বালুচিস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, মায়ানমার, চিন সহ দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন অঞ্চলে এদের প্রচুর দেখা যায়। [৬]

আচরণ[সম্পাদনা]

পুরুষ আলকুসুমদের একটা বড় ঝাঁক তৈরী হয় জলের ধারে বা ভিজে মাটিতে। আলকুসুমরা ওড়ে তীব্র গতিতে এবং এরা রোদ্দুর খুব পছন্দ করে।[৭]

বর্ণনা[সম্পাদনা]

শুষ্ক ঋতুরূপ[সম্পাদনা]

পুরুষ[সম্পাদনা]

পুরুষ প্রজাতির ডানার উপরিতল গভীর সালফার হলুদ রঙের। সামনের ডানার বেসাল এবং পোষ্টবেসাল অংশ সালফার হলুদ অথবা ফ্যাকাশে হলুদ বর্নের। ডিসকাল অংশে কোস্টাল প্রান্ত থেকে টর্নাস অবধি ঘন কালো আঁশ তীর্যক ভাবে বিস্তৃত যা টর্নাসের কাছে অধিকতর চওড়া। সামনের ডানার এপিকাল অর্দ্ধ কালো এবং এই কালো অংশের দ্বারা ঘেরা বড় এবং অসমভাবে ত্রিভূজাকৃতি একটি মধ্যবর্তী কমলা ছোপ পরিলক্ষিত হয়। এই কমলা প্রায় ত্রিভূজাকৃতি ছোপটির শীর্ষভাগ কম বেশী প্রশস্থ ভাবে গোলাকৃতি। এই কমলা ছোপটি সেল এর শীর্ষভাগ অবধি কৌনিক ভাবে বিস্তৃত হয়েছে এবং এর ডিসকোসেলুলার অংশে একটি কালো ক্ষুদ্র ছোপ বিদ্যমান। কমলা ছোপটি সুস্পষ্ট কালো শিরা উপশিরা দ্বারা অনেকাংশে খন্ডিত।

পিছনের ডানার উপরিতলের মূল রঙ সালফার হলুদ অথবা ফ্যাকাশে হলুদ এবং টার্মেন অংশে প্রান্তরেখা বরাবর সামান্য কালচে আঁশের সরু বন্ধনীযুক্ত যা টর্নাস অংশে ক্রমশ অপসৃয়মান। কোনো কোনো নমুনাতে এই কালচে অংশের সরু প্রান্তীক বন্ধনীটি অনুপস্থিত। পিছনের ডানার বেস অংশেও এই কালচে আঁশের হালকা উপস্থিতি চোখে পড়ে।

উভয় ডানারই নিম্নপৃষ্ঠের মূল রঙ কালচে হলুদ এবং মাঝেমধ্যে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে কিছু ক্ষুদ্র fusco-ferruginous বিন্দু। সামনের ডানার নিম্নতলে বেসাল এবং ডিসকাল অঞ্চলে প্রশস্থ ভাবে ফ্যাকাশে সাদা এবং ইষদ সবজে রঙের বিন্যাস চোখে পড়ে। সামনের ডানার শীর্ষভাগ এবং প্রান্তরেখা বরাবর অসংখ্য ক্ষুদ্র ছোপ এবং দাগ রয়েছে। সামনের ডানার ৪,৫,৬, এবং ৮ নং ইন্টারস্পেসগুলি জুড়ে বক্রাকারে একসারি সাব-এপিকাল ছোট গোলাকৃতি এবং অস্পস্ট মরচে ধরার ন্যায় রয়েছে এবং ডিসকোসেলুলার অংশে অনুরূপ একটি ছোপ বিদ্যমান।

পিছনের ডানার নিম্নতলেও ডিসকোসেলুলার অংশে একটি মরচে ধরার ন্যায় ছোপ রয়েছে যার খানিক দূরে পোস্টডিসকাল অংশ (৩ থেকে ৪ নং ইন্টারস্পেস পর্যন্ত) অনুরূপ ক্ষুদ্রকার এবং গোলাকৃতি এক সারি ছোপ রয়েছে যেগুলির সবকটির অথবা অধিকাংশেরই কেন্দ্র ভাগ সাদা। এই একসারি ছোপ এর মধ্যে ৫,৬ এবং ৮ নং ইন্টারস্পেসে ছোপগুলি সর্ববৃহত, (৫ এবং ৬ নং ইন্টারস্পেসের ছোপদুটি একত্রিত)।

