আর্সেনিক বিষক্রিয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আর্সেনিক বিষক্রিয়া
Arsenic contamination areas.jpg
পৃথিবীতে আর্সেনিক দূষণ কবলিত এলাকা
বিশেষায়িত ক্ষেত্রবিষবিদ্যা
উপসর্গতীব্র: বমি, তলপেট ব্যথা, watery উদরাময়[১]
দীর্ঘস্থায়ী: মলিন ত্বক, কৃষ্ণসার ত্বক, ক্যান্সার[১]
কারণসমূহআর্সেনিক[১]
রোগনির্ণয়মূত্র, রক্ত, or চুল পরীক্ষা[১]
প্রতিরোধআর্সেনিকমুক্ত পানি পান[১]
চিকিৎসাডাইমারক্যাপ্টোসুসিনিক অ্যাসিড, ডায়মারক্যাপ্টোপ্রোপেন সালফোনেট[২]
ব্যাপকতার হার>২০০ মিলিয়ন[৩]

আর্সেনিক বিষক্রিয়া হলো আর্সেনিক বাহিত রোগ। মানবদেহে যখন আর্সেনিকের মাত্রা অনেক বেড়ে যায় তখন সে অবস্থাকে আর্সেনিক বিষক্রিয়া হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। দীর্ঘসময় ধরে আর্সেনিকযুক্ত পানি খেলে এই রোগের প্রাদুর্ভাব শরীরে দেখা যায়। জ্বর, বমি, মাথা ব্যথা, শরীরে অস্বাভাবিক ব্যথা, রক্ত আমাশয় এবং উদরাময়কে এ রোগের লক্ষণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

রোগের লক্ষণ এবং পূর্বলক্ষণ[সম্পাদনা]

কারণ[সম্পাদনা]

প্যাথোফিজিওলজি[সম্পাদনা]

রোগ শনাক্ত[সম্পাদনা]

চিকিৎসা[সম্পাদনা]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Rat2003 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  2. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; An2016 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  3. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; EH2013 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি