আর্নি ম্যাককরমিক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আর্নি ম্যাককরমিক
HassettMcCormick.jpg
১৯৩০-এর দশকের শেষদিকে এসসিজিতে দলীয় সঙ্গী লিন্ডসে হ্যাসেটের (বামে) সাথে আর্নি ম্যাককরমিকের (ডানে) সংগৃহীত স্থিরচিত্র
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামআর্নেস্ট লেসলি ম্যাককরমিক
জন্ম১৬ মে, ১৯০৬
নর্থ কার্লটন, ভিক্টোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া
মৃত্যু২৮ জুন, ১৯৯১
টুইড হেডস, নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৫৪)
১৪ ডিসেম্বর ১৯৩৫ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ টেস্ট২২ জুলাই ১৯৩৮ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১২ ৮৫
রানের সংখ্যা ৫৪ ৫৮২
ব্যাটিং গড় ৬.০০ ৮.৬৮
১০০/৫০ ০/০ ০/১
সর্বোচ্চ রান ১৭* ৭৭*
বল করেছে ২১০৭ ১৪৩১৬
উইকেট ৩৬ ২৪১
বোলিং গড় ২৯.৯৭ ২৭.৭৪
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৪/১০১ ৯/৪০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৮/০ ৪৬/০

আর্নেস্ট লেসলি ম্যাককরমিক (ইংরেজি: Ernie McCormick; জন্ম: ১৬ মে, ১৯০৬ - মৃত্যু: ২৮ জুন, ১৯৯১) ভিক্টোরিয়ার নর্থ কার্লটন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৩৫ থেকে ১৯৩৮ সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটে ভিক্টোরিয়া দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, বামহাতে ব্যাটিং করতেন আর্নি ম্যাককরমিক

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯২৯-৩০ মৌসুম থেকে ১৯৩৮-৩৯ মৌসুম পর্যন্ত আর্নি ম্যাককরমিকের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে বারোটি টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন আর্নি ম্যাককরমিক। ১৪ ডিসেম্বর, ১৯৩৫ তারিখে ডারবানে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ২২ জুলাই, ১৯৩৮ তারিখে লিডসে স্বাগতিক ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হবার অল্প কিছুদিন পূর্বে তিনি ১২টি টেস্টে অংশ নিয়েছিলেন। খুব দ্রুততার সাথে স্বর্ণালী সময় অতিবাহিত করেন। কিন্তু, ক্রমাগত পিঠের সমস্যায় জর্জরিত থাকতেন। অ্যাশেজ টেস্টে প্রথম বলে স্ট্যান ওয়ার্থিংটনকে কট বিহাইন্ডে বিদেয় করেন। ১৯৩৬-৩৭ মৌসুমে ব্রিসবেনে অনুষ্ঠিত ঐ একই টেস্টে ওয়ালি হ্যামন্ডকে প্রথমবারের মতো অ্যাশেজে শূন্য রানে ফেরৎ পাঠান।

১৯৩৮ সালে দলের সাথে ইংল্যান্ড গমন করেন। ওরচেস্টারে নিজস্ব প্রথম খেলায় তিনি কমপক্ষে ২৫বার দাগ অতিক্রমণের কারণে তাকে আম্পায়ারের কাছ থেকে নো-বলের ডাক শুনতে হয়। তন্মধ্যে, ১৯টি নো-বলই প্রথম তিন ওভারে করেছিলেন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

ম্যাককরমিক অলঙ্কার নির্মাতা ছিলেন। ১৯৬০-৬১ মৌসুমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল অস্ট্রেলিয়ায় পদার্পন করে। এ সিরিজ শেষে ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যানঅস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ড আর্নি ম্যাককরমিককে দুই দলের মধ্যকার বিজয়ী দলকে স্মারকসূচক ট্রফি প্রদানকল্পে তাকে দায়িত্ব দেন। এর নকশায় একটি বল রয়েছে যা টাই টেস্টে ব্যবহার করা হয়েছিল ও ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান অধিনায়ক ফ্রাঙ্ক ওরেলের সম্মানার্থে ঐ ট্রফির নামকরণ ফ্রাঙ্ক ওরেল ট্রফি রাখা হয়।[১][২]

২৮ জুন, ১৯৯১ তারিখে ৮৫ বছর বয়সে নিউ সাউথ ওয়েলসের টুইড হেডস এলাকায় আর্নি ম্যাককরমিকের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Obituary – Ernie McCormick"Wisden Almanack। ১৯৯২। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুলাই ২০১৭ 
  2. "The tied Test film: A fitting tribute"National Museum of Australia। অক্টোবর ৬, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুলাই ২০১৭ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]