শুংগ, মাথা এবং বক্ষদেশের অগ্রভাগের উপরিপৃষ্ঠ ইষদ মরিচা ধরা বর্নের। বক্ষদেশের পশ্চাতভাগে এবং উদরদেশের উপরিতল ধূসর কালচে, মাথা, থোরাক্স এবং উদরদেশের নিম্নতল হলদে বর্নের।

স্ত্রী[সম্পাদনা]

উভয় ডানার উপরিতল ইষদ হলদে আভাযুক্ত সাদা বর্নের। সামনের ডানার এপিকাল অর্দ্ধ কালো এবং এই কালো এপিকাল অর্দ্ধের মধ্যবর্তী একটি আবদ্ধ, অসময়াকৃতির চওড়া এবং তেরচা সাদা এবং ইষদ হলুদ বৃহদাকার ছোপ রয়েছে (পুরুষের ক্ষেত্রে যার রঙ কমলা)। এই ছোপটি সেল এর শীর্ষভাগ অবধি বিস্তৃত। সেল এবং সাদা, ইষদ হলুদ বৃহত ছোপটির মাঝে ডিসকোসেলুলার অংশ বরাবর কোস্টা থেকে টর্নাস পর্যন্ত বিস্তৃত কালো বন্ধনীটি উপরের দিকে অপেক্ষাকৃত সরু এবং টর্নাসের কাছে অধিক চওড়া, তীর্যক এবং অপেক্ষাকৃত হালকা, যেখানে এটা টার্মেন অথবা প্রান্তিক ভাগে অবস্থিত কালো সীমা বন্ধনীর সাথে মিসেছে। ডানার বেসাল অঞ্চলস্থ ইষদ হলদে সাদা ত্রিভূজাকৃতি অংশের বাইরের দিকার প্রান্তরেখাটি অসমভাবে খাঁজকাটা এবং কখনো ঢেউ খেলানো। ডানার শীর্ষভাগের কালো অংশটি প্রায়শই ৪ নং শিরার সাথে লম্বভাবে অবস্থান করে। ডানার ইষদ হলদে সাদা অংশটির পশ্চাত ভাগে ২ নং এবং ৩ নং ইন্টারস্পেসে একটি করে কালো ছোপ দেখা যায়।

পিছনের ডানার উপরিতল সর্বত্র সমান। পশ্চাতভাগে কয়েকটি সরু, অস্পষ্ট কালো তীর্যক দাগ চোখে পড়ে। প্রান্তরেখা বরাবর সংকোর্ণ ধূসর কালো অবিচ্ছিন্ন একসারি ছোপ কখনো সখনো চোখে পড়ে যেটি উপরের দিকে অপেক্ষাকৃত চোড়া ভাবে বিস্তৃত। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে এই ছোপ এর সারি অনুপস্থিত থাকে।

উভয় ডানার নিম্নতল পুরুষ নমুনার অনুরূপ। একই রকম দাগ বিশিষ্ট। মূল রঙ কালচে ভাব যুক্ত ফ্যাকাশে কমলা হলুদ। কালো মরিচা ধরার মত দাগগুলি পুরুষ অপেক্ষা আরো বেশি সংখ্যায় উপস্থিত। শুংগ, মাথা, থোরাক্স এবং উদরদেশ পুরুষেরই অনুরূপ।

আর্দ্র ঋতুরূপ[সম্পাদনা]

পুরুষ এবং স্ত্রী উভয়ের ক্ষেত্রেই ডানার উপরিপৃষ্ঠ শুষ্ক ঋতুরোপ অপেক্ষা ভিন্ন।[৮] কালো প্রান্তিক অংশটি অপেক্ষাকৃত এবং সুস্পষ্ট। স্ত্রী নমুনার ক্ষেত্রে ডানার উপরিতলের মূল রঙও শুষ্ক রূপ অপেক্ষা ভিন্ন-এই রঙ স্ত্রীর ক্ষেত্রে হালকা হলুদ। ডানার নিম্নপৃষ্ঠে কালো মরিচা ধরার ন্যায় দাগ এবং ছোপগুলি প্রায়শই অতি অস্পষ্ট অথবা লুপপ্রায় এবং কনো কনো ক্ষেত্রে পুরুষ নমুনাতে এই দাগ-ছোপ সম্পূর্নভাবেই অনুপস্থিত।[৯]

