আরুবা জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আরুবা
ডাকনামলে সেলেকসিওন
অ্যাসোসিয়েশনআরুবা ফুটবল ফেডারেশন
কনফেডারেশনকনকাকাফ (উত্তর আমেরিকা)
প্রধান কোচমার্ভিক বের্মুদেস
অধিনায়করেমন্ড বাতেন
সর্বাধিক ম্যাচথেরিক রুইজ (২৪)
শীর্ষ গোলদাতাফ্রেদেরিক রোনালদ গোমেস (৬)
মাঠত্রিনিদাদ স্টেডিয়াম
ফিফা কোডARU
ওয়েবসাইটavbaruba.com
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২০৫ হ্রাস(৭ এপ্রিল ২০২১)[১]
সর্বোচ্চ১১২ (নভেম্বর ২০১৫)
সর্বনিম্ন২০২ (ফেব্রুয়ারি–এপ্রিল ২০০৮)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২০৩ অপরিবর্তিত (২৪ এপ্রিল ২০২১)[২]
সর্বোচ্চ৫০ (১৯২৪)
সর্বনিম্ন২০৩ (এপ্রিল ২০২০)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
আরুবা ০–৪ কুরাসাও
(আরুবা; ৬ এপ্রিল ১৯২৪)[৩]
বৃহত্তম জয়
আরুবা ৮–১ সুরিনাম নেদারল্যান্ডস
(সুরিনাম; ৬ জুন ১৯৪৬)
 আরুবা ৭–০ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ 
(ওরানিয়েস্টাট, আরুবা; ১ জুন ২০১৪)
বৃহত্তম পরাজয়
 ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ১১–০ আরুবা 
(আরিমা, ত্রিনিদাদ ও টোবাগো; ২৩ এপ্রিল ১৯৮৯)

আরুবা জাতীয় ফুটবল দল (ওলন্দাজ: Arubaans voetbalelftal, পাপিয়ামেন্তো: Seleccion Arubano di futbol, ইংরেজি: Aruba national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে আরুবার প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম আরুবার ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আরুবা ফুটবল ফেডারেশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৮৮ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৮৬ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা কনকাকাফের সদস্য হিসেবে রয়েছে।[৪] ১৯২৪ সালের ৬ই এপ্রিল তারিখে, আরুবা প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; আরুবায় অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে আরুবা কুরাসাওয়ের কাছে ৪–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

২,৫০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট ত্রিনিদাদ স্টেডিয়ামে লে সেলেকসিওন নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় আরুবার রাজধানী নর্টে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন মার্ভিক বের্মুদেস এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন ডে ডেইকের মধ্যমাঠের খেলোয়াড় রেমন্ড বাতেন

আরুবা এপর্যন্ত একবারও ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। অন্যদিকে, কনকাকাফ গোল্ড কাপেও আরুবা এপর্যন্ত একবারও অংশগ্রহণ করতে সক্ষম হয়নি।

থেরিক রুইজ, লেরয় ওহলার্স, এরিক আব্দুল, ফ্রেদেরিক রোনালদ গোমেস এবং ডোয়াইনালেক্স রাভেনের মতো খেলোয়াড়গণ আরুবার জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১৫ সালের নভেম্বর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে আরুবা তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (১১২তম) অর্জন করে এবং ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ২০২তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে আরুবার সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ৫০তম (যা তারা ১৯২৪ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ২০৩। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
৭ এপ্রিল ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
২০৩ বৃদ্ধি  ইরিত্রিয়া ৮৫৫.৫৬
২০৪ বৃদ্ধি  শ্রীলঙ্কা ৮৫৩.০৭
২০৫ হ্রাস  আরুবা ৮৫০.১
২০৬ হ্রাস  টার্কস ও কেইকোস দ্বীপপুঞ্জ ৮৪৩.৬৫
২০৭ অপরিবর্তিত  মার্কিন ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ ৮২৯.১৩
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
২৪ এপ্রিল ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
২০১ বৃদ্ধি  জিবুতি ৯০০
২০২ বৃদ্ধি  মন্টসেরাট ৮৮৭
২০৩ অপরিবর্তিত  আরুবা ৮৮১
২০৪ হ্রাস  বাহামা দ্বীপপুঞ্জ ৮৭৮
২০৫ হ্রাস  পাকিস্তান ৮৭৩

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ নেদারল্যান্ডস এন্টিলসের অংশ ছিল নেদারল্যান্ডস এন্টিলসের অংশ ছিল
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮
স্পেন ১৯৮২
মেক্সিকো ১৯৮৬
ইতালি ১৯৯০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪
ফ্রান্স ১৯৯৮ উত্তীর্ণ হয়নি
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ ১১
জার্মানি ২০০৬ ১০
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০
ব্রাজিল ২০১৪
রাশিয়া ২০১৮
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ০/২১ ১৬ ১২ ২৩ ৪২

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ৭ এপ্রিল ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ৭ এপ্রিল ২০২১ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ২৪ এপ্রিল ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ২৪ এপ্রিল ২০২১ 
  3. "Aruba - List of International Matches"rsssf.com। Rec.Sport Soccer Statistics Foundation। সংগ্রহের তারিখ ১৭ নভেম্বর ২০১০ 
  4. "CFU Nations Cup to be held every 4 years"Kingston Gleaner in newspaperarchive.com। ২৩ ডিসেম্বর ১৯৮৬। 
    "At the Zurich meeting, Aruba, St Vincent and the Grenadines and St Lucia were accepted as members of CONCACAF which should lead to their membership in FIFA after two years."

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]