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

ডিম[সম্পাদনা]

আলকুসুমের ডিম একটু লম্বা ধরনের অনেকটা বোতলের মতো। গায়ে লম্বালম্বি শির দেখা যায়। সদ্য পাড়া ডিম মুক্তোর মতো ধবধবে সাদা। ধীরে ধীরে তা হাল্কা গোলাপী বর্ণ ধারণ করে। এরা একটি করে ডিম পাড়ে ছায়াছায়া পাতায় বা ডালে।

শূককীট[সম্পাদনা]

শূককীট গুলি ঘন সবুজ বর্ণের হয়। সারা শরীরে ফ্যাকাশে লাল রঙের বিন্দু এবং রোঁয়া দেখা যায়। রোঁয়াগুলি ভালো করে লক্ষ্য করলে দেখা যায় যে রোঁয়ার মাথায় তরলবিন্দু।

আহার্য উদ্ভিদ[সম্পাদনা]

এই শূককীট Capparis প্রজাতির যেমন কাঁটাগুড়কামাই Capparis sepiaria গাছের পাতার রসালো অংশ আহার করে।[১০]

মূককীট[সম্পাদনা]

মূককীট সবুজ রঙের হয়। একটু আড়াল মতো জায়গাতে এরা মূককীটে পরিণত হয়।

জীবনচক্রের চিত্রশালা[সম্পাদনা]

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Dāśagupta, Yudhājit̲̲̲̲̲̲a (২০০৬)। Paścimabaṅgera prajāpati (1. saṃskaraṇa. সংস্করণ)। Kalakātā: Ānanda। পৃষ্ঠা 70। আইএসবিএন 81-7756-558-3 
  2. Isaac, Kehimkar (২০০৮)। The book of Indian Butterflies। New Delhi: Oxford University Press। আইএসবিএন 978 019569620 2 
  3. A Pictorial Guide Butterflies of Gorumara National Park (2013 সংস্করণ)। Department of Forests Government of West Bengal। পৃষ্ঠা 46। 
  4. "Ixias pyrene Linnaeus, 1764 – Yellow Orange-tip"। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৬ 
  5. Ashish,, D.। "Butterfly Species Diversity, Habitats and Seasonal Distribution in and Around Nagpur City, Central India" (PDF)The World Journal of Zoology। পৃষ্ঠা 153-162। আইএসএসএন 1817-3098। সংগ্রহের তারিখ ৫ মার্চ ২০১৭ 
  6. Bingham, C. T. 1907. Fauna of British India. Butterflies. Volume 2
  7. Eswaran,, R.; Pramod,, P.। "Structure of Butterfly Community of Anaikatty Hills, Western Ghats" (PDF)The Zoo's Print Journal। পৃষ্ঠা 1939-1942। সংগ্রহের তারিখ ৫ মার্চ ২০১৭ 
  8. Paul,, M.B.; Torben,, B.L., "The evolutionary significance of Dry and Wet Season forms in some tropical butterflies", Biological Journal of the Linnean Society, 22 (1): 1-12 
  9. Michael,, R.C.; Pierce,, N.E.। "Facultative Mimicry?The evolutionary significance ofSeasonal forms in several Indo-Australian butterflies in the family pieridae" (PDF)Topical lepidoptera Research। পৃষ্ঠা 1-7। সংগ্রহের তারিখ ৫ মার্চ ২০১৭ 
  10. Thakur,, M.S.; Mattu,, V.K.। "The Role of Butterfly as Flower Visitors and Pollinators In Shiwalik Hills of Western Himalayas" (PDF)The Asian Journal of Experimental Biological Sciences। পৃষ্ঠা 822-825। আইএসএসএন 0975-5845। সংগ্রহের তারিখ ৫ মার্চ ২০১৭  line feed character in |শিরোনাম= at position 62 (সাহায্য)